বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়

স্থানাঙ্ক: ৫২°২৭′২″ উত্তর ১°৫৫′৫০″ পশ্চিম / ৫২.৪৫০৫৬° উত্তর ১.৯৩০৫৬° পশ্চিম / 52.45056; -1.93056
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়
Shield of the University of Birmingham.svg
নীতিবাক্যলাতিন: Per Ardua ad Alta
বাংলায় নীতিবাক্য
উচ্চতা প্রচেষ্টার মাধ্যমে[১]
ধরনসরকারি
স্থাপিত১৮২৫ – বার্মিংহাম স্কুল অব মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি
১৮৩৬ – বার্মিংহাম রয়েল স্কুল অব মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি
১৮৪৩ – কুইন্স কলেজ
১৮৭৫ – মেসন সায়েন্স কলেজ[২][৩]
১৮৯৮ – মেসন ইউনিভার্সিটি কলেজ
১৯০০ – রাজকীয় সনদ দ্বারা বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা লাভ করে
বৃত্তিদান£১১৬.৭ মিলিয়ন (২০২০)[৪]
বাজেট£৭৩৭.৩ মিলিয়ন (২০১৯–২০)[৪]
আচার্যলর্ড বিলিমোরিয়া[৫]
উপাচার্যস্যার ডেভিড ইস্টউড
পরিদর্শকজ্যাকব রিস-মগ
(পদাধিকার বলে কাউন্সিলের লর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবে)
শিক্ষায়তনিক ব্যক্তিবর্গ
৫,৪৯৫ (২০২০) - একাডেমিক অ্যাটপিক্যাল স্টাফ সহ [৬]
শিক্ষার্থী35,445 (২০১৮/১৯)[৭]
স্নাতক22,940 (২০১৮/১৯)[৭]
স্নাতকোত্তর12,505 (২০১৮/১৯)[৭]
অবস্থান, ,
যুক্তরাজ্য

৫২°২৭′২″ উত্তর ১°৫৫′৫০″ পশ্চিম / ৫২.৪৫০৫৬° উত্তর ১.৯৩০৫৬° পশ্চিম / 52.45056; -1.93056
শিক্ষাঙ্গনশহুরে, শহরতলি
রঙসমূহবিশ্ববিদ্যালয়
                                    
অধিভুক্তিইউনিভার্সিটিস ২১
ইউকে বিশ্ববিদ্যালয়
ইইউএ
এসিইউ
সাটেন ১৩
রাসেল গ্রুপ
ওয়েবসাইটbirmingham.ac.uk
চিত্র:Birmingham logo.svg

বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয় (অনানুষ্ঠানিকভাবে বার্মিংহাম ইউনিভার্সিটি)[৮][৯] যুক্তরাজ্যের বার্মিংহামের এজবাস্টনে অবস্থিত একটি সরকারি গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয়। এটি ১৯০০ সালে বার্মিংহামের কুইন্স কলেজ (১৮২৫ সালে বার্মিংহাম স্কুল অব মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি হিসাবে প্রতিষ্ঠিত) ও মেসন সায়েন্স কলেজের (স্যার জোসিয়াহ ম্যাসন কর্তৃক ১৮৭৫ সালে প্রতিষ্ঠিত) উত্তরাধিকারী হিসাবে এটির রাজকীয় সনদ লাভ করে, এটি প্রথম ইংরেজি নাগরিক বা 'রেড ব্রিস্ক' বিশ্ববিদ্যালয় হিসাবে নিজস্ব রাজকীয় সনদ গ্রহণ করবে।[২][১০] এটি ব্রিটিশ গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাসেল গ্রুপ এবং গবেষণা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক ইউনিভার্সিটিস ২১ উভয়েরই প্রতিষ্ঠাতা সদস্য।

মোট শিক্ষার্থীদের মধ্যে ২৩,১৫৫ জন স্নাতক ও ১২,৬০৫ জন স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী রয়েছে, যা বিশ্ববিদ্যালয়টিকে যুক্তরাজ্যের ৭ম বৃহত্তম (১৬৯ টির মধ্যে) বিশ্ববিদ্যালয় পরিণত করে। গবেষণা অনুদান ও চুক্তি থেকে ১৪০.৪ মিলিয়ন ইউরো সহ প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক আয় ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের জন্য ৭৩৭.৩ মিলিয়ন ইউরো ছিল, যার মধ্যে ৬৬৭.৪ মিলিয়ন ইউরো ব্যয় হয়।[৪]

বিশ্ববিদ্যালয়টি বার্বার ইনস্টিটিউট অব ফাইন আর্টস, ভ্যান গখ, পিকাসোমোনের আবাসন কাজ; শেক্সপিয়ার ইনস্টিটিউট; ক্যাডবেরি রিসার্চ লাইব্রেরি, মধ্য প্রাচ্যের পাণ্ডুলিপির মিংনা সংগ্রহের কেন্দ্র; ল্যাপওয়ার্থ মিউজিয়াম অব জিওলজি; এবং শহরের অনেক জায়গা থেকে ১০০ মিটার উচু দৃশ্যমান একটি বিশিষ্ট ল্যান্ডমার্ক জোসেফ চেম্বারলাইন মেমোরিয়াল ক্লক টাওয়ারের আবাসস্থল।[১১] বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাবিদ ও প্রাক্তন ছাত্রদের মধ্যে সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নেভিল চেম্বারলাইনস্ট্যানলি বাল্ডউইন,[১২] ব্রিটিশ সুরকার স্যার এডওয়ার্ড এলগার এবং এগারোজন নোবেল বিজয়ী রয়েছে।[১৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ives et al. 2000, p. 238.
  2. "Mason College"। Birmingham University। ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২১ 
  3. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; The First Civic University নামের সূত্রটির জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  4. "Financial Statements for the Year to 31 July 2020" (PDF)। বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়। পৃষ্ঠা 42। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২১ 
  5. "Lord Bilimoria installed as Chancellor of the University of Birmingham"। University of Birmingham। ১৮ জুলাই ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২১ 
  6. "Who's working in HE? | HESA"www.hesa.ac.uk 
  7. "Where do HE students study?"উচ্চ শিক্ষা পরিসংখ্যান এজেন্সি। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০২০ 
  8. Curtis, Polly (২৯ জুলাই ২০০৫)। "Birmingham University houses tornado victims"The Guardian। London। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২১ 
  9. Bawden, Anna (১১ ফেব্রুয়ারি ২০০৫)। "Muslim students threaten to sue Birmingham University"The Guardian। London। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২১ 
  10. University guide 2014: University of Birmingham, দ্যা গার্ডিয়ান, ৮ই জুন ২০০৮। ২১ আগস্ট ২০২১
  11. "25 tallest clock towers/government structures/palaces" (PDF)। Council on Tall Buildings and Urban Habitat। জানুয়ারি ২০০৮। ৩০ অক্টোবর ২০০৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২১ 
  12. K. Feiling, The Life of Neville Chamberlain (London, 1970), 11–12.
  13. "Our Nobel Prize winners"। University of Birmingham। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২১