প্রবেশদ্বার:জলদস্যুতা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জলদস্যুদের ডেরায় স্বাগতম

ভূমিকা

জলদস্যুতায় জলদস্যুদের ব্যবহৃত বিখ্যাত "জলি রজার" পতাকা।

জলদস্যুতা বলতে সাধারনত সমুদ্রে সংঘঠিত ডাকাতি বা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডকে বোঝায়। এই পরিভাষাটি অবশ্য স্থলপথ, আকাশপথ বা অন্য কোন বড় জলবেষ্ঠিত অঞ্চলে বা সৈকতে সংঘঠিত অপরাধের ক্ষেত্রেও ব্যবহার হতে পারে। একই ভেসেলে (ছোট জাহাজ) ভ্রমণকারী এক ব্যক্তির বিরোদ্ধে অপর ব্যক্তির সংঘঠিত অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড -এর আওতাভুক্ত নয় (যেমন, একই ভেসেলের এক ব্যক্তি অপর ব্যক্তির কাছ থেকে চুরি করলে।)। শব্দটি ঐতিহাসিকভাবে রাষ্ট্রীয় জল সীমানায় অন্য দেশের এজেন্ট (প্রাইভেটিয়ার) বা জলদস্যু কর্তৃক লুণ্ঠেনের জন্য প্রবেশ-এর ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়েছে।

জলদস্যুতা গতানুগতিক আন্তর্জাতিক আইনের অধীনে একটি নির্দিষ্ট অপরাধের নাম এবং কিছু কিছু রাষ্ট্রে এটি পৌর আইনের অধীন একটি অপরাধের নাম। জলদস্যুতার মতই আরো একটি পরিভাষা হলো প্রাইভেটারিং, প্রাইভেটিয়াররা যুদ্ধকালীন সময়ে বা কৌশলগত কারণে রাষ্ট্র কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত হন এবং তার শুধুমাত্র শত্রু দেশের জাহাজই আক্রমণ ও লুট করতেন। কিছু মিল থাকা স্বত্তেও জলদস্যুতা ও প্রাইভেটারিং পরিভাষা দুটি আলাদা।

জলদস্যুতা ঘটনায় নিয়োজিত ব্যক্তিদেরকে জলদস্যু বলা হয়ে থাকে। ঐতিহাসিকভাবে, অপরাধীদের সাধারণত সামরিক ব্যক্তিদের দ্বারা ধরা এবং সামরিক ট্রাইবুনালে বিচার করার চেষ্টা করা হয়েছে। একুশ শতকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় জলদস্যুদের বিচারের সম্মুখীন করতে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হয়। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

নির্বাচিত নিবন্ধ - নতুন ভুক্তি দেখুন

সোমালিয়ার জলদস্যুদের বিচরণ অঞ্চলের মানচিত্র (২০০৫–২০১০)।
সোমালিয়ার উপকূলে জলদস্যুতা একবিংশ শতকের প্রথম দিকে সোমালিয়ার গৃহযুদ্ধের দ্বিতীয় পর্যায় থেকে আন্তর্জাতিক জাহাজগুলোর জন্য হুমকি হয়ে উঠেছে। ২০০৫ সাল থেকে, ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অর্গানাইজেশন এবং বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচীসহ অনেক আন্তর্জাতিক সংস্থা, জলদস্যুতা ঘটনা বৃদ্ধির উপর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। ওসানস বিয়ন্ড পাইরেসির এক জড়িপ অনুসারে, জলদস্যুতার প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে আন্তর্জাতিক জাহাজ কোম্পানিগুলোকে অতিরিক্ত খরচসহ বছরে প্রায় $৬.৬ থেকে ৬.৯ বিলিয়ন ডলার ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে যা বিশ্ব বাণিজ্যে প্রভাব ফেলছে। জার্মান ইন্সটিটিউট ফর ইকনমিক রিসার্চ এর এক জড়িপে বলা হয়, জলদস্যুতার বৃদ্ধির ফলে জলদস্যুতার সাথে সম্পর্কিত লাভজনক প্রতিষ্ঠানের প্রকোপও বৃদ্ধি পেয়েছে। বীমা কোম্পানিগুলো জলদস্যু আক্রমণ থেকে মুনাফা অর্জন করছে, জলদস্যুতার প্রকোপ বৃদ্ধির জন্য বীমার প্রিমিয়ামের পরিমাণও বেড়ে গিয়েছে। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

জনপ্রিয় সংস্কতি - নতুন ভুক্তি দেখুন

ক্যাপ্টেন জ্যাক স্প্যারো (ইংরেজি: Captain Jack Sparrow) হচ্ছে জনি ডেপ চিত্রায়িত পাইরেটস অফ দ্য ক্যারিবিয়ান: দ্য কার্স অফ দ্য ব্ল্যাক পার্ল (২০০৩)-এর একটি চরিত্র। পরবর্তীতে তাকে পরপর এই চলচ্চিত্রের অন্যান্য পর্বগুলোতেও ধারাবাহিকভাবে দেখা যায়। ধারাবাহিকগুলো হচ্ছে ডেড ম্যান’স চেস্ট (২০০৬), অ্যাট ওয়ার্ল্ড’স এন্ড (২০০৭) এবং অন স্ট্রেঞ্জার টাইডস (২০১১) ডেড ম্যান টেলস নো টেল (২০১৭)। তিনি একই সাথে শিশুদের বইয়ের ধারাবাহিক পাইরেটস অফ দ্য ক্যারিবিয়ান: জ্যাক স্প্যারো-এরও নায়ক। এখানে মূলত তার শৈশবকালীন জীবন ফুটে উঠেছে। এই চরিত্রটি বিভিন্ন ভিডিও গেমেও স্থান পেয়েছে।

স্প্যারো ক্যারিবীয় উপসাগরের ব্রেদার্ন কোর্টের একজন পাইরেট লর্ড, বা নেতৃস্থানীয় জলদস্যু। সে সবসময় পরিস্থিতির সাপেক্ষে অস্ত্র ও জোরাজুরি এড়িয়ে কথা ও মধ্যস্থতার মাধ্যমে সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করে। যদিও প্রয়োজনে সে মারামারিও করে, কিন্তু সে সবসময়ই বিপজ্জনক পরিস্থিতি এড়িয়ে চলতে চায়। স্প্যারোকে প্রথম দেখা যায় যে, সে তার বিদ্রোহী ফার্স্ট মেট হেক্টর বারবোসার কাছ থেকে তার জাহাজ ব্ল্যাক পার্লের কর্তৃত্ব নেওয়ার চেষ্টা করছে। পরবর্তীতে পর্বগুলোতে তাকে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া ট্রেডিং কোম্পানির সাথে যুদ্ধরত, এবং কিংবদন্তি ডেভি জোন্সের রক্তের ঋণ পরিশোধ না করে পালানোর চেষ্টায় ব্যস্ত। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

জলদস্যুদের পতাকা- নতুন চিত্র দেখুন

বিষয়শ্রেণীসমূহ

জলদস্যুদের জীবনী - নতুন ভুক্তি দেখুন

কাবো রুজুতে অবস্থিত রবার্তো কফরেসির ভাস্কর্য
রবার্তো কফরেসি(ইংরেজি: Roberto Cofresi) (জুন ১৭, ১৭৯১ – মার্চ ২৯, ১৮২৫) ছিলেন পুয়ের্তো রিকোর একজন বিখ্যাত জলদস্যু। তিনি এল পাইরাতা কফরেসি নামে অধিক পরিচিত। ২৯শে মার্চ, ১৮২৫ সালে তার অন্যন্য জলদস্যু ক্রূর সাথে তাকে ফায়ারিং স্কোয়াডে মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হয়। রবিনহুড ইমেজের কফরেসির কিংবদন্তি পুয়ের্তো রিকো এবং সমগ্র ল্যাটিন আমেরিকায় ছড়িয়ে পরে কারণ তিনি ধনীদের কাছ থেকে লুট করে গরিবদের কাছে বিলিয়ে দিতেন। তাকে নিয়ে অসংখ্য কবিতা, গান, বই ও চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হয়েছে। ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্রের পোয়ের্তো প্লাটার কাছের একটি শহরের নাম তার নামানুসারে কফরেসি রখা হয়েছে। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

কুইদাগ মার্সেন্ট (কারা মার্সেন্ট বা অ্যাডভেঞ্চার প্রাইজ নামেও পরিচিত) ছিল একটি ভারতীয় বণিক জাহাজ যার মালিক ছিলেন কৈর্গি নামের এক ব্যক্তি। ৩০শে জানুয়ারি, ১৬৯৮ সালে স্কটিশ প্রাইভেটিয়ার ক্যাপ্টেন উইলিয়াম কিড জাহাজটি দখল করেন। জাহাজটি দখলের পর উইলিয়াম কিড নিউ ইয়র্কে যাত্রা করে তাকে প্রাইভেটিয়ার নিযুক্তকারী শাষকের সাথে সাক্ষাত করে জাহাজের রত্নভান্ডার বুঝিয়ে দেন। জাহাজটি দখলের ফলে আফ্রিকা ও ভারতীয় উপকূলে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে বিতর্ক শুরু হয় ও তাদের সুষ্ঠ বাণিজ্য ব্যাহত হয়। যদিও ক্যাপ্টেন কিড জাহাজ আটকের এই ঘটনাটিকে বৈধই মনে করতেন। কোন কোন জায়গায় এই খবরও ছড়িয়ে পরে যে, ক্যাপ্টেন কিড একজন জলদস্যু। পরবর্তীতে অবশ্য জলদস্যুতার ও হত্যার অভিযোগে ক্যাপ্টেন কিডকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়।

ক্যাপ্টেন কিড জাহাজটি তার নিযুক্ত বণিকদের তত্বাবধানে রেখে যান এবং বাকী ধনরত্ন লুকিয়ে ফেলেন। এদিকে কিড জেলে বন্দি থাকা অবস্থায় তাকে প্রথমে নিউ ইয়র্ক ও পরবর্তীকালে ইংল্যান্ড নিয়ে যাওয়া হয়। সেসময় নিউ ইয়র্কের গভর্নর লর্ড রিচার্ড বেলোমন্ট জাহাজের অবস্থান জানার জন্য চেষ্টা চালায় কিন্তু তিনি ব্যার্থ হন। অন্যদিকে নিউ ইয়র্কে খবর ছড়িয়ে পরে বণিকের জাহাজের সমস্ত ধনরত্ন ব্রিক্রি করে দিচ্ছে এবং জাহাজটি পুড়িয়ে ফেলছে। খবরের সত্যতা প্রমাণের জন্য লর্ড বেলোমন্ট একটি জাহাজকে পাঠান। কুইদাগ মাসেন্ট-এর সঠিক অবস্থান ইতিহাসবিদদের কাছে একটি একটি রহস্য ছিল কিন্তু ২০০৭ সালের ডিসেম্বরে ডোমিনিকান প্রজাতন্ত্রের ক্যাটালিনা দ্বীপপুঞ্জ থেকে কুইদাগের মত একটি জাহাজের ধংস্বশেষ উদ্ধার করা হয়। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

আপনি জানেন কি

উল্লিখিত তথ্যগুলি উইকিপিডিয়া:আপনি জানেন কি প্রকল্পের অংশ হিসেবে প্রধান পাতায় প্রদর্শিত হয়েছে।

আপনি যা করতে পারেন

  • জলদস্যুতা, দস্যূদের জীবনী, জাহাজ ও ঘটনা বিষয়ক নতুন নিবন্ধ তৈরি অথবা অন্য উইকিপ্রকল্প হতে অনুবাদ করতে পারেন।
  • বর্তমান নিবন্ধ অথবা জলদস্যুতা বিষয়ক টেমপ্লেট হতে লাল লিঙ্ক থাকা বিষয় নিয়ে নতুন নিবন্ধ রচনা করতে পারেন।
  • বিদ্যমান নিবন্ধসমূহ তথ্য দিয়ে সমৃদ্ধ, সম্প্রসারণ, রচনাশৈলীর উন্নয়ন ও তথ্যছক না থাকলে যুক্ত করতে পারেন।
  • নিবন্ধগুলিতে উইকিমিডিয়া কমন্স হতে দরকারী ও প্রাসঙ্গিক মুক্ত চিত্র যুক্ত করতে পারেন।
  • জলদস্যুতা সংক্রান্ত নিবন্ধসমূহে বিষয়শ্রেণী না থাকলে যুক্ত করতে পারেন।
  • নিবন্ধসমূহে তথ্যসূত্রের ঘাটতি থাকলে, পর্যাপ্ত সূত্র যোগ করতে পারেন।
  • জলদস্যুতা সম্পর্কিত নিবন্ধসমূহের শেষে {{প্রবেশদ্বার দণ্ড|জলদস্যুতা}} যুক্ত করতে পারেন।

সম্পর্কিত প্রবেশদ্বার

বিষয়

উইকিমিডিয়া


উইকিসংবাদে জলদস্যুতা
উন্মুক্ত সংবাদ উৎস


উইকিউক্তিতে জলদস্যুতা
উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন


উইকিসংকলনে জলদস্যুতা
উন্মুক্ত পাঠাগার


উইকিবইয়ে জলদস্যুতা
উন্মুক্ত পাঠ্যপুস্তক ও ম্যানুয়াল


উইকিবিশ্ববিদ্যালয়ে জলদস্যুতা
উন্মুক্ত শিক্ষা মাধ্যম


উইকিমিডিয়া কমন্সে জলদস্যুতা
মুক্ত মিডিয়া ভাণ্ডার


উইকিঅভিধানে জলদস্যুতা
অভিধান ও সমার্থশব্দকোষ


উইকিউপাত্তে জলদস্যুতা
উন্মুক্ত জ্ঞানভান্ডার


উইকিভ্রমণে জলদস্যুতা
উন্মুক্ত ভ্রমণ নির্দেশিকা

সার্ভার ক্যাশ খালি করুন