ফ্রেইদা পিন্টো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ফ্রেইদা পিন্টো
Freida Pinto 2012.jpg
২০১২ সালের সেপ্টেম্বরে জাগের-লিও-কলচার নৈশ ভোজে পিন্টো
জন্ম ফ্রেইদা সেলেনা পিন্টো
(১৯৮৪-১০-১৮) ১৮ অক্টোবর ১৯৮৪ (বয়স ৩২)
মুম্বাই, মহারাষ্ট্র, ভারত
পেশা অভিনেত্রী, মডেল, উপস্থাপক
কার্যকাল ২০০৫–বর্তমান

ফ্রেইদা সেলেনা পিন্টো (জন্মঃ ১৮ অক্টোবর ১৯৮৪)[১] একজন ভারতীয় অভিনেত্রী এবং মডেল। তিনি মাঙ্গালরিয়ান ক্যাথলিক বংশোদ্ভদ, শৈশব থেকে তিনি একজন অভিনেত্রী হতে চেয়েছিলেন। চলচ্চিত্রে অভিষেকের পূর্বে, তিনি মডেল এবং টেলিভিশন উপস্থাপক হিসেবে কাজ করতেন, কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থায় তিনি নাটকে অভিনয় করেন। পিন্টো তার মডেলিং চার বছর পর্যন্ত কাজ করে যান এবং মুম্বাইয়ে অবস্থিত “বেরি জন’স অ্যাকটিং স্টুডিও” তে একটি অভিনয় কোর্স করার জন্য ভর্তি হন, যেখানে তাকে বেরি জন’স অভিনয়ের প্রশিক্ষণ দিত।

পিন্টো ২০০৮ সালে বৃটিশ ভারতীয় নাটক চলচ্চিত্র “স্লামডগ মিলিয়নীয়ার” সিনেমায় তিনি “লতিকা” নামে একটি চরিত্রে অভিনয় করেন, এই সিনেমার মাধ্যমে তিনি চলচ্চিত্র অভিনয় জগতে অভিষেক করেন। এই সিনেমাতে তার অভিনয় স্বীকৃতিপ্রাপ্ত হয় এবং তিনি "পাল্ম স্প্রিং আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে" "অনবদ্য অভিনয় পুরষ্কার" ("Breakthrough Performance Award") এবং মোশন পিকচারে অভিনয়ের জন্য "স্ক্রিন অ্যাকটর’স গিল্ড অনবদ্য অভিনয় পুরষ্কার" পুরষ্কার অর্জন করে। এছাড়াও, এই সিনেমায় তার কাজের জন্যে তিনি বিভিন্ন পুরস্কার অনুষ্ঠানে যেমনঃ "ব্রিটিশ একাডেমী ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড" (BFTA) এবং "MTV মুভ্যি অ্যাওয়ার্ডস" সহ আরো প্রচুর পুরস্কারের জন্যে মনোনয়নপ্রাপ্ত হন। এরপর থেকে তিনি ব্রিটিশ-ভারতীয়, ভারতীয়-আমেরিকান প্রযোজনায় কয়েকটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন, বিশেষ করে, ইউ উইল মিট এ টল ডার্ক স্ট্রেইঞ্জার (You Will Meet a Tall Dark Stranger), রাইস অব দ্য প্লানেট অব দ্য অ্যাপস (Rise of the Planet of the Apes), ইম্মর্টাল্‌স (Immortals) and তৃষ্ণা (Trishna)। এসব চলচ্চিত্রে তিনি নামচরিত্রে অভিনয় করেন।

পিন্টো "আগাসি ফাউন্ডেশনের" (Agassi Foundation) সদস্য, এটি একটি আন্দ্রে আগাসি এবং স্টেফি গ্রাফ কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান যা সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষাদান করে।

শৈশব এবং মডেলিং কর্মজীবন[সম্পাদনা]

পিন্টো মুম্বাইয়ের একটি মাঙ্গালরিয়ান ক্যাথলিক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।[২][৩][৪] তার মা সিলভিয়া গুরুগাঁর সেন্ট জন’স উচ্চ বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ, এবং তার বাবা ফ্রেডরিক ব্যাংক অব বারোডা’র একজন সিনিয়র শাখা ব্যবস্থাপক।[৫] পিন্টোর একজন বড় বোনও আছে, যিনি সংবাদ চ্যানেল NDTV এর সহকারী প্রযোজক হিসেবে কর্মরত।[৬] পিন্টোর যখন পাঁচ বছর বয়স তখন থেকেই তিনি অভিনয় করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।[৭] পিন্টো মুম্বাইয়ের মালাদে অবস্থিত কার্মেল অব সেন্ট যোসেফ বিদ্যালয়ে পড়াশুনা করেন, যেখানে তিনি বিভিন্ন খেলাধুলায় অংশগ্রহণ এবং বিদ্যালয়ের সঙ্গীতদলে গান করতেন। যকন দশম শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হন, সুস্মিতা সেন তখন মিস ইউনিভার্স ১৯৯৪ জিতেন, যা তাকে অভিনেত্রী হতে উৎসাহ দেয় এবং তার জীবনের স্থির লক্ষ্য হিসেবে প্রমাণ দেয়।[৮][৯] তিনি মুম্বাইয়ের সেন্ট যেভিয়ার’স কলেজ প্রধানত ইংরেজী সাহিত্যের উপর স্নাতক সম্পন্ন করেন এবং তার স্নাতকে তার অপ্রধান বিষয় ছিল মনোবিজ্ঞান এবং অর্থনীতি[৭][১০][১১]

পিন্টো সালসা এবং ভারতীয় ধ্রুপদী নৃত্যে পারদর্শী।[১২] কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থায়, তিনি কার্যকরভাবে নাটকে অংশ নিতেন।[৯] এরপর তিনি “এলিট মডেল ম্যানেজমেন্ট” নামে একটি প্রতিষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন এবং সেখানে আড়াই বছর মডেলিং করেন।[৭] পিন্টো অনেক টেলিভিশন এবং ছাপানো বিজ্ঞাপনে অংশ নেন, যাতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান যেমন, “রিগলে’স চ্যুয়িং গাম”, “স্কোডা”, “ভোডাফোন ইন্ডিয়া”, “ভারতী এয়ারটেল”, “ভিসা”, “ই-বে” এবং “ডি-বিয়ার্স” সহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন প্রচারিত হত।[৫] তিনি চার বছর ধরে মডেল হিসেবে কাজ করে যান এবং তাকে বিভিন্ন প্রচারিত অনুষ্ঠান এবং ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে যেমন, “ফেমিনা” এবং “FNL” তে দেখা যায়।[৫][৬] পিন্টো মুমাবিয়ের আন্ধেরীতে অবস্থিত “দ্য বেরি জন’স অ্যাকটিং স্টুডিও” (The Barry John's Acting Studio) তে অভিনয় কোর্সে অংশ নেন এবং তিনি বেরি জনেস কাছে অভিনয়ের প্রশিক্ষণগ্রহণ করেন।[১৩]

অভিনয় কর্মজীবন[সম্পাদনা]

অভিনয়ের সূচনা ও প্রতিষ্ঠালাভ (২০০৮-১০)[সম্পাদনা]

২০০৮ টরেন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে স্লামডগ মিলিয়নিয়ারএর কলাকৌশলীদের সাথে পিন্টো

চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পূর্বে, পিন্টো ফুল সার্কেল নামে একটি অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করেন, এটি একটি আন্তর্জাতিক ভ্রমণ বিষয়ক অনুষ্ঠান যা জি-টিভিতে ইংরেজী ভাষায় প্রচারিত হয় ২০০৬-২০০৮ সাল পর্যন্ত।[১৪] এই সময়, তিনি বহু দেশ যেমন, মালয়েশিয়া, ফিজি এবং থাইল্যান্ড সহ কিছু দেশ ভ্রমণ করেন।[৫] তখন, পিন্টো বহু চলচ্চিত্রের অডিশনে অংশ নেন, যার সবগুলোতে তিনি বাদ পড়েন। পরবর্তীতে, তাকে একটি চলচ্চিত্রের সাক্ষাতকারের ব্যাপারে তাকে জিজ্ঞাসা করা হলে হলে তিনি বলেন,

"I'm glad things happened the way they happened. I needed to be rejected, and I needed to learn that it's part of the game... I can have 100 rejections, but I'm sure there's going to be one particular thing that is almost destined for me to have"[১৫]

এরপর তিনি স্লামডগ মিলিয়নিয়ারের ডাক পান;[১৬] তিনি এই সিনেমার প্রার্থীদের মধ্যে সংক্সিপ্ত তালিকায় স্থান পানা এবং সবশেষে তিনি এই সিনেমার নায়িকা হিসেবে নির্বাচিত হন।[১০] ড্যানি বয়েল পরিচালিত এই সিনেমায় অভিনয় করেন, অনীল কাপুর, দেব প্যাটেল এবং ইরফান খান। পিন্টো এই সিনেমায় লতিকা নামের একটি চরিত্রে অভিনয় করেন, এই সিনেমার প্রধান চরিত্র যে কিনা জামাল নামে একটি ছেলের ভালবাসা পাওয়ার জন্য চেষ্টা করে।[১৭] ভারতের উত্তরে অনুদিত হল কৌন বনেগা ক্রোড়পতি? (Who Wants to Be a Millionaire?), এই সিনেমাটি নির্মিত হয় $১৫ মিলিয়নের একটি স্বল্প বাজেটে।[১৮] স্লামডগ মিলিয়নিয়ার একটি ঘুমন্ত হিট ছবি থেকে যেন জেগে উঠা, ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত ৩৩তম টরেন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হয়, যা বিশ্বব্যপী সমালোচকদের প্রশংসা অর্জন করে এবং এটি ক্যাডিলাক পিপল্‌স চয়েজ পুরষ্কার অর্জন করে।[১৯] ৮১তম একাডেমি পুরস্কার এটি সবচেয়ে সফল সিনেমা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় যা ১০ টি শ্রেণীতে পুরস্কারের জন্য মনোয়ন পায় এবং এর মধ্যে ৮ শ্রেণীতে পুরষ্কার জয় করে। এই শ্রেণির মধ্যে একাডেমী সেরা চলচ্চিত্র পুরষ্কার, একাডেমী সেরা চলচ্চিত্র পরিচালক পুরষ্কার এবং একাডেমী সেরা চলচ্চিত্র চিত্রনাট্য পুরষ্কার এর মতন উল্লেখযোগ্য পুরস্কার রয়েছে।[৫] এই সিনেমাটি আরো অনেক পুরস্কার অনুষ্ঠানে পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পায়। যার মধ্যে গোল্ডেন গ্লোব পুরষ্কারে এই সিনেমাটি চারটি পুরষ্কার অর্জন করে। পিন্টো ২০০৯ সালে অনুষ্ঠিত ৬২ তম বিএফটিএ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে এই সিনেমায় অভিনয়ে জন্যে বিএফটিএ সেরা সহ-অভিনেত্রীর পুরস্কাররের জন্যে মনোনীত হন।[২০] এছাড়া, তিনি এই সিনেমার অন্যান্য কলাকৌশলীদের সাথে স্ক্রিন অ্যাকটর’স গিল্ড অ্যাওয়ার্ড ফর আউটস্ট্যান্ডিং পারফরমেন্স বাই এ কাস্ট ইন এ মোশন পিকচার পুরষ্কার অর্জন করেন।[২১][২২]

পিন্টো এরপর উডি অ্যালেনের কমেডি নাটকীয় চলচ্চিত্র ইউ ইউল মিট এ টল ডার্ক স্ট্রেঞ্জার (You Will Meet a Tall Dark Stranger), এই সিনেমায় অভিনয় করেন আন্তোনিও বান্দেরাস, জোশ বোর্লিন, স্যার অ্যান্থনি হপকিন্স, অনুপম খের এবং নাওমী ওয়াটস।[২৩] এই সিনেমাটির প্রিমিয়ার হয় ২০১০ কান চলচ্চিত্র উৎসবে, যা নেতিবাচক রিভিউ পায়।[২৪] পিন্টো এই সিনেমায় দিয়া নামে একটি ছোট চরিত্রে অভিনয় করেন।[২৫] ২০১১ সালে এরপর পিন্টো অভিনয় করেন রাইজ অব দ্য প্লানেট অব দ্য এইপস (Rise of the Planet of the Apes) নামে একটি কল্পবিজ্ঞান নির্ভর চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। এই সিনেমাটি ফ্রান্সাইজ ভাষায় নির্মিত সিনেমা সিরিজ থেকে একই নামে পুনঃনির্মিত হয়। এই সিনেমায় জেমস ফ্রাঙ্কোর বিপরীতে কারোলিন নামে একটি চরিত্রে অভিনয় করেন। পিন্টো তার পরবর্তী অভিনীত সিনেমা মাইরাল তে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন। এই সিনেমাটি একটি জীবনীমূলক চলচ্চিত্র, যা রুলা জাবেলা রচির একটি উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত। এই সিনেমাটি মুক্তির পর নেতিবাচক মতামত পায়। "ইস্ট বে এক্সপ্রেস" এই সিনেমা সম্পর্কে বলে, "Pinto handles the central role with a certain dignity, but the real drama is in Miral's rejection of violence in favor of Hind Husseini’s (Abbass) example of education and negotiation।"[২৬]

এরপর, পিন্টো ফ্যান্টাসী-ড্রামা-একশন সিনেমা, ইমোর্টাল (Immortals) এ অভিনয় করেন। এই সিনেমায় তিনি ফাইদ্রা নামের একটি পৌরাণিক চরিত্রে অভিনয় করেন।[২৭] ঐ একই বছর, তিনি প্রিন্সেস লাইলা তে অভিনয় করেন, যা ব্লাক গোল্ড নামের নাটকীয় চলচ্চিত্রে ১৯৩০র দশকের একটি নাটকের সেট। এই সিনেমায় তিনি এন্থোনিও বেন্ডার্স এবং মার্ক স্ট্রং এর পাশাপাশি অভিনয় করেন।[২৮]

তৃষ্ণা এবং ভবিষ্যৎ (২০১১-বর্তমান)[সম্পাদনা]

২০১১ সালে, মাইকেল উইন্টারবটমের ব্রিটিশ নাটকীয় চলচ্চিত্র তৃষ্ণা সিনেমায় রিজ আহমেদের সাথে অভিনয় করেন; তিনি এই সিনেমার নাম ভূমিকায় অভিনয় করেন। এই সিনেমাটি থমাস হার্ডির টেস অব দ্য ডি’উর্বাভিল্‌স (Tess of the d'Urbervilles) উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হয়। এই সিনেমাটির প্রথম প্রিমিয়ার অনুষ্ঠিত হয় ২০০১ টরেন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে। দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকা অনুযায়ী এই সিনেমাটি হল "seductive, allegorical study of male-female relationships",[২৯] এই সিনেমায় পিন্টো একজন কৃষকের কন্যার চরিত্রে অভিনয় করেন, এই বাবার চরিত্রে অভিনয় করেন আহমেদ।[৩০] তার অভিনীত পূর্বের অন্যান্য সিনেমার মত এই সিনেমাটিও সমালোচকদের প্রশংসা অর্জন করে।[৩১] এই সিনেমাটি বিশ্বব্যপী স্বীকৃত হয় বলে, লন্ডন চলচ্চিত্র উৎসব এবং টোকিও আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা চলচ্চিত্রে পুরষ্কার অর্জন করে।[৩২]

২০১৩ সালে অক্টোবরে, পিন্টোকে ব্রুনো মারের একক সঙ্গীত ভিডিও গরিলা তে অভিনয় করতে দেখা যায়। তার স্বল্প বসনে মার্সের সাথে অভিনয়কৃত দৃশ্যের জন্য তিনি ভারতীয় চলচ্চিত্রে সমালোচিত হয়।[৩৩] যদিও, এমটিভি (MTV) এই অভিনয় সম্পর্কে বলে যে, "one gloriously cinematic scene", while James Montgomery of the channel further added "Thanks to Pinto's wattage"।[৩৪] পিন্টোর ভবিষ্যতে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাগুলো হল ডেজার্ট ডেন্সার (Desert Dancer) এবং মিস্ফিট্‌স (Misfits)। ডেজার্ট ডেন্সার সিনেমাটি একজন নৃত্যশিল্পীর জীবন ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনার সমন্বয়ে নির্মিত একটি জীবনীমূলক চলচ্চিত্র। পিন্টোকে এই সিনেমায় অভিনয়ের জন্যে ১৪ সপ্তাহব্যপী দৈনিক আট ঘন্টা নাচের অনুশীলন করতে হয়।[৩৫] ২০১৩ সালে, তিনি নাইট অব কাপ্‌স (Knight of Cups) সিনেমায় ক্রিশ্চিয়ান ব্যালের সাথে অভিনয় তার কার্য তালিকার অন্তর্ভুক্ত করেন।[৩৬] মিস্ফিট্‌স একটি হাস্যরসাত্মক নাটকীয় সিনেমা, যেখানে পিন্টোর সাথে গাই পিয়ার্‌স অভিনয় করবেন। ডগ ক্লেবোর্ন, এই সিনেমার প্রযোজক, পিন্টোকে এই সিনেমায় অভিনয়ের জন্য নির্বাচনের ব্যপারে বলেন যে, "Freida is the perfect fit: Intelligent and talented, and she completely gets the humor in this story about finding family।""[৩৭]

বিনোদন জগতে তার জনপ্রিয়তা এবং ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

গোয়ায় অনুষ্ঠিত ৪১ তম ভারত আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে পিন্টো

স্লামডগ মিলিয়নিয়ার সিনেমাটি মুক্তির পরপরই, পিন্টো তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করেন এবং অচিরেই "Most Beautiful Women in the World" তালিকায় স্থান পান। ২০০৯ সালে, তাকে ফিচার করে পিপল ম্যাগাজিনে "Most Beautiful People List"[৩৮] এবং "List of World's Best Dressed Women" প্রকাশিত হয়।[৩৯] একই বছর, দ্য টেলিগ্রাফ (Daily Telegraph) তাদের দেয়া প্রতিবেদনে বলে যে, পিন্টো যদিও বলিউড চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন নি, তবুও তিনি সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক গ্রহণকারী ভারতীয় অভিনেত্রী।[৪০] এছাড়া, তিনি ভোগ ম্যাগাজিনে "top ten most stylish women" এ স্থান পায়।[৪১] ২০০৯ সালে ১৩ মে, পিন্টো ল’অরিয়েল (L'Oréal) নতুন মডেল হিসেবে কাজ শুরু করেন।[৪২] যখন তিনি টেলিভিশনে ল’অরিয়েলের প্রচারকাজ করছেন তখন একটি বিতর্কের সৃষ্টি হয়। সবাই মনে করে যে, এই প্রচারকাজ বর্ণ বৈষম্যের সৃষ্টি করছে। এই বাণিজ্যিক প্রচারকাজে সাজগোজ এবং ক্রিম ব্যবহারের গলে চামড়ার রঙ উজ্জ্বল হচ্ছে, এমন একটি কাজে পিন্টোকে দেখানো হয়।[৪৩] ২০১০ সালে, আস্কম্যান পরিচালিত একটি জরিপে "Top 99 Most Desirable Women" এ স্থান পান।[৪৪] এর দুই বছর, পিপলস তার নাম "Most Beautiful at Every Age" তালিকায় প্রকাশিত হয়।[৪৫] পরবর্তী বছর, GQ পরিচালিত একটি বিতর্কপূর্ণ জরিপ, "Hottest Indian Chick" তে পিন্টোকে ভোট দেওয়া হয়।[৪৬]

চলচ্চিত্রে অভিষেকের পূর্বে পিন্টোর সাথে রোহান আন্তাওয়ের সম্পর্ক ছিল, ২০০৯ জানুয়ারীতে এই সম্পর্কের পরিসমাপ্তি ঘটে।[৪৭] এরপর তিনি স্লামডগ মিলয়নিয়ারের সহ-শিল্পী দেব প্যাটেলের সাথে যোগাযোগ শুরু করেন। তারপর থেকে তারা দুইজন একসাথে যুক্তরাষ্ট্রের লস এঞ্জেলেসে একসাথে থাকছেন।[৪৮] একটি সাক্ষাতকারের পর, পিন্টো বলেন যে, তিনি প্যাটেলের সাথে অভিনয় করতে রাজী নন, এইজন্য তাদের অভিষেক সিনেমার মতন তারা "সিমেস্ট্রি" সিনেমাতে একসাথে কাজ করতে পারেবন না।[৪৯] পিন্টো অস্বীকার করায় তিনি সমালোচিত হন।[৫০] যাহোক, তিনি বলেন যে, তিনি বলিউডে এখনো তার উপযোগী কোন চরিত্র খুজে পান নি, যে চরিত্রে তিনি অভিনয় করতে পারবেন। তিনি আরো বলেন যে, তিনি বলিউডের চলচ্চিত্র অনেক উপভোগ করেন এবং ভবিষ্যতে বলিউডে অভিনয়ের ব্যপারে খুবই আগ্রহী।[৫১]

পিন্টো আন্দ্রে আগাসি এবং স্টেফি গ্রাফের একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানে যোগ দেন, "আগাসী ফাউন্ডেশন" (Agassi Foundation)। তিনি একমাত্র ভারতীয় অভিনেত্রী যে কিনা "The 15th Grand Slam for Children" অনুষ্ঠানে বার্ষিক দানের সংগ্রহের জন্য কাজ করেছেন। এই সংগ্রহকৃত অর্থ সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষাপ্রদানে ব্যবহার করা হয়।[৫২] ২০১২ সালে, তিনি প্লান ইন্টারন্যাশনালে ক্যাম্পেইন গার্লের ভূমিকায় গ্লোবাল অ্যাম্বাসেডর হিসেবে অংশ নেন, যেখানে লিঙ্গ সমতার জন্য সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়, যাতে দরিদ্র নারীরা তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন করতে পারে। ২০১৩ সালে, তাকে গুচ্চি’র (Gucci) একটি ভিডিওতে দেখা যায়, যেখানে তিনি "Chime for Change" নামে একটি অভিযানে অংশ নেন, যার সাহায্যে শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং ন্যায়বিচার বিষয়ে নারীদের সচেতনতা বৃদ্ধি এবং অনুদান করা হয়।[৫৩] ২০১৩ সালের এপ্রিলে, পিন্টো জাতিসংঘের সাধারণ সচিব বান কি-মুন এবং বিশ্ব ব্যাংক সভাপতি জিম যং কিমের সাথে Call to Action – Girl Rising নামে একটি অভিনযানের ব্যপারে আলোচনায় অংশ নেন। একাডেমী পুরষ্কারের জন্যে মনোনীত রিচার্ড ই.রবিন্‌স নির্মিত একটি প্রামান্য চলচ্চিত্র গার্ল রাইজিং (Girl Rising), যাতে শিক্ষার আলো নারীদেরকে বিশ্বের বুকে মাথা উচু করে দাড়াতে সাহায্য করে।[৫৪]

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র চরিত্র
বছর চলচ্চিত্র চরিত্র টীকা
২০০৮ স্লামডগ মিলিয়নিয়ার (Slumdog Millionaire) লতিকা চলচ্চিত্রে সেরা অভিনয় দক্ষতার জন্যে স্ক্রিন এক্টরস গিল্ড পুরষ্কার
পাম স্প্রিং আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব – সেরা পরিবেশনা পুরষ্কার
Nominated – বিএফটিএ সেরা সহ-অভিনেত্রী পুরষ্কার
মনোনীত – ব্লাক রীল পুরষ্কার – সেরা এসেম্ব্‌লেন্স
মনোনীত – MTV সেরা সফল অভিনেত্রী পুরষ্কার
মনোনীত – MTV সেরা চুম্বন চলচ্চিত্র পুরষ্কার (দেব প্যাটেলের সাথে যৌথভাবে মনোনীত)
২০১০ ইউ উইল মিট এ টল ডার্ক স্ট্রেঞ্জার (You Will Meet a Tall Dark Stranger) দিয়া
মিরাল (Miral) মিরাল
২০১১ রাইজ অব দ্য প্লানেট অব দ্য এইপ্‌স (Rise of the Planet of the Apes) ক্যারোলিন আরান্‌হা
ইমর্টাল (Immortals) ফেদ্রা
২০১২ ডে অব দ্য ফালকন (Day of the Falcon) প্রিন্সেস লেয়লা এই সিনেমা "Black Gold" নামেও পরিচিত
তৃষ্ণা (Trishna) তৃষ্ণা
২০১৩ গার্ল রাইজিং (Girl Rising) বর্ণনাকারী প্রামাণ্য চিত্র
২০১৪ ডেজার্ট ডেন্সার (Desert Dancer) উপদেষ্টা ভবিষ্যতে নির্মিতব্য
নাইট অব কাপ্‌স (Knight of Cups) ভবিষ্যতে নির্মিতব্য
২০১৪ ইউনিটি (Unity) বর্ণনাকারী প্রামাণ্য চিত্র

টীকা[সম্পাদনা]

  1. "Birthday Special: Style File with Freida Pinto"The Deccan Chronicle। ১৮ অক্টোবর ২০১৩। সংগৃহীত ২৪ নভেম্বর ২০১৩ 
  2. টেমপ্লেট:Cite work
  3. Blanks, Tim। "Freida Pinto"Interview (magazine)। সংগৃহীত ৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  4. "Freida Pinto wants to undergo DNA test to prove she is Indian"The Daily Telegraph। ২৫ জুলাই ২০১১। সংগৃহীত ৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  5. "Why is she Famous"AskMen। সংগৃহীত ১৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  6. D'Mello, Gerry (২৫ নভেম্বর ২০০৮)। "The Newest Star on the Mangalorean Horizon-Freida Pinto"Daijiworld Media। সংগৃহীত ২৫ নভেম্বর ২০০৮ 
  7. Sung, Helena। "Destiny's Child"Audrey Magazine (February – March 2009)। আসল থেকে ১২ জানুয়ারি ২০১০-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত ২৯ এপ্রিল ২০০৯ 
  8. Silva, Horacio (১৯ আগস্ট ২০১০)। "Out on a Limb"The New York Times। সংগৃহীত ২৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  9. "Slumdog Millionaire star Freida Pinto's amazing rise to fame"Daily Mirror। ২৬ জানুয়ারি ২০০৯। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  10. "It's natural to want to become an actress after living in Mumbai"Rediff.com। ১৬ জুন ২০০৮। সংগৃহীত ১১ নভেম্বর ২০০৮ 
  11. "Unplugged: Freida Pinto"The Times of India। ২১ অক্টোবর ২০০৯। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  12. "Freida Pinto"Sify। সংগৃহীত ২৪ নভেম্বর ২০১৩ 
  13. "Freida Pinto thanks mentor Barry John for success"Daily News and Analysis (DNA)। ২৯ জানুয়ারি ২০০৯। সংগৃহীত ২৪ নভেম্বর ২০১৩ 
  14. "Freida Pinto had a brush with suicide bomber"The Times of India। ২ মার্চ ২০১২। সংগৃহীত ১৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  15. Martin, Michael। "Freida Pinto"Interview (magazine)। সংগৃহীত ১৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  16. Ramani, Nithya। "It's natural to want to become an actress after living in Mumbai"। Rediff.com। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  17. "What's next for the stars of Slumdog Millionaire?"Daily News (New York)। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০০৯। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  18. Fodor's 2013, chpt. Slumdog Live on।
  19. "Film based against Indian backdrop wins award at TIFF"The Economic Times। ১৪ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  20. "Film Awards Winners in 2009"BAFTA। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  21. Parker, Eloise। "Woody Allen casts Slumdog Millionaire star Freida Pinto for upcoming film"। Daily News (New York)। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  22. "Slumdog Millionaire bags 2 more US film awards as well as picking up 8 awards at the oscars."CNN IBN। ২৬ জানুয়ারি ২০০৯। সংগৃহীত ১ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ 
  23. Verma, Sukanya (১৭ ডিসেম্বর ২০১০)। "A twisted Woody Allen fairytale!"। Rediff.com। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  24. "Cannes Film Festival 2010 as it happened: day four"The Daily Telegraph। ১৫ মে ২০১০। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  25. A. O. Scott (২১ সেপ্টেম্বর ২০১০)। "Looking for Something When Life Signifies Nothing"The New York Times। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  26. "Miral"East Bay Express। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  27. "Freida Pinto takes on Immortals"The Indian Express। ২৩ জুলাই ২০১০। সংগৃহীত ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১০ 
  28. Fischer, Russ। "Antonio Banderas, Mark Strong and Freida Pinto Cast in Black Gold"/Film। সংগৃহীত ১৮ এপ্রিল ২০১৩ 
  29. "Trishna – review"The Guardian। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১০। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  30. Collin, Robbie (৮ মার্চ ২০১২)। "Trishna, review"The Daily Telegraph। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  31. Nigel M Smith (১৫ সেপ্টেম্বর ২০১১)। "Sundance Selects Nabs Michael Winterbottom's Trishna"IndieWire। সংগৃহীত ২৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  32. "Film Description Trishna"। Barrie Film Festival। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  33. Goyal, Samarth (১৭ অক্টোবর ২০১৩)। "Freida Pinto stuns fans with dirty dancing in Bruno Mars"The Hindustan Times। সংগৃহীত ২৪ নভেম্বর ২০১৩ 
  34. Montgomery, James (১৫ অক্টোবর ২০১৩)। "Bruno Mars Turns Up The Heat In 'Gorilla' Video"MTV Networks। সংগৃহীত ২৪ নভেম্বর ২০১৩ 
  35. Joshi, Priya (১৩ অক্টোবর ২০১২)। "Freida Pinto: 'Dance training for Desert Dancer was daunting"Digital Spy। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  36. Larkin, Mike (১৫ মার্চ ২০১৩)। "Life's a beach for Christian Bale as he frolics on the shore with brunette beauty Freida Pinto"Daily Mail। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  37. Willis, Tania (২০ নভেম্বর ২০১৩)। "Sexy senorita! Actress Freida Pinto strolls around Madrid in stunning thigh-high leather boots"Daily Mail। সংগৃহীত ২৪ নভেম্বর ২০১৩ 
  38. "Sneak Peek: World's Most Beautiful People"People। সংগৃহীত ১৫ আগস্ট ২০০৯ 
  39. "Freida Pinto, Winslet in People's best dressed list"Daily News and Analysis (DNA)। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০০৯। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  40. Nelson, Dean (২৬ মার্চ ২০০৯)। "Slumdog Millionaire star Freida Pinto is Bollywood top earner"The Daily Telegraph (New Delhi)। সংগৃহীত ২০ অক্টোবর ২০০৯ 
  41. ""Stylish" pinto in Vogue's top 10 list!"Hindustan Times। ২৪ ডিসেম্বর ২০০৯। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  42. "Pinto thinks L'Oreal is worth it"Daily Express। ১৩ মে ২০০৯। সংগৃহীত ১৩ মে ২০০৯ 
  43. "Freida Pinto's 'lighter' skin tone was not altered, says L'Oreal"The Financial Express। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১১। সংগৃহীত ১৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  44. "Why She's No.50"। AskMen। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  45. Karen J. Quan (২০ এপ্রিল ২০১২)। "2012 Most Beautiful at Every Age – Freida Pinto"People। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১২ 
  46. "Freida Pinto named hottest Indian chick"The Times of India। ২২ জানুয়ারি ২০১৩। সংগৃহীত ১৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  47. Susan Wloszczyna (২৯ মার্চ ২০১১)। "Freida Pinto, Dev Patel: Like something out of a movie"USA Today। সংগৃহীত ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  48. Marcus Barnes (৫ নভেম্বর ২০১১)। "Dev Patel and Freida Pinto move their belongings in to a swish 1.5 million Santa Monica home"Daily Mail। সংগৃহীত ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১২ 
  49. "Freida Pinto won't act with Dev Patel again"Evening Standard। ২৮ মার্চ ২০১১। সংগৃহীত ১৬ এপ্রিল ২০১৩ 
  50. "I can find my place in Bollywood now: Freida Pinto"The Indian Express। ১৬ মার্চ ২০১৩। সংগৃহীত ১৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  51. Nigam, Aarushi (১৭ মার্চ ২০১৩)। "I don't feel like an Indian in Hollywood: Freida Pinto"The Times of India। সংগৃহীত ১৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  52. Ganguly, Prithwish (৩০ সেপ্টেম্বর ২০১০)। "Freida the ace in Agassi-Steffi game"The Times of India। সংগৃহীত ২৫ এপ্রিল ২০১৩ 
  53. Karmali, Sarah (১৬ এপ্রিল ২০১৩)। "Blake Lively and Halle Berry Join Gucci’s Chime For Change"Vogue। সংগৃহীত ২২ এপ্রিল ২০১৩ 
  54. "Freida Pinto, Anne Hathaway join Girl Rising documentary"The Indian Express। ১৭ এপ্রিল ২০১৩। সংগৃহীত ১১ মে ২০১৩ 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:ScreenActorsGuildAward CastMotionPicture 2001–2010