মনিন্দর সিং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মনিন্দর সিং
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (1965-06-13) ১৩ জুন ১৯৬৫ (বয়স ৫৪)
পুনে, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ৩৫ ৫৯
রানের সংখ্যা ৯৯ ৪৯
ব্যাটিং গড় ৩.৮০ ১২.২৫
১০০/৫০ -/- -/-
সর্বোচ্চ রান ১৫ ৮*
বল করেছে ৮২১৮ ৩১৩৩
উইকেট ৮৮ ৬৬
বোলিং গড় ৩৭.৩৬ ৩১.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ৭/২৭ ৪/২২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৯/- ১৮/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৭ জুলাই ২০১৮

মনিন্দর সিং (গুজরাটি: મનિન્દર સિંઘ; এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; জন্ম: ১৩ জুন, ১৯৬৫) পুনেতে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ভারতীয় ক্রিকেটে দিল্লির প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স বোলারের দায়িত্ব পালন করতেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে ডানহাতে ব্যাটিং করতেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

ডিসেম্বর, ১৯৮২ সালে করাচীতে পাকিস্তানের বিপক্ষে অভিষেক ঘটে মনিন্দর সিংয়ের। খেলোয়াড়ী জীবনের শীর্ষে আরোহণকালে একচ্ছত্র প্রাধান্য বিস্তার করেছিলেন। প্রায়শঃই ওভারের ছয় বলের প্রত্যেকটিতে বৈচিত্র্যতা আনতেন।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ৮৮টি টেস্ট উইকেট পেয়েছেন। তন্মধ্যে, ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান গড়েন ৭/২৭। মাদ্রাজের এম. এ. চিদাম্বরম স্টেডিয়ামের খেলোয়াড়ী জীবনে স্মরণীয় ঘটনা ঘটান। ১৯৮৬-৮৭ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আউট হয়ে টেস্ট খেলাটিকে টাইয়ে পরিণত করেন।

একদিনের আন্তর্জাতিকে ৬৬ উইকেট লাভ করেন। সেরা বোলিং পরিসংখ্যান করেছেন ৪/২২।

মূল্যায়ন[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ভারতের পক্ষে ৩৫ টেস্ট ও ৫৯টি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন মনিন্দর সিং। পূর্ণাঙ্গ খেলোয়াড়ী জীবন সম্পন্নকারী হিসেবে সর্বাধিক টেস্ট খেলায় অংশ নিয়েও ১০০ রান সংগ্রহ করতে না পারার অগৌরবজনক অধ্যায়ের অধিকারী তিনি।[১]

স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স স্পিন বোলার মনিন্দর সিংকে ভারতের শীর্ষস্থানীয় স্পিনার ও রেকর্ডসংখ্যক উইকেটলাভকারী বিষেন সিং বেদী’র সম্ভাব্য উত্তরাধিকারীরূপে গণ্য করা হয়ে থাকে।

বিতর্ক[সম্পাদনা]

২২ মে, ২০০৭ তারিখে কোকেইন রাখার অভিযোগে পুলিশী জেরার মুখোমুখি হন। এরপর তিনি স্বীকার করেন যে, নিজের জন্যেই তিনি তা করেছেন। নিজ বাসস্থান পূর্ব দিল্লিতে ১.৫ গ্রাম কোকেইন পাওয়া যায়। পরবর্তীতে পুলিশ জানায় যে, এক নাইজেরীয় নাগরিক তাঁর কাছে বিক্রয় করেছিল।[২]

৮ জুন, ২০০৭ তারিখে কব্জিতে আঘাতপ্রাপ্ত হলে তাঁকে দিল্লির শান্তি মুকুন্দ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁর স্ত্রী লিখিত বক্তব্যে প্রকৃতই দূর্ঘটনা ছিল বললেও স্থানীয় টেলিভিশন সম্প্রচারকারী সংস্থাগুলো জানায় যে, হয়তোবা আত্মহত্যার চেষ্টা কিংবা ঘরোয়া দূর্ঘটনা ছিল।[৩]

ক্রিকেট খেলা থেকে অবসর নেয়ার পর ধারাভাষ্যকার হিসেবে কাজ করছেন তিনি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Walmsley, Keith (২০০৩)। Mosts Without in Test Cricket। Reading, England: Keith Walmsley Publishing Pty Ltd। পৃষ্ঠা 457। আইএসবিএন 0947540067 
  2. "Drug possession"www.cricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৫-২২ 
  3. "Maninder Singh hospitalised"www.cricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৬-০৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]