২০১০-১১ নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১০-১১ নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর
Flag of New Zealand.svg
নিউজিল্যান্ড
Flag of Bangladesh.svg
বাংলাদেশ
তারিখ ৫ অক্টোবর, ২০১০ – ১৭ অক্টোবর, ২০১০
অধিনায়ক ড্যানিয়েল ভেট্টোরি মাশরাফি মর্তুজা
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৫-ম্যাচের সিরিজ বাংলাদেশ ৪–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান রস টেলর (১১০) সাকিব আল হাসান (২১৩)
সর্বাধিক উইকেট কাইল মিলস (৮) সাকিব আল হাসান (১১)
সিরিজ সেরা সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ)
২০০৮-০৯ (পূর্ববর্তী) (পরবর্তী) ২০১৩-১৪

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল ৫-১৭ অক্টোবর, ২০১০ তারিখ পর্যন্ত বাংলাদেশ সফর করেছিল। পূর্বঘোষিত সময়সূচী অনুযায়ী দলটি ৫টি একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট (ওডিআই) সিরিজে অংশগ্রহণ করে। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল যে-কোন পূর্ণ শক্তিধর টেস্ট খেলুড়ে দলের বিরুদ্ধে সিরিজ জয়লাভে (ব্যতিক্রম ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জয়, যাতে খেলোয়াড়দের ধর্মঘট) সক্ষমতা প্রদর্শন করে।

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

৫ অক্টোবর, ২০১০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
২২৮ (৪৯.৩ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
২০০/৮ (৩৭ ওভার)
সাকিব আল হাসান ৫৮ (৫১)
কাইল মিলস ৩/৪৪ (৯.৩ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • বৃষ্টির জন্যে নিউজিল্যান্ডের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয় ৩৭ ওভারে ২১০ রান।

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

৮ অক্টোবর, ২০১০
স্কোরকার্ড
কোন বল মাঠে গড়ানো ব্যতিরেকেই খেলা পরিত্যক্ত
শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, মিরপুর
আম্পায়ার: এনামুল হক (বাংলাদেশ) ও শাবির তারাপোরে (ভারত)

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

১১ অক্টোবর, ২০১০
স্কোরকার্ড
নিউজিল্যান্ড 
১৭৩ (৪২.৫ ওভার)
 বাংলাদেশ
১৭৭/৩ (৪০ ওভার)
রস টেলর ৬২* (৭২)
সোহরাওয়ার্দী শুভ ৩/১৪ (১০ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৪র্থ ওডিআই[সম্পাদনা]

১৪ অক্টোবর, ২০১০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
২৪১ (৪৮.১ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
২৩২ (৪৯.৩ ওভার)
সাকিব আল হাসান ১০৬ (১১৩)
হামিশ বেনেট ৩/৪৪ (৮ ওভার)
কেন উইলিয়ামসন ১০৮ (১৩২)
সাকিব আল হাসান ৩/৫৪ (১০ ওভার)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • ওডিআই অভিষেক: হামিশ বেনেট (নিউজিল্যান্ড)

৫ম ওডিআই[সম্পাদনা]

১৭ অক্টোবর, ২০১০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ 
১৭৪ (৪৪.২ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
১৭১ (৪৯.৩ ওভার)
গ্রান্ট এলিয়ট ৫৯ (১০৫)
রুবেল হোসেন ৪/২৫ (৯.৩ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

ওডিআই
ব্যাটিং[১]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ইনিংস রান গড় সর্বোচ্চ ১০০ ৫০
সাকিব আল হাসান  বাংলাদেশ ২১৩ ৭১.০০ ১০৬
ইমরুল কায়েস  বাংলাদেশ ১৩৭ ৩৪.২৫ ৫০
শাহরিয়ার নাফীস  বাংলাদেশ ১১৯ ২৯.৭৫ ৭৩
রস টেলর  নিউজিল্যান্ড ১১০ ৩৬.৬৬ ৬২*
কেন উইলিয়ামসন  নিউজিল্যান্ড ১০৮ ৫৪.০০ ১০৮
বোলিং[২]
খেলোয়াড় দল ম্যাচ ওভার উইকেট গড় সেরা ৫ উই ১০ উই
সাকিব আল হাসান  বাংলাদেশ ৩৭ ১১ ১৫.৯০ ৪/৪১
কাইল মিলস  নিউজিল্যান্ড ২৯.৫ ১৯.৫০ ৩/৩৬
ড্যানিয়েল ভেট্টোরি  নিউজিল্যান্ড ৪০ ১৮.৮৫ ৩/৩২
রুবেল হোসেন  বাংলাদেশ ২৭.৩ ১৭.৬৬ ৪/২৫
সোহরাওয়ার্দী শুভ  বাংলাদেশ ২৮ ১৮.০০ ৩/১৪

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Records / New Zealand in Bangladesh ODI Series, 2010/11 / Most runs" (ইংরেজি ভাষায়)। ক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-১০ 
  2. "Records / New Zealand in Bangladesh ODI Series, 2010/11 / Most wickets" (ইংরেজি ভাষায়)। ক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-১০ 

টেমপ্লেট:বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট সিরিজ