সিরিয়ার ভূগোল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Syria ভূগোল
Syria
মহাদেশএশিয়া
অঞ্চললেভান্ত
আয়তন১,৮৫,১৮০ কিমি (৭১,৫০০ মা)৮৯তম
৯৯.৪% ভূমি
০.৬% জল
উপকূলরেখা১৯৩ কিমি (১২০ মা)
সীমানামোট ভূমি সীমানা:২,২৫৩  কিমি
ইরাক ৬০৫ কিমি, ইসরায়েল ৭৬ কিমি, জর্ডান ৩৭৫ কিমি, লেবানন ৩৭৫ কিমি, তুরস্ক ৮২২  কিমি
সর্বোচ্চ বিন্দুহারমন পর্বত
২,৮১৪ মিটার
সর্বনিম্ন বিন্দুঅজানা স্থান গ্যালিলি সাগর
২০০ ম (বিতর্কিত;ইজরাইল কর্তৃক শাসিত)
দীর্ঘতম নদীফোরাত
৩,৫৯৬ কিমি
বৃহত্তম হ্রদআসাদ লেক

সিরিয়া ভূমধ্যসাগরের পূর্ব প্রান্তে আরব উপদ্বীপের উত্তরে পশ্চিম এশিয়ায় অবস্থিত। এর উত্তরে তুরস্ক, পশ্চিমে ও দক্ষিণ-পশ্চিমে লেবাননইস্রায়েল, পূর্বে ইরাক এবং দক্ষিণে জর্ডান সীমান্ত রয়েছে। এটি পশ্চিমে পর্বতমালা এবং অভ্যন্তরীণ খাড়া অঞ্চল নিয়ে গঠিত পূর্বে সিরিয় মরুভূমি এবং দক্ষিণে জাবাল আল-ড্রুজ পর্বতশ্রেণি অবস্থিত । পূর্ববর্তী অংশটি ইউফ্রেটিস উপত্যকা দ্বারা দ্বিবিভক্ত। ১৯৭৩ সালে ফোরাত নদীর উপর নির্মিত একটি বাঁধের ফলে সৃষ্টি হয়েছিল আসাদ নামে একটি জলাধারের যেটি সিরিয়ার বৃহত্তম হ্রদ। সিরিয়ার সর্বোচ্চ বিন্দু হল ২,৮১৪ মি (৯,২৩২ ফু) উচ্চতায় যা মাউন্ট লেবাননের সীমান্তে অবস্থিত। আর্দ্র ভূমধ্যসাগরীয় উপকূল এবং শুষ্ক মরুভূমির মধ্যবর্তী অঞ্চলে দেশের প্রায় তিন চতুর্থাংশ জুড়ে বিস্তৃত একটি অর্ধশুষ্ক খাড়া অঞ্চল রয়েছে, যার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয় মরুভূমির উষ্ণ ও শুষ্ক বায়ু। সিরিয়ায় রয়েছে মোট ভূমির ২৮ শতাংশ আবাদী জমি , ৪ শতাংশ, স্থায়ী ফসলের জন্য নিবেদিত, ৪৬ শতাংশের মত তৃণভূমি ও চারণভূমি এবং মাত্র ৩ শতাংশ বন।

সিরিয়া সর্বমোট চৌদ্দটি গভর্নরেটে বা মুহফাজত (একবচন: মুহফাজাহ ) এ বিভক্ত রয়েছে। গভর্নরগুলি মোট ষাটটি জেলায় বা মানতিক (গান। মিন্টাকাহ ) তে বিভক্ত, যা আরও উপ-জেলা বা নওহী (গাওয়া। নাহিয়া ) এ বিভক্ত। রাজধানী দামেস্ক হল সিরিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর, এবং মহানগর এলাকায় একটি স্বীয় গভর্নোরেট রয়েছে। উত্তর সিরিয়ায় অবস্থিত আলেপ্পো (জনসংখ্যা ২,৩০১,৫৭০) হল সিরিয়ার বৃহত্তম শহর। লাতাকিয়া এবং তারতাস ভূমধ্য সাগরে অবস্থিত সিরিয়ার প্রধান বন্দর।

ভৌগলিক অঞ্চল[সম্পাদনা]

সিরিয়ার ভূগোল সিরিয়া-এ অবস্থিত
Damascus
Damascus
Aleppo
Aleppo
Deir-az-Zur
Deir-az-Zur
Hama
Hama
Homs
Homs
Latakia
Latakia
Tartous
Tartous
Apamea
Apamea
Bosra
Bosra
Map of Syria

অঞ্চলটিতে রয়েছে প্রায় ১৮৫,১৮০ বর্গ কিলোমিটার বিস্তীর্ণ মরুভূমি, সমভূমি এবং পর্বতশ্রেণী । এটি একটি উপকূলীয় অঞ্চলের সাথে একটি সংকীর্ণ,পশ্চিমে গর্ত ধারণকারী দ্বৈত পর্বত বলয় দ্বারা বিভক্ত এবং এর পূর্বে রয়েছে বেশ বিস্তৃত মালভূমি। সিরিয়ার জলবায়ু মূলত শুষ্ক; দেশের প্রায় তিন-পঞ্চমাংশে বছরে প্রায় ২৫০ মিলিমিটার (৯.৮৪ ইঞ্চি)এরও কম বৃষ্টিপাত ঘটে থাকে । তাই উর্বর জমি এ রাজ্যের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রাকৃতিক সম্পদ, এবং সেচ প্রকল্পের মাধ্যমে আবাদযোগ্য জমির পরিমাণ বৃদ্ধির চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

উপকূলীয় সমভূমি[সম্পাদনা]

ভূমধ্যসাগর বরাবর, একটি সরু উপকূলীয় সমভূমি তুরস্কের সীমানা থেকে লেবাননের দক্ষিণে বিস্তৃত রয়েছে। বালির টিলা আবৃত এই উপকূল কেবলমাত্র পার্শ্ববর্তী শৈল অন্তরীপ দ্বারা পর্বতমালা থেকে সমুদ্রের দিকে সমতল ভাবে বিস্তীর্ণ রয়েছে। প্রধান বন্দরগুলো হল লাতাকিয়া এবং টার্টোস। সিরিয়া এর ভূমধ্যসাগরীয় উপকূলরেখা হতে ৩৫ নটিক্যাল মাইল (৬৪.৮ কিমি; ৪০.৩ মা) ব্যাপী আঞ্চলিক সীমা দাবি করেছে। তারপরেও জাতিসংঘের সাগর আইন কর্তৃক অনুমোদিত 12 নটিক্যাল মাইল মেনে নিয়ে ২০০৩ সালে সিরিয়া একতরফাভাবে ঘোষণা করে তার সমুদ্র অঞ্চল।

সিরিয়ার টোগোগ্রাফি

উজানের অঞ্চলসমূহ[সম্পাদনা]

উপকূলীয় সমতলের সমান্তরালে জাবাল আন নুসায়রিয় পর্বতমালা অবস্থিত । সমুদ্রতল থেকে যার গড় উচ্চতা মাত্র ১,২১২ মিটার এবং সর্বোচ্চ শিখর নবী ইউনিস সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় 1,575 মিটার উচ্চতায় অবস্থিত। পশ্চিমা ঢালগুলো আর্দ্রতাজনিত পশ্চিমের সমুদ্রের বাতাস আবদ্ধ করে রাখে এবং একারণেই এরা পূর্বে অবস্থিত উষ্ণ ও শুষ্ক বায়ুযুক্ত ঢালগুলোর তুলনায় অধিকতর উর্বর এবং অধিক জনবহুল। লেবাননের সীমানা এবং অ্যান্টি-লেবানন পর্বতশ্রেণিতে পৌঁছানোর পূর্বে জাবাল আন নুসায়রিয়ার সীমা একটি করিডরে পরিসমাপ্ত হয়। করিডোরটি হোমস গ্যাপ নামে পরিচিত যা দিয়ে হোমস থেকে লেবাননের ত্রিপোলির বন্দর পর্যন্ত মহাসড়ক এবং রেলপথ বিদ্যমান রয়েছে। বিগত কয়েক শতাব্দী ধরেই হোমস গ্যাপ উপকূল থেকে দেশের অভ্যন্তর এবং এশিয়ার অন্যান্য অঞ্চলে একটি পছন্দনীয় বাণিজ্যিক এবং আগ্রাসনের পথ হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেছে। পূর্ব দিকে অবস্থিত আল-আনসারিয়া পাহাড় এর রেখাটি জাবাল আজ জাওয়াইয়া পর্বতশ্রেণী এবং মালভূমি অঞ্চল থেকে আল গাব উপত্যকা এর দ্বারা পৃথক হয়েছে। যেটি ওরন্তেস নদীর তীরে [১] অবস্থিত একটি উর্বর গিরিখাত।

অভ্যন্তরীণ এবং আরও দক্ষিণে, অ্যান্টি-লেবানন পর্বতশ্রেণী সিরিয়-লেবানিজ সীমান্তে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২,৭০০ মিটার উচ্চতায় শীর্ষে পৌঁছে এবং মালভূমি অঞ্চলের দিকে পূর্বে বিস্তৃত হয়। পূর্বের ঢালগুলতে সামান্য বৃষ্টিপাত হয়ে থাকে আর গাছপালায় আবৃত থাকে এবং পরবর্তীতে মরুভূমির সাথে মিশে যায়।

স্লিনফাহ, সিরিয়ার উপকূলীয় পর্বতমালা রেঞ্জে অবস্থিত

দক্ষিণ-পশ্চিমে, সিরিয়া ও লেবাননের সীমান্তে সুউচ্চ পর্বত হার্মোন (জাবাল অ্যাশ শায়খ) হাওরান মালভূমি তে নেমে আসে এবং ভূমধ্যসাগর থেকে প্রবাহিত মৌসুমি-বায়ু গ্রহণ করে। যাইহোক, মাউন্ট হার্মানের সর্বনিম্ন ঢালগুলো ছাড়া প্রায় সমস্তই অনাবৃত থাকে। আগ্নেয় শঙ্কু, যার বেশিরভাগই ৯০০ মিটারেরও বেশি পৌঁছায়, দামেস্কের দক্ষিণে এবং অ্যান্টি-লেবানন পর্বতমালার পূর্বে উন্মুক্ত, ঘূর্ণায়মান, একদা উর্বর হাওরান মালভূমিতে বিক্ষিপ্ত হয়ে থাকে। হাওরানের দক্ষিণ-পশ্চিমে জাবাল আল-ড্রুজ রেঞ্জের উচ্চ আগ্নেয়গিরির অঞ্চল অবস্থিত যেটি দেশটির দ্রুজ জনবসতির আবাসস্থল। এটি হররাত আশ শাম আগ্নেয় ক্ষেত্রের একটি অংশ যা সৌদি আরব পর্যন্ত সম্পূর্ণ পথে প্রসারিত। জাবাল আল-দ্রুজয়ের উত্তর-পূর্বে আল-সাফা নামক একটি বৃহৎ লাভা ক্ষেত্র রয়েছে যা উপগ্রহ হতে দৃশ্যমান।

পূর্ব মালভূমি[সম্পাদনা]

সম্পুর্ণ পূর্ব মালভূমি অঞ্চলটি জবাল আর রুওয়াক, জাবাল আবু রুজমাইন এবং জেবেল বিশরি দ্বারা পাহাড়ের নিম্ন শৃঙ্খল দ্বারা বিভক্ত, যা জাবাল আল আরব থেকে শুরু করে ফোরাত পর্যন্ত উত্তর-পূর্ব দিকে বিস্তৃত রয়ছে। এই পর্বতমালার দক্ষিণে হামদ নামে পরিচিত একটি অনুর্বর মরুভূমি রয়েছে। জাবাল আর রুওয়াকের উত্তরাংশে এবং হোমস শহরের পূর্বপার্শ্বে হমস মরুভূমি নামেক আরও একটি অনুর্বর অঞ্চল অবস্থিত, যার পৃষ্ঠটি দৃঢ় ও পাকানো ময়লাযুক্ত।

তুরস্কের পর্বতমালায় উত্পন্ন ইউফ্রেটিস নদীর উত্তর-পূর্বাঞ্চল, যা সিরিয়া জুড়ে তির্যকভাবে ইরাকে প্রবাহমান । এটি উর্বর জাজিরা অঞ্চল নামে পরিচিত । এই অঞ্চলটি ফোরাত, বালখ এবং খাবুরের দুটি শাখা নদীর মাধ্যমে জল সরবরাহ করা হয়। ১৯৬০ এবং ১৯৭০ এর দশকে এই অঞ্চলে সেচ ব্যবস্থার বেশ উন্নতি হয়েছিল এবং যথেষ্ট পরিমাণে সিরিয়াল এবং তুলা ফসল সরবরাহ সম্ভব হয়েছিল। জাজিরার চরমভাবাপন্ন উত্তর-পূর্বাঞ্চলে তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাস আবিষ্কারগুলো এই অঞ্চলের অর্থনৈতিক সম্ভাবনাকে উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করেছে।

জল[সম্পাদনা]

2002 সালের জুনে জায়েজুন বাঁধ ভেঙে যাওয়ার পরে উত্তর সিরিয়ায় বন্যা হয়েছিল

দেশটির নৌপথ কৃষি বিকাশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। দীর্ঘতম ও সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ নদী হ'ল ইউফ্রেটিস, যা সিরিয়ার জলসম্পদের ৮০ শতাংশেরও বেশি অংশের প্রতিনিধিত্ব করে। এর প্রধান বাম-তীরের শাখা-প্রশাখাসমূহ , বালখ এবং খাবুর নামক একধরনের ছোট বহুবর্ষজীবী নদী যাদের উভয়ই সাইরো-তুর্কি সীমান্ত অঞ্চলে উত্থিত হয়। ইউফ্রেটিসের ডান তীরের শাখা প্রশাখাসমূহ বেশিরভাগ সময়ই ছোট মরসুমের স্রোত যা ওয়াদি হিসেবে উল্লেখ করা হয়। ১৯৭৩ সালে সিরিয়ায় রাক্কা শহর থেকে উজানের দিকে ফোরাত নদীর তাবকা বাঁধ নির্মাণ কাজ শেষ করা হয়। এই বাঁধটির ফলে হ্রদ আসাদ (বুহায়রাত আল আসাদ) নামে একটি জলাধার সৃষ্টি হয়েছিল যা প্রায় ৮০ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং গড়ে আট কিলোমিটার প্রস্থের ছিল।

দামেস্কের পূর্বদিকে অবস্থিত শুষ্ক মালভূমি অঞ্চল জুড়ে, ওয়েজস্রোত, স্রোত এবং কতক অভ্যন্তরীণ নদী রয়েছে যার মাধ্যমে জলাভূমি এবং যেসব ছোট ছোট হ্রদসমূহ খালি থাকে সেগুলোতে স্থানীয় সেচের জন্য জল সরবরাহ করা হয়। এর মধ্যে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ হ'ল বারাদা নদী যা অ্যান্টি লেবানন পর্বতমালায় উৎপন্ন হয়ে মরুভূমিতে মিলিয়ে যায়। বারাদা দামাস্কাসের সাইট আল গুতাহ মরূদ্যান তৈরি করে। প্রায় ৩৭০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই অঞ্চলটি প্রাচীন কাল থেকেই দামেস্ককে সমৃদ্ধ করে আসছে। ১৯৮০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে আল গুতাহ এর আকার ধীরে ধীরে শুকিয়ে খসখসে হয়ে পড়তে শুরু করছিল যার কারণ হিসেবে শহরতলির আবাসন ও হালকা শিল্পের দামাস্কাস থেকে মরূদ্যানে বিস্তৃতিকে দায়ী করা যায়।

খাবুর নদীর হতে জলপ্রবাহের মাধ্যমে (নাহর আল খাবুর) জাজিরার অঞ্চলসমূহকে আবাদের আওতায় আনা হয়েছে। সিন নামে একটি গৌণ নদী রয়েছে যা টারতাস গভর্নরেট এবং লাতাকিয়া গভর্নরেটের সীমানা চিহ্নিত করে লাবাকিয়া বন্দর থেকে প্রায় 32 কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে জাবাল আন নুসায়রিয়ার পশ্চিমাঞ্চলে সেচ প্রদানে ব্যবহৃত হয়। দক্ষিণে যে ঝরনাটি উপরে অবস্থিত ইয়ারমুক নদীকে জল প্রবাহিত করে, সেচের জন্য তার দিক পরিবর্তন করে ফেলা হয়েছে। ভূগর্ভস্থ জলের জলাধারগুলি মূলত প্রাকৃতিক ঝর্ণা সেচ এবং পানীয় উভয়ের জন্যই ব্যবহৃত হয়। ভূগর্ভস্থ জলের উৎস সমূহের মধ্যে সবচেয়ে সমৃদ্ধ হ'ল আল গাব অঞ্চল, যেখানে প্রায় ১৯ টি প্রধান ঝরনা এবং ভূগর্ভস্থ নদী বিদ্যমান রয়েছে যা মিলিতভাবে প্রতি মিনিটে হাজার হাজার লিটার জল সরবরাহ করে থাকে।

জলবায়ু[সম্পাদনা]

সিরিয়া ক্যাপেন জলবায়ু শ্রেণিবিন্যাস অঞ্চল মানচিত্র

জলবায়ুর তারতম্যই সিরিয়ার সর্বাধিক আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য। আর্দ্র ভূমধ্যসাগরীয় উপকূল এবং শুষ্ক মরুভূমির মধ্যবর্তী একটি লম্বালম্বি স্টেপ্প অঞ্চল রয়েছে যা দেশেটির প্রায় তিন চতুর্থাংশ জুড়ে বিস্তৃত । পশ্চিমে অ্যান্টি লেবানন পর্বতমালা এবং জাবাল একটি নুসায়রিয়া,উত্তরে তুর্কি পর্বতমালা , এবং দক্ষিণ পূর্বদিকে রয়েছে জাবাল আল আরব, জাবাল আর রুওয়াক, জাবাল আবু রুজমাইন, এবং জাবাল বিশরি রেঞ্জ।

এই অঞ্চলে মোটামুটি প্রচুর বৃষ্টিপাত হয় , বার্ষিক বৃষ্টিপাত ৭৫০ এবং ১,০০০ মিলিমিটার (৩০ এবং ৪০ ইঞ্চি) । ভূমধ্যসাগরীয় বায়ু দ্বারা চালিত বেশিরভাগ বৃষ্টিপাত ঘটে থাকে নভেম্বর থেকে মে মাসের মধ্যবর্তী সময়ে। বার্ষিক গড় তাপমাত্রা জানুয়ারীতে ৭ °সে (৪৫ °ফা) থেকে আগস্টে ২৭ °সে (৮১ °ফা) । উচ্চতর শৈলশিরা থাকার দরুন জাবাল আন নুসাইরিয়া পর্বতশ্রেণী ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল থেকে বেশিরভাগ বৃষ্টিপাত ধারণ করে, তাই এই পাহাড়গুলির পূর্বদিকে অবস্থিত আল গাব নিম্নভূমিতে তুলনামূলকভাবে শুষ্ক ও উষ্ণ বায়ু প্রবাহিত হয় এবং মৃদু বৃষ্টিপাত ঘটে থাকে। তুষারপাত কোনও মৌসুমে ঘটে কিনা তা জানা যায়না, যদিও জাবাল আন নুসায়রিয়া পর্বতের শিখর কখনও কখনও তুষার-আচ্ছাদিত থাকে।

আরও দক্ষিণে, ভূমধ্যসাগর থেকে বৃষ্টি ধারণকারী মেঘমালা জাবাল আন নুসায়রিয়া এবং অ্যান্টি-লেবানন পর্বতমালার মধ্যবর্তী ফাঁক দিয়ে অতিক্রম করে হোমস অঞ্চল এবং কখনও কখনও শহরের পূর্বদিকে অবস্থিত স্টেপ্প অঞ্চলে পৌঁছে। যদিও আরও দূরে দক্ষিণে অবস্থিত অ্যান্টি-লেবানন পর্বতমালা ভূমধ্যসাগর থেকে ধেয়ে আসা মেঘমালা কে বাধাপ্রাপ্ত করে এবং এতে করে রাজধানী দামেস্ক সহ গোটা অঞ্চলটিতে বার্ষিক গড় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ হয়ে দাঁড়ায় ২০০ মিলিমিটার (৮ ইঞ্চি) এরও কম। আর তাপমাত্রা জানুয়ারিতে ৪ °সে (৩৯ °ফা) থেকে জুলাই এবং আগস্টে ৪০ °সে (১০৪ °ফা) এর মধ্যে উঠানামা করে। রাজধানীর আশেপাশে বিস্তৃত স্থানটিতে রোমান আমলে নির্মিত বড়দা নদী থেকে সেচ প্রদানের সুব্যবস্থা রয়েছে। একারণে স্থানটি বেশ ফলপ্রসূ ও আবাদযোগ্য।

দক্ষিণ-পূর্বে, আর্দ্রতা হ্রাস পায় এবং বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ১০০ মিলিমিটার (৪ ইঞ্চি) নিচে নেমে আসে। তবুও, সামান্য পরিমাণে যে বৃষ্টিপাত ঘটে সেটিও বছরের পর বছর অত্যন্ত পরিবর্তনশীল হয়ে থাকে। যার ফলে সৃষ্টি হয় পর্যায়ক্রমিক খরা। জাবাল আর রুওয়াকের দক্ষিণে অবস্থিত পাথুরে মরুভূমি, জাবাল আবু রুজমাইন এবং জাবাল বিশরির পর্বত সীমায় জুলাই মাসে তাপমাত্রা প্রায়শই ৪৫ °সে (১১৩ °ফা) ছাড়িয়ে যায় । ফেব্রুয়ারি এবং মে মাসে মরুভূমির বালু ঝড়ের কবলে প্রচুর গাছপালার ক্ষতি হয় এবং পশু চারণ বাধাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। মরুভূমির ঠিক উত্তরে এবং আল গাবের নিম্নভূমির পূর্বদিকে মালভূমির বিস্তীর্ণ অংশ রয়েছে, যেখানে গ্রীষ্মের সময় মেঘহীন আকাশ এবং দিনের বেলা উচ্চ তাপমাত্রা বয়ে যায়। তবে সাধারণত নভেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত তুষারপাত দেখা যায়। বার্ষিক গড় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ২৫০ মিলিমিটার (১০ ইঞ্চি) তবে তা দক্ষিণ মরুভূমি অঞ্চল বরাবর একটি বৃহদাকার বলয়ে ২০০ মিলিমিটার (৮ ইঞ্চি) এরও কম হয়ে থাকে । এই বলয়ে বসতি স্থাপন এবং চাষের জন্য শুধুমাত্র ফোরাত এবং খাবুর নদীসমূহ হতে পর্যাপ্ত পরিমাণে জল সরবরাহ করা হয়।

Damascus[২]
জলবায়ু লেখচিত্র
জাফেমামেজুজুসেডি
 
 
২৮
 
১৩
 
 
২৩
 
১৫
 
 
১৭
 
১৯
 
 
৭.৯
 
২৫
 
 
৩.৩
 
৩০
১১
 
 
০.৪
 
৩৪
১৪
 
 
 
৩৭
১৭
 
 
 
৩৬
১৭
 
 
০.২
 
৩৩
১৩
 
 
৭.১
 
২৮
 
 
২১
 
২০
 
 
২৬
 
১৪
সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সর্বোচ্চ এবং সর্বোনিম্ন গড়
মিলিমিটারে বৃষ্টিপাতের মোট পরিমাণ
Lattakia
জলবায়ু লেখচিত্র
জাফেমামেজুজুসেডি
 
 
১৬৩
 
১৬
 
 
১০০
 
১৬
 
 
৯১
 
১৮
১১
 
 
৪৪
 
২২
১৪
 
 
২১
 
২৪
১৭
 
 
৪.৫
 
২৭
২১
 
 
০.৯
 
২৯
২৪
 
 
৪.৫
 
৩০
২৫
 
 
৭.৮
 
২৯
২২
 
 
৬৭
 
২৭
১৮
 
 
৯৫
 
২২
১৪
 
 
১৬১
 
১৭
১০
সেলসিয়াস তাপমাত্রায় সর্বোচ্চ এবং সর্বোনিম্ন গড়
মিলিমিটারে বৃষ্টিপাতের মোট পরিমাণ

সম্পদ এবং জমি ব্যবহার[সম্পাদনা]

প্রাকৃতিক সংস্থান: পেট্রোলিয়াম, ফসফেটস, ক্রোম এবং ম্যাঙ্গানিজ আকরিকগুলি, ডাল, লোহা আকরিক, শিলা লবণ, মার্বেল, জিপসাম, জলবিদ্যুৎ

ভূমির ব্যবহার:আবাদযোগ্য জমি: 24.8%</br> স্থায়ী ফসল: ৪.4747%অন্যান্য: 70.73% (2005)

সেচ জমি: 13.560 কিমি 2 (2003)

মোট পুনর্নবীকরণযোগ্য জলের সংস্থান: 46.1 কিউ কিমি (1997)

অঞ্চল এবং সীমানা[সম্পাদনা]

অঞ্চল:মোট: 185,180 কিমি²

জমি: 183,630 কিমি²

জল: 1,550 কিমি²

দ্রষ্টব্য: 1,295 অন্তর্ভুক্ত ইস্রায়েলি-অধিকৃত অঞ্চল কিমিঃ

জমির সীমানা:

মোট: 2,253 কিমি

সীমান্ত দেশ: ইরাক 605 কিমি, ইস্রায়েল 76 76 কিমি, জর্ডান 375 কিমি, লেবানন 375 কিমি, তুরস্ক 822 কিমি

উপকূলরেখা:

১৯৩ কিলোমিটার (১২০ মা)

সামুদ্রিক দাবি:

সংক্ষিপ্ত অঞ্চল: ৪১ নটিক্যাল মাইল (৭৫.৯ কিমি; ৪৭.২ মা)

আঞ্চলিক সমুদ্র: ৩৫ নটিক্যাল মাইল (৬৪.৮ কিমি; ৪০.৩ মা)

উচ্চতা চরম:

সর্বনিম্ন পয়েন্ট: লেক টিবেরিয়াস (গালিলির সমুদ্র) এর নিকটে নামহীন অবস্থান -200 মি

সর্বোচ্চ পয়েন্ট: মাউন্ট হার্মান 2,814 মি

পরিবেশগত উদ্বেগ[সম্পাদনা]

প্রাকৃতিক বিপদ: ধূলিঝড়, বালু ঝড়, ভূমিকম্প

পরিবেশ - বর্তমান সমস্যা: বনভূমি; overgrazing; মাটি ক্ষয়; মরুভূমি ; কাঁচা নর্দমার ডাম্পিং থেকে জল দূষণ এবং পেট্রোলিয়াম পরিশোধন থেকে বর্জ্য; অপরিচ্ছন্ন জল সরবরাহ

পরিবেশ - আন্তর্জাতিক চুক্তি:

পার্টিতে: জীববৈচিত্র্য, জলবায়ু পরিবর্তন, মরুভূমি, বিপন্ন প্রজাতি, বিপজ্জনক বর্জ্য, ওজোন স্তর সুরক্ষা, জাহাজ দূষণ ( মার্পোল OL৩/78 )), জলাভূমি

স্বাক্ষরিত, তবে অনুমোদিত নয়: পরিবেশগত পরিবর্তন

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Research Divi Federal Research Division, Federal Research Division (২০০৪)। "Land, Water and Climate"। Syria a Country Study। Kessinger Publishing। পৃষ্ঠা 74। আইএসবিএন 9781419150227 
  2. Worldweather.wmo.int - Syria

bn:সিরিয়ার ভূগোল