সিদ্ধার্থনগর জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সিদ্ধার্থনগর জেলা
सिद्धार्थनगर जिला
উত্তরপ্রদেশের জেলা
উত্তরপ্রদেশে সিদ্ধার্থনগর জেলার অবস্থান
উত্তরপ্রদেশে সিদ্ধার্থনগর জেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক (নয়গড়): ২৭°০′ উত্তর ৮২°৪৫′ পূর্ব / ২৭.০০০° উত্তর ৮২.৭৫০° পূর্ব / 27.000; 82.750 - ২৭°২৮′ উত্তর ৮৩°১০′ পূর্ব / ২৭.৪৬৭° উত্তর ৮৩.১৬৭° পূর্ব / 27.467; 83.167
দেশ ভারত
রাজ্যউত্তরপ্রদেশ
বিভাগবস্তী
সদর দপ্তরনয়গড়
তহশিল1. নয়গড়
2. শহরতগড়
3. বাঁশী
4. ইতবা
5. দোমারিয়াগঞ্জ
সরকার
 • লোকসভা কেন্দ্রদোমারিয়াগঞ্জ
আয়তন
 • মোট২,৭৫২ বর্গকিমি (১,০৬৩ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট২৫,৫৯,২৯৭
 • জনঘনত্ব৯৩০/বর্গকিমি (২,৪০০/বর্গমাইল)
জনসংখ্যার উপাত্ত
 • সাক্ষরতা৫৯.২%
 • লিঙ্গ অনুপাত৯৭৬
সময় অঞ্চলআইএসটি (ইউটিসি+০৫:৩০)
যানবাহন নিবন্ধনUP-55
ওয়েবসাইটhttp://siddharthnagar.nic.in

সিদ্ধার্থনগর জেলা উত্তর ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের ৭৫ টি জেলার একটি। এই জেলার সদর দপ্তর নয়গড় শহরে অবস্থিত। সিদ্ধার্থনগর জেলা বস্তী বিভাগের একটি অংশ।

ভারত সরকারের মতে, ২০০১ সালের জনগণনা তথ্যের ভিত্তিতে জনসংখ্যার বৈচিত্র্য, আর্থ-সামাজিক সূচক ও মৌলিক সুযোগ-সুবিধার সূচকে সিদ্ধার্থনগর জেলা ভারতের অন্যতম মুসলিম কেন্দ্রিক জেলা।[১]

প্রশাসনিক বিভাগ[সম্পাদনা]

সিদ্ধার্থনগর জেলা পাঁচটি তহশিল নিয়ে গঠিত:

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

ধর্মবিশ্বাস অনুযায়ী সিদ্ধার্থনগর জেলার জনসংখ্যা
ধর্ম Percent
হিন্দু
  
৬৯.৯৩%
মুসলমান
  
২৯.২৩%

ভারতের জনগণনা ২০১১ অনুসারে সিদ্ধার্থনগর জেলার মোট জনসংখ্যা ২,৫৫৯,২৯৭,[২] যা কুয়েতের মোট জনসংখ্যার সমান[৩] বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেভাদা রাজ্যের মোট জনসংখ্যার সমান।[৪] এটি ভারতের ৬৪০টি জেলার মধ্যে ১৬৪তম জনবহুল জেলা॥ এ জেলার জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গকিলোমিটারে ৯৩০ জন বা প্রতি বর্গ মাইলে ২,৪০০ জন লোক বসবাস করে। ২০০১ থেকে ২০১১ এর দশকে জেলার জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল ২৫.১৭%। সিদ্ধার্থনগর জেলার লিঙ্গ অনুপাত প্রতি ১০০০ পুরুষের বিপরীতে ৯৭০ জন মহিলা রয়েছে এবং সাক্ষরতার হার ৬৭.৮১%।

২০১১ সালে ভারতের জনগণনার সময়ে সিদ্ধার্থনগর জেলার জনসংখ্যার ৯৫.২২% হিন্দি ভাষা এবং ৪.৭৩% উর্দু ভাষাকে তাদের প্রথম ভাষা বলে উল্লেখ্য করেছিল।[৫]

সংখ্যালঘু জনসংখ্যা জেলার মোট জনসংখ্যার প্রায় ২৭%। সিদ্ধার্থ নগর একটি "এ" শ্রেণীভূক্ত জেলা; অর্থাৎ এটির আর্থ-সামাজিক ও মৌলিক সুযোগ-সুবিধা জাতীয় গড়ের নিচে রয়েছে।[৬]

ঐতিহাসিক জনসংখ্যা
বছরজন.±%
১৯০১৭,০১,৮৮৪—    
১৯১১৬,৯৫,৯০২−০.৯%
১৯২১৭,৩১,৯৪৭+৫.২%
১৯৩১৭,৯০,০৩৮+৭.৯%
১৯৪১৮,৩০,৯৫২+৫.২%
১৯৫১৯,০৭,৭৩৬+৯.২%
১৯৬১৯,৬২,২৬২+৬%
১৯৭১১০,৮৯,০৫৪+১৩.২%
১৯৮১১৩,০০,৫৮৩+১৯.৪%
১৯৯১১৬,০৭,৯৬৪+২৩.৬%
২০০১২০,৪০,০৮৫+২৬.৯%
২০১১২৫,৫৯,২৯৭+২৫.৫%

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কিছু বিশেষজ্ঞ মনে করেন যে আধুনিক পিপরাহওয়া-গানওয়ারিয়া প্রাচীন শাক্য রাজ্যের রাজধানী কপিলাবস্তু শহরের অংশ ছিল, পালি ত্রিপিটকের মতো বৌদ্ধ গ্রন্থগুলি অনুযায়ী যেখানে সিদ্ধার্থ গৌতম তার জীবনের প্রথম ২৯ বছর অতিবাহিত করেন।[৭] অন্যরা মনে করে যে কপিলাবাস্তুর মূল স্থানটি ১৬ কিলোমিটার (৯.৯ মা) উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত, যা বর্তমানে নেপালের কপিলবস্তু জেলার তিলাউড়াকোটে রয়েছে।

ভূগোল[সম্পাদনা]

সিদ্ধার্থনগর জেলা ২৭° উত্তর অক্ষাংশ থেকে ২৭°২৮' উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮২°৪৫' পূর্ব থেকে ৮৩°১০' পূর্ব দ্রাঘিমাংশের এর মধ্যে অবস্থিত। জেলাটি উত্তরে নেপালের কপিলভাস্তু জেলা এবং উত্তর-পূর্বে রূপান্ডেহি জেলার সাথে সীমাবদ্ধ। এছাড়া এটি উত্তর প্রদেশের অন্যান্য জেলাগুলি দ্বারা বেষ্টিত: পূর্বে মহারাজগঞ্জ, দক্ষিণে বস্তী এবং সন্ত কবীর নগর এবং পশ্চিমে বলরামপুর অবস্থিত। সিদ্ধার্থনগর জেলার আয়তন ২,৭৫২ বর্গ কিলোমিটার।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

২০০৬ সালে পঞ্চায়েতি রাজ মন্ত্রণালয় সিদ্ধার্থনগর জেলাকে ভারতের ৬৪০টি জেলার মধ্যে ২৫০টি অনুন্নত জেলার মধ্যে একটি হিসেবে সনাক্ত করেছে। এটি উত্তরপ্রদেশের ৩৪ টি জেলার মধ্যে একটি যা বর্তমানে অনুন্নত অঞ্চল অনুদান তহবিল কর্মসূচির (বিআরজিএফ) তহবিল গ্রহণ করছে।[৮]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

বিশ্ববিদ্যালয়[সম্পাদনা]

  • সিদ্ধার্থ বিশ্ববিদ্যালয় - উত্তরপ্রদেশের সিদ্ধার্থনগর কপিলওয়াস্তুর একটি রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব[সম্পাদনা]

জেলার উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছে:

  • জগদম্বিকা পাল - ইউপি সরকারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং দোমরিয়াগঞ্জ (লোকসভা কেন্দ্র) এর বর্তমান সংসদ সদস্য
  • মাতা প্রসাদ পান্ডে - ইউপি বিধানসভার প্রাক্তন স্পিকার; ইতবের (বিধানসভা কেন্দ্র) এমএলএ;
  • সতীশচন্দ্র দ্বিবেদী - রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী (ইন্ডিপেন্ডেন্ট চার্জ); ইতবার (বিধানসভা কেন্দ্র) এমএলএ;
  • শ্যাম ধানী - এমএলএ (কপিলভাস্তু)।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://pib.nic.in/release/release.asp?relid=28770
  2. "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০ 
  3. US Directorate of Intelligence। "Country Comparison:Population"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-০১Kuwait 2,595,62 
  4. "2010 Resident Population Data"। U. S. Census Bureau। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০Nevada 2,700,551 
  5. 2011 Census of India, Population By Mother Tongue
  6. ["সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি" (PDF)। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯  F. No. 3/64/2010-PP-I, GOVERNMENT OF INDIA, MINISTRY OF MINORITY AFFAIRS
  7. Trainor, K (২০১০)। "Kapilavastu"। Encyclopedia of Buddhism। Routledge। পৃষ্ঠা 436–7। আইএসবিএন 978-0-415-55624-8 
  8. Ministry of Panchayati Raj (৮ সেপ্টেম্বর ২০০৯)। "A Note on the Backward Regions Grant Fund Programme" (PDF)। National Institute of Rural Development। ৫ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]