ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত হাট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তারাপুর - কমলাসাগর সীমান্ত হাট, কসবা-আগরতলা সীমান্ত

ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত হাট বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে একটি সীমান্ত বাণিজ্য বাজার। এটি একটি বাজারের জায়গা যা সপ্তাহে এক দিন চালু থাকে। এটি কেবল শুধুমাত্র দৈনন্দিন পণ্য কেনার জন্য নয় বরং উভয় পক্ষের পরিবারের জন্য পুনর্মিলনের একটি স্থান।[১][২][৩][৪][৫][৬] বর্তমানে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে চারটি সীমানা হাট আছে। মেঘালয়ের কালীচরণ ও বালাটে দুই সীমানা হাট অবস্থিত এবং ত্রিপুরার দুটি শ্রীনগর ও কমলাসাগরে অবস্থিত।

সীমান্ত হাটগুলিতে বাণিজ্য ভারতীয় রুপি / বাংলাদেশ টাকায় এবং বস্তু বিনিময়-এর ভিত্তিতে পরিচালিত হয় এবং এই ধরনের তথ্য সংশ্লিষ্ট সীমান্ত হাটের হাট ব্যবস্থাপনা কমিটি দ্বারা পরিচালিত হয়। সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকার কর্তৃক গৃহীত তথ্য অনুযায়ী, ২০১৫-১৬ পর্যন্ত পাঁচ বছরের মধ্যে চার সীমান্ত হাটগুলিতে ১৬৮৬.৬২ লাখ টাকার সমতুল্য নগদ বাণিজ্য হয়েছে।

ভুটান ও মায়ানমার সীমান্তে কোন সীমান্ত হাট নেই।

ভারত সরকার এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ৬টি সীমান্তের হাট অনুমোদন করেছে: পাল্বস্তি ও কামালপুরে ত্রিপুরাতে দুটি এবং ভোলগঞ্জ, নলিকাটা, শিবাবাড়ী ও রায়ঙ্গ্কুতে মেঘালয়য় চারটি।[কখন?]

ভারত সরকার তাদের সীমানার সীমান্তে সীমান্ত হাট স্থাপনের জন্য মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) বাস্তবায়ন করেছে।

স্থানীয় বাজারের মাধ্যমে স্থানীয় উৎপাদনের বিপণন প্রচলন পদ্ধতি প্রতিষ্ঠা করে দুই দেশের সীমান্তবর্তী দূরবর্তী অঞ্চলে বসবাসরত লোকেদের সুবিধা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সীমান্ত হাট  চলে আসছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Third border haat opens today"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৫-০১-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-০৭ 
  2. "Hasina, Modi to open border haat in Kasba"www.banglanews24.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-০৭ 
  3. "ফেনীতে তৃতীয় বর্ডার হাট চালু হচ্ছে আজ"BBC বাংলা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-০৭ 
  4. "ছাগলনাইয়ায় আজ উদ্বোধন হচ্ছে তৃতীয় সীমান্ত হাট"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-০৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. বসু, অমিত। "চোরাচালান রুখতে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে আরও বর্ডার-হাট"anandabazar.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-০৭ 
  6. "সীমান্ত হাট: দুই দেশের মানুষের হৃদয়েরও সেতু"Dhakatimes News। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-০৭