দি রেইন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দি রেইন
পরিচালকএস এম শফি
চিত্রনাট্যকারএস এম শফি
কাহিনীকারনাজমুল মাসরিক
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারআনোয়ার পারভেজ
আলাউদ্দিন আলী (আবহ সঙ্গীত)
চিত্রগ্রাহকআনোয়ার হোসেন
সম্পাদকআমিনুল ইসলাম মিন্টু
পরিবেশকচিত্রাঞ্জলী
মুক্তি২৬ নভেম্বর, ১৯৭৬
দৈর্ঘ্য১৩১ মিনিট
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা ভাষা
উর্দু ভাষা

দি রেইন ১৯৭৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত প্রণয়ধর্মী চলচ্চিত্র। বাংলা এবং উর্দু দুই ভাষায় নির্মিত ছায়াছবিটি পরিচালনা করেছেন এস এম শফি। ছায়াছবিটির কাহিনী লিখেছেন নাজমুল মাসরিক এবং চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন পরিচালক এস এম শফি নিজেই। এতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন অলিভিয়াওয়াসিম[১] এছাড়া অন্যান্য ভূমিকায় রয়েছে রাজপুত, কাজী মেহফুজুল হক, রোজী সামাদ, সৈয়দ হাসান ইমাম প্রমুখ। চলচ্চিত্রটি ২য় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে দুইটি বিভাগে পুরস্কার অর্জন করে।[২]

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

খান বাহাদুর নিজাম উদ্দীন অঢেল সম্পত্তির মালিক হওয়া সত্ত্বেও কোন সন্তান না থাকার কারনে অসুখী। তার স্ত্রী প্রতিবারই মৃত সন্তান জন্ম দেয়। একদিন তিনি স্বপ্নে একজন সাধু পুরুষের দৈববাণী শুনতে পান। তিনি তাকে রাজিয়া নামে একজন ধার্মিক মহিলার কথা বলেন যার প্রার্থনায় তার সন্তান জন্মাবে। খান বাহাদুর রাজিয়াকে খুঁজে বের করেন। তার প্রার্থনায় খান বাহাদুরের একটি ছেলে সন্তান জন্ম নেয়। খান বাহাদুর রাজিয়াকে তার বোন হিসেবে গ্রহণ করেন এবং রাজিয়া ও তার স্বামীকে তার সম্পত্তির একটি অংশ দেন। তার সন্তান ফিরোজ বড় হতে থাকে। কিন্তু ভাস্কর্য তৈরিতে তার আগ্রহ দেখে খান বাহাদুর দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হন এবং এ থেকে ভুলে থাকার জন্য তিনি তার সম্পত্তি দেখাশুনা করার জন্য তাকে এক পাহাড়ি এলাকায় পাঠান। সেখানে তার দেখা হয় রানীর সাথে যা তাদের দুজনের জীবনেই দুঃখ বয়ে আনে।

শ্রেষ্ঠাংশে[সম্পাদনা]

সঙ্গীত[সম্পাদনা]

ছায়াছবিটির সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন আনোয়ার পারভেজ। বাংলা ভাষার গীত রচনা করেছেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার ও উর্দু ভাষার গীত রচনা করেছেন যাকাউর রহমান। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন মাহমুদ্দুন্নবী, রুনা লায়লা, ও আবিদা সুলতানা

গানের তালিকা[সম্পাদনা]

নং.শিরোনামকণ্ঠশিল্পীদৈর্ঘ্য
১."চঞ্চল হাওয়ারে"রুনা লায়লা৫:২৭
২."আমি তো আজ ভুলে গেছি সবই"মাহমুদ্দুন্নবী৩:৫১
৩."একা একা কেন ভালো লাগে না"আবিদা সুলতানা৩:১৭

পুরস্কার[সম্পাদনা]

২য় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারঃ

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. শান্তা মারিয়া (১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪)। "রূপালি ভুবনের প্রেম-যৌনতা"বিডিনিউজ। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০১৬ 
  2. রাশেদ শাওন (অক্টোবর ২৪, ২০১২)। "চার দশকে আমাদের সেরা চলচ্চিত্রগুলো"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ২৮ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]