ম্যারি রিড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(মেরি রিড থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ম্যারি রিড
— জলদস্যু —
Mary Read killing her antagonist cph.3a00980.jpg
ম্যারি রিড জলদস্যুদের হত্যা করছেন
ধরনজলদস্যু
জন্মস্থানইংল্যান্ড
মৃত্যুর স্থানজামাইকার জেলখানা
আনুগত্যইংরেজ পদাতিক মিত্র বাহিনী ও হল্যান্ডের অশ্বারোহী বাহিনী
কার্যকালসি.১৭০৮-১৭১৩
স্থানঅজানা
অপারেশনের বেজক্যারিবীয় সাগর

ম্যারি রিড (মৃত্যু ১৭২১) ছিলেন একজন নারী ইংরেজ জলদস্যু। তিনি ও অ্যানি বনি সবসময়ের জন্য ইতিহাসের সবচেয়ে বিখ্যাত দুজন মহিলা জলদস্যু। ১৮-শতকের প্রথমদিকে তিনি ও অ্যানি বনিই ছিলেন মহিলা জলদস্যু যারা পরবর্তীতে জলদস্যুতা পেশার জন্য খ্যাতি অর্জন করেন। সে সময়কে বলা হত জলদস্যুতার স্বর্ণযুগ।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

ম্যারি রিড ১৭-শতকে এক ক্যাপ্টেনের বিধবা স্ত্রীর গর্ভে অবৈধভাবে ইংল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন। ঐতিহাসিকদের মাঝে তার জন্ম তারিখ নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। তবে ধারনা করা হয় তিনি ১৬৭০-১৬৯৮ এর মাঝামাঝি সময়ে জন্মগ্রহণ করেন। তার জীবনীর তথ্য মূলত জলদস্যু ইতিহাসবিদ চার্লস জনসন-এর অ্য জেনারেল হিস্টোরি অফ দ্য পাইরেট বই থেকে পাওয়া। চার্লস জনসনের তথ্যই মূলত অনেকে বিশ্বাস করেন কিন্তু কিছু কিছু ইতিহাসবিদ চার্লস জনসনের তথ্যকে ভুল বলে মনে করেন।

রিডের মা তার অবৈধ সন্তান ধারনকে লোকজনের কাছ থেকে লুকানোর জন্য রিডের জন্মের পর তাকে ছেলেদের পোশাক পরিধান করাত। ছেলেদের পোশাক পরিধান করেই রিড কিশোর বয়সে একটি জাহাজে কাজ পায়। পরবর্তীতে রিড ব্রিটিশ মিলিটারিতে যোগদান করে। ফরাসিদের সাথে যুদ্ধের জন্য ব্রিটিশ মিলিটারি ও ডাচরা একত্রিত হয়েছিল। রিড ছেলেদের মতই যুদ্ধে নৈপুন্য প্রদর্শন করেছিল কিন্তু তিনি সেসময় একজন ফ্লেমিশ সৈনের প্রেমে পরেন। তারা যখন বিয়ে করেন তখন রিড তার মিলিটারি কমিশন ও উপহার সামগ্রীকে নেদারল্যান্ডের একটি সরাইখানায় সুবিধা অর্জনের জন্য ব্যবহার করতেন।

তার স্বামী অকালে মৃত্যুবরণ করার পর রিড পুনরায় পুরোষদের পোশাক পরিধান করা শুরু করেন এবং হল্যান্ডে মিলিটারি সেবা দিতে শুরু করেন। কোন স্থানেই শান্তি খুজে না পেয়ে তিনি অবশেষে একটি জাহাজের মাধ্যমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে।[১][২][৩]

জনপ্রিয় সংস্কৃতিতে ব্যবহার[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Mary Read"Wikipedia (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-১২-০১। 
  2. Cordingly, David (২০০৭)। Seafaring women: adventures of pirate queens, female stowaways, and sailors' wives (English ভাষায়)। New York: Random House Trade Paperbacks। আইএসবিএন 978-0-375-75872-0ওসিএলসি 140617965 
  3. "Mary Read Biography - The Republic of Pirates"www.republicofpirates.net। ২০২০-০১-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]