রাণী ময়নামতি প্রাসাদ ও মন্দির

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ময়নামতি রাণীর কুঠির

রাণী ময়নামতি প্রাসাদ ও মন্দির বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগের কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের সাহেবের বাজার এলাকায় অবস্থিত। স্থানীয়ভাবে এটি রানী ‘ময়নামতি প্রাসাদ’ নামে পরিচিত। জানা যায় ১৯৮৮ সালের নাগাদ এর খনন কাজ শুরু হয়।[১]

অবস্থান[সম্পাদনা]

এই প্রাসাদটি লালমাই-ময়নামতি পাহাড়ের উত্তর প্রান্তে একটি বিচ্ছিন্ন পাহারের চূড়ায় অবস্থিত। সমতল থেকে এর উচ্চতা প্রায় ১৫.২৪ মিটার।[২]

নকশা ও কারুকাজ[সম্পাদনা]

লোকমুখে জানা যায় প্রথমে একটি ক্রুশাকার মন্দির ছিল। পরবর্তী সময়ে সংস্কার করে এটিকে ছোট আকারের মন্দির বানানো হয়। খননের করার সময় এখানে বেশ কিছু পোড়ামাটির ফলক এবং অলংকৃত ইট আবিষ্কৃত হয়েছে। খননের পরে বিশ্লেষকরা ধারণা করে এই প্রাসাদটি ৮ম থেকে ১২শ শতকের প্রাচীন কীর্তি। কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের পূর্ব পাশে রাণী ময়নামতির প্রাসাদ অপরূপ সৌন্দর্যের এক লীলাভূমি।[৩][৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "রাণী ময়নামতি প্রাসাদ খননে মিলেছে বিশেষ পথের সন্ধান | সারাদেশ | The Daily Ittefaq"archive1.ittefaq.com.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-০৩ 
  2. "বুড়িচং উপজেলা"http (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-১১-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-০৩ 
  3. "প্রাসাদের নকশা ও অবস্থান" [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "কুমিল্লার রানী ময়নামতি প্রাসাদ খননে মিলেছে মূল্যবান প্রত্নসম্পদ"মানবজমিন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-০৩