ঋষিকেশ

স্থানাঙ্ক: ৩০°০৬′৩০″ উত্তর ৭৮°১৭′৫০″ পূর্ব / ৩০.১০৮৩৩° উত্তর ৭৮.২৯৭২২° পূর্ব / 30.10833; 78.29722
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ঋষিকেশ
শহর
Triambakeshwar Temple
Muni Ki Reti
Parmarth Niketan
Evening aarti at Triveni Ghat
Shiva Statue on the bank of Ganges
Ram Jhula
AIIMS Rishikesh
বাম থেকে ডান; উপরে থেকে নীচে : ত্র্যম্বকেশ্বর মন্দির, মুনি কি রেতি, পারমার্থ নিকেতন, ত্রিবেণী ঘাটে সন্ধ্যা আরতি, গঙ্গা তীরে শিব মূর্তি, রাম ঝুলাএইমস ঋষিকেশ
ডাকনাম: যোগনগরী
স্থানাঙ্ক: ৩০°০৬′৩০″ উত্তর ৭৮°১৭′৫০″ পূর্ব / ৩০.১০৮৩৩° উত্তর ৭৮.২৯৭২২° পূর্ব / 30.10833; 78.29722
রাষ্ট্রভারত
রাজ্য উত্তরাখণ্ড
জেলাদেরাদুন
পৌরসভা১৯৫২
নামকরণের কারণহৃষীকেশা
সরকার
 • ধরনমেয়র-কাউন্সিল
 • শাসকঋষিকেশ পৌরসংস্থা
 • মেয়রঅনিতা মামগাইন (বিজেপি)
 • পৌর কমিশনারজি.সি. গুরওয়ান্ত
আয়তন
 • মোট১১.৫ বর্গকিমি (৪.৪ বর্গমাইল)
উচ্চতা৩৪০ মিটার (১,১২০ ফুট)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট১,০২,১৩৮ (শহুরপুঞ্জ)
৭০,৪৯৯ (শহর; ২,০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী)
 • ক্রম৭ম
 • জনঘনত্ব৮,৮৫১/বর্গকিমি (২২,৯২০/বর্গমাইল)
ভাষা
 • দাপ্তরিকহিন্দি
 • অন্যান্যগাড়োয়ালি
সময় অঞ্চলআইএসটি (ইউটিসি+৫:৩০)
পিন২৪৯২০১
টেলিফোন কোড+৯১-১৩৫
যানবাহন নিবন্ধনইউকে-১৪
সাক্ষরতা (২০১১)৮৬.৮৬%
লিঙ্গ অনুপাত (২০১১)৮৭৫ / ১০০০

ঋষিকেশ একটি শহর, যা ঋষিকেশ পৌরসংস্থা (২০১৭ সালের অক্টোবর মাস থেকে)[১] ও ভারতীয় রাজ্য উত্তরাখণ্ডের দেরাদুন জেলার একটি মহকুমা দ্বারা শাসিত হয়। উত্তর ভারতের হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত শহরটি হল "গাড়োয়াল হিমালয়ের প্রবেশদ্বার" এবং "বিশ্বের যোগ রাজধানী" নামে পরিচিত।[২][৩][৪][৫] এটি হরিদ্বার শহরের ২১ কিমি (১৩ মাইল) উত্তরে এবং রাজ্যের রাজধানী দেরাদুন থেকে ৪৫ কিমি (২৮ মাইল) দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত। ২০২১ সালের হিসাবে, ঋষিকেশ মহকুমার মোট জনসংখ্যা ৩,২২,৮২৫ জন; এই পরিসংখ্যানে শহর ও আশেপাশের ৯৩ টি গ্রাম অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।[৬] এটি উত্তরাখণ্ড রাজ্যের সপ্তম জনবহুল শহর। ঋষিকেশ তীর্থস্থান শহর হিসাবে পরিচিত এবং হিন্দুদের জন্য অন্যতম পবিত্র স্থান হিসাবে বিবেচিত হয়।[৪] উচ্চতর জ্ঞানের সন্ধানে ধ্যান করার জন্য প্রাচীন কাল থেকেই হিন্দু ঋষি ও সাধুরা ঋষিকেশে এসেছেন।[৭]

কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রী মহেশ শর্মা ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ঘোষণা করেছিলেন, যে ভারতের মধ্যে প্রথম ঋষিকেশ ও হরিদ্বারকে "যমজ জাতীয় ঐতিহ্যের শহর" খেতাব দেওয়া হবে।[৮] স্থানটির ধর্মীয় গুরুত্বের কারণে ঋষিকেশে আমিষ খাবার ও অ্যালকোহল কঠোরভাবে নিষিদ্ধ।[৯] শহরটি ১৯৯৯ সাল থেকে মার্চের প্রথম সপ্তাহে বার্ষিক আন্তর্জাতিক যোগ উৎসবের আয়োজন করে।[১০][১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Singh, Kautilya (২৬ অক্টোবর ২০১৭)। "Nagar palikas of Rishikesh, Kotdwar get corporation status"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২২ 
  2. Bijalwan, Himanshu (২৩ জুন ২০২২)। "Yoga School - Yoga Capital"nirvanayogasthal.com। Nirvana Yogasthal। 
  3. Jha, Meenketan (২৭ আগস্ট ২০১৮)। "5 Adventure Sports You Must Try in India"Outlook Traveller। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২২ 
  4. Ghose, Aruna, সম্পাদক (২০১১)। "Rishikesh"DK Eyewitness Travel Guide: IndiaDK। পৃষ্ঠা 184। আইএসএসএন 1542-1554আইএসবিএন 978-0-75667-026-9Google Books-এর মাধ্যমে। 
  5. "Rishikesh's identity as yoga capital to be maintained"The Tribune। ১ মার্চ ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২২ 
  6. "Rishikesh Population (2021/2022), Tehsil Village List in Dehradun, Uttarakhand" 
  7. Singh, Ranjeni A (৩ এপ্রিল ২০১৪)। "Rishikesh: Haven for yoga and wellness enthusiasts"The Economic Times। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২২ 
  8. Sharma, Seema (১৯ আগস্ট ২০১৫)। "Centre to declare Haridwar, Rishikesh national heritage cities"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২২ 
  9. Ramadurai, Charukesi (৪ জানুয়ারি ২০১৮)। "My Kind of Place: Rishikesh, India"The National। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২২ 
  10. Gusain, Raju (৮ মার্চ ২০১৮)। "Rishikesh: Controversy-hit Parmarth Yoga fest ends"The Statesman। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২২ 
  11. "Yoga enthusiasts from across the globe flock to Rishikesh to be a part of this festival"The Times of India। ১৬ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৮ আগস্ট ২০২২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]