টেমপ্লেট আলোচনা:জ্যোতি বসুর জীবনপঞ্জি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

প্রস্তাবিত জীবনপঞ্জি: প্রথম অংশ[সম্পাদনা]

এখানে ১৯১৪-১৯৭৭ পর্যন্ত দিলাম। বাকি অংশ তৈরি করছি। আলোচনা বা সম্পাদনা করতে পারেন।

  • ৮ জুলাই, ১৯১৪ – কলকাতায় জন্ম।
  • ১৯২০ – ধর্মতলার লোরেটো স্কুলে ভরতি।
  • ১৯২৩ – সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুলে ভরতি।
  • ১৯২৪ – হিন্দুস্তান রোডের পৈত্রিক বাড়িতে বাসাবদল।
  • ১৯৩২ – ইংরেজিতে সাম্মানিক সহ প্রেসিডেন্সি কলেজে ভরতি।
  • ১৯৩৫ – ব্যারিস্টারি পড়ার জন্য ইংল্যান্ডে গমন। ইংল্যান্ডে থাকাকালীন কমিউনিজমমার্ক্সবাদের প্রতি আকৃষ্ট হলেন।
  • ১৯৩৮ – গ্রেট ব্রিটেনের কমিউনিস্ট পার্টির সদস্যপদ গ্রহণ।
  • ১৯৪০ – ব্যারিস্টারি পাঠ সমাপ্ত করে দেশে প্রত্যাবর্তন। কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত গ্রহণ।
  • ১৯৪১ – কলকাতায় সোভিয়েত সুহৃদ সমিতি ও ফ্যাসিবিরোধী লেখক ও শিল্পী সংঘের প্রথম সম্পাদক নির্বাচিত। কমিউনিস্ট পার্টির শ্রমিক শাখায় কাজ শুরু। বেঙ্গল আসাম রেলওয়ে ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও অল ইন্ডিয়া রেলওয়ে মেনস সংগঠনের সহ-সভাপতি নির্বাচিত।
  • ১৯৪২ – বাসন্তী (ছবি) ঘোষের সঙ্গে বিবাহ। অল্পকাল পরে স্ত্রীবিয়োগ। মায়ের মৃত্যু।
  • ১৯৪৫ – কমিউনিস্ট পার্টির বঙ্গীয় প্রাদেশিক কমিটির সদস্য নির্বাচিত।
  • ১৯৪৬ – রেলওয়ে কেন্দ্র থেকে প্রথম বঙ্গীয় প্রাদেশিক আইনসভায় নির্বাচিত।
  • ১৯৪৮ – মার্চ মাসে কমিউনিস্ট পার্টি নিষিদ্ধ হলে কারাবরণ। তিন মাস পর মুক্তি। ডিসেম্বরে কমল বসুর সঙ্গে বিবাহ।
  • ১৯৫০ – সেপ্টেম্বর মাসে পুনরায় কারাবরণ।
  • ১৯৫১ – হাইকোর্টের নির্দেশে ফেব্রুয়ারি মাসে মুক্তিলাভ। ২৭ ফেব্রুয়ারি কমিউনিস্ট পার্টি বৈধ বলে ঘোষিত। দলীয় মুখপত্র ‘দৈনিক স্বাধীনতা’ পত্রিকার সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি নির্বাচিত। দলের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সদস্যপদ লাভ।
  • ১৯৫২ – বরানগর কেন্দ্র থেকে প্রথম বার বিধানসভায় নির্বাচিত। বিধানসভায় পার্টির পরিষদীয় দলনেতা ও পরে বিরোধী দলনেতার স্বীকৃতি লাভ। সেপ্টেম্বরে একমাত্র পুত্র চন্দন বসুর জন্ম।
  • ১৯৫৩ – কলকাতায় অনুষ্ঠিত কমিউনিস্ট পার্টির ষষ্ঠ রাজ্য সম্মেলনে সম্পাদক নির্বাচিত। ১৯৫৬, ১৯৫৮, ১৯৫৯ ও ১৯৬০ সালেও রাজ্য সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন। মাদুরাইতে অনুষ্ঠিত পার্টির তৃতীয় কংগ্রেসে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যপদ লাভ। পরে পলিটব্যুরোর সদস্যপদ লাভ। ট্রামভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে সফল আন্দোলনে অংশগ্রহণ।
  • ১৯৫৪ – শিক্ষক আন্দোলনে অংশগ্রহণ।
  • ১৯৫৫ – গোয়া মুক্তি আন্দোলনে যোগদান। চীন যাত্রা।
  • ১৯৫৬ – পশ্চিমবঙ্গ-বিহার সংযুক্তি প্রস্তাবের বিরোধিতা।
  • ১৯৫৭ – দ্বিতীয় সাধারণ নির্বাচনে পুনরায় বরানগর থেকে জয়লাভ। ১৯৬৭ সাল পর্যন্ত একটানা দশ বছর বিরোধী নেতার দায়িত্ব পালন। চেকোশ্লোভাকিয়াসোভিয়েত ইউনিয়ন সফর।
  • ১৯৫৯ – খাদ্য আন্দোলনে অংশগ্রহণ করে দুই মাস কারাবাস। নভেম্বরে জাতীয় পরিষদের মিরাট অধিবেশনে যোগদান।
  • ১৯৬১ – স্বেচ্ছায় রাজ্য কমিটির সম্পাদকের পদ পরিত্যাগ। ওই পদে প্রমোদ দাশগুপ্তের নির্বাচন।
  • ১৯৬২ – ভারত-চীন যুদ্ধের সময় কারাবাস। জেলে থাকাকালীন পিতৃবিয়োগ। পরে বরানগর কেন্দ্র থেকে বিধানসভায় পুনর্নির্বাচিত। হায়দরাবাদে জাতীয় পরিষদের সভায় যোগদান।
  • ১৯৬৪ – ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি বিভাজিত; ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী) দলে যোগদান। দলের পলিটব্যুরো সদস্য নির্বাচিত। ৩১ অক্টোবর কলকাতায় সপ্তম পার্টি কংগ্রেসে উদ্বোধনী ভাষণ প্রদান।
  • ১৯৬৫ – বসুর সম্পাদনায় দলের ইংরেজি মুখপত্র ‘পিপলস ডেমোক্রেসি’ প্রকাশিত।
  • ১৯৬৬ – খাদ্য আন্দোলনে অংশগ্রহণ করে কারাবাস।
  • ১৯৬৭ – বরানগর থেকে অন্তর্বর্তী নির্বাচনে বিধানসভায় নির্বাচিত। ২ মার্চ প্রথম যুক্তফ্রন্ট মন্ত্রীসভায় উপমুখ্যমন্ত্রী রূপে শপথ গ্রহণ। সঙ্গে অর্থ বিভাগের দায়িত্ব লাভ। নয় মাসে মধ্যে অন্তর্কলহে সরকারের পতন। নকশালবাড়ি আন্দোলনের সূত্রপাত।
  • ১৯৬৯ – অন্তর্বর্তী নির্বাচনে বরানগর কেন্দ্র থেকে পুনর্নির্বাচিত। দ্বিতীয় যুক্তফ্রন্ট মন্ত্রীসভায় উপমুখ্যমন্ত্রী রূপে শপথ গ্রহণ। সঙ্গে স্বরাষ্ট্র ও সাধারণ প্রশাসন বিভাগের দায়িত্ব লাভ।
  • ৩১ মার্চ, ১৯৭১ – পটনা স্টেশনে বসুকে গুলি করে প্রাণনাশের চেষ্টা। আলি ইমাম নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু।
  • ১৯৭১ – দুই বার প্রাণনাশের চেষ্টা। অন্তর্বর্তী নির্বাচনে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অজয় মুখোপাধ্যায়কে পরাস্ত করে জয়লাভ।
  • ১৯৭২ – বিধানসভা নির্বাচনে বরানগর কেন্দ্র থেকে সিপিআই প্রার্থীর কাছে অপ্রত্যাশিতভাবে পরাজয়। ব্যাপক রিগিং-এর অভিযোগে বিধানসভা বয়কট। ইংল্যান্ড, হল্যান্ড, জার্মানি, ডেনমার্কবেলজিয়াম সফর।
  • ১৯৭৪ – রেল ধর্মঘট।
  • ১৯৭৫ – ইন্দিরা গান্ধী কর্তৃক দেশে জাতীয় জরুরি অবস্থা জারি।
  • ১৯৭৭ – সাতগাছিয়া কেন্দ্র থেকে রেকর্ড ভোটে জয়ী। নির্বাচনে বামফ্রন্টের জয়লাভ। ২১ জুন পশ্চিমবঙ্গের নবম মুখ্যমন্ত্রী রূপে শপথ গ্রহণ। যুগোশ্লাভিয়াব্রিটেন সফর।

--অর্ণব দত্ত (talk) ১২:১৭, ১৯ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

যদি সবগুলো ঘটনায় তারিখ দেওয়া যায় তাহলে সবগুলোতেই তারিখ দিন। নতুবা শুধু দুই একটি তে তারিখ দেওয়ার দরকার নাই। কারণ এ ঘটনাগুলোর বিস্তারিত নিশ্চয়ই নিবন্ধে দেওয়া আছে, সেখান থেকেই পাঠক বিস্তারিত তারিখটি জানতে পারবেন।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ১৫:৪২, ১৯ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)
যে তারিখগুলি একান্তই গুরুত্বপূর্ণ (যেমন জন্ম তারিখ, প্রথম মুখ্যমন্ত্রী রূপে শপথ নেওয়ার তারিখ) সেগুলিই রাখছি। বাকিগুলো সরিয়ে দেবো। --অর্ণব দত্ত (talk) ১৫:৫৬, ১৯ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

দ্বিতীয় অংশ[সম্পাদনা]

--অর্ণব দত্ত (talk) ১০:৪৬, ২১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)

ভাল হয়েছে। ফয়জুল ভাইয়ের করা সম্পাদনার সাথে সমন্বয় করে মূল পাতায় সম্পাদনা করার অনুরোধ রইলো।--বেলায়েত (আলাপ | অবদান) ১০:৪৯, ২১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)
ধন্যবাদ বেলায়েত ভাই। ফয়জুল সাহেবের আপত্তি না থাকলে এটিকে টেমপ্লেটে যোগ করে দেবো। --অর্ণব দত্ত (talk) ১১:০৩, ২১ জানুয়ারি ২০১০ (UTC)