ফিলিপ ডিফ্রিটাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ফিলিপ ডিফ্রিটাস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামফিলিপ অ্যান্থনি জেসন ডিফ্রিটাস
জন্ম (1966-02-18) ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৬ (বয়স ৫৩)
স্কটস হেড, ডোমিনিকা
ডাকনামড্যাফি
উচ্চতা৬ ফুট ০ ইঞ্চি (১.৮৩ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৫২২)
১৪ নভেম্বর ১৯৮৬ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট১১ জুন ১৯৯৫ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৯১)
১ জানুয়ারি ১৯৮৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ ওডিআই২৪ মে ১৯৯৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮৫-১৯৮৮লিচেস্টারশায়ার
১৯৮৮-১৯৯৩ল্যাঙ্কাশায়ার
১৯৯৩-১৯৯৬বোল্যান্ড
১৯৯৪-১৯৯৯ডার্বিশায়ার
২০০০-২০০৫লিচেস্টারশায়ার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪৪ ১০৩ ৩৭২ ৪৭৯
রানের সংখ্যা ৯৩৪ ৬৯০ ১০,৯৯১ ৫,১৮১
ব্যাটিং গড় ১৪.৮২ ১৬.০৪ ২২.৭৫ ১৮.৫৬
১০০/৫০ –/৪ –/১ ১০/৫৪ –/১৩
সর্বোচ্চ রান ৮৮ ৬৭ ১২৩* ৯০
বল করেছে ৯,৮৩৮ ৫,৭১২ ৭২,০৭৩ ২৩,০০৭
উইকেট ১৪০ ১১৫ ১,২৪৮ ৫৩৯
বোলিং গড় ৩৩.৫৭ ৩২.৮২ ২৭.৮৯ ২৭.৯২
ইনিংসে ৫ উইকেট ৬১
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৭/৭০ ৪/৩৫ ৭/২১ ৫/১৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৪/– ২৬/– ১২৭/– ১০১/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬

ফিলিপ অ্যান্থনি জেসন ড্যাফি ডিফ্রিটাস (ইংরেজি: Phillip Anthony Jason DeFreitas; জন্ম: ১৮ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬৬) ডোমিনিকার স্কটস হেড এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ও বিখ্যাত ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা।[১] ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে লিচেস্টারশায়ার, ল্যাঙ্কাশায়ারডার্বিশায়ারের প্রতিনিধিত্ব করেছেন ফিলিপ ডিফ্রিটাস। ক্রিকেট লেখক কলিন বেটম্যানের মতে, ডিফ্রিটাস তার মানসিক স্থিরতার তুঙ্গে পৌঁছলে বিধ্বংসী হিটার, আক্রমণাত্মক পেস বোলিং ও দর্শনীয় ফিল্ডারের ভূমিকায় আবির্ভূত হতেন।[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

লন্ডনের উইলেসডেন হাই স্কুলে অধ্যয়ন করেন। সেখানেই ফুটবল ও ক্রিকেটে অংশ নিতেন। লুটন টাউন ফুটবল ক্লাবের অনুশীলনীতে তাকে দেখা গেলেও পরবর্তীকালে মন পাল্টে ক্রিকেটের দিকে মনোনিবেশ ঘটান।[২]

১৯৮৫ সালে লিচেস্টারশায়ারের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় তার বোলিং বিশ্লেষণ ছিল ৩.৪-২-৩-৩। এরফলে ছাত্রদের নিয়ে গড়া দলটি মাত্র ২৪ রানে অল-আউট হয়েছিল। পরের বছর চমৎকার মৌসুম কাটান। খেলোয়াড়ী জীবনের সর্বোচ্চ ৯৪ উইকেট দখলসহ নয় নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে কেন্টের বিপক্ষে অভিষেক সেঞ্চুরি করেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

কাউন্টি ক্রিকেটে চমকপ্রদ সাফল্যের প্রেক্ষিতে ১৯৮৬-৮৭ মৌসুমের অ্যাশেজ সিরিজের জন্য অন্তর্ভুক্ত হন।[১] ১৯৯০-এর দশকের মধ্যভাগে ডমিনিক কর্কের আবির্ভাবের পূর্ব-পর্যন্ত নিয়মিতভাবে ইংল্যান্ড দলে খেলেন। কিন্তু বিদেশে সফলতার তুলনায় দেশেই অধিক সফলকাম হন। ১৯৯১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ১৯৯৪ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সফল দুই টেস্ট সিরিজে ভূমিকা রেখেছেন। টেস্টে নিজস্ব সর্বোচ্চ ৮৮ রান করেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। তন্মধ্যে, ক্রেগ ম্যাকডারমটের নতুন বলের প্রথম তিন ওভারে ৪২ রান তুলেছিলেন। তার এ ভূমিকায় অ্যাডিলেডে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ড দলকে সহায়তা করেন। ঐ টেস্টে তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পান।

১৯৯২ সালে উইজডেন কর্তৃক বর্ষসেরা ক্রিকেটার মনোনীত হন তিনি।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bateman, Colin (১৯৯৩)। If The Cap Fits। Tony Williams Publications। পৃষ্ঠা 46–47। আইএসবিএন 1-869833-21-X 
  2. Davies, Gareth (১৯ জানুয়ারি ২০০৯)। "Phil DeFreitas chose Leicestershire ahead of Luton Town"The Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০০৯ 
  3. "Wisden Cricketers of the Year"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০২-২১ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]