অলি স্টোন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অলি স্টোন
Olly Stone.jpg
২০১৬ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে অলি স্টোন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামঅলিভার পিটার স্টোন
জন্ম (1993-10-09) ৯ অক্টোবর ১৯৯৩ (বয়স ২৮)
নরউইচ, নরফোক, ইংল্যান্ড
উচ্চতা৬ ফুট ৩ ইঞ্চি (১.৯১ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
সম্পর্কজেএ স্টোন (ভ্রাতা)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৬৯২)
২৪ জুলাই ২০১৯ বনাম আয়ারল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ২৫১)
১০ অক্টোবর ২০১৮ বনাম শ্রীলঙ্কা
শেষ ওডিআই২০ অক্টোবর ২০১৮ বনাম শ্রীলঙ্কা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১১–২০১২নরফোক
২০১১–২০১৬নর্দাম্পটনশায়ার (জার্সি নং ৯)
২০১৭–বর্তমানওয়ারউইকশায়ার (জার্সি নং ৯)
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৩৮ ৩০
রানের সংখ্যা ১৯ ৬০৯ ১২২
ব্যাটিং গড় ৯.৫০ ১৬.০২ ২৪.৪০
১০০/৫০ ০/০ ০/০ ০/১ ০/০
সর্বোচ্চ রান ১৯ * ৬০ ২৪*
বল করেছে ৭২ ৯৬ ৫,৬৯৮ ১,১২৫
উইকেট ১৩০ ২৪
বোলিং গড় ৯.৬৬ ৯৭.০০ ২৪.২৮ ৪২.৬২
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৩/২৯ ১/২৩ ৮/৮০ ৪/৭১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/– ০/– ১৬/– ১৩/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

অলিভার পিটার স্টোন (ইংরেজি: Olly Stone; জন্ম: ৯ অক্টোবর, ১৯৯৩) নরফোকের নরউইচ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ২০১০-এর দশকের শেষদিক থেকে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করছেন। অক্টোবর, ২০১৮ সালে ইংল্যান্ডের পক্ষে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশ নিয়েছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে নর্দাম্পটনশায়ার ও ওয়ারউইকশায়ার দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলছেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করেন অলি স্টোন

শৈশবকাল[সম্পাদনা]

নরফোকের থর্প সেন্ট অ্যান্ড্রু স্কুলে অধ্যয়ন করেছেন। স্থানীয় নরফোক কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের মাধ্যমে কাউন্টি ক্রিকেটের খেলোয়াড়ী জীবনের সূত্রপাত ঘটান। ২০১১ সালের মাইনর কাউন্টিজ চ্যাম্পিয়নশীপে দলের প্রতিপক্ষ ছিল বেডফোর্ডশায়ার[১]

২০০৯ সাল থেকে নর্দাম্পটনশায়ার ক্রিকেট একাডেমির পক্ষে খেলেন ও ২০১০ সাল থেকে কাউন্টি দলের দ্বিতীয় একাদশে খেলার সুযোগ পান।[২] ২০১১ সালের ফ্রেন্ডস প্রভিডেন্ট টি২০ প্রতিযোগিতায় ডারহামের বিপক্ষে নর্দাম্পটনশায়ারের সদস্যরূপে টুয়েন্টি২০ ক্রিকেটে প্রথম খেলার সুযোগ পান।[৩] তবে, ঐ খেলায় হ্যাট্রিক লাভকারী পল কলিংউডের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন ও প্রথম বলেই গোল্ডেন ডাক লাভ করেন।[৪][৫] ২০১২ সালে ক্লাইডেসডেল ব্যাংক ৪০ প্রতিযোগিতায় ওয়ারউইকশায়ারের বিপক্ষে লিস্ট এ ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে অলি স্টোনের।[৬]

২০১২ সালের দ্বিতীয়ার্ধ্বে নর্দান্টসের পক্ষে দূর্দান্ত ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের স্বীকৃতিস্বরূপ ইংল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলার জন্যে আমন্ত্রিত হন।.[৭] নরউইচ থেকে আগত অলি স্টোনকে ফেব্রুয়ারি, ২০১৩ সালে ইংল্যান্ডের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সদস্যরূপে দক্ষিণ আফ্রিকা গমনের সুযোগ দেয়া হয়। সতীর্থ নর্দান্টসের উদীয়মান খেলোয়াড় বেন ডাকেটকে ঐ দলে রাখা হয়। যুবদের টেস্টে খেলায় সেরা বোলিং করেছিলেন। পার্লে দক্ষিণ আফ্রিকা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে খেলায় ৭৯ রান খরচায় ১১ উইকেট দখল করেন। এরফলে, ১৯৯১ সালে রিচার্ড পিয়ারসনের গড়া রেকর্ড ভঙ্গ করেন। এছাড়াও, অধিনায়ক শিব ঠাকুরের পরিবর্তে দলের অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০১২ সাল থেকে অলি স্টোনের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান রয়েছে। ঐ বছরে কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপে ইয়র্কশায়ারের বিপক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষিক্ত হন তিনি।[৮] ২০১২ সাল জুড়ে নিয়মিতভাবে নর্দান্টসের পক্ষে খেলেন। পরবর্তীতে, জুলাই, ২০১২ সালে নতুন করে ২ বছর মেয়াদের চুক্তিতে আবদ্ধ হন।[৯] মৌসুমের শুরুতে শ্রপশায়ারউইল্টশায়ারের বিপক্ষে এমসিসিএ নকআউট ট্রফি প্রতিযোগিতায় দুইটি খেলায় নরফোকের পক্ষে খেলেছিলেন।[১০] নর্দান্টস তার উত্তরোত্তর ক্রীড়াশৈলীতে সমৃদ্ধ হচ্ছিল। ২০১৪ সালে নর্দান্টসের পক্ষে পাঁচটি চ্যাম্পিয়নশীপের প্রথম বিভাগের খেলায় অংশ নিয়ে ২১তম জন্মদিনে কাউন্টি দলটির গড়ে শীর্ষস্থানে পৌঁছেন।

নর্দান্টসের খেলোয়াড় হিসেবে খেলার শেষ মুহূর্তে আনন্দ উদযাপিত করতে গিয়ে গুরুতর আঘাতের কারণে খেলোয়াড়ী জীবনে বিঘ্ন ঘটে। ২০১৬ সালের শুরুতে গুরুতর হাঁটুর সমস্যায় পড়েন। মঈন আলী’র উইকেট লাভের পর উচ্ছাসকালে এ ঘটনা ঘটে। এরফলে, মৌসুমের বাদ-বাকী সময় তাকে মাঠের বাইরে অবস্থান করতে হয়েছিল।[১১] এক বছর খেলার জগৎ থেকে দূরে থাকেন। নয়টি কাউন্টি দল থেকে প্রত্যাখ্যাত হবার পর জুলাই মাসে তিন বছরের চুক্তিতে ওয়ারউইকশায়ারে যোগ দেন।[১২]

ইংল্যান্ড কর্তৃপক্ষ অলি স্টোনের আরোগ্য লাভের বিষয়ে সচেতন ছিলেন। ২০১৫ সালে কাউন্টি ক্রিকেটে বেশ কিছু দূর্দান্ত গতিসম্পন্ন বোলিং করেছিলেন। ফলশ্রুতিতে, ইংল্যান্ডের পারফরম্যান্স প্রোগ্রাম ডেভেলপম্যান্টের আওতায় দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রশিক্ষণ গ্রহণের সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু, খেলোয়াড়ী জীবনের শুরুর আঘাতের ছোঁয়া এখানেও দৃশ্যমান হয়। কেন্টের বিপক্ষে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান ৫/৪৪ লাভ করেছিলেন। এ পর্যায়ে মাঠে দণ্ডায়মান অ্যালেক্স ওয়াকলি তার দ্রুতগতিসম্পন্ন বোলিং স্পেল লক্ষ্য করেছিলেন। ২০১৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে খেলার জগতে ফিরে আসেন। ঐ মৌসুমে কেবলমাত্র একটি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। ঘণ্টায় ৯২ মাইল বেগে বোলিং করেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্ট ও চারটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন অলি স্টোন। ২৪ জুলাই, ২০১৯ তারিখে লর্ডসে সফরকারী আয়ারল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল। এরপর আর তাকে কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি। অন্যদিকে, ১০ অক্টোবর, ২০১৮ তারিখে ডাম্বুলায় স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে তার। ২০ অক্টোবর, ২০১৯ তারিখে পাল্লেকেলেতে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ ওডিআইয়ে অংশ নেন তিনি।

সেপ্টেম্বর, ২০১৮ সালে শ্রীলঙ্কা গমনার্থে ইংল্যান্ডের টেস্ট ও ওডিআই দলে তাকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।[১৩][১৪] ১০ অক্টোবর, ২০১৮ তারিখে ডাম্বুলায় দিবা-রাত্রির প্রথম ওডিআইয়ে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তার অভিষেক হয়।[১৫] তবে, ১৫ ওভার পর বৃষ্টির কারণে খেলাটি পরিত্যক্ত হয়ে যায়। খেলায় তিনি ব্যাটিং কিংবা বোলিং করার কোন সুযোগ পাননি।[১৬]

টেস্ট অভিষেক[সম্পাদনা]

ডিসেম্বর, ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমনার্থে তাকে ইংল্যান্ডের টেস্ট দলে ঠাঁই দেয়া হয়।[১৭] তবে, প্রথম টেস্টের পূর্বক্ষণে পিঠের আঘাতের ফলে তাকে এ সফরের বাইরে রাখা হয়।[১৮] তার কাউন্টি দল ওয়ারউইকশায়ার থেকে জানানো হয় যে, পিঠের নিচেরদিকে ফাঁটল ধরায় তাকে আরোগ্য লাভের জন্যে ছয় থেকে বারো সপ্তাহের বিশ্রামের প্রয়োজন পড়বে।[১৯]

জুলাই, ২০১৯ সালে সফরকারী আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে এক-টেস্ট নিয়ে গড়া সিরিজে খেলার উদ্দেশ্যে ইংল্যান্ড দলে অলি স্টোনকে রাখা হয়।[২০] ২৪ জুলাই, ২০১৯ তারিখে লর্ডসে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক পর্ব সম্পন্ন হয়।[২১]

২৯ মে, ২০২০ তারিখে কোভিড-১৯ বৈশ্বিক মহামারী ছড়িয়ে পড়ার পর আন্তর্জাতিক সময়সূচীকে ঘিরে প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্যে ইংল্যান্ডের ৫৫-সদস্যের তালিকায় তাকে রাখা হয়।[২২][২৩] ১৭ জুন, ২০২০ তারিখে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে অংশ নেয়ার উদ্দেশ্যে তাকেসহ ৩০-সদস্যবিশিষ্ট খেলোয়াড়কে নিবীড় অনুশীলনে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।[২৪][২৫] ৪ জুলাই, ২০২০ তারিখে সিরিজের প্রথম টেস্টের জন্য নয়জন সংরক্ষিত খেলোয়াড়ের অন্যতম ছিলেন তিনি।[২৬][২৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Minor Counties Championship Matches played by Olly Stone"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১২ 
  2. "Teams Olly Stone played for"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১২ 
  3. "Twenty20 Matches played by Olly Stone"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১২ 
  4. "Durham v Northamptonshire, 2011 Friends Provident t20"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১২ 
  5. Banyard, Philip (২২ জুলাই ২০১১)। "Olly Stone aims to learn from Northants county debut"Eastern Daily Press। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  6. "List A Matches played by Olly Stone"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১২ 
  7. "Cricket: Oli Stone and Ben Duckett get England Under-19 call"। H&P Sport। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১২ 
  8. Bolton, Paul (২৯ মে ২০১২)। "Stone in line for Northants four-day debut"The Wisden Cricketer। www.thecricketer.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  9. "Stone signs deal with Northamptonshire"Northamptonshire Telegraph। ১৭ জুলাই ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  10. "Minor Counties Trophy Matches played by Olly Stone"। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১২ 
  11. "Stone's freak injury rules him out for the season"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  12. Wright, Matt (৩০ জুলাই ২০১৬)। "Cricket: Warwickshire snap up Northants paceman Olly Stone"Northants Herald & Post। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  13. "Olly Stone named in England ODI squad as cover for Liam Plunkett's wedding clash"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  14. "Rory Burns, Olly Stone, Joe Denly named in Sri Lanka Test squad"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  15. "1st ODI (D/N), England tour of Sri Lanka at Dambulla, Oct 10 2018"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১০ অক্টোবর ২০১৮ 
  16. "First Sri Lanka v England ODI ends in washout"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১১ অক্টোবর ২০১৮ 
  17. "England stick with unchanged Test group for West Indies"ESPNcricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। ১০ ডিসেম্বর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  18. "England in West Indies: Olly Stone ruled out of tour by back injury"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০১৯ 
  19. "Olly Stone's stress fracture diagnosis confirmed after return to UK"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জানুয়ারি ২০১৯ 
  20. "England v Ireland: Jason Roy in Test squad for first time"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুলাই ২০১৯ 
  21. "Only Test, Ireland tour of England at Lord's, Jul 24-27 2019"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জুলাই ২০১৯ 
  22. "England Men confirm back-to-training group"England and Wales Cricket Board। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০২০ 
  23. "Alex Hales, Liam Plunkett left out as England name 55-man training group"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০২০ 
  24. "England announce 30-man training squad ahead of first West Indies Test"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুন ২০২০ 
  25. "Moeen Ali back in Test frame as England name 30-man training squad"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুন ২০২০ 
  26. "England name squad for first Test against West Indies"England and Wales Cricket Board। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০২০ 
  27. "England v West Indies: Dom Bess in squad, Jack Leach misses out"BBC Sport। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুলাই ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]