কুশীনগর জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কুশীনগর জেলা
कुशीनगर जिला
کُشی نگر
উত্তরপ্রদেশের জেলা
গৌতম বুদ্ধের সমাধিস্তুপ। এই স্থানে বুদ্ধের দেহ দাহ করা হয়েছিল।
উত্তরপ্রদেশে কুশীনগরের অবস্থান
উত্তরপ্রদেশে কুশীনগরের অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যউত্তরপ্রদেশ
প্রশাসনিক বিভাগগোরখপুর
সদরদপ্তরপডরৌনা
সরকার
 • লোকসভা কেন্দ্রকুশীনগর
আয়তন
 • মোট২৮৭৩.৫ কিমি (১১০৯.৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৩৫,৬০,৮৩০
 • ঘনত্ব১২০০/কিমি (৩২০০/বর্গমাইল)
 • মূল শহর৪.৮৭
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৬৭.৬৬%
 • লিঙ্গানুপাত৯৫৫
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

কুশীনগর জেলা (হিন্দি: कुशीनगर जिला, উর্দু: کُشی نگر‎‎) উত্তর ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের একটি জেলা। এই জেলার সদর শহর হল পডরৌনা। জেলাটির নামকরণ করা হয়েছে বৌদ্ধ তীর্থস্থান কুশীনগরের নামানুসারে। খ্রিস্টপূর্ব ৬ষ্ঠ বা ৫ম শতাব্দীতে কুশীনগরেই গৌতম বুদ্ধপরিনির্বাণ’ লাভ করেছিলেন।

অবস্থান[সম্পাদনা]

কুশীনগর জেলার পূর্ব দিকে বিহার রাজ্য, দক্ষিণপশ্চিমে দেওরিয়া জেলা, পশ্চিমে গোরখপুর জেলা ও উত্তরপশ্চিমে মহারাজগঞ্জ জেলা অবস্থিত। এই জেলাটি গোরখপুর বিভাগের অন্তর্গত।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

২০০৬ সালে পঞ্চায়েত মন্ত্রক কুশীনগর জেলাটিকে ভারতের ২৫০টি সর্বাধিক অনগ্রসর জেলাগুলির অন্যতম ঘোষণা করে।[১] উত্তরপ্রদেশের যে ৩৪টি জেলা অনগ্রসর অঞ্চল অনুদান তহবিল কর্মসূচির অর্থ পায়, তার মধ্যে কুশীনগর অন্যতম।[১]

পরিবহণ[সম্পাদনা]

রেলপথে[সম্পাদনা]

কাপ্তানগঞ্জ জংশন এই জেলার প্রধান রেলওয়ে স্টেশন।

আকাশপথে[সম্পাদনা]

ভারত সরকার কুশীনগরে একটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে।

জনপরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে, কুশীনগর জেলার জনসংখ্যা ৩,৫৬০,৮৩০।[২] এই জনসংখ্যা লিথুয়ানিয়া রাষ্ট্রের[৩] বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কানেক্টিকাট রাজ্যের জনসংখ্যার প্রায় সমান।[৪] জনসংখ্যার দিক থেকে ভারতের ৬৪০টি জেলার মধ্যে এই জেলার স্থান ৮১তম।[২] এই জেলার জনঘনত্বের হার ১,২২৬ জন প্রতি বর্গকিলোমিটার (৩,১৮০ জন/বর্গমাইল)।[২] ২০০১-২০১১ দশকে জেলার জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ২৩.০৮%।[২] কুশীনগর জেলার লিঙ্গানুপাতের হার প্রতি ১০০০ পুরুষে ৯৫৫ জন মহিলা।[২] জেলার সাক্ষরতার হার ৬৭.৬৬%।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ministry of Panchayati Raj (সেপ্টেম্বর ৮, ২০০৯)। "A Note on the Backward Regions Grant Fund Programme" (PDF)। National Institute of Rural Development। ৫ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১১ 
  2. "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০ 
  3. US Directorate of Intelligence। "Country Comparison:Population"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-০১Lithuania 3,535,547 July 2011 est.  line feed character in |উক্তি= at position 10 (সাহায্য)
  4. "2010 Resident Population Data"। U. S. Census Bureau। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০Connecticut 3,574,097  line feed character in |উক্তি= at position 12 (সাহায্য)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ২৬°৫৪′০৯″ উত্তর ৮৩°৫৮′৫৫″ পূর্ব / ২৬.৯০২৫০° উত্তর ৮৩.৯৮১৯৪° পূর্ব / 26.90250; 83.98194