পাটলিপুত্র জংশন রেলওয়ে স্টেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পাটলিপুত্র জংশন
पाटलिपुत्र जंक्शन
ভারতীয় রেলের স্টেশন
পাটলিপুত্র জংশন.jpg
স্টেনের মূল প্রবেশপথ
অবস্থানজগৎ বিহার কলনি, রণকপুরা, পাটনা, বিহার - ৮০০০২৫
 ভারত
স্থানাঙ্ক২৫°৩৭′১৪″ উত্তর ৮৫°৪′৬″ পূর্ব / ২৫.৬২০৫৬° উত্তর ৮৫.০৬৮৩৩° পূর্ব / 25.62056; 85.06833স্থানাঙ্ক: ২৫°৩৭′১৪″ উত্তর ৮৫°৪′৬″ পূর্ব / ২৫.৬২০৫৬° উত্তর ৮৫.০৬৮৩৩° পূর্ব / 25.62056; 85.06833
উচ্চতা৫৮ মিটার (১৯০ ফু)
মালিকানাধীনভারতীয় রেলের পূর্ব-মধ্য বিভাগ
পরিচালিতভারতীয় রেল
লাইনপাটনা-সোনপুর-হাজীপুর লাইন
প্ল্যাটফর্ম
রেলপথ[১]
নির্মাণ
গঠনের ধরনমান্যচলিত (ভূপৃষ্ঠস্থ স্থিত)
পার্কিংউপলব্ধ
অন্য তথ্য
অবস্থাসক্রিয়
স্টেশন কোডPPTA
ভাড়ার স্থানপূর্ব-মধ্য রেল
ইতিহাস
চালু১৬ ডিসেম্বর ২০১৫; ৫ বছর আগে (16 December 2015)[২]
বৈদ্যুতীকরণ২০১৩[৩]
ট্রাফিক
যাত্রীসমূহ৫০,০০০ প্রতিদিন
পরিষেবা
পূর্ববর্তী স্টেশন   পূর্ব-মধ্য রেল   পরবর্তী স্টেশন
পাটনা-সোনপুর-হাজীপুর বিভাগ
সামনে পাটনা জং. 16 cardinal points SE.png
পাটনা–মুঘলসরাই বিভাগ
16 cardinal points SW.png
অবস্থান
পাটলিপুত্র জংশন পাটনা-এ অবস্থিত
পাটলিপুত্র জংশন
পাটলিপুত্র জংশন
পাটনাতে পাটলিপুত্র জংশনের অবস্থান

পাটলিপুত্র জংশন পাটনা শহরের পশ্চিম প্রান্ত স্থিত রণকপুরা এলাকায় অবস্থিত একটি রেলওয়ে জংশন স্টেশন, যার স্টেশন নামসংক্ষেপ হল পিপিটিএ/PPTA। স্টেশনটি, পূর্ব-মধ্য রেল কর্তৃক পরিচালিত এবং দানাপুর রেলপথ বিভাগ এর রক্ষণাবেক্ষণে নিয়জিত,[৪] এবং স্টেশনটি পাটনা-সোনপুর-হাজীপুর লাইন এ নির্মিত।[৫] আসলে পাটনার অন্য দুটি জংশনের চাপ কমাতে মূলত এটি জংশন স্তরে উন্নীত করা হয়, যেখান থেকে দৈনিক প্রায় ৩৫০টি ট্রেন পাস হয়ে থাকে।[৬] পাটলিপুত্র জংশনটি পাটনা জংশন থেকে ১২ কিমি উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত। জংশনটি পাটনার পশ্চিমাংশের গুরুত্বপূর্ণবৈলি রোড এলাকার পার্শেই অবস্থিত।[৭]

পাটনা শহর ভারতের সর্ববৃহৎ রেলরুট নতুন দিল্লি-কলকাতা রেলরুটে অবস্থিত। শহরটিতে ছয়টি বড় স্টেশন আছে যথা: পাটলিপুত্র জংশন, পাটনা জংশন, রাজেন্দ্রনগর টার্মিনাল, গুলজারবাগ স্টেশন, দানাপুর স্টেশন এবং পাটনা সাহেব স্টেশন; সেই সাথে শহরটিকে ভারতের বৃহৎ রেলওয়ে হাব হিসেবে গণ্য করা হয়। ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে, ভারতের বৃহৎ রেল-সড়ক মিশ্র সেতু গঙ্গা রেল-সড়ক সেতুর নির্মাণকার্য সম্পন্ন হয়েছে যা পাটনার নিকটেই এবং পাটনা ও ভরপুরা পাহলেজা ঘাটকে (সোনপুর) সংযুক্ত করেছে।[৮] উক্ত সেতুটি ৪.৫৫ কিলোমিটার (২.৮৩ মা) দৈর্ঘ্যসম্পন্ন, এবং এছাড়া সেতুটি ভারতের দীর্ঘতম তথা বিশ্বের দীর্ঘতর সেতু সমূহের একটি।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. AMIT BHELARI। "April date for station debut"। The Telegraph (Calcutta)। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জুলাই ২০১৩ 
  2. Patna: Dec 16, 2015, DHNS। "Travelling by train from B'luru to Patna? Check the terminating railway station"। Deccanherald.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-১২-১৭ 
  3. "History of Electrification"information published by CORE (Central Organization for Railway Electrification)। CORE (Central Organization for Railway Electrification)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১২ 
  4. "Patliputra railway station not yet functional - The Times of India"। Timesofindia.indiatimes.com। ২০১৩-১০-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-১২-১৭ 
  5. "Million dreams" 
  6. Dream station debut Calcutta Telegraph. Retrieved 30 August 2013
  7. "Patna's marginalised community still awaits basic amenities"। IBNLive। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-১২-১৭ 
  8. "India's longest rail-cum-road bridge to come up in Bihar"। Hindustan Times। ২০০৯-১০-১২। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৩-০৪ 
  9. "Digha bridge cost likely to jump by Rs 3,000 cr"The Times Of India। ৩ জুলাই ২০১১।