২০১৭-১৮ ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের নিউজিল্যান্ড সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(English cricket team in New Zealand in 2017-18 থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৭-১৮ ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের নিউজিল্যান্ড সফর
Flag of New Zealand.svg
নিউজিল্যান্ড
Flag of England.svg
ইংল্যান্ড
তারিখ ২৫ ফেব্রুয়ারি – ৩ এপ্রিল ২০১৮
অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন জো রুট (টেস্ট)
ইয়ন মর্গ্যান (ওডিআই)
টেস্ট সিরিজ
ফলাফল ২-ম্যাচের সিরিজ নিউজিল্যান্ড ১–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান হেনরি নিকোলাস (১৫৮) জনি বেয়ারস্টো (১৩৬)
সর্বাধিক উইকেট ট্রেন্ট বোল্ট (১৫) স্টুয়ার্ট ব্রড (১১)
সিরিজ সেরা ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড)
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৫-ম্যাচের সিরিজ ইংল্যান্ড ৩–২ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান রস টেলর (৩০৪) জনি বেয়ারস্টো (৩০২)
সর্বাধিক উইকেট ইশ সোধি (১০) ক্রিস উকস (১০)
সিরিজ সেরা ক্রিস উকস (ইংল্যান্ড)

ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল তিনটি টেস্ট ক্রিকেট এবং পাঁচটি একদিনের আন্তর্জাতিক খেলার জন্য নিউজিল্যান্ড সফর করে, যা ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল ২০১৮-এ অনুষ্ঠিত হয়।[১][২][৩] টেস্ট খেলায় দিন/রাত সূচনা করার জন্য ২০১৬-১৭ প্লানকেট শিল্ড মৌসুমে এর প্রস্তুুতি নেয়া হয় ইডেন পার্ক এ। [৪][৫] ২০১৭ এর আগস্টে, নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট নিশ্চিত করে যে, ইডেন পার্কের টেস্ট খেলাগুলো হবে দিন/রাত সূচীতে।[৬] সেপ্টেম্বর ২০১৭, ওডিআই সূচীর দ্বিতীয় ওডিআইটি ম্যাকলিন পার্কে পুনসংস্কার কাজে সমস্যা থাকায় বেয় ওভালে স্থানান্তর করা হয়।[৭]

ওডিআই সিরিজেক ইংল্যান্ড ৩-২ এ জয় লাভ করে।[৮] নিউজিল্যান্ড দ্বিতীয় টেস্ট খেলাটি ড্র হওয়ায় ১-০ তে টেস্ট সিরিজটি জিতে নেয়।[৯] ১৯৯৯ সালের আগস্টের পর থেকে এটিই ছিল ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম এবং স্বদেশের মাঠে ১৯৮৪ সালের মার্চের পর প্রথম কোন টেস্ট সিরিজ জয়। [১০]

দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

টেস্ট ওডিআই
 নিউজিল্যান্ড[১১]  ইংল্যান্ড[১২]  নিউজিল্যান্ড[১৩]  ইংল্যান্ড[১৪]

ওডিআই সিরিজটি শুরু হওয়ার পূর্বে লিয়াম প্লানকেট দল থেকে বাদ পড়ে যায়, তার জায়গায় নেয়া হয় ক্রেগ ওভারটনকে[১৫][১৬] প্রথম ওডিআই এর পরে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে ভোগা কেন উইলিয়ামসন এর সম্পুরক হিসাবে মার্ক চ্যাপম্যান কে নিউজিল্যান্ড দলে আনা হয়।[১৭]

জেমস অ্যান্ডারসনকে ইংল্যান্ড দলের সহ-অধিনায়ক নিযুক্ত করা হয়।[১৮] মিচেল স্যান্টনার, নিউজিল্যান্ডের হয়ে ওডিআই ম্যাচ গুলো খেললেও, হাটুর ইনজুরির কারণে টেস্ট স্কোয়াড থেকে তার নাম বাদ দেয়া হয়।[১৯] দলে সে অনুপস্থিত ছিল ছয় থেকে নয় মাসের মতো, তার জায়গায় এসেছিল টড আ্যাস্টল[১৯] টেস্ট সিরিজ শুরুর পূর্বে, ম্যাসন ক্রেন ইনজুরির কারণে দল থেকে বাদ পড়ে, তার জায়গায় আসে জ্যাক লীচ[২০] প্রথম টেস্টের আগে, মার্টিন গাপটিলকে দলে যোগ করা হয়, এবং সেই সাথে রস টেলর ও ইনজুরি কাটিয়ে ফিরে আসে।[২১] ২য় টেস্টে নিউজিল্যান্ড স্কোয়াড থেকে টড অ্যাস্টল বাদ দেয়া হয় এবং ইশ সোধিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।[২২]

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
১৪:০০ (দিন/রাত)
Scorecard
ইংল্যান্ড 
২৮৪/৮ (৫০ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
২৮৭/৭ (৪৯.২ ওভার)
জস বাটলার ৭৯ (৬৫)
মিচেল স্যান্টনার ২/৫৪ (১০ ওভার)
রস টেলর ১১৩ (১১৬)
বেন স্টোকস ২/৪৩ (৮ ওভার)
নিউজিল্যান্ড ৩ উইকেটে জয়ী
সেডন পার্ক, হ্যামিল্টন
আম্পায়ার: শন হাইগ (নিউজিল্যান্ড) ও রুচিরা পল্লিয়াগুরুগে (শ্রীলঙ্কা)
সেরা খেলোয়াড়: রস টেলর (নিউজিল্যান্ড)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • রস টেলর ওডিআই-এ নিউজিল্যান্ডের তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসাবে ৭,০০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করে।[২৩]
  • টম ল্যাথাম (নিউজিল্যান্ড) ওডিআইয়ে ২০০০তম রান করে।[২৪]
  • ক্রিস উকস (ইংল্যান্ড) ওডিআইয়ে তার ১০০তম উইকেট লাভ করে।[২৫]

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
১৪:০০ (দিন/রাত)
Scorecard
নিউজিল্যান্ড 
২২৩ (৪৯.২ ওভার)
 ইংল্যান্ড
২২৫/৪ (৩৭.৫ ওভার)
মিচেল স্যান্টনার ৬৩* (৫২)
মঈন আলী ২/৩৩ (১০ ওভার)
বেন স্টোকস ৬৩* (৭৪)
ট্রেন্ট বোল্ট ২/৪৬ (৮ ওভার)
ইংল্যান্ড ৬ উইকেটে জয়ী
বেয় ওভাল, মাউন্ট মাউঙ্গানুই
আম্পায়ার: ওয়েন নাইট (নিউজিল্যান্ড) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: বেন স্টোকস (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • মার্ক চ্যাপম্যান নিউজিল্যান্ডের হয়ে ওডিআই-এ অভিষেক করে। পূর্বে হংকংয়ের হয়ে খেলেছে এবং তিনি হলেন দুটি ভিন্ন দলের হয়ে খেলতে আসা ১০ম ব্যাটসম্যান।[২৬][২৭]
  • টিম সাউদি প্রথমবারের মতো ওডিআই ক্রিকেটে দলের অধিনায়কত্ব করেন।[২৬]
  • মিচেল স্যান্টনার (নিউজিল্যান্ড) তার ৫০তম ওডিআই খেলে।[২৮]

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

৩ মার্চ ২০১৮
১৪:০০ (দিন/রাত)
Scorecard
ইংল্যান্ড 
২৩৪ (৫০ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
২৩০/৮ (৫০ ওভার)
ইয়ন মর্গ্যান ৪৮ (৭১)
ইশ সোধি ৩/৫৩ (১০ ওভার)
কেন উইলিয়ামসন ১১২* (১৪৩)
মঈন আলী ৩/৩৬ (১০ ওভার)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • কেন উইলিয়ামসন নিউজিল্যান্ডের দ্রুততম এবং সার্বজনীনভাবে ৫ম দ্রুততম ব্যাটসম্যান যিনি ওডিআইয়ে ৫০০০ রান সংগ্রহ করেছেন।[২৯]

৪র্থ ওডিআই[সম্পাদনা]

৭ মার্চ ২০১৮
১১:০০
Scorecard
ইংল্যান্ড 
৩৩৫/৯ (৫০ ওভার)
 নিউজিল্যান্ড
৩৩৯/৫ (৪৯.৩ ওভার)
জনি বেয়ারস্টো ১৩৮ (১০৬)
ইশ সোধি ৪/৫৮ (১০ ওভার)
রস টেলর ১৮১* (১৪৭)
টম কারেন ২/৫৭ (৮.৩ ওভার)
নিউজিল্যান্ড ৫ উইকেটে জয়ী
ইউনিভার্সিটি ওভাল, ডুনেডিন
আম্পায়ার: শন হেইগ (নিউজিল্যান্ড) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: রস টেলর (নিউজিল্যান্ড)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • জেসন রয় (ইংল্যান্ড) ওডিআইয়ে ২০০০ রান করে।[৩০]
  • রস টেলর ওডিআইয়ে নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী হিসাবে নাথান অ্যাস্টল কে ছাড়িয়ে যান।[৩১][৩২]

৫ম ওডিআই[সম্পাদনা]

১০ মার্চ ২০১৮
১১:০০
Scorecard
নিউজিল্যান্ড 
২২৩ (৪৯.৫ ওভার)
 ইংল্যান্ড
২২৯/৩ (৩২.৪ ওভার)
মিচেল স্যান্টনার ৬৭ (৭১)
ক্রিস উকস ৩/৩২ (১০ ওভার)

প্রস্তুতিমূলক খেলা[সম্পাদনা]

দুই দিনের ম্যাচ: নিউজিল্যান্ড একাদশ বনাম ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

১৪–১৫ মার্চ ২০১৮ (দিন/রাত)
৩৭৬ (৯০ ওভার)
টম ব্লান্ডেল ১৩১ (১৯৪)
জেমস অ্যান্ডারসন ৪/৫৬ (১৬ ওভার)
৩১৯/১৪ (৯০ ওভার)
লিয়াম লিভিংস্টোন ৮৮ (১১৩)
স্কট কুগ্গেলেইজন ৪/৫০ (১৫ ওভার)
খেলা ড্র
সেডন পার্ক, হ্যামিল্টন
আম্পায়ার: শন হেইগ (নিউজিল্যান্ড) ও ওয়েন নাইটস (নিউজিল্যান্ড)
  • নিউজিল্যান্ড একাদশ টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • উভয় পার্শ্বে ১৩ জন খেলোয়াড় (১১জন ব্যাটিং, ১১জন ফিল্ডিং)
  • প্রতিটি পার্শ্ব সারা দিন ব্যাটিং করে, কোন কোন খেলোয়াড় দুইবার ব্যাটিং করে।

দুই দিনের ম্যাচ: নিউজিল্যান্ড একাদশ বনাম ইংল্যান্ড[সম্পাদনা]

১৬–১৭ মার্চ ২০১৮
২৮৭/১৩ (৯০ ওভার)
মার্টিন গাপটিল ৭৩ (১৩৭)
মঈন আলী ৩/৬৭ (২১ ওভার)
৩৫৩/৯ (৯০ ওভার)
জো রুট ১১৫ (১৫০)
স্কট কুগ্গেলেইজন ৩/৬৭ (১৪ ওভার)
খেলা ড্র
সেডন পার্ক, হ্যামিল্টন
আম্পায়ার: শন হেইগ (নিউজিল্যান্ড) ও ওয়েন নাইটস (নিউজিল্যান্ড)
  • নিউজিল্যান্ড একাদশ টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • উভয় পার্শ্বে ১৩ জন খেলোয়াড় (১১জন ব্যাটিং, ১১জন ফিল্ডিং)
  • প্রতিটি পার্শ্ব সারা দিন ব্যাটিং করে, কোন কোন খেলোয়াড় দুইবার ব্যাটিং করে।

টেস্ট সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টেস্ট[সম্পাদনা]

২২–২৬ মার্চ ২০১৮ (দিন/রাত)
৫৮ (২০.৪ ওভার)
ক্রেগ ওভারটন ৩৩* (২৫)
ট্রেন্ট বোল্ট ৬/৩২ (১০.৪ ওভার)
৪২৭/৮ ডি (১৪১ ওভার)
হেনরি নিকোলস ১৪৫* (২৬৮)
স্টুয়ার্ট ব্রড ৩/৭৮ (৩৪ ওভার)
৩২০ (১২৬.১ ওভার)
বেন স্টোকস ৬৬ (১৮৮)
টড আস্টলে ৩/৩৯ (১৬.১ ওভার)
নিউজিল্যান্ড একটি ইনিংস এবং ৪৯ রান দ্বারা জয়ী
ইডেন পার্ক, অকল্যান্ড
আম্পায়ার: ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
ম্যাচসেরা: ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়.
  • বৃষ্টির কারণে ২য় দিনে ২৩.১ ওভার এবং ৩য় দিনে ২.৫ ওভার বোলিং করা সম্ভব হয়েছিল।
  • এটি ছিল নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ১ম রাত/দিন টেস্ট খেলা।[৩৫]
  • মঈন আলী (ইংল্যান্ড) ৫০তম টেস্ট ম্যাচ খেলে।[৩৬]
  • ট্রেন্ট বোল্টটিম সাউদি প্রথম ইনিংসে কেবল এই দুজন বোলারকেই প্রয়োজন হয়েছিল ইংল্যান্ড দলকে অল আউট করতে। নিউজিল্যান্ডের জন্য এটি ছিল প্রথম ঘটনা। ট্রেন্ট বোল্টও টেস্ট খেলায় তার সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড করে।[৩৭]
  • ইংল্যান্ডের প্রথম দিনের স্কোর ছিল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বনিম্ন সংগ্রহ, সামগ্রিকভাবে ৬ষ্ঠ সর্বনিম্ন স্কোর।[৩৭]
  • স্টুয়ার্ট ব্রড (ইংল্যান্ড) তার টেস্ট ক্রিকেটে ৪০০তম উইকেট সংগ্রহ করে হয়ে যান টেস্ট ক্রিকেটে বিশ্বের কনিষ্ঠ ৪০০তম উইকেটধারী।[৩৮][৩৯]
  • কেন উইলিয়ামসন টেস্ট ক্রিকেটে তার ১৮তম সেঞ্চুরি করে টেস্ট ক্রিকেটে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যান হিসাবে সর্বাধিক সেঞ্চুরির রেকর্ড করেন।[৪০]

২য় টেস্ট[সম্পাদনা]

৩০ মার্চ–৩ এপ্রিল ২০১৮
৩০৭ (৯৬.৫ ওভার)
জনি বেয়ারস্টো ১০১ (১৭০)
টিম সাউদি ৬/৬২ (২৬ ওভার)
২৭৮ (৯৩.৩ ওভার)
বিজে ওয়াটলিং ৮৫ (২২০)
স্টুয়ার্ট ব্রড ৬/৫৪ (২২.৩ ওভার)
৩৫২/৯ডি (১০৬.৪ ওভার)
জেমস ভিন্স ৭৬ (১২৮)
কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ৪/৯৪ (২৬ ওভার)
২৫৬/৮ (১২৪.৪ ওভার)
টম ল্যাথাম ৮৩ (২০৭)
মার্ক উড ২/৪৫ (২২ ওভার)
খেলা ড্র
হ্যাগলে ওভাল, ক্রাইস্টচার্চ
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
ম্যাচসেরা: টিম সাউদি (নিউজিল্যান্ড)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Future Tours Programme" (PDF)International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০১৬ 
  2. "NZC drop West Indies Test with eye to the future"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২ আগস্ট ২০১৭ 
  3. "New Zealand Cricket limit Windies Tests to two"CricBuzz। সংগ্রহের তারিখ ২ আগস্ট ২০১৭ 
  4. "Pink ball to grace NZ first-class cricket in March as trial for day-night test"Stuff। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগস্ট ২০১৬ 
  5. "Plunket Shield gears up for pink-ball cricket"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৬ মার্চ ২০১৭ 
  6. "New Zealand Cricket gets nod to host its first day-night Test"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৮ আগস্ট ২০১৭ 
  7. "England ODI moved out of McLean Park"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  8. "New Zealand v England: Jonny Bairstow ton helps tourists to ODI series win"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১০ মার্চ ২০১৮ 
  9. "New Zealand v England: Ish Sodhi guides hosts to draw and series win"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৮ 
  10. "Ish Sodhi survives tense finish to win series for New Zealand"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৮ 
  11. "Black Caps recall Watling for England series"International Cricket Council। ১৩ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৩ মার্চ ২০১৮ 
  12. "Livingstone named for New Zealand as Ballance pays price"ESPN Cricinfo। ১১ জানুয়ারি ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১১ জানুয়ারি ২০১৮ 
  13. Cricket, New Zealand। "Sodhi named in ODI squad"international.nzc.nz। ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  14. "England name squad for New Zealand ODIs"England and Wales Cricket Board। ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  15. "Liam Plunkett: England and Durham bowler ruled out with hamstring tear"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  16. "Overton replaces injured Plunkett"Sky Sports। সংগ্রহের তারিখ ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  17. "Williamson doubt as NZ seek to equal best run"ESPN Cricinfo। ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  18. "England retain Anderson as vice-captain for New Zealand series"International Cricket Council। ১৩ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৩ মার্চ ২০১৮ 
  19. "Santner ruled out for six to nine months"International Cricket Council। ১৩ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৩ মার্চ ২০১৮ 
  20. "Crane ruled out, Leach called up for NZ Tests"ESPN Cricnfo। ১৫ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০১৮ 
  21. "Guptill called up as New Zealand batting cover"ESPN Cricnfo। ১৯ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মার্চ ২০১৮ 
  22. "Astle ruled out of Christchurch Test; Sodhi called-up"ESPN Cricnfo। ২৮ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০১৮ 
  23. "Ross Taylor's ton helps New Zealand beat England in ODI in Hamilton"Stuff। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  24. "Ross Taylor and Mitchell Santner give New Zealand dramatic win over England"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  25. "Santner finishes off thriller after Taylor's ton"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  26. "England level series with domineering win"। ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  27. "Individual Records: Players representing two countries"। ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  28. "New Zealand beaten in second ODI as England excel in field"। Stuff। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  29. "Kane Williamson becomes the 5th fastest batsman to score 5000 ODI runs"Cricspirit। ৩ মার্চ ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ মার্চ ২০১৮ 
  30. "Roy Reaches 2,000 One Day International Runs"Surrey County Cricket Club। সংগ্রহের তারিখ ৮ মার্চ ২০১৮ 
  31. "Ross Taylor and New Zealand achieve chasing landmarks"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৮ 
  32. "Limping Taylor belts 181* in epic New Zealand win"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৭ মার্চ ২০১৮ 
  33. "Schooling coaches, family BBQs and debut anger: how it began for Eoin Morgan"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১০ মার্চ ২০১৮ 
  34. "Bairstow produces standout performance as England take ODI series win"Eurosport। সংগ্রহের তারিখ ১০ মার্চ ২০১৮ 
  35. "NZ Cricket pulling out all the stops at Eden Park for historic day-night test"Stuff Limited। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৮ 
  36. "Moeen Ali to embrace 50th England Test"। NZME। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৮ 
  37. "England's tenth wicket out-bats other nine"। ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৮ 
  38. "Stuart Broad takes his 400th Test wicket on day one of Auckland Test"। Sky Sports। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৮ 
  39. "Stuart Broad marches on to become the youngest fast bowler to achieve 400 test scalps"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মার্চ ২০১৮ 
  40. "Kane Williamson notches 18th test century, the most by a New Zealander"Stuff NZ। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৮ 
  41. "New-ball nirvana: Anderson, Broad, Boult, Southee take all 20 wickets"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ 
  42. "Anderson's hard yards set new record"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]