ফাতেমীয় খিলাফত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফাতেমীয় ইসলামী খিলাফত
الدولة الفاطمية
al-Fāṭimiyyūn

 

 

৯০৯–১১৭১

ফাতেমীয় সবুজ পতাকা।[১]

সর্বো‌চ্চ সীমায় ফাতেমীয় খিলাফত, আনুমানিক ৯৬৯ সাল।
রাজধানী মাহদিয়া
(৯০৯–৯৪৮)
আল-মানসুরিয়া
(৯৪৮–৯৭৩)
কায়রো
(৯৭৩–১১৭১)
ভাষাসমূহ আরবি (দাপ্তরিক)
বার্বার, কপ্টিক
ধর্ম শিয়া ইসলাম
সরকার ইসলামী খিলাফত
খলিফা
 -  ৯০৯–৯৩৪ (প্রথম) আল-মাহদি বিল্লাহ
 -  ১১৬০–১১৭১ (শেষ) আল-আদিদ
ঐতিহাসিক যুগ প্রাক মধ্যযুগ
 -  সংস্থাপিত জানুয়ারি ৫ ৯০৯
 -  কায়রোর পত্তন আগস্ট ৮, ৯৬৯
 -  ভাঙ্গিয়া দেত্তয়া হয়েছে ১১৭১
আয়তন
 -  ৯৬৯[২]  বর্গ কি.মি. ( বর্গ মাইল)
জনসংখ্যা
 -  আনুমানিক  
মুদ্রা দিনার
পূর্বসূরী
উত্তরসূরী
আব্বাসীয় খিলাফত
আঘলাবিদ
ইখশিদিদ রাজবংশ
আইয়ুবীয় রাজবংশ
আলমোরাভিদ রাজবংশ
জেরুজালেম রাজ্য
এন্টিওক রাজ্য
কাউন্টি অব এডেসা
কাউন্টি অব ত্রিপলি
জিরিদ রাজবংশ
সিসিলি আমিরাত
কাউন্টি সিসিলি
বর্তমানে অংশ
সতর্কীকরণ: "মহাদেশের" জন্য উল্লিখিত মান সম্মত নয়

টেমপ্লেট:মিশরের ইতিহাস টেমপ্লেট:আরব রাষ্ট্রের ইতিহাস টেমপ্লেট:খিলাফত

ফাতেমীয় খিলাফত (আরবি: الفاطميون, al-Fāṭimiyyūn) ইসলামী খিলাফতগুলোর মধ্যে চতুর্থতম। এই খিলাফত ইসমাইলি শিয়া মতবাদকে ধারণ করত। পূর্বে লোহিত সাগর থেকে শুরু করে পশ্চিমে আটলান্টিক মহাসাগর পর্যন্ত উত্তর আফ্রিকার বিস্তীর্ণ এলাকা এই খিলাফতের অধীনস্ত ছিল। এটি তিউনিসিয়াকে ভিত্তি করে গড়ে উঠে। এই রাজবংশ আফ্রিকার ভূমধ্যসাগরীয় উপকূল শাসন করত এবং মিশরকে খিলাফতের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করে। সর্বোচ্চ সীমায় পৌছার পর ফাতেমীয় খিলাফতের অধীনে মাগরেব, সুদান, সিসিলি, লেভান্টহেজাজ শাসিত হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. in Akhbar al-Muluk Bani Ubayd (ed. Paris, 1927, p. 57) mentions that Ismail al-Mansur in 948 after his victory over Abu Yazid was met at Kairwan by the notables mounted on fine horses and carrying drums and green flags.
  2. Turchin, Peter; Adams, Jonathan M.; Hall, Thomas D (December 2006)। "East-West Orientation of Historical Empires"Journal of world-systems research 12 (2): 219–229। সংগৃহীত 9 January 2012