১৯৮৫-এ বাংলাদেশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
১৯৮৫
-এ
বাংলাদেশ
শতাব্দী:
দশক:
আরও দেখুন:১৯৮৫-এর অন্যান্য ঘটনা
বছরের তালিকা অনুযায়ী বাংলাদেশ

১৯৮৫ সাল ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতার ১৪তম বছর। এটি ছিল হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সরকারের চতুর্থ বছর।

দায়িত্বপ্রাপ্ত[সম্পাদনা]

জলবায়ু[সম্পাদনা]

১৯৮৫-এ বাংলাদেশ-এর আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানু ফেব্রু মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগস্ট সেপ্টে অক্টো নভে ডিসে বছর
দৈনিক গড় °সে (°ফা) ১৮.৯
(৬৬.০)
২০.৬
(৬৯.১)
২৬.৩
(৭৯.৩)
২৮.৩
(৮২.৯)
২৭.৬
(৮১.৭)
২৮.২
(৮২.৮)
২৭.৩
(৮১.১)
২৮.৪
(৮৩.১)
২৭.৮
(৮২.০)
২৭.
(৮১)
২৩.১
(৭৩.৬)
২০.৪
(৬৮.৭)
২৫.৪
(৭৭.৭)
অধঃক্ষেপণের গড় মিমি (ইঞ্চি) ৭.৬
(০.৩০)
১২.৩
(০.৪৮)
৯১.৫
(৩.৬০)
১১৩.৮
(৪.৪৮)
৩১০.৪
(১২.২২)
৫০৪.২
(১৯.৮৫)
৪২৯.
(১৬.৯)
৩২৭.৯
(১২.৯১)
৩১১.৩
(১২.২৬)
১০২.১
(৪.০২)
৩৪.৪
(১.৩৫)
৫.৮
(০.২৩)
২,২৫০.৩
(৮৮.৫৯)
উৎস: Climatic Research Unit (CRU) of University of East Anglia (UEA)[১]

ঘটনাবলী[সম্পাদনা]

রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদের ঢাকায় সার্ক রাষ্ট্রপ্রধানদের সংবর্ধনা।
  • ১৩ ফেব্রুয়ারি- বাংলাদেশ ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক রাউফুন বসুনিয়া এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক মহসিন হলের সামনে ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ এবং ক্ষমতাসীন জাতীয় পার্টি সমর্থিত ছাত্র সমাজের মধ্যে সংঘর্ষের সময় গুলিবিদ্ধ হন। [২] [৩]
  • ২১ মার্চ - হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদের সামরিক শাসন নিশ্চিত করার জন্য সামরিক শাসনের উপর একটি গণভোট অনুষ্ঠিত হয়। গণভোটে ভোটারদের জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল "আপনি কি রাষ্ট্রপতি এরশাদের নীতি সমর্থন করেন এবং নির্বাচনের মাধ্যমে একটি বেসামরিক সরকার গঠন না হওয়া পর্যন্ত তিনি কি এই প্রশাসন পরিচালনা চালিয়ে যেতে চান?" ফলাফলের পক্ষে ৯৪.৫% ভোট পড়ে। [৪] গণভোটের দিন বিরোধীরা সাধারণ ধর্মঘটের আয়োজন করে এবং ফলাফল জালিয়াতি বলে অভিযোগ করে।
  • দুই দেশের মধ্যে সীমান্তের একটি বিতর্কিত অংশে বাংলাদেশ ও ভারতীয় বাহিনীর মধ্যে গুলি বিনিময়ে ভারী মর্টার ব্যবহার করা হয়েছিল। [৫]
  • ২২ নভেম্বর – গঙ্গার পানি বণ্টন সংক্রান্ত বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সমঝোতা স্মারক তিন বছরের জন্য বাড়ানো হয়। [৬]
  • ৮ ডিসেম্বর - প্রথম সার্ক শীর্ষ সম্মেলন ১৯৮৫ সালের ৬-৮ ডিসেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয় এবং এতে বাংলাদেশ, মালদ্বীপ, পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কার সরকারী প্রতিনিধি এবং রাষ্ট্রপতি, ভুটাননেপালের রাজা এবং প্রধানমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। ভারত[৭] তারা ১৯৮৫ সালের ৮ ডিসেম্বর সার্ক সনদে স্বাক্ষর করে, এর ফলে আঞ্চলিক সমিতি প্রতিষ্ঠা করে, এবং সন্ত্রাসবাদ ও মাদক পাচারের সমস্যাগুলির উপর অধ্যয়ন গোষ্ঠী প্রতিষ্ঠা করে, সেইসাথে GATT সম্পর্কে একটি মন্ত্রী-পর্যায়ের বৈঠকের পরিকল্পনা করে, এবং একটি মন্ত্রী-পর্যায়ের সম্মেলন বৃদ্ধি করে। আঞ্চলিক পর্যায়ে নারীদের অংশগ্রহণ। [৭] শীর্ষ সম্মেলন একটি সার্ক সচিবালয় প্রতিষ্ঠায় সম্মত হয় এবং একটি সরকারী সার্ক প্রতীক গ্রহণ করে। [৭]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

স্বাধীনতা দিবস পুরষ্কার[সম্পাদনা]

একুশে পদক[সম্পাদনা]

  1. আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ (সাহিত্য)
  2. গাজী শামসুর রাহমান (সাহিত্য)
  3. আবদুল্লাহ আল-মুতি (বিজ্ঞান)
  4. গোবিন্দ চন্দ্র দেব (শিক্ষা)
  5. মোহাম্মদ আব্দুল জব্বার (শিক্ষা)
  6. কলিম শরাফী (সঙ্গীত)
  7. আবেদ হোসেন খান (সঙ্গীত)
  8. সৈয়দ জাহাঙ্গীর (চারুকলা)

খেলাধুলা[সম্পাদনা]

জন্ম[সম্পাদনা]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Climate Change Knowledge Portal"। The World Bank Group। ২৭ মে ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মে ২০১৮ 
  2. "Death anniversary of Basunia observed"bdnews24.com। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ ২ আগস্ট ২০১৫ 
  3. "75 DU deaths since '71, none prosecuted"bdnews24.com। ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২ আগস্ট ২০১৫ 
  4. Dieter Nohlen; Florian Grotz (২০০১)। Elections in Asia: A data handbook। পৃষ্ঠা 534। আইএসবিএন 0-19-924958-X 
  5. "World: South Asia Third day of India Bangladesh clashes"BBC News। ২৩ আগস্ট ১৯৯৯। 
  6. এনামুল হক (২০১২)। "গঙ্গার পানিবণ্টন"ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওএল 30677644Mওসিএলসি 883871743 
  7. "Dhaka Declaration" (পিডিএফ)। SAARC Secretariat। ৭ জুন ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ অক্টোবর ২০১০ 
  8. "Awardees who worked in Bangladesh"। Ramon Magsaysay Award Foundation। ১ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ নভেম্বর ২০১৮ 
  9. "South Asian (Federation) Games"। Athletics Weekly। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১০ 
  10. "List of Champions"। Atsushi Fujioka for Rec.Sport.Soccer Statistics Foundation। সংগ্রহের তারিখ ১৬ অক্টোবর ২০১৮ 
  11. "Bangladesh – List of Cup Winners"। Ian King, Hans Schöggl and Erlan Manaschev for Rec.Sport.Soccer Statistics Foundation। সংগ্রহের তারিখ ৩০ অক্টোবর ২০১৮