২০১৮-১৯ পাকিস্তান ক্রিকেট দলের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১৮-১৯ পাকিস্তান ক্রিকেট দলের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর
Flag of South Africa.svg
দক্ষিণ আফ্রিকা
Flag of Pakistan.svg
পাকিস্তান
তারিখ ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ – ৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
অধিনায়ক ফাফ দু প্লেসিস সরফরাজ আহমেদ (টেস্ট ও ওডিআই)
শোয়েব মালিক (টি২০আই)
টেস্ট সিরিজ
ফলাফল ৩-ম্যাচের সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকা ৩–০ তে জয়ী হয়
সর্বাধিক রান কুইন্টন ডি কক (২৫১) শান মাসুদ (২২৮)
সর্বাধিক উইকেট ডুয়ানে ওলিভার (২৪) মোহাম্মাদ আমির (১২)
সিরিজ সেরা ডুয়ানে ওলিভার (দক্ষিণ আফ্রিকা)
একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৫-ম্যাচের সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকা ৩–২ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান রসি ভ্যান ডার ডসেন (২৪১) ইমাম-উল-হক (২৭১)
সর্বাধিক উইকেট অ্যান্ডিল ফেহলাকওয়াইও (৮) শাহিন আফ্রিদি (৬)
সিরিজ সেরা ইমাম-উল-হক (পাকিস্তান)
টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক সিরিজ
ফলাফল ৩-ম্যাচের সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকা ২–১ এ জয়ী হয়
সর্বাধিক রান রিজা হেনড্রিক্স (১০৭) বাবর আজম (১৫১)
সর্বাধিক উইকেট বিউরেন হেনড্রিক্স (৮) মোহাম্মাদ আমির (৩)
ইমাদ ওয়াসিম (৩)
ফাহিম আশরাফ (৩)
উসমান শিনওয়ারি (৩)
সিরিজ সেরা ডেভিড মিলার (দক্ষিণ আফ্রিকা)

পাকিস্তান ক্রিকেট দল তিনটি টেস্ট ক্রিকেট, পাঁচটি একদিনের আন্তর্জাতিক এবং তিনটি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক খেলার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা সফর করে, যা ডিসেম্বর ২০১৮ থেকে ফেব্রুয়ারী ২০১৯-এ অনুষ্ঠিত হয়।

দলীয় সদস্য[সম্পাদনা]

টেস্ট ওডিআই টি২০আই
 দক্ষিণ আফ্রিকা  পাকিস্তান  দক্ষিণ আফ্রিকা  পাকিস্তান  দক্ষিণ আফ্রিকা  পাকিস্তান

প্রস্তুতিমূলক খেলা[সম্পাদনা]

তিনদিনের ম্যাচ: দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রণমূলক একাদশ বনাম পাকিস্তান[সম্পাদনা]

১৯–২১ ডিসেম্বর ২০১৮
৩১৮/৭d (৮৪.৩ ওভার)
মারকুইস একেরমান ১০৩* (১৩২)
আজহার আলী ২/১৯ (৮ ওভার)
306/7d (৭৮.২ ওভার)
বাবর আজম ১০৪* (১২৯)
থান্ডলওয়েথু এমন্যাকা ৩/৪৫ (১৬ ওভার)
182/7d (৫০.৩ ওভার)
নীল ব্র্যান্ড ৭১ (১৪৫)
মোহাম্মাদ আমির ৩/৩৫ (১২ ওভার)
১৯৫/৪ (৪০.২ ওভার)
হারিস সোহেল ৭৩* (৮৭)
কাইল সিমন্ডস ২/৭৯ (১৬ ওভার)
পাকিস্তান ৬ উইকেটে জয়ী
উইলোমুর পার্ক, বেনোনি
আম্পায়ার: শন জর্জ (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও আদ্রিয়ান হোল্ডস্টক (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রণমূলক একাদশ টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

টেস্ট সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টেস্ট[সম্পাদনা]

২৬–৩০ ডিসেম্বর ২০১৮
১৮১ (৪৭ ওভার)
বাবর আজম ৭১ (৭৯)
ডুয়ানে ওলিভার ৬/৩৭ (১৪ ওভার)
২২৩ (৬০ ওভার)
টেম্বা বাভুমা ৫৩ (৮৭)
মোহাম্মদ আমির ৪/৬২ (২০ ওভার)
১৯০ (৫৬ ওভার)
শান মাসুদ ৬৫ (১২০)
ডুয়ানে ওলিভার ৫/৫৯ (১৫ ওভার)
১৫১/৪ (৫০.৪ ওভার)
হাশিম আমলা ৬৩* (১৪৮)
শান মাসুদ ১/৬ (৩ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ৬ উইকেটে জয়ী
সুপারস্পোর্ট পার্ক, সেঞ্চুরিয়ন
আম্পায়ার: ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া) ও এস. রবি (ভারত)
ম্যাচসেরা: ডুয়ানে ওলিভার (দক্ষিণ আফ্রিকা)

২য় টেস্ট[সম্পাদনা]

৩–৭ জানুয়ারি ২০১৯
১৭৭ (৫১.১ ওভার)
সরফরাজ আহমেদ ৫৬ (৮১)
ডুয়ানে ওলিভার ৪/৪৮ (৫ ওভার)
৪৩১ (১২৪.১ ওভার)
ফাফ দু প্লেসিস ১০৩ (২২৬)
মোহাম্মদ আমির ৪/৮৮ (৩৩ ওভার)
২৯৪ (৭০.৪ ওভার)
আসাদ শফিক ৮৮ (১১৮)
কাগিসো রাবাদা ১/৬১ (১৬.৪ ওভার)
৪৩/১ (৯.৫ ওভার)
ডিন এলগার ২৪* (৩৯)
মোহাম্মদ আব্বাস ১/১৪ (৪ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ৯ উইকেটে জয়ী
নিউল্যান্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড, কেপ টাউন
আম্পায়ার: ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
ম্যাচসেরা: ফাফ দু প্লেসিস (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • কুইন্টন ডি কক (দক্ষিণ আফ্রিকা) টেস্টে তার ২০০০তম রান।

৩য় টেস্ট[সম্পাদনা]

১১–১৫ জানুয়ারি ২০১৯
২৬২ (৭৭.৪ ওভার)
এইডেন মার্করাম ৯০ (১২৪)
ফাহিম আশরাফ ৩/৫৭ (১৫ ওভার)
১৮৫ (৪৯.৪ ওভার)
সরফরাজ আহমেদ ৫০ (৪০)
ডুয়ানে ওলিভার ৫/৫১ (১৩ ওভার)
৩০৩ (৮০.৩ ওভার)
কুইন্টন ডি কক ১২৯ (১৩৮)
শাদাব খান ৩/৪১ (১১.৩ ওভার)
২৭৩ (৬৫.৪ ওভার)
আসাদ শফিক ৬৫ (৭১)
ডুয়ানে ওলিভার ৩/৭৪ (১৫ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ১০৭ রানে জয়ী
ওয়ান্ডেরার্স স্টেডিয়াম, জোহানেসবার্গ
আম্পায়ার: এস. রবি (ভারত) ও জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
ম্যাচসেরা: কুইন্টন ডি কক (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • জুবায়ের হামজা (দক্ষিণ আফ্রিকার) তার টেস্ট অভিষেক করেন, এবং পুনর্বিবেচনা থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার ১০০তম টেস্ট খেলোয়াড় হয়ে ওঠে।
  • সরফরাজ আহমেদ (পাকিস্তান) দশ টেস্টের মধ্যে টেস্ট উইকেটে উইকেটরক্ষক অধিনায়ক সর্বোচ্চ ডিসমিসাল জন্য একটি নতুন রেকর্ড সেট।

ওডিআই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম ওডিআই[সম্পাদনা]

১৯ জানুয়ারি ২০১৯
১৩:০০ (দিন/রাত)
দক্ষিণ আফ্রিকা 
২৬৬/২ (৫০ ওভার)
 পাকিস্তান
২৬৭/৫ (৪৯.১ ওভার)
হাশিম আমলা ১০৮* (১২০)
শাদাব খান ১/৪১ (১০ ওভার)
ইমাম-উল-হক ৮৬ ১০১
ডুয়ানে ওলিভার ২/৭৩ (১০ ওভার)

২য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২২ জানুয়ারি ২০১৯
১৩:০০ (দিন/রাত)
পাকিস্তান 
২০৩ (৪৫.৫ ওভার)
 দক্ষিণ আফ্রিকা
২০৭/৫ (৪২ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ৫ উইকেটে জয়ী
কিংসমিড ক্রিকেট গ্রাউন্ড, ডারবান
আম্পায়ার: বঙ্গানী জেল (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: অ্যান্ডিল ফেহলাকওয়াইও (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • হুসাইন তালাত (পাকিস্তান) এর ওডিআই অভিষেক হয়।
  • সরফরাজ আহমেদ (পাকিস্তান) তার ১০০ তম ওডিআইতে খেলেছে।

৩য় ওডিআই[সম্পাদনা]

২৫ জানুয়ারি ২০১৯
১৩:০০ (দিন/রাত)
দক্ষিণ আফ্রিকা 
৩১৭/৬ (৫০ ওভার)
 পাকিস্তান
১৮৭/২ (৩৩ ওভার)
ইমাম-উল-হক ১০১ (১১৬)
ডেল স্টেইন ২/৪৩ (১০ ওভার)
রিজা হেনড্রিক্স ৮৩* (৯০)
হাসান আলী ১/৩৩ (৬ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ১৩ রানে জয়ী (ডি/এল)
সুপারস্পোর্ট পার্ক, সেঞ্চুরিয়ন
আম্পায়ার: গ্রিগোরি ব্রেদওয়েট (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও আদ্রিয়ান হোল্ডস্টক (দক্ষিণ আফ্রিকা)
সেরা খেলোয়াড়: রিজা হেনড্রিক্স (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • পাকিস্তান টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।
  • দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের সময় বৃষ্টির কারণে কোনও খেলা হয়নি।
  • বিউরেন হেনড্রিক্স (দক্ষিণ আফ্রিকা) এর ওডিআই অভিষেক হয়।
  • ইমাম-উল-হক (পাকিস্তান) ওয়ানডেতে ১ হাজার রান করার জন্য ইনিংসে দ্বিতীয় দ্রুততম ব্যাটসম্যান হয়ে ওঠে (১৯)।

৪র্থ ওডিআই[সম্পাদনা]

২৭ জানুয়ারি ২০১৯
১০:০০
পাকিস্তান ৮ উইকেটে জয়ী
ওয়ান্ডেরার্স স্টেডিয়াম, জোহানেসবার্গ
আম্পায়ার: বঙ্গানী জেল (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
  • পাকিস্তান টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৫ম ওডিআই[সম্পাদনা]

৩০ জানুয়ারি ২০১৯
১৩:০০ (দিন/রাত)
দক্ষিন আফ্রিকা ৭ উইকেটে জয়ী
নিউল্যান্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ড, কেপ টাউন
আম্পায়ার: গ্রিগোরি ব্রেদওয়েট (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও আদ্রিয়ান হোল্ডস্টক (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

টি২০আই সিরিজ[সম্পাদনা]

১ম টি২০আই[সম্পাদনা]

১ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
১৮:০০ (দিন/রাত)
  • পাকিস্তান টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

২য় টি২০আই[সম্পাদনা]

৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
১৪:৩০
  • পাকিস্তান টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

৩য় টি২০আই[সম্পাদনা]

৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৯
১৮:০০ (দিন/রাত)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]