পল নার্স

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
স্যার পল নার্স
Paul Nurse portrait.jpg
পল নার্স
জন্ম
পল ম্যাক্সিম নার্স

(1949-01-25) ২৫ জানুয়ারি ১৯৪৯ (বয়স ৭৪)
নরউইচ, নরফোক, ইংল্যান্ড
জাতীয়তাইংরেজ
নাগরিকত্বব্রিটিশ
মাতৃশিক্ষায়তনবার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়
ইউনিভার্সিটি অব ইস্ট অ্যাংলিয়া
পরিচিতির কারণকোষচক্র নিরীক্ষণ
পুরস্কারচিকিৎসাবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার ২০০১
কপলি মেডেল ২০০৫
বৈজ্ঞানিক কর্মজীবন
কর্মক্ষেত্রজিনতত্ত্ব/cell biology
সন্দর্ভসমূহThe spatial and temporal organisation of amino acid pools in Candida utilis (1974)
ডক্টরাল শিক্ষার্থীDaniel Leslie Fisher[১]
Karim Labib[২]
Stuart Andrew MacNeill[৩]
Alison Woollard[৪]

স্যার পল ম্যাক্সিম নার্স একজন ইংরেজ জিনতত্ত্ববিদ। তিনি ২০০১ সালে চিকিৎসাবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। তিনি ২০১০-২০১৫ সাল পর্যস্ত রয়েল সোসাইটির প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

জীবনী[সম্পাদনা]

পল নার্সের জন্ম নরউইচ শহরে। তার মা অল্প বয়সে অবিবাহিত অবস্থায় গর্ভধারণ করেন বলে নার্সের জন্মের পরে তাকে তার মাতামহ ও মাতামহী সন্তান হিসাবে লালনপালন করেন। নার্স নিজেও জানতেন না যে তিনি যাদের পিতামাতা বলে জানতেন তারা আসলে তার মাতামহ ও মাতামহী এবং তিনি যাকে বোন বলে জানতেন, তিনিই তার প্রকৃত মা।

নার্স ১৯৭০ সালে বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৭০ সালে উপস্নাতক ডিগ্রি এবং ১৯৭৩ সালে ইউনিভার্সিটি অব ইস্ট অ্যাংলিয়া থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি ২০০৩ সালে নিউ ইয়র্কের রকফেলার বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

আমেরিকায় অবস্থানকালে নার্স আমেরিকার স্থায়ী বাসিন্দা হবার জন্য গ্রিন কার্ডের আবেদন করেন। কিন্তু সেই আবেদনটি প্রত্যাখ্যাত হয় কারণ নার্স আবেদনের সাথে সংক্ষিপ্ত জন্মসনদ জমা দিয়েছিলেন যাতে তার পিতামাতার নাম লেখা ছিলো না। মূল জন্মসনদ জোগাড় করতে গিয়ে নার্স তার প্রকৃত পিতামাতার পরিচয় জানতে পারেন এবং তাকে লালনপালন করা যাদের তিনি পিতামাতা মনে করতেন, তারা যে তার মাতামহ ও মাতামহী, সেকথা জানতে পারেন।

সম্মাননা ও পুরস্কার[সম্পাদনা]

  • ফেলো অব দ্য রয়েল সোসাইটি, ১৯৮৯
  • রয়েল মেডেল, ১৯৯৫
  • নাইট উপাধি, ১৯৯৯
  • নোবেল পুরস্কার, ২০০১।

সম্মানসূচক ডিগ্রি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Fisher, Daniel Leslie (1995). 'Molecular characterization of the fission yeast cyclin B homologue', cdc13 (DPhil thesis). University of Oxford.
  2. Labib, Karim (1993). 'Regulation of S-phase and mitosis in fission yeast' (DPhil thesis). University of Oxford.
  3. MacNeill, Stuart Andrew (1990). 'Structural and functional analysis of the fission yeast' p34cdc2 protein kinase (DPhil thesis). University of Oxford.
  4. Woollard, Alison (1995). 'Cell cycle control in fission yeast' (DPhil thesis). University of Oxford.
  5. "I gradually slipped away from religion over several years and became an atheist or to be more philosophically correct, a sceptical agnostic." Nurse's autobiography at Nobelprize.org