শ্বেতকণিকা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(শ্বেত কণিকা থেকে পুনর্নির্দেশিত)
শ্বেতকণিকা
SEM blood cells.jpg
শ্বেতকণিকার চিত্র
বিস্তারিত
শনাক্তকারী
লাতিনleucocytus
মে-এসএইচD007962
টিএইচH2.00.04.1.02001
এফএমএFMA:62852
শারীরস্থান পরিভাষা

শ্বেতকণিকা (ইংরেজি: White blood cell or Leucocytes) মানবদেহে রক্তের একটি উপাদান। রক্তে বর্ণহীন, নিউক্লিয়াসযুক্ত এবং তুলনামূলকভাবে স্বল্পসংখ্যক ও বৃহদাকার যে কোষ দেখা যায় এবং যারা দেহকে সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে তাকে শ্বেতকণিকা বলে। প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের দেহে শ্বেত রক্তকণিকার সংখ্যা প্রতি ঘন মিলিলিটারে ৪০০০-১১০০০(গড়ে ৭৫০০)। লোহিতকণিকার তুলনায় শ্বেতকণিকার সংখ্যা অনেক কম। লোহিতকণিকা ও শ্বেতকণিকার অনুপাত প্রায় ৭০০:১। রক্তে শ্বেতকণিকার সংখ্যা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি থাকলে তাকে লিউকোসাইটোসিস বলে এবং কম থাকলে তাকে লিউকোপেনিয়া বলে। লিউকেমিয়া ক্যান্সারের ক্ষেত্রে শ্বেত রক্তকণিকার সংখ্যা অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যায়[১] শ্বেত রক্ত কণিকার আয়ু ১-১৫ দিন, এরপর সাধারণত কোষগুলো ধ্বংস প্রাপ্ত হয়।

প্রকারভেদ[সম্পাদনা]

বিভিন্ন ধরণের শ্বেত রক্তকণিকা

গঠনগত ভাবে এবং সাইটোপ্লাজমের দানার উপস্থিতি বা অনুপস্থিতি অনুসারে শ্বেতকণিকাকে দুই ভাগে ভাগ করা যায় যথা:

শ্বেতকণিকায় এর পরিমাণ ২৮%।দেহের লিম্ফনোড, টনসিল , প্লিহা, ইত্যাদি অংশে এরা তৈরি হয়। আকারের ভিত্তিতে এরা আবার দুই প্রকার যথা:

    • লিম্ফোসাইট (Lymphocytes)
  এগুলো বড় নিউক্লিয়াসযুক্ত ছোট কণিকা।
  লিম্ফোসাইট অ্যান্টিবডি গঠন করে এবং এই
  অ্যান্টিবডির দ্বারা দেহে প্রবেশ করা
  রোগজীবাণু ধ্বংস করে। 
    • মনোসাইট(Monocytes)
  এটি ফ্যাগসাইটোসিস প্রক্রিয়া রোগজীবাণু
  ধ্বংস করে। 

শ্বেতকণিকার পরিমাণ ৭২% । নিউক্লিয়াসের আকারের ভিত্তিতে এরা আবার তিন প্রকার। যথা :

    • নিউট্রোফিল (Neutrophil)
  ফ্যাগোসাইটোসিস প্রক্রিয়া রোগজীবাণু     
  ধ্বংস করে 
    • ইওসিনোফিল(Eosinophil)
  ইওসিনোফিল ও বেসোফিল হিস্টামিন 
  নামক রাসায়নিক পদার্থ নিঃসৃত করে
  এলার্জি প্রতিরোধ করে।
    • বেসোফিল (Basophil)
  বেসোফিল হেপারিন নিঃসৃত করে 
  রক্তকে রক্তবাহিকার ভিতর জমাট 
  বাধতে বাধা দেয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. [উচ্চমাধ্যমিক জীববিজ্ঞান বই (গাজী আজমল ও গাজী আসমত) গাজী পাবলিশার্স, বাংলাবাজার, ঢাকা।]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]