আর্নেস্ট বেভিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সঠিক মাননীয়
আর্নেস্ট বেভিন
Ernest Bevin MP.jpg
লর্ড প্রিভি সীল
কাজের মেয়াদ
৯ মার্চ ১৯৫১ – ১৪ এপ্রিল ১৯৫১
প্রধানমন্ত্রীক্লিমেন্ট এট্‌লি
পূর্বসূরীক্রিস্টোফার অ্যাডিসন
উত্তরসূরীরিচার্ড স্টোকস
পররাষ্ট্র বিষয়ক সেক্রেটারি
কাজের মেয়াদ
২৭ জুলাই ১৯৪৫ – ৯ মার্চ ১৯৫১
প্রধানমন্ত্রীক্লিমেন্ট এট্‌লি
পূর্বসূরীএন্টোনি ইডেন
উত্তরসূরীহারবার্ট মরিসন
শ্রম ও জাতীয় সেবা মন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
১৩ মে ১৯৪০ – ২৩ মে ১৯৪৫
প্রধানমন্ত্রীউইনস্টন চার্চিল
পূর্বসূরীআর্নেস্ট ব্রাউন
উত্তরসূরীরব বাটলার
সংসদ সদস্য
জন্য ওলউইচ পূর্ব
কাজের মেয়াদ
২৩ ফেব্রুয়ারী ১৯৫০ – ১৪ এপ্রিল ১৯৫১
পূর্বসূরীজর্জ হিকস
উত্তরসূরীক্রিস্টোফার মেহেহ
সংসদ সদস্য
জন্য ওয়ান্ডসওয়ার্থ সেন্ট্রাল
কাজের মেয়াদ
২২ জুন ১৯৪০ – ২৩ ফেব্রুয়ারী ১৯৫০
পূর্বসূরীহ্যারি নাথান
উত্তরসূরীরিচার্ড অ্যাডামস
এর সাধারণ সম্পাদক মো পরিবহন ও সাধারণ শ্রমিক ইউনিয়ন
কাজের মেয়াদ
১ জানুয়ারী ১৯২২ – ২৭ জুলাই ১৯৪৫
পূর্বসূরীনতুন অফিস
উত্তরসূরীআর্থার ডেকিন
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম৯ মার্চ ১৮৮১
উইনসফোর্ড, সোমারসেট, ইংল্যান্ড
মৃত্যু১৪ এপ্রিল ১৯৫১(1951-04-14) (বয়স ৭০)
লন্ডন, ইংল্যান্ড
জাতীয়তাব্রিটিশ
রাজনৈতিক দললেবার পার্টি
দাম্পত্য সঙ্গীফ্লোরেন্স টাউনলি (১৯??-১৯৫১; তার মৃত্যু); (মৃত্যু ১৯৬৮) ১ শিশু

আর্নেস্ট বেভিন (৯ মার্চ ১৮৮১ - ১৪ এপ্রিল ১৯৫১) ছিলেন একজন ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ, ট্রেড ইউনিয়ন নেতা, এবং শ্রম রাজনীতিবিদ। তিনি ১৯২২-৪০ সালে শক্তিশালী পরিবহন ও সাধারণ শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক এর সহ-প্রতিষ্ঠা ও দায়িত্ব পালন করেছিলেন এবং শ্রমমন্ত্রী হিসাবে কাজ করেছিলেন। যুদ্ধকালীন জোট সরকার। তিনি ন্যূনতম ধর্মঘট ও বাধাগ্রস্থ হয়ে সশস্ত্র পরিষেবা এবং গার্হস্থ্য শিল্প উত্পাদন উভয়ের জন্য ব্রিটিশ শ্রম সরবরাহ সর্বাধিকায়নে সাফল্য অর্জন করেছিলেন। তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পররাষ্ট্রসচিব যুদ্ধ-পরবর্তী শ্রম সরকার এ ১৯৪৫-৫৫ সালে এসেছিল। তিনি আমেরিকান আর্থিক সহায়তা অর্জন করেছিলেন, কমিউনিজম এর তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন এবং ন্যাটো তৈরিতে সহায়তা করেছিলেন। বেভিনের আমলে ম্যান্ডেট এবং ইস্রায়েলের রাজ্য তৈরির বিষয়টিও দেখা গেছে। তার জীবনী লেখক, অ্যালান বুলক বলেছেন যে বেভিন ক্যাসেলরিয়াঘ, ক্যানিং এবং বিদেশী সচিবদের রেখার শেষ হিসাবে দাঁড়িয়েছেন। পামারস্টন উনিশ শতকের প্রথমার্ধে এবং ব্রিটিশ শক্তি হ্রাসের কারণে তার কোনও উত্তরসূরি নেই।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bullock, Alan (১৯৮৩)। Ernest Bevin: Foreign Secretary 1945–1951। William Heinemann। পৃষ্ঠা 75। আইএসবিএন 978-0434094523