বুরহান উদ্দীন আল-মারগানী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বুরহান উদ্দীন আল-মারগিনানী
বুরহান উদ্দীন আল-মারগিনানী.png
জন্মআলী ইবনে আবু বকর ইবনে আব্দুল জলিল
৮ রজব ৫১১হিজরী/১১১৭খ্রীষ্টাব্দ
মারগিনান,ফারগান (বর্তমান উজবেকিস্তান)
মৃত্যু১৪ জিলহজ্জ ৫৯৩হিজরী/১১৯৬খ্রিস্টাব্দ
সমরকন্দ (বর্তমান উজবেকিস্তান)
সমাধি স্থানসমরকন্দ
জাতীয়তামারগিনানী
যুগহিজরী ষষ্ঠ শতাব্দী
পেশাফকীহ, লেখক, গবেষক
মাজহাবহানাফী
শাখামাতুরিদী, আশায়েরী
মূল আগ্রহফিকহ
লক্ষণীয় কাজহানাফি ফিকহশাস্ত্রের উন্নয়ন

বুরহান উদ্দীন আবুল হাসান আলী ইবনে আবু বকর ইবনে আব্দুল জলিল আল-ফারগানী আল-মারগিনানী আইনশাস্ত্রের হানাফী মাজহাবের একজন ইসলামী পন্ডিত ছিলেন। [১] [২] তিনি আল-হিদায়ার লেখক হিসাবে সর্বাধিক পরিচিত, যা হানাফী আইনশাস্ত্রের অন্যতম প্রভাবশালী উপাদান (ফিকহ) হিসাবে বিবেচিত হয়।

নাম ও বংশধারা[সম্পাদনা]

নাম: আলী। উপনাম: আবুল হাসান। উপাধি: বুরহান উদ্দীন। বংশধারা: বুরহান উদ্দীন আবুল হাসান আলী ইবনে আবু বকর ইবনে আব্দুল জলিল আল-ফারগানী আল-মারগিনানী। ফারগানের একটি জায়গার নাম মারগিনান সেই দিকে লক্ষ্য করে তাকে মারগিনানী বলা হয়।

জন্ম[সম্পাদনা]

তিনি ফারগানের কাছাকাছি মারগিনানে(বর্তমান উজবেকিস্তান) ৮ রজব ৫১১হিজরী/১১১৭খ্রীষ্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন।

জীবন[সম্পাদনা]

বুরহান উদ্দীন ৫৪৪ হিজরিতে মদীনা সফর করেন এবং হজ্ব পালন করেছিলেন[৩]

কর্ম[সম্পাদনা]

তিনি বহুগ্রন্থপ্রণেতা ছিলেন। তার উল্লেখযোগ্য রচনাবলী: [৪]

  • নশরুল মাযহাব
  • মানাসিকুল হজ্জ
  • কিতাব ফিল ফারায়েজ
  • কিতাবুত তাজনিস ওয়াল-মাজিদ (ফতোয়া সংগ্রহ)
  • মাজমুউন নাওয়াযিল
  • মাজিদ ফি ফুরইল হানাফিয়্যাহ
  • মুহাম্মদ ইবনে হাসান আশ-শায়বানীর আল জামিউস কাবীরএর উপর একটি মন্তব্য।
  • বিদায়াতুল মুবতাদী (মুখতাসারুল কুদুরী ও মুহাম্মদ ইবনে হাসান আশ-শায়বানীর আল জামিউস সাগিরএর উপর ভিত্তি করে রচিত গ্রন্থ)
  • কিফায়াতুল মুনতাহী (তাঁর নিজস্ব গ্রন্থ বিদায়াতুল মুবতাদীএর উপর অসম্পূর্ণ ৮-খণ্ডের ভাষ্য)
  • আল-হিদায়া ("ব্যাখ্যাগ্রন্থ"), হানাফি আইন সম্পর্কিত একটি গ্রন্থ। [৫]

শিক্ষা অর্জন[সম্পাদনা]

তিনি তার সময়ের বড় বড় আলেম, জ্ঞানী ও পণ্ডিতদের থেকে ধর্মীয় জ্ঞানসহ নানান বিদ্যা অর্জন করেন। তার উল্লেখযোগ্য শিক্ষকদের মধ্যে-

  • নাজমুদ্দীন আবু হাফস ওমর আন-নাসাফি। আল-আকায়েদ আন-নাসাফিয়্যাহ গ্রন্থের (আকীদা বিষয়কগ্রন্থ) রচয়িতা।
  • সদর শাহিদ হুসামুদ্দীন উমর ইবনে আব্দুল আজিজ। ইমাদ খাসসাফের সর্বাধিক জনপ্রিয় গ্রন্থ ‘আদবুল কাযী’ যেটিতে ইসলামিক আইনী ও বিচার ব্যবস্থা রয়েছে তার ভাষ্যকার।
  • জিয়া উদ্দীন মুহাম্মদ ইবনে হুসাইন।
  • আহমদ ইবনে আব্দুর রশিদ আল-বুখারী; খুলাসাতুল ফতোয়া গ্রন্থ রচয়িতার বাবা।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

তিনি ১৪ জিলহজ্জ ৫৯৩হিজরী/১১৯৬খ্রিস্টাব্দে বর্তমান সমরকন্দে (বর্তমান উজবেকিস্তান) মৃত্যুবরণ করেন সেখানেই তাকে দাফন করা হয়।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Dr Imran Ahsan Khan Nyazee (trans.) Al-Hidayah: A classical manual of Hanafi Law Laws (Bristol) 2006
  2. The Hedaya: Commentary on the Islamic Laws (Delhi) 1994 (2nd Edition 1870)
  3. https://en.wikipedia.org/wiki/Burhan_al-Din_al-Marghinani
  4. W. Heffening. Encyclopedia of Islam, Brill, 2nd ed. "al-Marghinani", vol. 6, p. 558.
  5. Skreslet, Paula Youngman; Skreslet, Rebecca (২০০৬)। "Four - Law and legal theory: shari'a and fiqh"। The Literature of Islam: A Guide to the Primary Sources in English Translation। Rowman & Littlefield। পৃষ্ঠা 82। আইএসবিএন 978-0-8108-5408-6