শ্রাবণ মেঘের দিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
শ্রাবণ মেঘের দিন
শ্রাবণ মেঘের দিন.jpg
ভিসিডি প্রচ্ছদ
পরিচালকহুমায়ুন আহমেদ
প্রযোজকনূহাশ চলচ্চিত্র
রচয়িতাহুমায়ুন আহমেদ (উপন্যাস)
শ্রেষ্ঠাংশেজাহিদ হাসান
শাওন
মাহফুজ আহমেদ
আনোয়ারা
মুক্তি
গোলাম মোস্তফা
সালেহ আহমেদ
ডাঃ এজাজ
শামীমা নাজনীন
সুরকারমকসুদ জামিল মিন্টু
চিত্রগ্রাহকমাহফুজুর রহমান খান
সম্পাদকআতিকুর রহান মল্লিক
পরিবেশকনূহাশ চলচ্চিত্র
মুক্তি১৯৯৯
দেশ বাংলাদেশ
ভাষাবাংলা ভাষা

শ্রাবণ মেঘের দিন ১৯৯৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত একটি বাংলাদেশী চলচ্চিত্র[১]। ছবিটি পরিচালনা করেছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ। এবং তাঁরই লেখা শ্রাবণ মেঘের দিন উপন্যাস অবলম্বনে নূহাশ চলচ্চিত্রের ব্যানারে ছবিটি নির্মাণ করা হয়। এর আগে ১৯৯৪ সালে তিনি আগুনের পরশমণি এবং পরে ২০০০ সালে দুই দুয়ারী নির্মাণ করেন। ছবির গুরুত্বপূর্ণ কিছু চরিত্রে অভিনয় করেন জাহিদ হাসান, শাওন, মাহফুজ আহমেদ, আনোয়ারা, মুক্তি, গোলাম মোস্তফা,সালেহ আহমেদ ও ডাঃ এজাজ।

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

“মতি” (জাহিদ হাসান) একজন গাতক (গায়ক)। তাকে মনে মনে ভালবাসে ঐ গ্রামেরই একটি মেয়ে “কুসুম” (শাওন)। তার গানের গলাও খুব ভাল, সে সবসময় ভাবে মতি মিয়াকে নিয়ে একটা গানের দল করে দেশে দেশে ঘুরে বেড়াবে। কিন্তু ঢাকা থেকে আসা ঐ গ্রামের জমিদার (গোলাম মোস্তফা) নাতনি “শাহানা”কে (মুক্তি) ভালবাসে মতি, তবে জানেনা শাহানা তাকে একজন ভাল মানুষ হিসেবে মুল্যায়ন করে মাত্র। এদিকে কুসুমের বাবা উজান থেকে একটি ছেলে “সুরুজ”কে (মাহফুজ আহমেদ) নিয়ে আসে কুসুমের সথে বিয়ে দেয়ার জন্য। ঐ গ্রামের বাসিন্দা “পরান” (এজাজুল ইসলাম) এর স্ত্রী প্রসব বেদনায় ছটফট করছিল। জমিদারের নাতনি শাহানা একজন ডাক্তার, এই ভেবে মতি মিয়া তাকে ডেকে আনে। শাহানা এসে বুঝতে পারে উনার পেটের বাচ্চা উল্টে আছে। সে বইতে পড়েছে এর চিকিৎসার ব্যাপারে কিন্তু বাস্তবে কখনো করেনি, তবুও কোন উপায় না দেখে সাহস করে সেই সন্তান স্বাভাবিক ভাবে ডেলিভারি করাতে সক্ষম হয়। এবং যে জমিদারকে এলাকার সবাই ঘৃনার চোখে দেখত তারা সবাই এখন তাকে সম্মান করে। একদিকে কুসুমের বিয়ের আয়োজন চলছে অন্যদিকে জমিদারের নাতনিরা ঢাকায় ফিরে যাচ্ছে জমিদার সহ। জমিদার ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় পাকিস্তানি মিলিটারীদের বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করেছিল, তাই গ্রামের সবার কাছে ক্ষমা চেয়ে তার জমিদার বাড়ি একটি হাসপাতালের জন্য দান করে বিদায় নেয়, আর তাই গ্রামের প্রাই সবাই চলে আসে তাদের বিদায় জানাতে। কুসুম বাড়িতে একা মতিকে না পাওয়ার কষ্টে সে বিষ পান করে, কুসুমের মা টের পেয়ে সবাইকে ডাকে এবং তাকে নিয়ে মতি আর সুরুজ নৌকায় ছোটে ডাক্তার শাহানাকে ধরতে, কিন্তু মাঝপথেই সোয়া চান পাখি চিরনিদ্রায় শায়ীত হয়।

--আর মতি গাতক গেয়ে উঠে শুয়া চান পাখি আমি ডাকিতাছি তুমি ঘুমাইছো নাকি...

শ্রেষ্ঠাংশে[সম্পাদনা]

  • জাহিদ হাসান - মতি (গাতক)
  • শাওন - কুসুম
  • মাহফুজ আহমেদ - সুরুজ
  • আনোয়ারা -
  • মুক্তি - শাহানা
  • গোলাম মোস্তফা - (জমিদার)
  • সালেহ আহমেদ -
  • ডাঃ এজাজ - পরান
  • শামীমা নাজনীন -
  • নাজমুল হুদা বাচ্চু -
  • বিলকিস বারী -
  • রায়না - মিতু
  • নীরা - পুষ্প
  • দিহান

সংগীত[সম্পাদনা]

শ্রাবণ মেঘের দিন ছবির সংগীত পরিচালনা করেন মকসুদ জামিল মিন্টু

সাউন্ড ট্র্যাক[সম্পাদনা]

ট্র্যাক গান কণ্ঠশিল্পী নোট
পুবালী বাতাসে বারী সিদ্দিকী
কেহ গরিব অর্থের জন্যে বারী সিদ্দিকী আংশিক
আমার গায়ে যত দুঃখ সয় বারী সিদ্দিকী
ও..লো ভাবীজান নাউ বাওয়া বারী সিদ্দিকী
মানুষ ধরো মানুষ ভঁজো বারী সিদ্দিকী
একটা ছিল সোনার কন্যা মেঘ বরন কেশ সুবীর নন্দী
কাইল আমরার কুসুম রানীর বিবাহ হইবো আকলিমা বেগম
আমার ভাঙ্গা ঘরে... মেহের আফরোজ শাওন, সাবিনা ইয়াসমিন
শুয়া চান পাখি আমি ডাকিতাছি তুমি ঘুমাইছো নাকি বারী সিদ্দিকী

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]