রুড ভান নিস্টেলরুই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রুড ফন নিস্টেলরয়
Ruud-van-Nistelrooy3.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম রুতগ্রেরুস ইয়োহানেস মারতিনিউস
ফন নিস্টেলরয়
জন্ম (১৯৭৬-০৭-০১) জুলাই ১, ১৯৭৬ (বয়স ৩৮)
জন্ম স্থান ওস, উত্তর ব্রাবান্ত, নেদারল্যান্ডস
উচ্চতা ১.৮৮ মি (৬ ফু ২ ইঞ্চি)[১]
মাঠে অবস্থান স্ট্রাইকার
তারূণ্যের কর্মজীবন
১৯৯৩–১৯৯৭ এফসি ডেন বশ
বলিষ্ঠ কর্মজীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
১৯৯৩–১৯৯৭ এফসি ডেন বশ ৬৯ (১৭)
১৯৯৭–১৯৯৮ এসসি হিরেনভেন ৩১ (১৩)
১৯৯৮–২০০১ পিএসভি ৬৭ (৬২)
২০০১–২০০৬ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ১৫০ (৯৫)
২০০৬–২০১০ রিয়াল মাদ্রিদ ৬৮ (৪৬)
২০১০–২০১১ হামবার্গার এসভি ৩৬ (১২)
২০১১–২০১২ মালাগা সিএফ ২৮ (৪)
মোট ৪৪৯ (২৪৯)
জাতীয় দল
১৯৯৮–২০১১ নেদারল্যান্ডস ৭০ (৩৫)
* পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ১৩ মে ২০১২ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ১৩ মে ২০১২ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

রুতগেরুস ইয়োহানেস মার্তিনিউস "রুড" ফন নিস্টেলরয় (ওলন্দাজ: Rutgerus Johannes Martinus van Nistelrooy, ওলন্দাজ উচ্চারণ: [ˈryt fɑn ˈnɪstəlroːi̯] ( শুনুন); জন্ম ১ জুলাই ১৯৭৬) একজন প্রাক্তন ওলন্দাজ ফুটবলার। ৫৬টি গোল নিয়ে তিনি চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে চতুর্থ সর্বোচ্চ গোলদাতা। তিনি চ্যাম্পিয়নস লীগের তিনবারের শীর্ষ গোলদাতা। এছাড়া তিনি ইউরোপের তিনটি আলাদা ঘরোয়া লীগেও শীর্ষ গোলদাতার খেতাবও অর্জন করেছেন।

নিস্টেলরয় তার কর্মজীবন শুরু করেন ডেন বশের হয়ে। এরপর তিনি যোগ দেন হিরেনভেনে। ১৯৯৮ সালে তিনি যোগ দেন পিএসভি আইন্দোভেনে। সেখানে তিনি দুইটি ডাচ লীগ শিরোপা জিতেন। পিএসভিতে তার নৈপূন্য ইংরেজ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের নজরে আসে। ২০০০ সালের গ্রীষ্মে ক্লাবটি তার সাথে চুক্তি করে। কিন্তু ইনজুরির কারণে এক বছর পর তত্‍কালীন ব্রিটিশ রেকর্ড ফি ১৯ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে তিনি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেন। ইউনাইটেডের হয়ে তিনি প্রিমিয়ার লীগ, এফএ কাপ, ফুটবল লীগ কাপ, এফএ কমিউনিটি শিল্ড এবং দুইবার স্যার ম্যাট বাস্‌বি বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারও জিতেন। নিস্টেলরয় ইউনাইটেডের হয়ে ২১৯ খেলায় ১৫০ গোল করেন। ২০০৬ সালে নিস্টেলরয় রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেন। রিয়ালে তিনি দুইটি লা লিগা এবং একটি স্পেনীয় সুপার কাপ শিরোপা জিতেন। ২০১০ সালের জানুয়ারিতে তিনি হামবার্গার এসভিতে যোগ দেন। ২০১১ সালের গ্রীষ্মে তিনি স্পেনে ফিরে আসেন এবং মালাগায় যোগ দেন। ২০১২ সালের ১৪ মে, তিনি ফুটবল থেকে অবসরের ঘোষণা দেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

নেদারল্যান্ডের কর্মজীবন[সম্পাদনা]

শুরুতে ভ্যান নিস্তেলরয় একজন সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার হিসেবে খেলতে শুরু করেছিলেন। এরপর তিনি ডাচ দ্বিতীয় বিভাগের দল এফসি ডেন বস এ যোগ দেন সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার হিসেবে। ১৯৯৭ সালে তিনি ১৩ খেলায় ১২ গোল করেন। একই বছরে তিনি আবার অবস্থান বদলে এসসি হেরেনভেন দলে সেন্ট্রাল ফরোয়ার্ড হিসেবে যোগ দেন। এখানে ৩১ খেলায় তিনি ১৩ গোল করেন। ১৯৯৮ সালে তার ২২তম জন্মদিনে তিনি পিএসভির পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন ৬.৩ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে। সেটি তখন ছিল রেকর্ড ট্রান্সফার ফি যেকোন ডাচ ক্লাবের জন্য।

পিএসভিতে প্রথম মৌসুমে তিনি ৩৪ খেলায় ৩১ গোল করেন যা ছিল সেই লীগের সর্বোচ্চ এবং ইউরোপে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। ১৯৯৮ সালে চ্যাম্পিয়নস লীগের একটি খেলায় হেলসিঙ্কি দলের বিপক্ষে ৩টি গোল করে তিনি ইউরোপে পরিচিতি পান। এতে তার দল ৩-১ গোলে জেতে। ভ্যান নিস্তেলরয়কে নেয়ার জন্য অনেক ক্লাব মুখিয়ে ছিল। পরের মৌশুমে তিনি লীগে আবার ২৯ গোল করেন এবং নেদারল্যান্ডে আবারও শীর্ষ গোলদাতা হন। তার প্রথম আন্তর্জাতিক গোল আসে ১৯৯৯ সালে যখন মরক্কোর বিপক্ষে ২-১ গোলের হারে তিনি একমাত্র গোল করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Player Profile: Ruud van Nistelrooy"। প্রিমিয়ার লীগ। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]