প্যারাগুয়ে জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
 প্যারাগুয়ে
শার্ট ব্যাজ/অ্যাসোসিয়েশন ক্রেস্ট
ডাকনাম গুয়ানারেজ
লা আলবিওরোজা (সাদা ও লাল)
অ্যাসোসিয়েশন অ্যাসোসিয়েসিওন প্যারাগুয়া দে ফুতবল
কনফেডারেশন কনমেবল (দক্ষিণ আমেরিকা)
প্রধান কোচ জেরার্ডো মার্টিনো
অধিনায়ক ডেনিস কানিজা
সর্বাধিক খেলায় অংশ নেওয়া খেলোয়াড় কার্লোস গামারা (১১০)
শীর্ষ গোলদাতা হোসে সাটুরনিনো কার্ডোজো (২৫)
স্বাগতিক স্টেডিয়াম এস্টাডিও ডিফেন্সোরেস দেল চাকো
ফিফা কোড PAR
ফিফা র‌্যাঙ্কিং ৩১
সর্বোচ্চ ফিফা র‌্যাঙ্কিং (মার্চ ২০০১)
সর্বনিম্ন ফিফা র‌্যাঙ্কিং ১০৩ (মে ১৯৯৫)
এলো রেটিং ২২
সর্বোচ্চ এলো রেটিং (১৯৫৪)
সর্বনিম্ন এলো রেটিং ৪৪ (আগস্ট ১৯৬২)
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 প্যারাগুয়ে ১ - ৫  আর্জেন্টিনা
(আসুনসিওন, প্যারাগুয়ে; ১১ মার্চ, ১৯১৯)
সর্বোচ্চ জয়
 প্যারাগুয়ে ৭ - ০  বলিভিয়া
(রিও দি জানেইরু, ব্রাজিল; ৩০ এপ্রিল, ১৯৪৯)
সর্বোচ্চ পরাজয়
 আর্জেন্টিনা ৮ - ০  প্যারাগুয়ে
(সান্তিয়াগো, চিলি; ২০ অক্টোবর, ১৯২৬
বিশ্বকাপ
উপস্থিতি ৭ (প্রথম ১৯৩০)
শ্রেষ্ঠ ফলাফল কোয়ার্টার ফাইনাল, ২০১০
কোপা আমেরিকা
উপস্থিতি ৩৩ (প্রথম ১৯২১)
শ্রেষ্ঠ ফলাফল বিজয়ী, ১৯৫৩, ১৯৭৯

প্যারাগুয়ে জাতীয় ফুটবল দল হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে প্যারাগুয়ের প্রতিনিধি। প্যারাগুয়ের ফুটবল সংস্থা অ্যাসোসিয়েসিওন প্যারাগুয়া দে ফুতবল দলটি নিয়ন্ত্রণ করে। দলটি এখন পর্যন্ত তিনবার (১৯৮৬, ১৯৯৮, ২০০২) ফিফা বিশ্বকাপের দ্বিতীয় পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করলেও কখনো এর থেকে বেশি যেতে পারেনি। কোনো বড় ধরনের প্রতিযোগিতায় প্যারাগুয়ের সবচেয়ে বড় সাফল্য হচ্ছে দুইবার (১৯৫৩, ১৯৭৯) দক্ষিণ আমেরিকার আঞ্চলিক ফুটবল প্রতিযোগিতা কোপা আমেরিকা জয়। এছাড়া ২০০৪ সালের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে প্যরাগুয়ে রৌপ্য পদক অর্জন করে। সেবার তারা ফাইনালে আর্জেন্টিনার কাছে ১ – ০ গোলে পরাজিত হয়।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Since 1992, squads for Football at the Summer Olympics have been restricted to three players over the age of 23. The achievements of such teams are not usually included in the statistics of the international team.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]