বাঙালি হিন্দু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাঙালি হিন্দু
Bengali Swastika.png
বাঙ্গালি হিন্দু স্বস্তিক চিহ্ন
মোট জনসংখ্যা
১০৩,০০০,০০০- ১১০,০০০,০০০ বিশ্বব্যাপী[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
উল্লেখযোগ্য জনসংখ্যার অঞ্চলসমূহ
 ভারত৮৫,০০০,০০০ - ৮৬,০০০,০০০[১]
 বাংলাদেশ১৭,০০০,০০০ - ২০,০০০,০০০[২]
 মায়ানমার৫৬,৮০৮[৩]
 যুক্তরাজ্য৩০,০০০[৪]
 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৪৭,৬০০[১]
   নেপাল২৩,৬০০[৫]
 কানাডা১২,১৩০[৬]
 অস্ট্রেলিয়া৩,০০০[৭]
 মালয়েশিয়া২,৫০০[৮]
 থাইল্যান্ড১,৫৮৪
 সুইডেন১,৫০০[৯]
ভাষা
বাংলা
ধর্ম
হিন্দু
সংশ্লিষ্ট জনগোষ্ঠী
হিন্দু, বাঙালি,বাংলাদেশী,বাঙালি হিন্দুদের পদবীসমূহ

ভারতীয় উপমহাদেশের বঙ্গ বা বাংলা অঞ্চলে বসবাসকারী ভূমিপুত্র বা নৃতাত্ত্বিক হিন্দু জনগোষ্ঠী বাঙালি হিন্দু নামে পরিচিত। বাঙালি হিন্দুরা বাংলা ভাষায় কথা বলে, যে ভাষাটি ইন্দো-অ্যারিয়ান ভাষার পরিবারভুক্ত। বাঙালি হিন্দুরা মূলত হিন্দু দর্শনের অন্তর্গত শাক্তবৈষ্ণব মতবাদের অনুসারী।[১০] [১১]


বাঙালি হিন্দুর নামকরণ[সম্পাদনা]

জাতিতত্ব[সম্পাদনা]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রাচীন কাল[সম্পাদনা]

মধ্যযুগ[সম্পাদনা]

আধুনিক যুগের প্রথমভাগ[সম্পাদনা]

ব্রিটিশ শাসন, রেনেসাঁ, স্বাধীনতা সংগ্রাম[সম্পাদনা]

দেশবিভাগোত্তর কাল[সম্পাদনা]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

সাহিত্য[সম্পাদনা]

শিল্পকলা[সম্পাদনা]

ধর্ম[সম্পাদনা]

লোকাচার[সম্পাদনা]

বাঙালিরা শিল্প-সংস্কৃতিতে কৃতিত্বের জন্য বিখ্যাত। নানা বাঙালি লেখক, নাট্যকার, সুরকার, চিত্রকর, এবং চলচ্ছিত্রকাররা ভারতে শিল্প ও কলাচর্চার উন্মেষ ও বিকাশে মুখ্য ভুমিকা রাখেন। ঊনবিংশ শতকের বাংলার নবজাগরণ মূলে ছিল কিছু ব্রিটিশদের দ্বারা এদেশে পাশ্চাত্যের শিক্ষার ও পাশ্চাত্যীয় আধুনিকমনস্কতার অনুপ্রবেশ। অন্যান্য ভারতীয়দের তুলনায় বাঙালিরা অপেক্ষাকৃত দ্রুত ব্রিটিশদের প্রথা শিখে ফেলেছিল ও ব্রিটিশদের-ই নিজেদের দেশে ব্যবহৃত প্রশাসনব্যবস্থা ও আইনকানুন ইত্যাদির জ্ঞান পরবর্তী স্বাধীনতা আন্দলনে কাজে লাগিয়েছিল। বাংলার নবজাগরণের মধ্যেই লুকিয়ে ছিল জায়মান রাজনৈতিক ভারতীয় জাতীয়তার বীজ ও আধুনিক ভারতের কলা ও সংস্কৃতির প্রথম উন্মোচন। বাঙালি কবি ও ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯১৩ সালে নোবেল পুরস্কার জয় করে এশিয়ায় সাহিত্যে প্রথম নোবেল বিজয়ী হন।

উৎসব[সম্পাদনা]

বাঙালি হিন্দু উৎসব প্রিয় জাতি। বাংলা প্রবাদ বাক্যে "বারো মাসে তেরো পার্বণ" এ তার উল্লেখ রয়েছে। বাঙালি হিন্দু মূলত শাক্তধর্ম বিশ্বাসী। তাই বাংলার প্রধান উৎসব গুলিতে শাক্তধর্মীয় প্রভাব পাওয়া যায়। বাংলার মাটিতে হাজার হাজার বছর ধরে মাতৃকা উপাসনা হয়ে আসছে। এছাড়াও বৈষ্ণব ধর্মীয় ও শৈবধর্মের অনুষ্ঠান গুলি বেশ জনপ্রিয়। বাঙালি হিন্দুর ধর্ম বিশ্বাস ও উৎসবে বৌদ্ধ ধর্ম এর গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব লক্ষ করা যায়। দুর্গাপূজা বাঙালি হিন্দুর প্রধান ও শ্রেষ্ঠ উৎসব। কালীপূজাও বাঙালি হিন্দুর অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব হিসেবে বিবেচিত হয়। এছাড়া পহেলা বৈশাখ,সরস্বতী পূজা, কোজাগরী লক্ষ্মী পুজো, জগদ্ধাত্রী পূজা, নবদ্বীপের শাক্তরাস, মহালয়া তর্পণ ও চন্ডীপাঠ,বাসন্তী পূজা,মনসা পূজা, শীতলা পূজা, কার্ত্তিক পূজা,কাত্যায়নি পুজো, শিব রাত্রি, চড়ক, অক্ষয় তৃতীয়া,কৌশিকী অমাবস্যা, জামাই ষষ্ঠি, ভাইফোঁটা, জন্মাষ্টমী,দোলযাত্রা, বৈষ্ণব রাসযাত্রা, ঝুলন পূর্ণিমা, নবান্ন, বসন্ত উৎসব, মকর স্নান , গম্ভীরা ইত্যাদি অনুষ্ঠিত হয়।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

নোট[সম্পাদনা]

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Sanghamitra, Niyogi (২০০৮)। "Immigrant Sub-National Ethnicity: Bengali-Hindus and Punjabi-Sikhs in the San Francisco Bay Area"Paper presented at the annual meeting of the American Sociological Association Annual Meeting, Sheraton Boston and the Boston Marriott Copley Place, Boston on 31 July 2008। Unpublished manuscript। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১০ 
  2. "The Hindu Bengali of Bangladesh"। Ethnologue.com। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১০ 
  3. "Bengali of Myanmar (Burma)"। Joshua Project। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১০ 
  4. "What Are London Kalibari's Aims for the Future?"। London Kalibari। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১০ 
  5. "Ethnologue report for language code: ben"। Bethany World Prayer Center। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১০ 
  6. "Ethnic Origin (247), Single and Multiple Ethnic Origin Responses (3) and Sex (3) for the Population of Canada, Provinces, Territories, Census Metropolitan Areas and Census Agglomerations, 2006 Census – 20% Sample Data"। Statistics Canada। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১০ 
  7. The Australian people:an encyclopedia of the nation, its people and their origins। Cambridge University Press। ২০০১। পৃষ্ঠা 186। আইএসবিএন 9780521807890। সংগ্রহের তারিখ ৬ ডিসেম্বর ২০১০ 
  8. "Bengali" (PDF)। Asia Harvest। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০১১ 
  9. "Indian Associations and portals in Sweden"। GaramChai.com। সংগ্রহের তারিখ ১৭ অক্টোবর ২০১০ 
  10. "What Is Hinduism?", p. 27
  11. "The Home and the World", by Rabindranath Tagore, p. 320