ডেভিড লয়েড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডেভিড লয়েড
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামডেভিড লয়েড
জন্ম (1947-03-18) ১৮ মার্চ ১৯৪৭ (বয়স ৭২)
অ্যাক্রিংটন, ল্যাঙ্কাশায়ার, ইংল্যান্ড
ডাকনামবাম্বল
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট আর্ম অর্থোডক্স
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার, কোচ, ধারাভাষ্যকার, আম্পায়ার
সম্পর্কগ্রাহাম লয়েড (পুত্র), বেন লয়েড (পুত্র)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৪৬০)
২০ জুন ১৯৭৪ বনাম ভারত
শেষ টেস্ট৩০ জানুয়ারি ১৯৭৫ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ২৮)
৭ সেপ্টেম্বর ১৯৭৩ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ ওডিআই২৯ মে ১৯৮০ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৬৫-১৯৮৩ল্যাঙ্কাশায়ার
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪০৭ ২৮৮
রানের সংখ্যা ৫৫২ ২৮৫ ১৯,২৬৯ ৭,৭৬১
ব্যাটিং গড় ৪২.৪৬ ৪০.৭১ ৩৩.৩৩ ৩২.৭৪
১০০/৫০ ১/০ ১/০ ৩৮/৯৩ ৭/৪৪
সর্বোচ্চ রান ২১৪* ১১৬* ২১৪* ১২১*
বল করেছে ২৪ ১২ ১৫,৫৯৮ ১,২৫১
উইকেট ২৩৭ ৩৯
বোলিং গড় ৩.০০ ৩০.২৬ ২২.৮৯
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ১/৩ ৭/৩৮ ৪/১৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১১/– ৩/– ৩৩৪/– ৮৯/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৪ জুলাই ২০১৬

ডেভিড লয়েড (জন্ম: ১৮ মার্চ, ১৯৪৭) ল্যাঙ্কাশায়ারের অ্যাক্রিংটনে জন্মগ্রহণকারী ইংল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটারইংল্যান্ড দলের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। 'বাম্বল' ডাকনামে পরিচিত লয়েড কাউন্টি ক্রিকেটে ল্যাঙ্কাশায়ার দলে খেলেন।[১] দলে তিনি বামহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলাসহ বামহাতে স্পিন বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন। এছাড়াও তিনি অ্যাক্রিংটন স্ট্যানলি দলের পক্ষে অর্ধ-পেশাদার ফুটবল খেলায় অংশগ্রহণ করেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

ইংল্যান্ড দলের পক্ষে নয় টেস্ট খেলেন। তাঁর সর্বোচ্চ রান ছিল অপরাজিত ২১৪*। এছাড়াও আটটি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নেন। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে সফলতম অল-রাউন্ডার ছিলেন তিনি। উনিশ হাজারেরও অধিক রান সংগ্রহসহ ২৩৭ উইকেট পেয়েছেন। ১৯৭৩ থেকে ১৯৭৭ মেয়াদে নিজ কাউন্টি দলে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন।[২]

অবসর[সম্পাদনা]

খেলোয়াড়ী জীবন থেকে অবসর নেয়ার পর প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে আম্পায়ারের দায়িত্বে মনোনিবেশ ঘটান। এছাড়াও তিনি ল্যাঙ্কাশায়ার ও ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের কোচের দায়িত্ব পালন করেন। কিন্তু ১৯৯৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ শেষে ইংল্যান্ড দলের কোচের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেন। পরবর্তীতে টেস্ট ম্যাচ স্পেশালে ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার ছিলেন। বর্তমানে তিনি স্কাই স্পোর্টসে ধারাভাষ্যে নিয়োজিত। এছাড়াও তিনি লেখক, সাংবাদিক ও কলাম লেখক হিসেবে পরিচিত।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Frindall, Bill (৮ আগস্ট ২০০২)। "Stump The Bearded Wonder No 32"। BBC News। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৫-২৫ 
  2. Arlott, John (জানুয়ারি ১৯৮৪)। "Player Profile: David Lloyd"। CricInfo। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৫-২৫ 

পাদটীকা[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]