মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন

স্থানাঙ্ক: ২৫°৬′৩১″ উত্তর ৮৯°২৯′৩২″ পূর্ব / ২৫.১০৮৬১° উত্তর ৮৯.৪৯২২২° পূর্ব / 25.10861; 89.49222
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মহিমাগঞ্জ
ইউনিয়ন
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সীল.svg ১৬ নং মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ
মহিমাগঞ্জ রংপুর বিভাগ-এ অবস্থিত
মহিমাগঞ্জ
মহিমাগঞ্জ
মহিমাগঞ্জ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
মহিমাগঞ্জ
মহিমাগঞ্জ
বাংলাদেশে মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°৬′৩১″ উত্তর ৮৯°২৯′৩২″ পূর্ব / ২৫.১০৮৬১° উত্তর ৮৯.৪৯২২২° পূর্ব / 25.10861; 89.49222 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশবাংলাদেশ
বিভাগরংপুর বিভাগ
জেলাগাইবান্ধা জেলা
উপজেলাগোবিন্দগঞ্জ উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সরকার
 • চেয়ারম্যানমোঃ রুবেল আমিন শিমুল
আয়তন
 • মোট২৩.৯৩ বর্গকিমি (৯.২৪ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট৩৯,২৩০
 • জনঘনত্ব১,৬০০/বর্গকিমি (৪,২০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৫৭৪১ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
মানচিত্র

মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন বাংলাদেশের গাইবান্ধা জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা।[২]

অবস্থান ও আয়তন[সম্পাদনা]

মহিমাগঞ্জ রংপুর বিভাগের গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার অন্তর্গত। এটি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার অন্যতম একটি ইউনিয়ন। এটি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা হতে ১২ কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত। মহিমাগঞ্জের উত্তর-পূর্বে সাঘাটা উপজেলাবাঙ্গালী নদী দিয়ে বেষ্টিত এবং দক্ষিণে সোনাতলা উপজেলা। এর আয়তন ২৩.৯৩ বর্গ কিলোমিটার।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কালের সাক্ষী বহণকারী বাঙ্গালী নদীর তীরে গড়ে ওঠা এক ঐতিহ্যবাহী অঞ্চল হলো মহিমাগঞ্জ। অতীতে মহিমাগঞ্জ ছিলো একটি সুপ্রসিদ্ধ ব্যবসা কেন্দ্র; এখানে প্রায় ১০/১৫টি পাট গোডাউন ছিল, ফলে দূর-দূরান্তের চাষীরা মহিমাগঞ্জে পাট বিক্রি করতেন। ঊনবিংশ শতাব্দির আশির দশক পর্যন্ত মহিমাগঞ্জ রেল স্টেশন থেকে দেওয়ানতলা পর্যন্ত একটা পরিত্যাক্ত রেল লাইন দেখা গেছে। দেওয়ানতলা বাঙ্গালী নদীর তীরবর্তী মারোয়াড়ীদের বিশাল পাট গোডাউন ও অন্যান্য ব্যবসা কেন্দ্র ছিল। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে নদী পথে বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও চাষীরা পাট, ধান, গম ইত্যাদি ফসল মারোয়াড়ীদের নিকট বিক্রয় করতেন এবং মারোয়াড়ী ব্যবসায়ী সেই সকল পণ্য বৃহৎ আকারে দেশের বিভিন্ন বড় বড় শহরে রেল যোগে চালান দিতেন।

নামকরণ

মহিমাগঞ্জের প্রাচীন নাম ছিল 'খড়িয়া বাঁধা'। লালমনিরহাট জেলার কাকিনা রাজার পরগনার আওতায় ছিল এই মহিমাগঞ্জ। রাজা মহিমা রঞ্জন রায় চৌধুরী নিজের নামানুসারে খড়িয়াবাঁধার নাম পরিবর্তন করে নাম রাখেন 'মহিমাগঞ্জ'।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

এ ইউনিয়নে মৌজা সংখ্যা ১১টি ও গ্রাম সংখ্যা ১২টি।[৩] গ্রামগুলো হলোঃ

  • ১. পুনতাইড়,
  • ২. জগদীশপুর,
  • ৩. শ্রীপতিপুর,
  • ৪. বালুয়া,
  • ৫. ছয়ঘড়িয়া,
  • ৬. বোচাদহ,
  • ৭. বামন হাজরা,
  • ৮. পান্তামারী,
  • ৯. জিরাই,
  • ১০. জীবনপুর,
  • ১১. গোপালপুর এবং
  • ১২. কুমিড়াডাঙ্গা।

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারী অনুসারে মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের জনসংখ্যা প্রায় ৩৯,২৩০ জন[১] (পুরুষ: ১৯,৬৭৫ এবং মহিলা: ১৯,৫৫৫); প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১,৬৩৯ জন লোক বাস করে।

স্বাস্থ্য[সম্পাদনা]

  • হাসপাতাল - ১টি
  • কমিউনিটি ক্লিনিক - ৪টি
  • পশু হাসপাতাল - ১টি

শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিক্ষার হার প্রায় ৭৭%।

কৃষি[সম্পাদনা]

প্রধান কৃষিজ ফসলের মধ্যে রয়েছে ধান, পাট ও আঁখ।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় অবস্থিত শিল্প এলাকা মহিমাগঞ্জ। গাইবান্ধা জেলার একমাত্র ভারী শিল্প রংপুর চিনি কল লিমিটেড মহিমাগঞ্জের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত। এছাড়াও এখানে অনেক ছোট বড় শিল্প কারখানা এবং গার্মেন্টস কারখানা রয়েছে।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তি[সম্পাদনা]

দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

বিবিধ[সম্পাদনা]

  • পোস্ট অফিস - ১টি;
  • হাট-বাজার - ১টি;
  • ব্যাংক - ৩টি;
  • এজেন্ট ব্যাংক - ৪টি;
  • মসজিদ - ৫৫টি;
  • মন্দির - ১০টি;
  • রেলওয়ে স্টেশন - ১টি;
  • ভুমি অফিস - ১টি;
  • এন জি ও - ৭টি;
  • নদী - ১টি;
  • ঈদগাহ মাঠ- ২টি।
  • ক্রিড়া সংগঠন - ৩টি
  • সাংস্কৃতিক সংগঠন - ১টি
  • পেশাজীবি সংগঠন - ৬টি

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Population & Housing Census-2011 [আদমশুমারি ও গৃহগণনা-২০১১] (PDF) (প্রতিবেদন)। জাতীয় প্রতিবেদন (ইংরেজি ভাষায়)। ভলিউম ২: ইউনিয়ন পরিসংখ্যান। ঢাকা: বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো। মার্চ ২০১৪। ৯ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল (পিডিএফ) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ফেব্রুয়ারি ২০১৭  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. "মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের সরকারি তথ্য বাতায়ন"। gaibandha.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-০১ 
  3. "মহিমাগঞ্জ ইউনিয়ন এর গ্রামের তালিকা ও তাদের জনসংখ্যা"। ২৭ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]