হুয়াইদা গ্যালি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Whydah-model.jpg
হুয়াইদা গ্যালি (১৭১৬-১৭১৭)
ইতিহাস
গ্রেট ব্রিটেন সম্রাজ্য
নাম: হুয়াইদা গ্যালি
নামকরণ: The African slave port Ouidah
স্বত্তাধিকারী: Independent merchants
পরিচালক: licensed by the Royal African Company
নির্মাণের সময়: 1715, London
অভিষেক: 1716, London
মাতৃ বন্দর: London, England
Commanded by: Cap't. Lawrence Prince
Chased by pirates: late Feb, 1717
Windward Passage
Surrendered /
Captured:
three days later, near the Bahamas
ইতিহাস
Flag of Edward England.svgPirate's Republic
নাম: Whydah Gally
স্বত্তাধিকারী: "Black Sam" Bellamy
অর্জন: late February, 1717
মাতৃ বন্দর: Blanco Islet, B.V.I. (later re-named Bellamy Cay) Caribbean Sea
নিয়তি: ran aground, capsized
Commanded by: "Black Sam" Bellamy
Wrecked: April 26, 1717, Wellfleet, Massachusetts স্থানাঙ্ক: ৪১°৫৩′৩১″ উত্তর ৬৯°৫৭′৩৪″ পশ্চিম / ৪১.৮৯২° উত্তর ৬৯.৯৫৯৪° পশ্চিম / 41.892; -69.9594
Rediscovered: 1984, by Barry Clifford
সাধারণ বৈশিষ্ট্য
প্রকার: Galley
Tons burthen: 300 tons BM
দৈর্ঘ্য: ৩১ মি (১০২ ফু)
প্রচালনশক্তি: Sail & oar
Sail plan: fully rigged, 3 masts
গতিবেগ: ১৩ নট (২৪ কিমি/ঘ; ১৫ মা/ঘ)
লোকবল: 150 men
রণসজ্জা: Twenty-eight ৬ পা (২.৭ কেজি) cannons (30 more cannons below deck)

হুয়াইদা গ্যালি (শুধু হুয়াইদা বা হুইদা নামেই অধিক পরিচিত এবং মাঝে মঝে হুইদাউ[১] বা হুইদু[২] নামেও লেখা হয়ে থাকে) মূলত ছিল আটলান্টিক দাস বাণিজ্যের জন্য তৈরি একটি জাহাজ। এটি তার দ্বিতীয় সমুদ্রযাত্রা করে ফেরার পথে ফেব্রুয়ারি ১৭১৭ সালে জলদস্যু ক্যাপ্টেন ব্ল্যাক স্যাম বেল্লামি কর্তৃক আটক হয়েছিল ও পরবর্তীকালে ব্ল্যাক স্যাম জাহাজটিকে তার জলদস্যুতার পতাকা বহনকারী জাহাজে পরিনত করেছিল। এ সময়টা ছিল মূলত জলদস্যুতার স্বর্ণযুগ। এর দুই মাস পর ২৬শে এপ্রিল ১৭১৭ সালে জাহাজটি শক্তিশালী সমুদ্র ঝড়ের কবলে পতিত হয়েছিল এবং এতে বেল্লামিসহ এর ১৪৪ জন ক্রু মৃত্যুবরণ করে। মাত্র দুইজন ক্রু ঝড়ের কবল থেকে জীবিত উদ্ধার পেয়েছিল। ডুবে যাওয়ার সময় জাহাজটিতে ৪.১ টন পরিমাণ স্বর্ণ ও রৌপ্য ছিল যা ২৬০ বছর পর ১৯৮৪ সালে উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের সময় জাহাজটি মাত্র ১৪ ফুট (৪.৩ মিটার) পানির নিচে ও ৫ ফুট (১.৫ মিটার) বালির নিচে নিমজ্জিত ছিল। নিশ্চিত কোন জলদস্যু জাহাজ এর ধনরত্নসহ উদ্ধারের ঘটনা ইতিহাসে এটিই প্রথম।

দাস বাণিজ্যে ব্যবহার[সম্পাদনা]

১৭১৫ সালে একজন বণিক ইংল্যান্ডের লন্ডনে প্রথম হুয়াইদা সমুদ্রে অবমুক্ত করেন। তখন এর দৈর্ঘ্য ছিল ৩১ মিটার (১০২ ফুট) এবং এর ওজন ছিল ৩০০ টন বার্থেন। হুয়াইদা গ্যালি সর্বোচ্চ ১৩ নট (২৪ কি.মি/ঘন্টা; ১৫ এমপিএইচ) গতিতে যাত্রা করতে পারত।[৩] জাহাজটি আটলান্টিক দাস বাণিজ্যের কাজে ব্যবহৃত হত এবং এতে দাস ও মালামাল বহনের জন্য ভারী অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত করা হয়েছিল। মালামালের বিনিময়ে দাস ক্রয়ের জন্য ১৭১৬ সালে এটি ইংল্যান্ড থেকে মালামাল নিয়ে পশ্চিম আফ্রিকায় যাত্রা করেছিল।[৪] হুয়াইদা পশ্চিম আফ্রিকা থেকে বিভিন্ন ধরনের মূল্যবান ধনরত্ন সংগ্রহ করে আফ্রিকা ত্যাগ করে ক্যারেবীয় অঞ্চলে পৌঁছে ৩১২ জন দাস ক্রয় করে ইংল্যান্ডে ফেরার জন্য যাত্রা করেছিল।[৫] সেসময় জাহাজটিতে মূল্যবান ধনরত্নের পাশাপাশি ভারি অস্ত্রশস্ত্র ছিল। জাহাজটিতে ছয় পাউন্ডের ১৮টি কামান ছিল এবং যুদ্ধের সময় এই সংখ্যা ২৮-এ উন্নীত হত। হুয়াইদা ছিল তখনকার সময়ে সবচেয়ে আধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত জাহাজ।[৩]

জলদস্যু জাহাজ হিসেবে ব্যবহার[সম্পাদনা]

১৭১৭ সালের ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে ক্যাপ্টেন লাউরেন্স যুবরাজের নেতৃত্তে হুয়াইদা কিউবা ও হিসপানিওলার মধ্যবর্তী অঞ্চল দিয়ে যাত্রা করেছিল এবং এসময় জলদস্যু ব্ল্যাক স্যাম বেল্লামি ২৬টি বন্দুকের সমন্বয়ে গ্যালি সুলতানা ও ম্যারি অ্যানা[৩] নামে ১০টি বন্দুকের সমন্বয়ে একটি ছোট জাহাজ নিয়ে হুয়াইদার পিছু নিয়েছিল। তিনদিন পর ক্যাপ্টেন যুবরাজ শুধুমাত্র কিছু এলোমেলো গোলা নিক্ষেপ করে বাহামাসের কাছে হুয়াইদাসহ আত্মসমর্পণ করেন। বেল্লামি হুয়াইদাকে তার জলদসুত্যার কাজে ব্যবহারের জন্য নিয়ে নেয় এবং কোন প্রকার ঝামেলা ব্যতীত ক্যাপ্টেন যুবরাজ আত্মসমর্পণ করায় বেল্লামি তাকে সুলতানা এবং £২০ ইউরো মূল্যের কিছু স্বর্ণ ও রৌপ্য মুদ্রা দিয়ে মুক্ত করে দেয়। হুয়াইদার অধিকাংশ ক্রুরাই পরবর্তীকালে বেল্লামির দলে যোগ দেয়।[৩][৬]

এরপর নতুন ক্যাপ্টেনের নেতৃত্তে হুয়াইদাকে নতুন করে সজ্জিত করা হয়।[১][৭] জাহাজ পূণঃগঠনের কাজ শেষ হওয়ার পর বেল্লামি ও তার ক্রুরা আমেরিকান কলোনির দিকে যাত্রা শুরু করেন। পথিমধ্যে তার আরো অনেক জাহাজ লুট করে ও হুয়াইদার কামানের সংখ্যা বৃদ্ধি করে। মনে করা হয় সম্ভবত আরো ৩০টি অতিরিক্ত কামান তারা জাহাজের ডেকে স্থাপন করেছিল।[৮] আগস্ট ২০০৯ সালে সমুদ্র এক্সপ্লোরার ব্যারি ক্লিফোর্ড হুয়াইদায় ব্যবহৃত ৮০০ ও ১,৫০০ পাউন্ডের দুটি কামান উদ্ধার করেন।

২৬শে এপ্রিল ১৭১৭ সালে ম্যাসাচুসেটের ক্যাথামের কাছে হুয়াইদা গ্যালি খারাপ আবহাওয়ার কবলে পরে ও শক্তিশালী সমুদ্র ঝড়ে পতিত হয়ে ডুবে যায়।[৯] কেউ কেউ বলেন, বেল্লামি তার প্রিয়তমার সাথে দেখা করার জন্য বর্তমান প্রভিন্সটাউন হার্বারের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছিলেন[১০], আবার কেউ কেউ মনে করে থাকেন, দিকভ্রষ্ট হয়েই হুয়াইদা ভুল পথে পরিচালিত হয়েছিল ও ঝড়ের কবলে পতিত হয়েছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Strong, Ezra (১৮৩৬)। The Lives and Bloody Exploits of the Most Noted Pirates, Their Trials and Executions, Including Correct Accounts of the Late Piracies, Committed in the West Indias, and the Expedition of Commodore Porter। Courier Dover Publications। পৃষ্ঠা 298। They immediately mounted this galley with 28 guns, and put on board 150 hands, of different nations...Bellamy was declared captain, and the vessel had her old name continued, which was Whidaw... (p.127) 
  2. Untitled Map (মানচিত্র)। Cyprian Southack দ্বারা মানচিত্রাঙ্কন। ১৭১৭। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১২The Place where I came through with a Whale Boat being ordered by ye Governmt. to look after ye Pirate Ship Whido Bellame Commandr. cast away ye 26 of April 1717 where I buried One Hundred & Two Men Drowned. 
  3. Woodard, Colin। The Republic of Pirates: Being the True and Surprising Story of the Caribbean Pirates and the Man Who Brought The Men Who Brought Them Down 
  4. "The Slave Ship Whydah: Born a Slave Ship""Real Pirates" museum exhibit website। Chicago, Illinois: The Field Museum। ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০১২ 
  5. "The Slave Ship Whydah: A Slave-Based Economy""Real Pirates" museum exhibit website। Chicago, Illinois: The Field Museum। ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০১২ 
  6. Dow, George Francis। The Pirates of the New England Coast 1630-1730। পৃষ্ঠা 121। আইএসবিএন 0-486-29064-6 
  7. "The Pirate Ship Whydah: The Whyda's capture""Real Pirates" museum exhibit website। Chicago, Illinois: The Field Museum। ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০১৩ 
  8. Haggerty, Ryan (২০০৭-০৭-১৮)। "Yet more booty turns up at pirate wreck"The Boston GlobeStill, the discovery of the cannons -- all of which were taken from ships captured by the Whydah -- surprised (underwater explorer Barry) Clifford, who had already recovered most of the Whydah's 22 to 28 original cannons. "We had no idea that there were 30 extra cannons on board this ship," Clifford said. "Every time we go down there, we find another tip of another iceberg." 
  9. Clifford, Barry; Perry, Paul (৩ মে ২০০০) [1999]। Expedition Whydah: The Story of the World's First Excavation of a Pirate Treasure Ship and the Man Who Found Her। HarperCollins। পৃষ্ঠা 261। আইএসবিএন 978-0-06-092971-8। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১২Quartermaster Nolan, who was now in charge of the Mary Anne, came under the stern of the Whydah to report that land had been sighted under the growing mist. Bellamy immediately ordered a northerly course to skirt the land rather than a northeastern course to get away from it, another sign that he intended to stop in Provincetown and was underestimating the potential force of what now appeared to be a gathering storm. 
  10. "The Whydah Museum"The Whydah Museum Official Site। Historic Shipwrecks, Inc.। ৮ অক্টোবর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ অক্টোবর ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]