২০১২ (চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০১২
২০১২ (চলচ্চিত্র).jpg
প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির পোস্টার
পরিচালকরোলান্ড এমেরিশ
প্রযোজক
রচয়িতা
  • হ্যারল্ড ক্লোসার
  • রোলান্ড এমেরিশ
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকার
চিত্রগ্রাহকডিন স্মেলার
সম্পাদক
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকসনি পিকচার্স রিলিজিং
মুক্তি
  • ১৩ নভেম্বর ২০০৯ (2009-11-13) (যুক্তরাষ্ট্র)
দৈর্ঘ্য১৫৮ মিনিট
দেশযুক্তরাষ্ট্র[১]
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$২০০ মিলিয়ন[২]
আয়$৭৬৯.৭ মিলিয়ন[৩]

২০১২ একটি ২০০৯ সালের মার্কিন বিজ্ঞান কল্পকাহীনি বিপর্যয় দুঃসাহসিক চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি সহ-রচনা এবং পরিচালনা করেছেন রোলান্ড এমেরিশ। অভিনয়ে ছিলেন জন কুস্যাক, সিউইটেল ইজিওফর, আমেন্ডা পীট, অলিভার প্ল্যাট, থ্যান্ডি নিউটন, ড্যানি গলভার এবং উডি হ্যারিসন। প্রযোজনা করেছে সনি পিকচার্স এবং পরিবেশনা করেছে কলাম্বিয়া পিকচার্স[১] চলচিত্রায়ন শুরু হয়েছিল আগস্ট ২০০৮ সালে ভ্যানকুভারে, যদিও মূল পরিকল্পনায় এটি লস অ্যাঞ্জেলেসে চলচ্চিত্রায়নের কথা ছিলো।[৪]

চলচ্চিত্রে, ভূতাত্ত্বিক এবং আবহবিদ্যাগত চরম-বিপর্যয়ের ঘটনার মধ্যে জ্যাকসন কার্টিস (জন কুস্যাক) নামে এক ব্যক্তির তার পরিবারকে আশ্রয়েস্থলে নিয়ে যাবার কাহীনি চলচ্চিত্রায়ন করা হয়েছে। এই চলচ্চিত্রে মায়ানবাদ, মেসোআমেরিকান লং কাউন্ট পঞ্জিকা থেকে সূত্র অন্তর্ভুক্ত হয়েছে, এবং ২০১২ সালের রাহস্যিক বিষয়ের অকস্মিক প্রচণ্ড পরিবর্তনের ঘটনা বর্ণনাকারে উন্মোচিত হয়েছে।

প্রধান চরিত্রের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে একটি ওয়েবসাইটের সৃষ্টি সহযোগে গঠিত হওয়া দীর্ঘসময়ব্যাপী বিপনণ প্রচারাভিযানের পর,[৫] এবং একটি ভাইরাল বাজারজাতকরণ ওয়েবসাইট যেখানে নিশ্চিত বিপর্যয় থেকে রক্ষা করতে[৬] একটি লটারী সংখ্যার জন্য চলচ্চিত্র যাত্রীদের দলগত নিবন্ধনে, চলচ্চিত্রটি আন্তর্জাতিকভাবে নভেম্বর ১৩, ২০০৯ সালে মুক্তি দেয়া হয়। সমালোচকগণের অধিকাংশই চলচ্চিত্রটির বিপরীত পর্যালোচনা করেন, তবে স্পেশাল ইফেক্টের প্রশংসা করলেও কিন্তু এর কাহীনি উপাদান এবং দৈর্ঘ্য (১৫৮ মিনটি) সম্পর্কে সমালোচনা করেন। $২০০ মিলিয়ন বাজেটের সত্বেও, চলচ্চিত্রটি, বিশ্বজুড়ে বক্স অফিসে $৭৭০ মিলিয়নের কাছাকাছি আয় করে।[৭]

কাহীনিসংক্ষেপ[সম্পাদনা]

২০১২ চলচ্চিত্রে দুনিয়া ধংসের মূহুর্তের একটি দৃশ্য

২০০৯ সালে, মার্কিন ভূতাত্বিক অড্রিন হেল্মস্লে জ্যোতির্বস্তুবিদ সাতনাম সুরুতানি কাছে ভারতে পরিদর্শন করেন এবং শেখেন যে বিশাল সৌর বিস্তারণ থেকে নির্গত প্রতিনিউট্রিনো ভূগর্ভের ভেতরের তাপমাত্রা চক্রাকারে বৃদ্ধি করছে। ওয়াশিংটন, ডিসির এক অনুষ্ঠানে, হেল্মস্লে হোয়াইট হাউসেরে স্টাফ প্রধান কার্ল অ্যানহিউজারের নিকট তার তথ্য প্রদর্শন করেন, যিনি তাকে রাষ্টপতির সাথে দেখা করাতে নিয়ে যান।

২০১০ সালে, ইউ.এস. রাষ্ট্রপতি থমাস উইলসন এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক নেতা মিলে মানবজাতির টিকে থাকার জন্য একটি গোপন প্রজেক্ট শুরু করেন। জি৮ রাষ্ট্রসমূহ, চীন সহকারে, নয়টি বিশাল আর্ক নির্মাণ করে, যার প্রতিটি, চাও মিঙ, তিব্বত, হিমালয়, চীনের নিকটবর্তী ১০০,০০০ মানুষ বহন করতে সমর্থ। নিমা, একজন বোদ্ধ সন্ন্যাসী বাস করেন সে এলাকায় যেখানে তার ভাই তেনজিন আর্ক প্রজেক্ট নির্মাণে অংশ নিয়েছে। প্রতিজনের জন্যে €১ বিলিয়ন ব্যায়ে টিকিট বিক্রির সধ্য দিয়ে বৃহৎ অর্থের যোগান মেটে। ২০১১ এর দিকে, শিল্প দক্ষ এবং ড. লাওড়া উইলসনের প্রথম কন্যার সাহার্যে মূল্যবান জিনিসপত্র আর্কে স্নানান্তরিত করা হয়।

২০১২ সালে, বিজ্ঞান কল্পকাহীনি লেখক জ্যাকসন কার্টিস লস অ্যাঞ্জেলেসে রাশিয়ান ধনকুব ইয়ুরি কার্পোভের গাড়িচালকের কাজ নেন। জ্যাকসনের প্রাক্তন স্ত্রী কেট এবং তাদের সন্তান নোয়া এবং লিলি, কেটের প্রেমিক গর্ডন সিলবারম্যানের সাথে বসবাস করে; যিনি একজন প্লাস্টিক সার্জন। জ্যাকসন নোয়া এবং লিলিকে ইয়েলোস্টোন জাতীয় উদ্যানে এক প্রচারাভিযান নিয়ে যান। যখন তারা ইউএস আর্মি কর্তৃক "বিপদ" চিহ্নিত একটি বেড়াবেষ্টিত এলাকা খুঁজে পান, জ্যাকসন বিপদ এড়াতে তার বাচ্চাদের বেড়ার উপর দিয়ে নিয়ে যান, যেখানে তারা হেল্মস্লের চোখে ধরা পড়েন। মিলিটারি প্রহরা থেকে মুক্তির পর, তারা চার্লি ফ্রস্টের সাথে দেখা করেন, যিনি পার্ক থেকে একজন বেতার অনুষ্ঠানের আয়োজক।

বিকল্প সমাপ্তি[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রের ডিভিডি মুক্তির সংস্করণে একটি বিকল্প সমাপ্তি রাখা হয়েছে। ক্যাপ্টেন মাইকেলের পর, আর্ক ৪-এর ক্যাপ্টেন, ঘোষণা করেন যে তারা ক্যাপ অব গড হোপ-এ শিরোনাম রয়েছেন, তিনি বলেন ড. হেল্মস্লেকে বলেন যে তার একটি ফোন কল এসেছে তার জন্যে অপেক্ষা করতে। ড. হেল্মস্লে আবিষ্কার করেন তার বাবা হ্যারি এখনো বেঁচে রয়েছেন।[৮][৯]

অভিনয়ে[সম্পাদনা]

  1. জন কুস্যাক - জ্যাকসন কার্টিস, একজন পরিশ্রমী লেখক।[১০]
  2. সিউইটেল ইজিওফর - ড. অড্রিন হেল্মস্লে, ভূতাত্ত্বিক এবং ইউএস রাষ্টপতির প্রধান বিজ্ঞান উপদেষ্টা। তিনি জ্যাকসন কার্টিসের কাজের একজন ভক্ত।[১১]
  3. আমেন্ডা পিট - কেট কার্টিস, একজন চিকিৎসাবিজ্ঞান শিক্ষার্থী এবং জ্যাকসনের সাবেক স্ত্রী।[১২]
  4. লিয়াম জেমস - নোআ কার্টিস, জ্যাকসন এবং কেটের ছেলে।
  5. মরগান লিলি - লিলি কার্টিস, জ্যাকসন এবং কেটের মেয়ে।
  6. থ্যান্ডি নিউটন - ড. লাওড়া উইলসন, একজন শিল্প দক্ষ এবং রাষ্ট্রপতি উইলসনের মেয়ে।
  7. থমাস ম্যাককার্থনি - ড. গর্ডন সিলবারম্যান, কেটের বর্তমান প্রেমিক যিনি একজন প্লাস্টিক সার্জন[১৩]
  8. ড্যানি গ্লোভার - থমাস উইলসন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি
  9. অলিভার প্যালেট - কার্ল অ্যানহিউজার, হোয়াইট হাউসেরে স্টাফ প্রধান
  10. উডি হ্যারিলসন - চার্লি ফ্রস্ট, একজন Fringe science conspiracy theorist এবং বেতার অনুষ্ঠানের অয়োজক।
  11. জন বিলিঙ্গসএল - অধ্যাপক ফ্রেডরিখ ওয়েস্ট, একজন বিজ্ঞানী এবং ড. অড্রিন হেল্মস্লের সহকর্মী।
  12. রায়ান ম্যাকডোনাল্ড - স্কুটি, ড. অড্রিন হেল্মস্লে এবং অধ্যাপক ফ্রেডরিখ ওয়েস্টের সহকারী।
  13. জিমি মিস্ট্রি - ড. সাতনাম সুরুতানি, একজন জ্যোতির্বস্তুবিদ।
  14. আগাম দর্শী - অপর্না সুরুতানি, ড. সাতনাম সুরুতানির স্ত্রী।
  15. চিন হান - তেনজিন, একজন শিল্প কর্মী যিনি তার পরিবার রক্ষা করতে উদ্যত।
  16. অসরিক চাউ - নিমা, একজন বোদ্ধ সন্ন্যাসী এবং তেনজিনের ভাই।
  17. সেঙ চ্যাঙ - দাদা সোনাম, নিমা এবং তেজিনের দাদা।
  18. লিসা লু - দাদী সোনাম, নিমা এবং তেজিনের দাদী।
  19. জ্লাটকো ব্যুরিক - ইয়ুরি কার্পোভ, একজন রুশ ধনকুভ এবং সাবেক বক্সার।
  20. ব্যাট্রিক রসেন - তামারা জিকিন, ইয়ুরির প্রেমিকা।
  21. আলেক্সান্ডার এবং ফিলিপে হাউসমান - এলিস এবং ওলেগ কার্পোভ, ইয়ুরির জমন ছেলে।
  22. জোহান আর্ব - সাশা, একজন বিমানচালক যিনি ইয়ুরির জন্যে কাজ করেন।
  23. ব্লু ম্যানকুমা - হ্যারি হেল্মস্লে, অড্রিনের বাবা যিনি টনির গানের সঙ্গী।
  24. জর্ঝ সেগাল -টনি ডেলগোটো, একজন জ্যাজ গায়ক যিনি হ্যারির সঙ্গী।
  25. স্টিফেন ম্যাকহাটি - ক্যাপ্টেইন মিখায়েলস, আর্ক ৪-এর ক্যাপ্টেইন।
  26. প্যাট্রিক বাউচু - রোনাল্ড পিকার্ড, ল্যুভ্ জাদুঘরের পরিচালক যিনি ইউএস সরকারের গাড়িতে বোমা বিস্ফোরণে মারা যান।
  27. হেনরি ও - লামা রিনপোশে, একজন বোদ্ধ সন্ন্যাসী।
  28. ডিন মার্শেল - আর্ক যোগাযোগ কর্মকর্তা।

উৎপাদন[সম্পাদনা]

এই চলচ্চিত্র গ্রাহাম হানকোক রচিত ফিঙ্গারপ্রিন্ট অব দ্য গড্‌স (১৯৯৫) বই থেকে অনুপ্রেরিত হয়ে নির্মিত হয়েছে,[১৪] এবং লন্ডন ম্যাগাজিন টাইম আউটের সাথে একটি সাক্ষাৎকারে, এমেরিশ বিবৃতি দেন: "আমি সবসময় চেয়েছি বাইবেলিয় অবর্তনে চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে, কিন্তু কখনো ভাবিনি এতে আমার প্রকিবন্ধকতা থাকতে পারে। আমি প্রথমে গার্হাম হ্যানককের ফিঙ্গারপ্রিন্ট অব দ্য গড্‌স বইয়ে 'আর্থ ক্রাস্ট ডেভেলপমেন্ট থিওরি' সম্পর্কে পড়ে নিই।"[১৫]

পরিচালক এমিরিখ এবং সরোকার-প্রযোজক হ্যারল্ড ক্লোসারের মধ্যে অত্যধিক ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল এবং একযোগে রচনা করেন ২০১২ শিরোনামে একটি স্পেস স্ক্রিপ্ট, যা প্রধান স্টুডিও কর্তৃক বিপণতকৃত হয় ফেব্রুয়ারি ২০০৮ সালে। কাছাকাছি প্রায় সব স্টুডিও এমিরিখের সাথে দেখা করতে আসে এবং তার প্রতিনিধিদের পরিচালক বাজেট অভিক্ষেপ এবং গল্প পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে। এটি ছিল এমন একটি প্রক্রিয়া যা পূর্বে ইন্ডিপেন্ডেন্ট ডে (১৯৯৬) এবং দ্য ডে আফ্টার টুমোরো (২০০৪) চলচ্চিত্রের পরিচালকরে ক্ষেত্রেও ঘটে।[১৬] এই মাসের শেষে, কলাম্বিয়া পিকচার্সের অধিনে বিতরণ করার পরিকল্পনায়, সনি পিকচার্স এন্টারটেনমেন্ট স্প্যাক স্ক্রিপ্টের অধিকার জিতে নেয়,[১৭] এবং চলচ্চিত্রটি স্বল্প বাজেটে তৈরি করা হয়েছিল। এমিরিখের মতে, চলচ্চিত্রটি অবশেষে প্রায় $২০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে তৈরি করা হয়েছিল।[২]

মূলত জুলাই ২০০৮ সালে পূর্ব নির্ধারণ অনুসারে লস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়ায় চিত্রগ্রহণ শুরু হয়েছিল,[৪] কিন্তু এর পরিবর্তে কামলুপ্স, সাভোনা, ক্যাশে ক্রিক এবং ব্রিটিশ কলাম্বিয়া, কানাডায় অ্যাশক্রফটে চিত্রগ্রহণ করা হয়।[১৮] সম্ভাব্য ২০০৮ স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড স্ট্রাইকের কারণে, চলচ্চিত্র নির্মাতা চলচ্চিত্র স্যালভেজের জন্য আকস্মিক ঘটনা পরিকল্পনা করেন।[১৯]

বিপনণ[সম্পাদনা]

"ইনিস্টিটিউট অব হিউম্যান কন্টিনিউটি", নমক একটি কাল্পনিক সংস্থা কর্তৃক এই চলচ্চিত্রের বিপনণ প্রচারাভিযান প্রবর্তিত হয়।[৫]

নভেম্বর ১২, ২০০৮ সালের একটি নতুন স্টুডিও এই চলচ্চিত্রের প্রথম ট্রেইলর মুক্তি দেয়, যেখানে দেখানো হয়, একটি সুনামি হিমালয় পর্বতমালার উপর দিয়ে ধাবিত হচ্ছে এবং যে যা থেকে বুঝা যায় ২০১২ সালে বিশ্ব ধ্বংস হতে যাচ্ছে এ ধরণের বৈজ্ঞানিক বার্তা, এবং বিশ্বের সরকার বিশ্ববাসীকে এই ঘটনার জন্যে প্রস্তুত করেন নি। এই ট্রেইলের সমাপ্তিতে দর্শকদের প্রতি একটি বার্তা রাখা হয়, সার্চউঞ্জিনে "২০১২" খোঁজার সাথে "সত্যকে খুজে নাও"। দ্য গার্ডিয়ান এই বিপণন প্রতিক্রিয়ার সমালোচনা করে।[২০]

এই স্টুডিও এছাড়াও এর কাল্পনিক সংস্থা ইনিস্টিটিউট অব হিউম্যান কন্টিনিউটি এর তত্বাবধানে একটি ভাইরাল বিপণন ওয়েবসাইট প্রবর্তন করে।[৬] নাসার ডেভিড মরিসন মানুষের কাছ থেকে ১০০০ অধিক অনুসন্ধান গ্রহণ করেন যারা এই ওয়েবসাইট আসল ছিলো ভাবেন এবং দোষারোপ করেন। "আমি এমন ঘটনা পেয়েছি যেখানে আমার কাছে কিশোররা লিখেছে যে তারা অত্মহত্যার পরিকল্পনা করেছে কারণ তারা বিশ্বকে ধ্বংস হতে দেখতে চায় না," তিনি বলেন। "আমি ভাবি যখন আপনি ইন্টারনেটে মিথ্যা বলবেন এবং ভয় চাপিয়ে শিশুদের ভীত করে তুলবেন, এটা নৈতিকভাবে ভুল।"[২১] আরেকটি ভাইরাল বিপনণ ওয়েবসাইট প্রবর্তন করে ফেয়ারওলেল আটলান্টিস, ২০১২-এর ঘটনা সম্পর্কিত একটি কাল্পনিক সংশয়াপন্ন উপন্যাস।[৫]

সাউন্ডট্র্যাক[সম্পাদনা]

২০১২: অরিজিনাল মোশন পিকচার্স সাউন্ডট্র্যাক
২০১২ - অরিজিনাল মোশন পিকচার্স সাউন্ডট্র্যাক.jpg
হ্যারল্ড ক্লোসার এবং থমাস ওয়ান্ডার কর্তৃক সাউন্ডট্র্যাক অ্যালবাম
মুক্তির তারিখনভেম্বর ১০, ২০০৯
দৈর্ঘ্য৫৭:৪৮
সঙ্গীত প্রকাশনীআসিও ভিক্টর
২০১২ থেকে একক গান
  1. "টাইম ফর মিরাকলস"
    মুক্তির তারিখ: ১৮ অক্টোবর ২০০৯ (2009-10-18)

চলচ্চিত্রের মূল স্কোর হ্যারল্ড ক্লোসার এবং থমাস ওয়ান্কার কর্তৃক সুরারোপিত হেয়ছে। গায়ক অ্যাডাম ল্যামবার্ট চলচ্চিত্র্র জন্য "টাইম ফর মিরাকলস" শিরোনাম একটি গানে কণ্ঠ দেন এবং এমটিভির সাথে এক সাক্ষাতকারে এই সুযোগ দানের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।[২২]

চলচ্চিত্রের সাউন্ডট্র্যাকে ২৪টি গান সংযোজিত রয়েছে, এবং ফিল্টারের "ফেডস্ লাইক অ্যা ফটোগ্রাফ" এবং জর্জ সেগেলব্লু মানকুমা সঞ্চালিত, "ইট আইন’ট দ্য এ্যন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড" অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।[২৩] ট্রেইলার সঙ্গীত ছিলো ট্র স্টেপস্ ফ্রম হেলের মাস্টার অব শ্যাডোস।

নং.শিরোনামদৈর্ঘ্য
১."টাইম ফর মিরাকল্স" (অ্যাডাম ল্যাম্বার্ট কর্তৃক)৪:৪৩
২."কন্সটেলেশন"১:৩০
৩."উইসকনসিন"১:১৪
৪."ইউ.এস. আর্মি"২:২০
৫."রেডি টু রাম্বেল"১:৪২
৬."স্প্রিট অব সান্তা মোনিকা"১:২১
৭."ইট আইন'ট দ্য এ্যন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড" (জর্জ সেগাল এবং ব্লু মানকুমা কর্তৃক)২:৫২
৮."গ্রেট কিড"২:১৭
৯."ফাইন্ডিং চার্লি"১:৪৫
১০."রান ড্যাডি রান"১:১৪
১১."স্টিপিং ইন্টুু দ্য ডার্কনেস"১:৩৫
১২."লিভিং লাস ভেগাস"১:৪৪
১৩."এ্যাশেস ইন ডি.সি."৪:১৯
১৪."উই আর টকিং দ্য বেন্টলে"৩:৪৩
১৫."নাম্পান প্লাটাও"২:৫১
১৬."সেভিং সিজার"২:০৯
১৭."আর্দ্রিয়ান'স স্পিচ"১:৪১
১৮."ওপেন দ্য গেট্স!"২:১৬
১৯."দ্য ইম্পেক্ট"১:৪৯
২০."সুইসাইড মিশন"২:০৬
২১."২০১২ দ্য এ্যন্ড অব দ্য ওয়ার্ল্ড"১:২৪
২২."কলিশন উইথ মাউন্ট এভারেস্ট"১:০৯
২৩."দ্য এ্যন্ড ইজ অনলি দ্য বিগিনিং"৫:৪৪
২৪."ফেড্‌স লাইক অ্যা ফটোগ্রাফ" (ফিল্টার কর্তৃক)৪:১৯

মুক্তি[সম্পাদনা]

২০১২ মূলত জুলাই ১০, ২০০৯ সালে মুক্তি দেবার পরিকল্পনা ছিলো। এই মুক্তির তারিখ নভেম্বর ২০০৯ সালে পরিবর্তিত করে নেয়া হয় গ্রীষ্মের ছুটিতে অধিক আর্থিক সাফল্যের সম্ভাবনায়। স্টুডিওর মতে, চলচ্চিত্রটি গ্রীষ্ম মুক্তির জন্য সম্পূর্ণ করার কথা ছিলো, কিন্তু তারিখ পরিবর্তনে এর উৎপাদনে আরো সময় পাওয়া যায়। চলচ্চিত্রটি নভেম্বর ১৯, ২০০৯ সালের সুইডেন, কানাডা, ডেনমার্ক, মেক্সিকো, ভারত এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, এবং নভেম্বর ২১, ২০০৯ সালে জাপানে মুক্তি দেয়া হয়।[২৪]

মার্চ ২, ২০১০ সালে ২০১২ চলচ্চিত্রের ডিভিডি এবং ব্লু-রে সংস্করণ মুক্তি দেয়া হয়। ২-ডিস্ক ব্লু-রে সংস্করণে ৯০ মিনিটের স্পেশাল ফিচার অন্তর্ভুক্ত, যার মধ্যে রয়েছে অ্যাডাম ল্যামবার্টের মিউজিক ভিডিও "টাইম ফর মিরাকলস", এবং পিএসপি, পিসি, শ্যাক এবং আইপডের জন্য একটি ডিজিট্যাল কপি[২৫] ডিভিডিতে ২০১২ চলচ্চিত্রের ইয়োরোপীয় মুক্তির তারিখ ছিলো মার্চ ১৬, ২০১০; উত্তর আমেরিকার সংস্করণের মতো এখনেও একই স্পেশাল ইফেক্ট অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

ফেব্রুয়ারি, ২০১৩ সালে মেক্সিকোর সিনেম্যাক্স প্রেক্ষাগৃহে এর ৩ডি সংস্করণ পূণ-মুক্তি দেয়া হয়েছিলো।[২৬]

অভ্যর্থনা[সম্পাদনা]

বক্স অফিস[সম্পাদনা]

২০১২ উত্তর আমেরিকায় $১৬৬,১১২,১৬৭ এবং অন্যান্য অঞ্চলে $৬০৩,৫৬৭,৩০৬ সর্বোপরি বিশ্বব্যাপী মোট $৭৬৯,৬৭৯,৪৭৩ আয় করে। বিশ্বব্যাপী এটি ৫০তম সর্বোচ্চ-আয়কারী চলচ্চিত্র, ২০০৯ সালের পঞ্চম সর্বোচ্চ-আয়কারী চলচ্চিত্র[৭] এবং সনি/কলাম্বিয়া পরিবেশিত স্যাম রাইমির স্পাইডার-ম্যান ট্রিলজি এবং স্কাইফল চলচ্চিত্রের পর পঞ্চম সর্বোচ্চ আয়কারী চলচ্চিত্র।[২৭] এছাড়াও এটি ইন্ডিপেন্ডেন্ট ডে চলচ্চিত্রের পর এমেরিশ পরিচালিত দ্বিতীয় সর্বোচ্চ-আয়কারী চলচ্চিত্র।[২৮] বিশ্বব্যাপী এর উদ্বোধনী সপ্তাহের আয় $২৩০.৫ মিলিয়ন, যা সনি/কলাম্বিয়ার ২০০৯ সালের চতুর্থ-সর্বোচ্চ উদ্বোধনী আয়কারী চলচ্চিত্র।[২৯]

উত্তর আমেরিকায়, প্রথম সপ্তাহে চলচ্চিত্রটি $৬৫,২৩৭,৬১৪ আয় করে প্রথম র্যাংক অর্জন করে। বিপর্যয় চলচ্চিত্রের ক্ষেত্রে চতুর্থ-সর্বোচ্চ আয়কারী চলচ্চিত্র।[৩০] আর সর্বমোট আয় করে $১৬৬,১১২,১৬৭।[৩]

উত্তর আমেরিকার বাইরে, এটি ২৮তম সর্বোচ্চ-আয়কারী চলচ্চিত্র, ২০০৯ সালের চতৃর্থ সর্বোচ্চ-আয়কারী চলচ্চিত্র[৩১] এবং স্কাইফল চলচ্চিত্রের পর সনি/কলাম্বিয়া পরিবেশিত দ্বিতীয় সর্বোচ্চ-আয়কারী চলচ্চিত্র। উদ্বোধনের প্রথম সপ্তাহে এটি $১৬৫.২ মিলিয়ন আয় করে, যা উদ্বোধনী সপ্তাহের সর্বোচ্চ-আয়কারী চলচ্চিত্রের মধ্যে ১৪তম র‌্যাংকে রয়েছে।[৩২] এর উদ্বোধনী আয় ($১৮.০ মিলিয়ন) ফ্রান্স এবং মাঘরেব অঞ্চলে রেকর্ড করে। সর্বমোট আয়ে, উত্তর কোরিয়ার পর তিনটি সর্বোচ্চ-আয়কারী অঞ্চল হলো ফ্রান্স এবং মাঘরেব অঞ্চল ($৪৪.০ মিলিয়ন), জাপান ($৪২.৬ মিলিয়ন), এবং জার্মানি ($৩৭.৭ মিলিয়ন)।[৩৩]

সমালোচনামূলক সাড়া[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটি সমালোচকগণের নিকট থেকে মিশ্র সমালোচনা গ্রহণ করে। পর্যালোচনা অনুমোদনকারী রটেন টমেটস ১০ এর মধ্যে গড় রেটিং ৫ এর পাশাপাশি প্রদর্শন করে ২১৯ জন সমালোচকের (শীর্ষ ৪৫ সমালোচকের ৩১%) মাত্র ৩৯% চলচ্চিত্র সম্পর্কে ইতিবাচক পর্যালোচনা করেছেন।[৩৪][৩৫] মেটাক্রিটেক, যা চলচ্চিত্র সমালোচকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত ১-১০০ পর্যালোচনার মধ্য থেকে গড় স্কোর নির্ধারণ করে, ৩৪টি পর্যালোচনার উপর ভিত্তি করে ৪৯ স্কোর রেটিং প্রদান করে।[৩৬]

রবার্ট এলবার্ট এই চলচ্চিত সম্পর্কে অত্যুৎসাহী ছিলেন, চারের মধ্যে ৩.৫ স্টার প্রদান করেন, বলেন এটি "প্রতিশ্রুতি রেখেছে, এবং টিকিট ক্রয় করতে কোন দ্বন্দ্ব থাকবে না, চলচ্চিত্রটি দর্শকদের জন্যেই, বছরের সর্বোচ্চ সাফল্যমণ্ডিত চলচ্চিত্র এটি।"[৩৭] ইউএস টুড পত্রিকার এলবার্ট এবং ক্লডিয়া পিউইগ দুজনই এই চলচ্চিত্রকে, "বিপর্যয় চলচ্চিত্রের জননী" বলে উল্লেখ করেন।[৩৭][৩৮] রোলিং স্টোন পত্রিকার পিটার ট্রাভার্স ট্রান্সফরমার্স: রিভেঞ্জ অব দ্য ফলেন চলচ্চিত্রের সাথে তুলনা করে এই চলচ্চিত্ররের সমালোচনা করেন।[৩৯]

প্রশংসা[সম্পাদনা]

Three small white and yellow flowers before green-leaf background
Three small white and yellow flowers before green-leaf background
সিউইটেল ইজিওফর এবং ড্যানি গ্লোভার চলচ্চিত্রে তাদের ভূমিকার জন্য এনএএসিপি ইমেজ পুরস্কারে মনোনীত হয়েছেন।[৪০]
পুরস্কার বিভাগ প্রাপক এবং মনোনীত ফলাফল
ব্রডকাস্ট ফিল্ম ক্রিটিকস অ্যাসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ডস[৪১] শেষ্ঠ ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট ভল্কার এঙ্গেল, মার্ক উইগের্ট, মাইক ভেজিনা মনোনীত
এনএএসিপি ইমেজ পুরস্কার[৪০] মোশন পিকচারে অসাধারণ পার্শ্ব অভিনেতা সিউইটেল ইজিওফর মনোনীত
মোশন পিকচারে অসাধারণ পার্শ্ব অভিনেতা ড্যানি গ্লোভার মনোনীত
মোশন পিকচার্স শব্দ সম্পাতক[৪২] শ্রেষ্ঠ শব্দ সম্পাদনা ফার্নান্ড বোস, রোনাল্ড জে. ওয়েব মনোনীত
শ্রেষ্ঠ শব্দ সম্পাদনা – সঙ্গীত ফার্নান্ড বোস, রোনাল্ড জে. ওয়েব মনোনীত
স্যাটেলাইট অ্যাওয়ার্ড[৪৩] শেষ্ঠ শব্দ সমন্বয় এবং সম্পাদনা পল এন.জে. অটসন, মাইকেল ম্যাকগী, রিক ক্লিন, জেফ্রি জে. হাবোউশ, মাইকেল কেলার বিজয়ী
শেষ্ঠ ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট ভল্কার এঙ্গেল, মার্ক উইগের্ট, মাইক ভেজিনা বিজয়ী
শেষ্ঠ শিল্প নির্দেশনা এবং পরিকল্পনা ব্যারি চুসিড, এলিজাবেথ উইলকক্স মনোনীত
শেষ্ঠ চলচ্চিত্র সম্পাদনা ডেভিড বার্নার, পিটার এস. এলিয়ট মনোনীত
স্যাটার্ন পুরস্কার[৪৪] শেষ্ঠ এ্যাকশন/দুঃসাহসিক/থ্রিলার চলচ্চিত্র ২০১২ মনোনীত
শেষ্ঠ স্পেশাল ইফেক্ট ভল্কার এঙ্গেল, মার্ক উইগের্ট, মাইক ভেজিনা মনোনীত

উত্তর কোরিয়া নিষেধাজ্ঞা[সম্পাদনা]

উত্তর কোরিয়া বিবরণ অনুসারে এই চলচ্চিত্র দেখা নিষিদ্ধ করে। সংতরাং উত্তর কোরিয়া সরকারের নিকট একটি চলচ্চিত্র একটি বছরের প্রতি বিপরীত মনোভাব সৃষ্টি করবে এটা অশোভন মনে হয়। উত্তর কোরিয়ায় এই চলচ্চিত্রের দেখার দায়ে কিছু ব্যক্তি আটক হয় এবং "রাষ্ট্রের উন্নয়নের বিরুদ্ধে গুরুতর উসকানিদানের" অভিযোগ করে।[৪৫][৪৬]

টেলিভিশন স্পিন-অফ বাতিল[সম্পাদনা]

২০১০ সালে, এন্টারটেইনমেন্ট উইকলি ঘোষণা দেয় যে, এই চলচ্চিত্রের অবহে ২০১৩ শিরোনামে একটি আনুসাঙ্গিক বা স্পিন-অফ টেলিভিশন ধারাবাহিকের পরিকল্পনা ছিলো।[৪৭] ২০১২ চলচ্চিত্রের নির্বাহি পযোজক মার্ক গর্ডন ইডব্লিওকে বলেন, লস্ট শেষ হবার পর এবিসি বিপর্যয়-সম্পর্কিত কর্মসূচী হতে যাচ্ছে, তাই দর্শকগণ সপ্তাহ ভিত্তিক এই বিষয়ে আগ্রহী হয়ে উঠবেন। ২০১২ সালের বিপর্যয়ে গুরুত্ব থাকা সত্বেও বিশ্বের জন্যে তাদের আশা রয়েছে, যা তারা চলচ্চিত্রে দেখেছেন। এই চলচ্চিত্রের পর, কিছু মানুষ রয়েছেন যারা টিকে থাকার লড়াই করেছেন, এবং তাদরে প্রশ্ন ছিলো কীভাবে এই টিকে থাকার লড়াই একটি নতুন বিশ্ব তৈরী করেতে পারে এবং এটা কেমন দেখায়। এটাই একটি কৌতূহলী টিভি ধারাবাহিক হয়ে উঠেছে।"[৪৭] যদিও, ভবিষ্যৎ বাজেটের কারণে এই পরিকল্পনা বাতিল হয়ে যায়।[৪৭] এটি এমিরিখের তৃতীয় চলচ্চিত্র হতে যাচ্ছিল, প্রথমটি স্টারগেট (স্টারগেট এসজি-১, স্টারগেট ইনফিনিটি, স্টারগেট আটলান্টিস, স্টারগেট ইউনিভার্স-এর টিভি ধারাবাহিকের সাথে), এবং দ্বিতীয়টি গডজিলা (গডজিলা: দ্য সিরিজ-এর কার্টুন স্পিন-অফের সাথে)।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "2012"American Film Institute। সংগ্রহের তারিখ মে ৬, ২০১৪ 
  2. Blair, Ian (নভেম্বর ৬, ২০০৯)। "'2012's Roland Emmerich: Grilled"। The Wrap। ১৪ নভেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৯, ২০০৯ 
  3. "2012 (2009)"Box Office Mojo। IMDb। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৫, ২০১১ 
  4. Siegel, Tatiana (মে ১৯, ২০০৮)। "John Cusack set for 2012"Variety। ৯ জুলাই ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৪, ২০০৮ 
  5. "Farewell Atlantis by Jackson Curtis – Fake website"Sony Pictures। ১০ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০১১ 
  6. Billington, Alex (নভেম্বর ১৫, ২০০৮)। "Roland Emmerich's 2012 Viral — Institute for Human Continuity"FirstShowing.net। ২০ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১০, ২০০৮ 
  7. "2009 Worldwide Grosses"। Box Office Mojo। ২১ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২০, ২০১০ 
  8. http://www.movieweb.com/news/exclusive-video-watch-the-alternate-ending-for-2012
  9. http://www.blu-ray.com/news/?id=3724
  10. Foy, Scott (অক্টোবর ২, ২০০৯)। "Five Hilariously Disaster-ffic Minutes of 2012"Dread Central। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০১১ 
  11. Simmons, Leslie (মে ১৯, ২০০৮)। "John Cusack ponders disaster flick"The Hollywood Reporter। মে ২৫, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৪, ২০০৮ 
  12. Simmons, Leslie; Borys Kit (জুন ১৩, ২০০৮)। "Amanda Peet is 2012 lead"The Hollywood Reporter। জুলাই ৫, ২০০৮ তারিখে [://www.hollywoodreporter.com/hr/content_display/film/news/e3id5f52df31901946c56e2dccd0127d599 মূল] |ইউআরএল= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৪, ২০০৮ 
  13. Kit, Borys (জুলাই ১, ২০০৮)। "Thomas McCarthy joins 2012"The Hollywood Reporter। জুলাই ৩, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৪, ২০০৮ 
  14. "2012 (2009) – Credit List" (PDF)chicagoscifi.com। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২৫, ২০০৯ 
  15. Jenkins, David (নভেম্বর ১৬, ২০০৯)। "Roland Emmerich's guide to disaster movies"Time Out। ১৬ নভেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২৫, ২০০৯ 
  16. Fleming, Michael (ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০০৮)। "Studios vie for Emmerich's 2012"Variety। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৪, ২০০৮ 
  17. Fleming, Michael (ফেব্রুয়ারি ২১, ২০০৮)। "Sony buys Emmerich's 2012"Variety। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৪, ২০০৮ 
  18. "2012 Filmed in Thompson Region!"। Tourismkamloops.com। ডিসেম্বর ১৪, ২০০৯। ১৭ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০১১ 
  19. "Big Hollywood films shooting despite strike threat"। Reuters। আগস্ট ১, ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ৫, ২০০৮ 
  20. Pickard, Anna (নভেম্বর ২৫, ২০০৮)। "2012: a cautionary tale about marketing"The Guardian। London। ২২ জানুয়ারি ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১০, ২০০৮ 
  21. Connor, Steve (অক্টোবর ১৭, ২০০৯)। "Relax, the end isn't nigh"The Independent। London। ২০ অক্টোবর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২০, ২০০৯ 
  22. Vena, Jocelyn (নভেম্বর ৪, ২০০৯)। "Adam Lambert Feels 'Honored' To Be On '2012' Soundtrack"MTV Movie News। ২৮ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৮, ২০১০ 
  23. "2012: Original Motion Picture Soundtrack". Amazon.com. Retrieved April 3, 2011.
  24. "2012 Worldwide Release Dates"sonypictures.com। ৭ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১২, ২০০৯ 
  25. "Early Art and Specs: 2012 Rocking on to DVD and Blu-ray"। DreadCentral। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৩, ২০১১ 
  26. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  27. All Time Worldwide Box Office Grosses
  28. Rolan Emmerich Movie Box Office Results
  29. Worldwide Openings
  30. "Disaster Movies at the Box Office"। Box Office Mojo। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২৫, ২০১৪ 
  31. "Overseas Total Yearly Box Office"Box Office Mojo। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৯, ২০১১ 
  32. "Overseas Total All Time Openings"Box Office Mojo। ২৩ জুন ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৯, ২০১১ 
  33. 2012 (2009) – International Box Office Results
  34. "2012 (2009)"Rotten TomatoesFlixster। ১১ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২০, ২০১০ 
  35. "2012 (Cream of the Crop)"Rotten Tomatoes। Flixster। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২৫, ২০০৯ 
  36. "2012"MetacriticCNET Networks। ১৭ জানুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২৫, ২০০৯ 
  37. Ebert, Roger (নভেম্বর ১২, ২০০৯)। "2012 :: rogerebert.com"Chicago Sun-Times। ১৫ নভেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৪, ২০০৯ 
  38. Puig, Claudia (নভেম্বর ১৩, ২০০৯)। "'2012': Now that's Armageddon!"USA Today। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২০, ২০০৯ 
  39. Travers, Peter (নভেম্বর ১২, ২০০৯)। "2012: Review"Rolling Stone। ১৫ নভেম্বর ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১২, ২০০৯ 
  40. "The 41st NAACP Image Awards"NAACP Image Award। ১৮ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০১১ 
  41. "The 15th Annual Critics Choice Movie Awards"Broadcast Film Critics Association Awards। ১৯ জুলাই ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০১১ 
  42. "2010 Golden Reel Award Nominees: Feature Films"Motion Picture Sound Editors। ১৬ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০১১ 
  43. "Satellite Awards Announce 2009 Nominations"। Filmmisery.com। নভেম্বর ২৯, ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০১১ 
  44. Miller, Ross (ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১০)। "Avatar Leads 2010 Saturn Awards Nominations"। Screenrant.com। ৩ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০১১ 
  45. Nishimura, Daisuke (মার্চ ২৬, ২০১০)। "Watching '2012' a no-no in N. Korea"Asahi.com। The Asahi Shimbun Company। ২৯ মার্চ ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৫, ২০১০ 
  46. "North Korea fears 2012 disaster film will thwart rise as superpower"The Telegraph। মার্চ ২৬, ২০১০। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৮, ২০১১ 
  47. Rice, Lynette (মার্চ ২, ২০১০)। "ABC passes on '2012' TV show"Entertainment Weekly। ১৭ অক্টোবর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৩, ২০১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]