ফিলিপ ডিফ্রিটাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফিলিপ ডিফ্রিটাস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামফিলিপ অ্যান্থনি জেসন ডিফ্রিটাস
জন্ম (1966-02-18) ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৬ (বয়স ৫৫)
স্কটস হেড, ডোমিনিকা
ডাকনামড্যাফি
উচ্চতা৬ ফুট ০ ইঞ্চি (১.৮৩ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৫২২)
১৪ নভেম্বর ১৯৮৬ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট১১ জুন ১৯৯৫ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৯১)
১ জানুয়ারি ১৯৮৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ ওডিআই২৪ মে ১৯৯৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮৫-১৯৮৮লিচেস্টারশায়ার
১৯৮৮-১৯৯৩ল্যাঙ্কাশায়ার
১৯৯৩-১৯৯৬বোল্যান্ড
১৯৯৪-১৯৯৯ডার্বিশায়ার
২০০০-২০০৫লিচেস্টারশায়ার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪৪ ১০৩ ৩৭২ ৪৭৯
রানের সংখ্যা ৯৩৪ ৬৯০ ১০,৯৯১ ৫,১৮১
ব্যাটিং গড় ১৪.৮২ ১৬.০৪ ২২.৭৫ ১৮.৫৬
১০০/৫০ –/৪ –/১ ১০/৫৪ –/১৩
সর্বোচ্চ রান ৮৮ ৬৭ ১২৩* ৯০
বল করেছে ৯,৮৩৮ ৫,৭১২ ৭২,০৭৩ ২৩,০০৭
উইকেট ১৪০ ১১৫ ১,২৪৮ ৫৩৯
বোলিং গড় ৩৩.৫৭ ৩২.৮২ ২৭.৮৯ ২৭.৯২
ইনিংসে ৫ উইকেট ৬১
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৭/৭০ ৪/৩৫ ৭/২১ ৫/১৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৪/– ২৬/– ১২৭/– ১০১/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬

ফিলিপ অ্যান্থনি জেসন ড্যাফি ডিফ্রিটাস (ইংরেজি: Phillip Anthony Jason DeFreitas; জন্ম: ১৮ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬৬) ডোমিনিকার স্কটস হেড এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ও বিখ্যাত ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা।[১] ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে লিচেস্টারশায়ার, ল্যাঙ্কাশায়ারডার্বিশায়ারের প্রতিনিধিত্ব করেছেন ফিলিপ ডিফ্রিটাস। ক্রিকেট লেখক কলিন বেটম্যানের মতে, ডিফ্রিটাস তার মানসিক স্থিরতার তুঙ্গে পৌঁছলে বিধ্বংসী হিটার, আক্রমণাত্মক পেস বোলিং ও দর্শনীয় ফিল্ডারের ভূমিকায় আবির্ভূত হতেন।[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

লন্ডনের উইলেসডেন হাই স্কুলে অধ্যয়ন করেন। সেখানেই ফুটবল ও ক্রিকেটে অংশ নিতেন। লুটন টাউন ফুটবল ক্লাবের অনুশীলনীতে তাকে দেখা গেলেও পরবর্তীকালে মন পাল্টে ক্রিকেটের দিকে মনোনিবেশ ঘটান।[২]

১৯৮৫ সালে লিচেস্টারশায়ারের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় তার বোলিং বিশ্লেষণ ছিল ৩.৪-২-৩-৩। এরফলে ছাত্রদের নিয়ে গড়া দলটি মাত্র ২৪ রানে অল-আউট হয়েছিল। পরের বছর চমৎকার মৌসুম কাটান। খেলোয়াড়ী জীবনের সর্বোচ্চ ৯৪ উইকেট দখলসহ নয় নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে কেন্টের বিপক্ষে অভিষেক সেঞ্চুরি করেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

কাউন্টি ক্রিকেটে চমকপ্রদ সাফল্যের প্রেক্ষিতে ১৯৮৬-৮৭ মৌসুমের অ্যাশেজ সিরিজের জন্য অন্তর্ভুক্ত হন।[১] ১৯৯০-এর দশকের মধ্যভাগে ডমিনিক কর্কের আবির্ভাবের পূর্ব-পর্যন্ত নিয়মিতভাবে ইংল্যান্ড দলে খেলেন। কিন্তু বিদেশে সফলতার তুলনায় দেশেই অধিক সফলকাম হন। ১৯৯১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ১৯৯৪ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সফল দুই টেস্ট সিরিজে ভূমিকা রেখেছেন। টেস্টে নিজস্ব সর্বোচ্চ ৮৮ রান করেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। তন্মধ্যে, ক্রেগ ম্যাকডারমটের নতুন বলের প্রথম তিন ওভারে ৪২ রান তুলেছিলেন। তার এ ভূমিকায় অ্যাডিলেডে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ড দলকে সহায়তা করেন। ঐ টেস্টে তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পান।

১৯৯২ সালে উইজডেন কর্তৃক বর্ষসেরা ক্রিকেটার মনোনীত হন তিনি।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bateman, Colin (১৯৯৩)। If The Cap Fits। Tony Williams Publications। পৃষ্ঠা 46–47। আইএসবিএন 1-869833-21-X। সংগ্রহের তারিখ ২০ এপ্রিল ২০১১ 
  2. Davies, Gareth (১৯ জানুয়ারি ২০০৯)। "Phil DeFreitas chose Leicestershire ahead of Luton Town"The Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০০৯ 
  3. "Wisden Cricketers of the Year"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০২-২১ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]