কনমেবল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেন
CONMEBOL logo.svg
CONMEBOL.svg
সংক্ষেপে CONMEBOL
গঠন ৯ জুলাই, ১৯১৬
ধরণ জাতীয় পর্যায়ের সংস্থা
সদর দপ্তর প্যারাগুয়ে লুকো, প্যারাগুয়ে
স্থানাঙ্ক ২৫°১৫′৩৮″ দক্ষিণ ৫৭°৩০′৫৮″ পশ্চিম / ২৫.২৬০৫৬° দক্ষিণ ৫৭.৫১৬১১° পশ্চিম / -25.26056; -57.51611
অঞ্চলগত সেবা দক্ষিণ আমেরিকা
সদস্যপদ ১০ সদস্যবিশিষ্ট সংগঠন
দাপ্তরিক ভাষা স্পেনীয়, পর্তুগিজ
মহাসচিব
আর্জেন্টিনা জোস লুইস মেইজনার
সভাপতি প্যারাগুয়ে নিকোলাস লিওজ
ওয়েবসাইট www.CONMEBOL.com

দক্ষিণ আমেরিকান ফুটবল কনফেডারেন (স্পেনীয়: Confederación Sudamericana de Fútbol; পর্তুগিজ: Confederação Sul-Americana de Futebol) সাধারণ্যের কাছে কনমেবল নামেই সমধিক পরিচিত। সংস্থাটি দক্ষিণ আমেরিকার প্রধান ক্রীড়া পরিচালনা পর্ষদফিফার ছয়টি মহাদেশীয় সংস্থার অন্যতম একটি। প্যারাগুয়ের লুকো এলাকায় এর সদর দফতর অবস্থিত। এর সভাপতি হিসেবে আছেন নিকোলাস লিওজ। কনমেবল দক্ষিণ আমেরিকার প্রধান ক্রীড়া প্রতিযোগিতাগুলো আয়োজন করে থাকে। কনমেবলের নিয়ন্ত্রণাধীন বিভিন্ন দেশের জাতীয় ফুটবল দলগুলো নয়বার বিশ্বকাপ ফুটবল জয় করেছে। তন্মধ্যে - ব্রাজিল ৫বার, আর্জেন্টিনাউরুগুয়ে ২বার এ ট্রফি লাভ করে। এছাড়াও কনমেবলের ক্লাবগুলো ২২বার আন্তঃমহাদেশীয় কাপ এবং ৩বার ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ জয করে। অলিম্পিক গেমসে আর্জেন্টিনাউরুগুয়ে ২বার স্বর্ণপদক লাভ করে। ১০ সদস্যবিশিষ্ট এ ফুটবল সংস্থাটি ফিফার সবচেয়ে ছোট্ট সংগঠন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯১৬ সালে ক্যাম্পিওনাতো সাদামেরিকানো ডি ফুটবলের প্রথম পর্যায়ে যা বর্তমানে কোপা আমেরিকা নামে পরিচিত, আর্জেন্টিনার স্বাধীনতা ঘোষণার শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে একটি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। প্রতিযোগিতাকে সফল করে তুলতে চারটি দেশের ফুটবল সংস্থা এতে একত্রিত হয়ে একটি ক্রীড়া পরিচালনা সংস্থা গঠন করে। এভাবেই ৯ জুলাই, ১৯১৬ সালে আর্জেন্টিনার স্বাধীনতা দিবসে উরুগুয়ের হিক্টর রিভাদাভিয়ার প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় কনমেবল প্রতিষ্ঠিত হয়। কিন্তু তা আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, চিলি এবং উরুগুয়ের ফুটবল সংস্থা কর্তৃক অনুমোদিত হয়েছিল। একই বছরের ১৫ ডিসেম্বর সাংগঠনিকভাবে কংগ্রেস কর্তৃক তা চূড়ান্তভাবে অনুমোদন লাভ করে। এর পরের বছরগুলোয় দক্ষিণ আমেরিকার অন্যান্য দেশের ফুটবল সংস্থাগুলো এতে যোগ দেয়। ১৯৫২ সালে ভেনেজুয়েলাও এতে যোগ দেয়। গায়ানা, সুরিনাম, ফরাসী গায়ানা ভৌগোলিকভাবে দক্ষিণ আমেরিকায় অন্তর্ভূক্ত হলেও তারা কনমেবলের অংশ নয়। ফরাসী উপনিবেশ, সাবেক ব্রিটিশ উপনিবেশ এবং সাবেক পর্তুগীজ উপনিবেশ ও ক্যারিবিয় সাগরের নিকটবর্তী দেশগুলো কনকাকাফের অন্তর্ভূক্ত হয় মূলতঃ ইতিহাস, সাংস্কৃতিক এবং খেলাধূলার কারণে। দশ সদস্যবিশিষ্ট কনমেবল সবচেয়ে ছোট এবং একমাত্র ভূমিকেন্দ্রিক ফিফা কনফেডারেশনের অংশবিশেষ।

সদস্য[সম্পাদনা]

দেশ সংস্থা প্রতিষ্ঠাকাল যোগদান জাতীয় দল শীর্ষ বিভাগ
 আর্জেন্টিনা এএফএ ১৮৯৩ ১৯১৬ ARG (পুরুষ, মহিলা) প্রাইমেরা ডিভিশন
 বলিভিয়া এফবিএফ ১৯২৫ ১৯২৬ BOL (পুরুষ, মহিলা) লিগা প্রফেশনাল
 ব্রাজিল সিবিএফ ১৯১৪ ১৯১৬ BRA (পুরুষ, মহিলা) সিরি এ/ব্রাসিলেইরাও
 চিলি এফএফসি ১৮৯৫ ১৯১৬ CHI (পুরুষ, মহিলা) প্রাইমেরা ডিভিশন
 কলম্বিয়া এফসিএফ ১৯২৪ ১৯৩৬ COL (পুরুষ, মহিলা) প্রাইমেরা এ
 ইকুয়েডর এফইএফ ১৯২৫ ১৯২৭ ECU (পুরুষ, মহিলা) সিরি এ
 প্যারাগুয়ে এপিএফ ১৯০৬ ১৯২১ PAR (পুরুষ, মহিলা) প্রাইমেরা ডিভিশন
 পেরু এফপিএফ ১৯২২ ১৯২৫ PER (পুরুষ, মহিলা) প্রাইমেরা ডিভিশন
 উরুগুয়ে এইউএফ ১৮৯৯ ১৯১৬ URU (পুরুষ, মহিলা) প্রাইমেরা ডিভিশন
 ভেনেজুয়েলা এফভিএফ ১৯২৬ ১৯৫২ VEN (পুরুষ, মহিলা) প্রাইমেরা ডিভিশন

প্রতিযোগিতাসমূহ[সম্পাদনা]

জাতীয় দলভিত্তিক:

অপ্রচলিত

ক্লাবভিত্তিক:

অপ্রচলিত

সভাপতি[সম্পাদনা]

নাম দেশ মেয়াদকাল
হেক্টর রিভাদাভিয়া গোমেজ  উরুগুয়ে ১৯১৬-১৯৩৬
লুইস ও. সালেসি ১৯৩৬-১৯৩৯
লুইস ভ্যালেনজুয়েলা হারমোসিলা  চিলি ১৯৩৯-১৯৫৫
কার্লোস দিতবর্ন পিন্টো  চিলি ১৯৫৫-১৯৫৭
জোস রামোস ডি ফ্রেইতাস  ব্রাজিল ১৯৫৭-১৯৫৯
ফার্মিন সোরহুয়েতা ১৯৫৯-১৯৬১
রাউল এইচ. কলম্বো  আর্জেন্টিনা ১৯৬১-১৯৬৬
তিওফিলো সালিনাস ফুলার  পেরু ১৯৬৬ - ১৯৮৬
নিকোলাস লিওজ  প্যারাগুয়ে ১৯৮৬-বর্তমান

বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ[সম্পাদনা]

ব্যাখ্যা
  • ১মচ্যাম্পিয়ন
  • ২য়রানার-আপ
  •  ৩য়  – তৃতীয় স্থান[১]
  • ৪র্থ - চতুর্থ স্থান
  • কো – কোয়ার্টার ফাইনাল
  • রা১৬ – ১৬ দল (১৯৮৬ সাল থেকে নকআউট)
  • রা২ - দ্বিতীয় রাউন্ড (১৯৭৪, ১৯৭৮ ও ১৯৮২ সালের প্রতিযোগিতায় দুইটি গ্রুপ ছিল)
  • গ্রুপ – গ্রুপ পর্ব (১৯৫০, ১৯৭৪, ১৯৭৮ ও ১৯৮২ সালের প্রতিযোগিতায় দুইটি গ্রুপ ছিল)
  • প্রপ – প্রথম নকআউট পর্ব (১৯৩৪-১৯৩৮ পর্যন্ত একবারের জন্য অংশগ্রহণ)
  •    — যোগ্যতা অর্জন করেনি
  •     — অংশগ্রহণ/প্রত্যাহার/নিষিদ্ধ হয়নি
  •     — স্বাগতিক দেশ


দল উরুগুয়ে
১৯৩০
ইতালি
১৯৩৪
ফ্রান্স
১৯৩৮
ব্রাজিল
১৯৫০
সুইজারল্যান্ড
১৯৫৪
সুইডেন
১৯৫৮
চিলি
১৯৬২
ইংল্যান্ড
১৯৬৬
মেক্সিকো
১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি
১৯৭৪
আর্জেন্টিনা
১৯৭৮
স্পেন
১৯৮২
মেক্সিকো
১৯৮৬
ইতালি
১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
১৯৯৪
ফ্রান্স
১৯৯৮
দক্ষিণ কোরিয়াজাপান
২০০২
জার্মানি
২০০৬
দক্ষিণ আফ্রিকা
২০১০
ব্রাজিল
২০১৪
রাশিয়া
২০১৮
কাতার
২০২২
মোট
অংশগ্রহণ
বিশ্বকাপে
যোগ্যতাসহ
 আর্জেন্টিনা 2nd 1S GS GS QF R2 1st R2 1st 2nd R16 QF GS QF QF ? ? ? 15 16
 বলিভিয়া GS GS GS ? ? ? 3 16
 ব্রাজিল GS 1S 3rd 2nd QF 1st 1st GS 1st 4th 3rd R2 QF R16 1st 2nd 1st QF QF ? ? ? 19 19
 চিলি GS GS 3rd GS GS GS R16 R16 ? ? ? 8 16
 কলম্বিয়া GS R16 GS GS ? ? ? 4 14
 ইকুয়েডর GS R16 ?  ? ? 2 13
 প্যারাগুয়ে GS GS GS R16 R16 R16 GS QF ? ? ? 8 17
 পেরু GS QF R2 GS ? ? ? 4 15
 উরুগুয়ে 1st 1st 4th GS QF 4th GS R16 R16 GS 4th ? ? ? 11 17
 ভেনেজুয়েলা ? ? ? 0 11
সম্মিলিতভাবে অংশগ্রহণ TBD TBD TBD ৭৪
বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জনসহ ১০ ১০ ১০ ১০ ১০ ১০ ১০ ১০ ১০ ১০ TBD TBD TBD ১৫৪

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. There was no Third Place match in 1930; The United States and Yugoslavia lost in the semifinals. FIFA recognizes the United States as the third-placed team and Yugoslavia as the fourth-placed team using the overall records of the teams in the 1930 FIFA World Cup.

টেমপ্লেট:National Members of the South American Football Confederation টেমপ্লেট:South American football

টেমপ্লেট:International women's football টেমপ্লেট:International club football টেমপ্লেট:International women's club football টেমপ্লেট:International futsal টেমপ্লেট:International club futsal টেমপ্লেট:International Beach Soccer টেমপ্লেট:CONMEBOL leagues