উসুল আল ফিকহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search

উসুল আল ফিকহ (আরবি: أصول الفقه‎‎) (আক্ষরিকভাবে: আইনি তত্ত্ব[১] বা আইনশাস্ত্রের মূলনীতি) উৎস, সূত্র এবং নীতিমালার উপর গবেষণা যার উপর ভিত্তি করে ইসলামী আইনশাস্ত্র (বা ফিকহ) প্রতিষ্ঠিত। সরু অর্থে, এটা কেবল ইসলামী আইন উৎস কি প্রশ্নটি বোঝায়। বর্ধিত অর্থে, এটি আইনের দার্শনিক যুক্তিপূর্ণ ও পদ্ধতি অধ্যয়নের অন্তর্ভুক্ত যার দ্বারা নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে প্রযোজ্য আইন উৎস থেকে পাওয়া যায়।

সংজ্ঞা ও আলোচ্য বিষয়[সম্পাদনা]

উসুল আল ফিকহের সংজ্ঞা গবেষক আলেমগণ দুই ভাবে প্রদান করেছেন। শাফেয়ী মাজহাবের আলেমদের মতে, “ফিকহ শাস্ত্রের দলিল-প্রমাণ জানা, দলিল-প্রমাণ থেকে মাসালা উদ্ঘাটন করার পদ্ধতি সম্পর্কে জানা, বান্দার অবস্থা জানার ইলমের নাম ”উসুলে ফিকহ”। দ্বিতীয় সংজ্ঞা দেওয়া হয়েছে মালিকি, হানাফিহানবালি মাজহাবের আলেমদের মাধ্যমে। তাদের মতে, “উসুলে ফিকাহ সেই সকল মুলনীতির নাম যার মাধ্যমে শরিয়াতের বিস্তারিত উৎস থেকে হুকুম-আহকাম উদ্ঘাটন করা যায়”।

হানাফি আলেমদের মতে উসুল আল ফিকহের আলোচ্য বিষয় হচ্ছে শরিয়াতের হুকুম-আহকাম অর্থাৎ ওয়াজিব, মুস্তাহাব, হারাম, মাকরুহ, মুবাহ। হানাফি মাজহাবের আরেকদল আলেমের মতে আলোচ্য বিষয় হচ্ছে শরিয়াতের দলিল-প্রমাণ যার মাধ্যমে হুকুম-আহকাম সাব্যস্ত হয়ে থাকে। পক্ষান্তরে অধিকাংশ আলেমের মতে আলোচ্য বিষয় হচ্ছে শরিয়াতের দলিল-প্রমাণ বা উৎসের প্রকার, তাদের তারতম্য বা স্তর, এই উৎস থেকে হুকুম উদ্ঘাটন বা ইসতিমবাত করার পদ্ধতি। উসুল আল ফিকহের প্রকৃতির দিকে খেয়াল করে বলা যায় যে, এই তৃতীয় মতটাই অধিক গ্রহণযোগ্য।

উসুল আল ফিকহতে সাধারণত শরয়তি হুকুম, হাকিম, মাহকুম-আলাইহি, মাহকুম-ফিহ, শরিয়াতের মূল ও আনুসঙ্গিক (মুত্তাকাফ-মুখতালাফ ফিহ) উৎস, উৎসের প্রামানিকতা, সেখান থেকে মাসালা ইসতিমবাত করার শর্তাবলী, মাসালা ইসতিমবাত করার পদ্ধতি অর্থাৎ ভাষা ভিত্তিক মূলনীতি, নসুসের মূলনীতি, ইজতিহাদ-তাকলিদ, মুজতাহিদ-মুকাল্লিদ, এদের অবস্থা ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করে থাকে। শরিয়াতের মৌলিক উৎস হচ্ছেঃ কুরআন, হাদিস, ইজমা, কিয়াস আর অমৌলিক উৎস হচ্ছে একাধিক তবে প্রসিদ্ধ মত হচ্ছে সাতটি যথাঃ মাসালিহে মুরসালা, ইসতিহসান, উ’রফ, সাহাবীর বক্তব্য, পুর্ববর্তী শরিয়াত, সাদ্দে-যারাইয় ও ইসতিসহাব। আর ফিকাহের আলোচ্য বিষয় হচ্ছে কুরান-হাদিসের মাধ্যমে প্রমানিত বান্দার আমল, অর্থাৎ নামাজ, রোজা, যাকাত ইত্যাদি।


তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hallaq,Wael Sharī'a: Theory, Practice, Transformations, p.73

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]