অভিষ্কা গুণবর্ধনে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অভিষ্কা গুণবর্ধনে
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামডিহান অভিষ্কা গুণবর্ধনে
জন্ম (1977-05-26) ২৬ মে ১৯৭৭ (বয়স ৪১)
কলম্বো, শ্রীলঙ্কা
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
ভূমিকাউদ্বোধনী ব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৭৬)
৪ মার্চ ১৯৯৯ বনাম পাকিস্তান
শেষ টেস্ট১০ ডিসেম্বর ২০০৫ বনাম ভারত
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৯৩)
২৬ জানুয়ারি ১৯৯৮ বনাম জিম্বাবুয়ে
শেষ ওডিআই৩ জানুয়ারি ২০০৬ বনাম নিউজিল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৬১ ১২৯ ১৮৪
রানের সংখ্যা ১৮১ ১,৭০৮ ৬,৬৮০ ৫,৩৬২
ব্যাটিং গড় ১৬.৪৫ ২৮.৪৬ ৩৫.৫৩ ২৯.৯৫
১০০/৫০ -/- ১/১২ ১২/৪০ ৬/৩৫
সর্বোচ্চ রান ৪৩ ১৩২ ২০৯ ১৩২
বল করেছে - - ১৮ -
উইকেট - - - -
বোলিং গড় - - - -
ইনিংসে ৫ উইকেট - - - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - - - -
সেরা বোলিং - - - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/- ১৩/- ৬৭/- ৫৪/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৬ জানুয়ারি ২০১৭

ডিহান অভিষ্কা গুণবর্ধনে (তামিল: அவிஸ்க குணவர்தன; জন্ম: ২৬ মে, ১৯৭৭) কলম্বোয় জন্মগ্রহণকারী সাবেক পেশাদার শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার[১] শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ বামহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ছিলেন। বর্তমানে সিংহলীজ স্পোর্টস ক্লাবে কোচের দায়িত্ব পালন করছেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৮ সালের কমনওয়েলথ গেমসে আক্রমণধর্মী ব্যাটিং উপহার দিয়ে জনসমক্ষে আসেন তিনি। ঐ প্রতিযোগিতায় সেঞ্চুরি করেন ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে পরাজিত করতে সবিশেষ ভূমিকা রাখেন। এছাড়াও, শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দলের পক্ষে ৩টি টেস্ট খেলায় অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

২০০০ সালে কেনিয়ার নাইরোবিতে অনুষ্ঠিত আইসিসি নক-আউট প্রতিযোগিতায় নিজের একমাত্র ওডিআই সেঞ্চুরি করেছিলেন।[২] ঐ খেলায় শ্রীলঙ্কার ইনিংস ১০/২ থেকে ২৮৭/৬ করতে সক্ষম হয় ও তার দল ১০৮ রানের ব্যবধানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জয়ী হয়। কিন্তু ক্রিকেটের বৃহৎ সংস্করণ হিসেবে টেস্টে তিনি সফলকাম হননি। ১৯৯৯ সালের এশিয়ান টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে পাকিস্তানের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে ও ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৪৩ তোলেন।

বড় ধরনের রান সংগ্রহে ব্যর্থতা স্বত্ত্বেও তার খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। মারভান আতাপাত্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলে ২০০৪ সালের এশিয়া কাপেও অংশ নেন। ২০০৪ সাল থেকে টুয়েন্টি২০ ক্রিকেটের সাথে সম্পৃক্ত হন। তবে, ২০০৮ সালে গুণবর্ধনেসহ আরও চারজান শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার ইন্ডিয়ান ক্রিকেট লীগে যোগ দিলে তাদেরকে ক্রিকেটে অংশগ্রহণের উপর নিষেধাজ্ঞা প্রদান করা হয়। এরপর সেপ্টেম্বর, ২০০৮ সালে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হলে শ্রীলঙ্কার ঘরোয়া ক্রিকেটে অংশ নিতে থাকেন।

অবসর[সম্পাদনা]

বর্তমানে তিনি সিংহলীজ স্পোর্টস ক্লাবের প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করছেন। সাম্প্রতিককালের এলএলপিএল ২০১২ প্রতিযোগিতায় শিরোপা বিজয়ী ইউভা নেক্সটেরও কোচ ছিলেন তিনি। এছাড়াও লিজ্যাসি ট্রাভেলস (প্রাঃ) লিমিটেডের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন গুণবর্ধনে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Avishka Gunawardene"। espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  2. http://www.espncricinfo.com/ci/engine/current/match/66171.html?version=iframe