জন স্টুয়ার্ট মিল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জন স্টুয়ার্ট মিল
Stuart Mill G F Watts.jpg
জন্ম (১৮০৬-০৫-২০)২০ মে ১৮০৬
পেন্টনভিল, লন্ডন, ইংল্যান্ড
মৃত্যু ৮ মে ১৮৭৩(১৮৭৩-০৫-০৮) (৬৬ বছর)
এভিগনন, ফ্রান্স
যুগ ঊনবিংশ-শতকের দর্শন, ধ্রুপদী অর্থনীতি
অঞ্চল পাশ্চাত্য দর্শন
ধারা অভিজ্ঞতাবাদ, উপযোগবাদ, স্বাধীনতাবাদ
আগ্রহ রাজনৈতিক দর্শন, নীতিবিজ্ঞান, অর্থনীতি, আরোহ দর্শন
অবদান মিলের তত্ত্ব, স্বাধীনতা

জন স্টুয়ার্ট মিল (ইংরেজি: John Stuart Mill, FRSE) (জন্ম: ২০ মে, ১৮০৬ - মৃত্যু: ৮ মে, ১৮৭৩) ব্রিটিশ দার্শনিক, রাজনৈতিক অর্থনীতিবিদ এবং সরকারী চাকুরীজীবি ছিলেন। তিনি সামাজিক তত্ত্ব, রাজনৈতিক তত্ত্ব এবং রাজনৈতিক অর্থনীতির প্রবক্তা হিসেবে ঊনবিংশ শতাব্দীর অন্যতম চিন্তাবিদ। তাঁকে ঊনবিংশ শতকের সবচেয়ে প্রভাববিস্তারকারী ইংরেজিভাষী দার্শনিকরূপে আখ্যায়িত করা হয়ে থাকে।[৩] মিলের স্বাধীনতাবিষয়ক মতবাদটিতে অসীম রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণের বিপক্ষে ব্যক্তির স্বাধীনসত্ত্বাকে প্রাগ্রাধিকারের ওপর জোর দেয়া হয়েছে। [৪] তিনি জেরেমি বেন্থামের নীতিগত তত্ত্ব উপযোগবাদের উন্নয়নে অগ্রসর হয়েছিলেন।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

Essays on economics and society, 1967

লন্ডনের পেনটোনভিলে এলাকার রডনী স্ট্রীটে জন স্টুয়ার্ট মিল জন্মগ্রহণ করেন। স্কটিশ দার্শনিক, ইতিহাসবিদ এবং অর্থনীতিবিদ জেমস মিল এবং হ্যারিয়েট বুরো দম্পতির জ্যেষ্ঠ সন্তান ছিলেন তিনি। পিতার তত্ত্বাবধানে তিনি শিক্ষাগ্রহণ করেন। পিতার কঠোর শাসনের মধ্য দিয়ে তাঁর বাল্য ও কৈশোর কাটে। মাত্র তিন বৎসর বয়সে তিনি গ্রিক ভাষা শিখতে শুরু করেন, তিন থেকে আট বৎসর বয়সে গ্রিক ও লাতিন ভাষা আয়ত্ত করা ছাড়াও উভয় ভাষায় লিখিত একাধিক গ্রন্থ পাঠ করেন। যে বয়সে অন্যান্য শিশুদের বিদ্যালয়ে পদচারণ শুরু হয় তিনি সে বয়সে এরূপ অসাধারণ কৃতিত্ব প্রদর্শন করেন। বারো বৎসর বয়সে তিনি গণিতের অন্তরকলন শিক্ষা ছাড়াও গবেষণামূলক বিজ্ঞান, সভ্যতার ইতিহাস, অর্থনীতি ও ইংরেজি সাহিত্যের ওপর অনেক গ্রন্থ অধ্যয়ন করেন।[৫] এছাড়া, জেরেমি বেন্থাম এবং ফ্রান্সিস প্ল্যাসের পরামর্শ ও সহযোগিতা শিক্ষাজীবনের প্রভাব বিস্তার করে।

পিতা তাঁর অসাধারণ প্রতিভাবুদ্ধিমত্তার স্ফূরণ দেখতে পান শৈশবকালেই। উপযোগবাদে তাঁর ও বেন্থামের ভূমিকা উভয়ের মৃত্যু পরবর্তীকালে ব্যাপক প্রয়োগ ও প্রভাব বিস্তার করতে দেখা যায়।[৬] শৈশবেই অকালপক্ক চিন্তা-চেতনার জন্য স্মরণীয় হয়ে আছেন। আত্মজীবনীতে তাঁর শিক্ষাজীবন সম্পর্কে বিস্তারিত উল্লেখ করেছেন। তিন বছর বয়সে প্রাচীন গ্রীক ভাষা শিখেন।[৭] ৮ বছরের মধ্যেই এশপের উপকথা, জিনোফোনের আনাব্যাসিস[৭], হিরোডোটাস সমগ্র[৭] সম্পন্ন করেন। এছাড়াও তিনি ইংরেজির ইতিহাস এবং অঙ্কশাস্ত্র শিখেন। তাঁকে ল্যাটিন ভাষা, ইউক্লিড এবং বীজগণিত শেখার জন্য বিদ্যালয় শিক্ষককে নিয়োগ দেয়া হয়।

রাজনীতিতে অংশগ্রহণ[সম্পাদনা]

১৮৬৫ থেকে ১৮৬৮ সালের মধ্যে স্টুয়ার্ট মিল সেন্ট এন্ড্রুজ বিশ্ববিদ্যালয়ের লর্ড রেক্টররূপে দায়িত্ব পালন করেন। এই একই সময়ে অর্থাৎ ১৮৬৫ থেকে ১৮৬৮ সালে তিনি যুক্তরাজ্যের সিটি এন্ড ওয়েস্টমিনিস্টার এলাকা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[৮] তাঁকে লিবারেল পার্টির সাথে প্রায়শঃই সম্পৃক্ত হতে দেখা যায়। এমপি থাকাকালীন মিল আয়ারল্যান্ড প্রসঙ্গে যথেষ্ট সোচ্চার ছিলেন।

১৮৬৬ সালে মিল যুক্তরাজ্যের সংসদের ইতিহাসে প্রথম সদস্যরূপে নারীর ভোটাধিকারের স্বপক্ষে প্রস্তাবনা তুলে ধরেন। স্বাভাবিকভাবেই এ প্রস্তাবনায় ব্যাপক ও ধারাবাহিকভাবে বিতর্ক চলতে থাকে। এছাড়াও মিল শ্রমিক সংগঠন এবং খামার সমবায় সমিতির সামাজিক পুণর্গঠনের পক্ষে জোড়ালো ভূমিকা গ্রহণ করেন।

তিনি বিখ্যাত দার্শনিক বার্ট্রান্ড রাসেলের গডফাদার ছিলেন।

নারীবাদে সম্পৃক্ততা[সম্পাদনা]

মিল দেখতে পান যে, নারীসংক্রান্ত বিষয়াবলী অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই তিনি নারীদের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে লিখতে শুরু করেন। এপ্রেক্ষিতে তিনি প্রারম্ভিক নারীবাদী হিসেবে বিবেচিত হতে পারেন। ১৮৬১ সালে লিখিত ও ১৮৬৯ সালে প্রকাশিত দ্য সাবজেকশন অব উইমেন শীর্ষক নিবন্ধে নারীদের বৈধভাবে বশীভূতকরণ বিষয়ে ভুল প্রমাণের চেষ্টা করেন। এরফলে তা সঠিকভাবে সমতাবিধান থেকে দূরে সরিয়ে রাখছে।[৯]

বিবাহে নারীর ভূমিকা সম্বন্ধে কথা বলেন এবং এ সম্পর্কে সম্যক অবগত হয়ে তিনি এর পরিবর্তনের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। সেখানে নারীর জীবনধারণে তিনি তিনটি প্রধান দিকের কথা তুলে ধরেন। সেগুলো হলো - সমাজ ব্যবস্থা ও লিঙ্গভেদ, শিক্ষা এবং বিবাহ। নারীদের অধিকার আদায়ে তাঁর ভূমিকা ও সমর্থন ছিল প্রচণ্ড যা তাঁকে নারীবাদের শুরুর দিকে বিখ্যাত করে তোলে। দ্য সাবজেকশন অব উইমেন বইটি ছিল শুরুর দিকে লেখা কোন পুরুষ লেখকের বই।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Friedrich Hayek (১৯৪১)। "The Counter-Revolution of Science"। Economica (Economica, Vol. 8, No. 31) 8 (31): 281–320। জেএসটিওআর 2549335ডিওআই:10.2307/2549335 
  2. ২.০ ২.১ ২.২ http://www.gutenberg.org/cache/epub/10378/pg10378.html
  3. John Stuart Mill (Stanford Encyclopedia of Philosophy
  4. "John Stuart Mill's On Liberty"। victorianweb। সংগৃহীত ২৩ জুলাই ২০০৯। "On Liberty is a rational justification of the freedom of the individual in opposition to the claims of the state to impose unlimited control and is thus a defense of the rights of the individual against the state." 
  5. মো. আবদুল ওদুদ (দ্বিতীয় সংস্করণ, এপ্রিল ২০১৪)। রাষ্ট্রদর্শন। ঢাকা: মনন পাবলিকেশন। পৃ: ৪৩৩। আইএসবিএন 978-98-43300-90-4 
  6. Halevy, Elie (১৯৬৬)। The Growth of Philosophic Radicalism। Beacon Press। পৃ: 282–284। আইএসবিএন 0-19-101020-0 
  7. ৭.০ ৭.১ ৭.২ Journals: New Englander (1843–1892)
  8. Capaldi, Nicholas. John Stuart Mill: A Biography. p.321-322, Cambridge, 2004, ISBN 0-521-62024-4.
  9. John Stuart Mill: critical assessments, Volume 4, By John Cunningham Wood

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

Mill's works[সম্পাদনা]

উইকিসোর্স
উইকিসোর্স-এ এই লেখকের লেখা মূল বই রয়েছে:

Secondary works[সম্পাদনা]