ভূমধ্যসাগর

স্থানাঙ্ক: ৩৫° উত্তর ১৮° পূর্ব / ৩৫° উত্তর ১৮° পূর্ব / 35; 18
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভূমধ্যসাগর
Mediterranee 02 EN.jpg
ভূমধ্যসাগরের মানচিত্র
অবস্থানপশ্চিম ইউরোপ, দক্ষিণ ইউরোপ, উত্তর আফ্রিকাপশ্চিম এশিয়া
স্থানাঙ্ক৩৫° উত্তর ১৮° পূর্ব / ৩৫° উত্তর ১৮° পূর্ব / 35; 18
ধরনসাগর
প্রাথমিক অন্তর্প্রবাহআটলান্টিক মহাসাগর, মার্মারা সাগর, নীল নদ, এব্রো নদী, হ্রনি নদী, চেলিফ নদী, পো নদী
অববাহিকার দেশসমূহ
প্রায় ৬০টি
পৃষ্ঠতল অঞ্চল২৫,০০,০০০ কিমি (৯,৭০,০০০ মা)
গড় গভীরতা১,৫০০ মি (৪,৯০০ ফু)
সর্বাধিক গভীরতা৫,২৬৭ মি (১৭,২৮০ ফু)
পানির আয়তন৩৭,৫০,০০০ কিমি (৯,০০,০০০ মা)
বাসস্থান সময়]]৮০-১০০ বছর[১]
দ্বীপপুঞ্জ3300+
জনবসতিআলেকজান্দ্রিয়া , আলজিয়ার্স, এথেন্স, বার্সেলোনা , বৈরুত, ইজমির, রোম, স্পিল্ট, তানজাহ, তেল আবিব, ত্রিপোলি, তিউনিস (সম্পূর্ণ তালিকা)

ভূমধ্যসাগর (ইংরেজি: Mediterranean Sea) ইউরোপআফ্রিকা মহাদেশের মধ্যবর্তী একটি সাগর। এটি জিব্রাল্টার প্রণালী দ্বারা আটলান্টিক মহাসাগরের সাথে সংযুক্ত এবং উত্তরে দক্ষিণ ইউরোপঅ্যানাটোলিয়া, দক্ষিণে উত্তর আফ্রিকা, পূর্বে লেভ্যান্ট এর দ্বারা প্রায় পুরোপুরি আবদ্ধ। যদিও সাগরটিকে মাঝে মাঝে আটলান্টিক মহাসাগরের অংশ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।ভূতাত্ত্বিক প্রমাণ নির্দেশ করে যে ভূমধ্যসাগর প্রায় ৫৯ লক্ষ বছর আগে আটলান্টিক মহাসাগরের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিল এবং ৫৩ লক্ষ বছর আগে জানক্লিন বন্যায় পুনরায় পূর্ণ হওয়ার আগ পর্যন্ত আংশিক বা সম্পূর্ণভাবে প্রায় ৬ লক্ষ বছর ধরে শুষ্ক ছিল।

ভূমধ্যসাগরের আয়তন প্রায় ২৫ লক্ষ বর্গকিলোমিটার (৯,৬৫,০০০ বর্গমাইল) যা বৈশ্বিক মহাসাগরের পৃষ্ঠতলের মাত্র ০.৭%। কিন্তু জিব্রাল্টার প্রণালী দ্বারা আটলান্টিকের প্রধান জলভাগের সঙ্গে সংযুক্ত স্থানে এটি মাত্র ১৪ কিলোমিটার (৯ মাইল) প্রশস্ত।[২][৩] ভূমধ্যসাগরের গড় গভীরতা প্রায় ১,৫০০মি (৪৯২১ফুট) এবং সর্বোচ্চ গভীরতা ৫,২৬৭মি (১৭২৮০ ফুট) যা আয়োনীয় সাগরের ক্যালিপ্সো ডিপে অবস্থিত।এ স্থান ৩৬°৩৪′ উত্তর ২১°৮′ পূর্ব / ৩৬.৫৬৭° উত্তর ২১.১৩৩° পূর্ব / 36.567; 21.133 অক্ষাংশের মধ্যে অবস্থিত।এর পূর্ব থেকে পশ্চিমের দৈর্ঘ্য অর্থাৎ জিব্রাল্টার প্রণালী থেকে ইস্কেন্দেরুন উপসাগরে তুরস্কের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় উপকূল পর্যন্ত দূরত্ব প্রায় ৪০০০ কিমি।

ভূমধ্যসাগর

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Pinet, Paul R. (২০০৮)। Invitation to OceanographyPaleoceanography30। Jones & Barlett Learning। পৃষ্ঠা 220। আইএসবিএন 978-0-7637-5993-3 
  2. "Microsoft Word — ext_abstr_East_sea_workshop_TLM.doc" (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১০ 
  3. "Researchers predict Mediterranean Sea level rise — Headlines — Research – European Commission"। Europa। ১৯ মার্চ ২০০৯। ১১ মে ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১০