একুশে পদক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
একুশে পদক
Ekushepadak.jpg
একুশে পদকের একটি মেডেল
পুরস্কার দেওয়া হয় বাংলাদেশের বিশিষ্ট সাহিত্যিক, শিল্পী, শিক্ষাবিদ, ভাষাসৈনিক, ভাষাবিদ, গবেষক, সাংবাদিক, অর্থনীতিবিদ, দারিদ্র্য বিমোচনে অবদানকারী, সামাজিক ব্যক্তিত্ব ও প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় পর্যায়ে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি প্রদানের উদ্দেশ্যে এ পুরস্কার দেয়া হয়।
অবস্থান ঢাকা, বাংলাদেশ
পুরস্কার দাতা বাংলাদেশ
প্রথম পুরস্কার প্রদান ১৯৭৬
শেষ পুরস্কার প্রদান ২০১২

একুশে পদক (ইংরেজি: Ekushey Padak) বাংলাদেশের একটি জাতীয় পুরস্কার। বাংলাদেশের বিশিষ্ট সাহিত্যিক, শিল্পী, শিক্ষাবিদ, ভাষাসৈনিক, ভাষাবিদ, গবেষক, সাংবাদিক, অর্থনীতিবিদ, দারিদ্র্য বিমোচনে অবদানকারী, সামাজিক ব্যক্তিত্ব ও প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় পর্যায়ে অনন্য অবদানের স্বীকৃতি প্রদানের উদ্দেশ্যে ১৯৭৬ সাল থেকে একুশে পদক দেয়া হচ্ছে। ভাষা আন্দোলন এর শহীদদের স্মরণে ১৯৭৬ সালে এই পদকের প্রচলন করা হয়।[১] ২০১২ সাল পর্যন্ত ৩৬১ জন গুণী ব্যক্তি ও ২টি প্রতিষ্ঠানকে একুশে পদক প্রদান করা হয়েছে।[২][তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

পদক[সম্পাদনা]

ভাষা সৈনিক আবুল কাসেমকে দেয়া একুশে পদকের সনদ

একুশে পদকে ১ লক্ষ টাকা, ১৮ ক্যারট স্বর্ণের মেডেল এবং একটি সনদ দেয়া হয়।[১] পদকটির ডিজাইন করেছেন নিতুন কুণ্ডু[৩] প্রত্যেকে পদকপ্রাপ্তকে একটি স্বর্ণ পদক, সম্মাননা সনদ এবং পুরস্কারের অর্থমূল্য দেয়া হয়ে থাকে। প্রাথমিকভাবে পুরস্কারের অর্থমূল্য ২৫০০০ টাকা দেয়া হত, এবং বর্তমানে এটি ১লক্ষ টাকায় উন্নীত করা হয়েছে।

পদকপ্রাপ্তদের তালিকা[সম্পাদনা]

১৯৭৬[সম্পাদনা]

১৯৭৬ সালে প্রথমবারের মতো একুশে পদক দেয়া হয়। প্রথমবার বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য সাতজনকে একুশে পদক দেয়া হয়।

১৯৭৭[সম্পাদনা]

১৯৭৭ সালে তিনজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৭৮[সম্পাদনা]

১৯৭৮ সালে দুইজনকে এ পদক দেয়া হয়।

১৯৭৯[সম্পাদনা]

১৯৭৯ সালে দুইজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮০[সম্পাদনা]

১৯৮০ সালে তিনজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮১[সম্পাদনা]

১৯৮১ সালে তিনজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮২[সম্পাদনা]

১৯৮২ সালে একজনকে এ পদক দেয়া হয়।

১৯৮৩[সম্পাদনা]

১৯৮৩ সালে তিনজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮৪[সম্পাদনা]

১৯৮৪ সালে তিনজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮৫[সম্পাদনা]

১৯৮৫ সালে পাঁচজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮৬[সম্পাদনা]

১৯৮৬ সালে চারজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮৭[সম্পাদনা]

১৯৮৭ সালে ছয়জনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮৮[সম্পাদনা]

১৯৮৮ সালে দুইজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৮৯[সম্পাদনা]

১৯৮৯ সালে দুইজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯০[সম্পাদনা]

১৯৯০ সালে একজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯১[সম্পাদনা]

১৯৯১ সালে ছয়জনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯২[সম্পাদনা]

১৯৯২ সালে একজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯৩[সম্পাদনা]

১৯৯৩ সালে একজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯৪[সম্পাদনা]

১৯৯৪ সালে একজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯৫[সম্পাদনা]

১৯৯৫ সালে একজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯৬[সম্পাদনা]

১৯৯৬ সালে দুইজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯৭[সম্পাদনা]

১৯৯৭ সালে চারজনকে পদক দেয়া হয়।

১৯৯৯[সম্পাদনা]

১৯৯৯ সালে তিনজনকে পদক দেয়া হয়।

  • আবুল কাসেম সন্দীপ (শিক্ষা)
  • সন্তোশ গুপ্ত (সাংবাদিকতা)
  • সুভাষ দত্ত (চলচ্চিত্র)

২০০০[সম্পাদনা]

২০০০ সালে চারজনকে পদক দেয়া হয়।

২০০১[সম্পাদনা]

২০০১ সালে তিনজনকে পদক দেয়া হয়।

২০০৪[সম্পাদনা]

২০০৪ সালে দশজনকে পদক দেয়া হয়।

২০০৫[সম্পাদনা]

২০০৫ সালে পনেরজনকে পদক দেয়া হয়।

২০০৬[সম্পাদনা]

২০০৬ সালে তেরজনকে পদক দেয়া হয়।

২০০৭[সম্পাদনা]

২০০৭ সালে পাঁচজনকে পদক দেয়া হয়।

২০০৮[সম্পাদনা]

২০০৮ সালে দশজনকে পদক দেয়া হয়।

২০০৯[সম্পাদনা]

২০০৯ সালে তেরজনকে পদক দেয়া হয়।

২০১০[সম্পাদনা]

২০১০ সালে পনেরজনকে পদক দেয়া হয়।

২০১১[সম্পাদনা]

২০১১ সালে তেরজনকে পদক দেয়া হয়।

[৪]

২০১২[সম্পাদনা]

২০১২ সালে পনেরজনকে পদক দেয়া হয়।

[৫]

২০১৩[সম্পাদনা]

২০১৩ সালে ১২ ব্যক্তি এবং এক প্রতিষ্ঠানকে একুশে পদক দেয়া হয়।

২০১৪[সম্পাদনা]

২০১৪ সালে ১৫ জন ব্যক্তিকে একুশে পদক দেয়া হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ জাতীয় পুরস্কার, বাংলাপিডিয়া থেকে।.
  2. ২.০ ২.১ বিডিনিউজ২৪
  3. Obituary of Nitun Kundu, The Daily Star, September 16, 2006.
  4. ২০১১ সালের একুশে পদকপ্রাপ্তদের তালিকা, দৈনিক প্রথম আলো
  5. দৈনিক প্রথম আলো
  6. দৈনিক প্রথম আলো
  7. দৈনিক প্রথম আলো
  8. বাংলানিউজ ২৪ ডট কম