রবি কার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রবি কার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামরবার্ট বায়ার্স কার
জন্ম (1961-06-16) ১৬ জুন ১৯৬১ (বয়স ৫৯)
ব্রিসবেন, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক গুগলি
ভূমিকাব্যাটসম্যান
সম্পর্কএসি কার (কন্যা)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩৩১)
২২ নভেম্বর ১৯৮৫ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ টেস্ট৩০ নভেম্বর ১৯৮৫ বনাম নিউজিল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৮৬)
১২ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ ওডিআই৩ মার্চ ১৯৮৫ বনাম ভারত
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৮১/৮২ - ১৯৮৯/৯০কুইন্সল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৯৩ ৩৬
রানের সংখ্যা ৩১ ৯৭ ৫৭০৯ ৯৬৮
ব্যাটিং গড় ৭.৭৫ ৩২.৩৩ ৩৭.৩১ ৩০.২৫
১০০/৫০ ০/০ ০/১ ১৬/২৮ ০/১০
সর্বোচ্চ রান ১৭ ৮৭* ২০১* ৯৫*
বল করেছে ৩৬
উইকেট
বোলিং গড় ১৬.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/১২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ১/– ৯০/– ১২/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৩ মে ২০২০

রবার্ট রবি বায়ার্স কার (ইংরেজি: Robbie Kerr; জন্ম: ১৬ জুন, ১৯৬১) ব্রিসবেন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৮০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে কুইন্সল্যান্ড দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। সব মিলিয়ে চারবার কুইন্সল্যান্ডের সদস্যরূপে চারবার শেফিল্ড শিল্ডের চূড়ান্ত খেলায় অংশ নিয়েছিলেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, লেগ ব্রেক গুগলি বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন রবি কার

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৮১-৮২ মৌসুম থেকে ১৯৮৯-৯০ মৌসুম পর্যন্ত রবি কারের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। কুইন্সল্যান্ডের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশ নিয়েছেন। এ পর্যায়ে চারবার শেফিল্ড শিল্ডের চূড়ান্ত খেলায় কুইন্সল্যান্ডের পক্ষে খেলেন।

১৯৮০-৮১ মৌসুমে কুইন্সল্যান্ড কোল্টসের সদস্যরূপে তাসমানিয়ার বিপক্ষে অপরাজিত ৮২ রানের ইনিংস খেলেন।[১] নভেম্বর, ১৯৮১ সালে ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে। ৪ রান সংগ্রহ করতে পেরেছিলেন তিনি।[২] নিজস্ব তৃতীয় প্রথম-শ্রেণীর খেলায় সাউথ অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হন ও ১০৩ রান তুলেছিলেন তিনি।[৩] সাউথ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৬৬[৪] এবং ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটি খেলায় ১৫৮ ও ১০১ রান তুলতে পেরেছিলেন।[৫]

১৯৮১-৮২ মৌসুমের গ্রীষ্মকালে ৪১.১৫ গড়ে ৬১৩ রান তুলেন। এ পর্যায়ে কেপলার ওয়েসেলসের সাথে স্মরণীয় উদ্বোধনী জুটি গড়েন। একদিনের ক্রিকেটেও দূর্দান্ত খেলেন তিনি। ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৬৮ বলে ৫০ রান তুলে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন।[৬] ম্যাকডোনাল্ডস কাপের চূড়ান্ত খেলায় অংশ নেন তিনি। খেলায় তিনি মাত্র ১ রান তুললেও কুইন্সল্যান্ড দল জয়লাভে সক্ষম হয়।[৭]

পরবর্তী গ্রীষ্মে সফররত ইংরেজ দলের বিপক্ষে ৬৫ রান তুলে যাত্রা শুরু করেন।[৮] এরপর, তাসমানিয়ার বিপক্ষে ১১২ রান তুলেন।[৯] সাময়িকভাবে দূর্বল ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শন করলেও সফররত নিউজিল্যান্ডীয় একাদশের বিপক্ষে ১০২ রান তুলেন। এ পর্যায়ে কেপলার ওয়েসেলসের সাথে ২৩২ রানের জুটি গড়েন।[১০][১১] এনএসডব্লিউ’র বিপক্ষে ৭২[১২]ভিক্টোরিয়ার বিপক্ষে ১৩২ রান তুলেন। তন্মধ্যে, ওয়েসেলসের সাথে ৩৮৮ রানের জুটি গড়েছিলেন রবি কার।[১৩] ৩৯.৮১ গড়ে ৮৭৬টি প্রথম-শ্রেণীর রান তুলেন তিনি।

ডার্ক ওয়েলহামের নেতৃত্বে ডেভিড বুনওয়েন ফিলিপসের সাথে তিনিও কিশোর অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্যরূপে জিম্বাবুয়ে গমন করেন।[১৪] দুইটি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়ে ১২.৩৩ গড়ে ৩৭ রান তুলেন। একটি একদিনের খেলায় তিনি ৫৮ রান তুলেন।[১৫][১৬]

স্বর্ণালী সময়[সম্পাদনা]

১৯৮৩-৮৪ মৌসুমের গ্রীষ্মকালে পাকিস্তানি একাদশের বিপক্ষে ৫১,[১৭] তাসমানিয়ার বিপক্ষে ৭৫,[১৮][১৯] ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১০৩,[২০] ও সাউথ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১৩৬ রান করেন। ফলশ্রুতিতে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমনার্থে তার অন্তর্ভূক্তির উজ্জ্বল সম্ভাবনা গড়ে উঠে।[২১] এছাড়াও, ভিক্টোরিয়ার বিপক্ষে তিনি ১৬৬ রান তুলেছিলেন।[২২]

তবে, রবি কারকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে নেয়া হয়নি। এর পরিবর্তে শেফিল্ড শিল্ডের চূড়ান্ত খেলায় তিনি অংশ নেন। ৫৬ ও ৪ রান তুলেন। ঐ খেলায় তার দল কুইন্সল্যান্ড পরাজয়বরণ করে।[২৩] ঐ গ্রীষ্মে তিনি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ৩৯.৩৯ গড়ে ৮৬৬ রান তুলতে সক্ষম হন।

১৯৮৩-৮৪ মৌসুমে ম্যাকডোনাল্ডস কাপের খেলায় ৫০ ও ৯২ রান তুলেন।[২৪] শেফিল্ডের খেলায় ভিক্টোরিয়ার বিপক্ষে ১০৬ রান সংগ্রহ করেন।[২৫][২৬] শ্রীলঙ্কান একাদশের বিপক্ষে একদিনের খেলায় কুইন্সল্যান্ডের সদস্যরূপে ৮৭ রানের ইনিংস খেলেন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া দল বেশ সমস্যায় নিপতিত হয়। কয়েকজন ক্রিকেটবোদ্ধাদের ধারণা ছিল যে, দ্বিতীয় টেস্টের জন্যে তাকে কেপলার ওয়েসেলসের পরিবর্তে স্থলাভিষিক্ত করা হবে।[২৭] তবে তা হয়নি ও ওয়েসেলস খেলার ছন্দে ফিরে আসেন। চতুর্থ টেস্টের পূর্বে গ্রেইম উডের আঘাতপ্রাপ্তির ফলে তাকে সংরক্ষিত খেলোয়াড় হিসেবে দলে অন্তর্ভূক্ত করা হয়।[২৮] কিন্তু গ্রেইম উড খেলার পূর্বে আরোগ্য লাভ করতে সক্ষম হন।

গ্রীষ্মের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত তিনি স্বাভাবিক ছন্দে ছিলেন না। তবে, তাসমানিয়ার বিপক্ষে ৬০ ও ২০১ রান তুলেন। শেফিল্ড শিল্ডের চূড়ান্ত খেলায় ৯ ও ০ রান করেন। এনএসডব্লিউ’র বিপক্ষে তার দল পরাজিত হয়।[২৯] ১৯৮৪-৮৫ মৌসুমে ৪৪.৫০ গড়ে ৬২৩ রান তুলেন। তাসমানিয়ার বিপক্ষে ২০১ রান তুলেন তিনি।[৩০]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্ট ও চারটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন রবি কার। ২২ নভেম্বর, ১৯৮৫ তারিখে সিডনিতে সফরকারী নিউজিল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ৩০ নভেম্বর, ১৯৮৫ তারিখে পার্থে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

ঘরোয়া ক্রিকেটে দূর্দান্ত ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের স্বীকৃতিস্বরূপ তাকে বিশ্ব সিরিজ কাপের দ্বিতীয় চূড়ান্ত খেলায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবার জন্য অস্ট্রেলিয়ার ওডিআই দলে অন্তর্ভূক্ত করা হয়।[৩১] দ্বিতীয় খেলায় তাকে দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে রাখা হলেও তৃতীয় খেলায় কিম হিউজের পরিবর্তে অভিষেক ঘটানো হয়।[৩২] তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে কার ৪ রান তুলতে সমর্থ হন। ঐ খেলায় অস্ট্রেলিয়া দল পরাজয়বরণ করে।[৩৩]

এর পরপরই বিশ্ব ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশীপের ন্যায় সংক্ষিপ্ত সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার ওডিআই দলে তাকে রাখা হয়।[৩৪] ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের লক্ষ্যমাত্রায় নেমে কেপলার ওয়েসেলসকে সাথে নিয়ে ব্যাটিং উদ্বোধনে নামেন। ১২৬ বল অপরাজিত ৮৭ রান তুলেন। রবি কার ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন।[৩৫][৩৬] পাকিস্তানের বিপক্ষে ২ রান[৩৭][৩৮]ভারতের বিপক্ষে ৪ রান করেন।[৩৯][৪০]

সংযুক্ত আরব আমিরাতে অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্যরূপে গমন করেন। সেখানে অস্ট্রেলিয়া দল একদিনের প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।[৪১] কিন্তু, তাকে কোন আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করানো হয়নি ও আর তাকে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে একদিনের খেলায় অংশ নিতে দেখা যায়নি। ১৯৮৫ সালের অ্যাশেজ সিরিজেও তাকে রাখা হয়নি।[৪২]

তবে, অক্টোবর, ১৯৮৫ সালে জিম্বাবুয়ে গমনার্থে অস্ট্রেলিয়ার অনূর্ধ্ব-২৫ দলের অধিনায়ক করা হয়েছিল।[৪৩] প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ২৫.৭৫ গড়ে ১০৩ রান তুলেন। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ করেন ৬৮ রান।[৪৪]

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সাউথ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৮০ রান তোলার পূর্বে ১৯৮৫-৮৬ মৌসুমে বেশ ধীরলয়ে যাত্রা শুরু করেন।[৪৫][৪৬] সফরকারী নিউজিল্যান্ড দলের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে তাকে খেলানো হয়। তিনি অ্যান্ড্রু হিলডিচের স্থলাভিষিক্ত হন।[৪৭] প্রথম ইনিংসে ৭ বলে ৭ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৫ বলে ৭ রান করেন। অস্ট্রেলিয়া দল ঐ খেলায় বেশ ভালোমানের স্পিন বোলিংয়ের বদৌলতে চার উইকেটে জয়লাভে সমর্থ হয়।[৪৮][৪৯]

তৃতীয় টেস্টেও রবি কারকে রাখা হয়। ভাঙ্গা আঙ্গুল নিয়ে ১৭ ও ০ রান করেন। অস্ট্রেলিয়া দল ঐ টেস্টে পরাভূত হয়।[৫০][৫১]

দলে প্রত্যাখ্যান[সম্পাদনা]

ভারতের বিপক্ষে পরবর্তী টেস্ট সিরিজে তাকে দলের সদস্যরূপে রাখা হয়।[৫২] জিওফ মার্শকে অগ্রাধিকার দিয়ে তাকে দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে দলে রাখা হয়। ডেভিড বুন ও জিওফ মার্শ ব্যাটিং উদ্বোধনে নেমে বেশ সফল হন।[৫৩] ঐ গ্রীষ্মে তাকে কোন একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণের জন্যে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি।

এনএসডব্লিউ’র বিপক্ষে ৮৪ ও ৫০ রান করেন।[৫৪] এনএসডব্লিউ’র বিপক্ষে ১০২ রান তুলেন[৫৫][৫৬] ও নিজস্ব তৃতীয় শেফিল্ড শিল্ডের চূড়ান্ত খেলায় অংশ নেন। ৬৪ ও ৩৪ রান তুলেন। খেলায় কুইন্সল্যান্ড দল ড্র করলে শিল্ড লাভ করতে পারেনি।[৫৭] ঐ গ্রীষ্মে ৩২.০৫ গড়ে ৬০৯ রান তুলেন। ১৯৮৬-৮৭ মৌসুমে ৩৯.৭৬ গড়ে ৬৭৬ রান সংগ্রহ করেন। তন্মধ্যে, ম্যাকডোনাল্ডস কাপের একটি খেলায় সাউথ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৯২ রান সংগ্রহ উল্লেখযোগ্য ছিল।[৫৮] সফররত ইংরেজ দলের বিপক্ষে ৯৫,[৫৯] তাসমানিয়ার বিপক্ষে ৮৮,[৬০] শিল্ডের খেলায় ৭৬,[৬১] এনএসডব্লিউ’র বিপক্ষে ৮২[৬২] ও তাসমানিয়ার বিপক্ষে ১৪০ করেন।[৬৩]

ডিসেম্বর, ১৯৮৬ মাতাল অবস্থায় গাড়ী চালানোর অভিযোগে দোষীসাব্যস্ত হন।[৬৪] তাসত্ত্বেও, নিয়মিত অধিনায়ক অ্যালেন বর্ডারের অনুপস্থিতিতে কুইন্সল্যান্ডের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৮৭-৮৮ মৌসুমে ৩৯.৬৫ গড়ে ৭৯৩ রান তুলেন। তন্মধ্যে, সাউথ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৯১ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি।[৬৫] এনএসডব্লিউ’র বিপক্ষে ১০৭,[৬৬] ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১০২,[৬৭] তাসমানিয়ার বিপক্ষে ৬২ ও ৯৬ করেন।[৬৮] আরও একবার শেফিল্ড শিল্ডের চূড়ান্ত খেলায় অংশ নেন। ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪৭ ও ২ করেন।[৬৯]

আগস্ট, ১৯৮৮ সালে গাড়ী দূর্ঘটনায় আঘাত পান।[৭০] এ মৌসুমে তিনি বেশ দূর্বলমানের খেলা উপহার দেন। ২৫.৫০ গড়ে ১৫৩ রান তুলেন। সর্বোচ্চ করেন ৬৯ রান। ১৯৮৯-৯০ মৌসুমে ২৭.৬৯ গড়ে ৩৬০ রান তুলেন। তন্মধ্যে, একটি খেলায় ৮৬ করেছিলেন।[৭১] আরেকটি খেলায় ১২৩ তুলেন।[৭২] এটিই প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে তার সর্বশেষ অংশগ্রহণ ছিল।

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত তিনি। এসি কার নাম্নী তার এক কন্যা রয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Tasmania strongly placed"The Canberra Times55 (16,530)। Australian Capital Territory, Australia। ২৯ ডিসেম্বর ১৯৮০। পৃষ্ঠা 36। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  2. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/41/41801.html
  3. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/41/41868.html
  4. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/41/41919.html
  5. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/42/42089.html
  6. "Queensland crushes WA for second weekend win"The Canberra Times56 (16,845)। Australian Capital Territory, Australia। ৯ নভেম্বর ১৯৮১। পৃষ্ঠা 18। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  7. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/42/42106.html
  8. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/42/42923.html
  9. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/42/42982.html
  10. "Border regains touch in a Queensland batting spree"The Canberra Times57 (17,249)। Australian Capital Territory, Australia। ১৯ ডিসেম্বর ১৯৮২। পৃষ্ঠা 26। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  11. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/43/43062.html
  12. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/43/43273.html
  13. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/43/43289.html
  14. "CRICKET In-form Yallop gains tour place"The Canberra Times57 (17,322)। Australian Capital Territory, Australia। ৩ মার্চ ১৯৮৩। পৃষ্ঠা 26। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  15. "CRICKET No holiday for tentative Australians"The Canberra Times57 (17,364)। Australian Capital Territory, Australia। ১৪ এপ্রিল ১৯৮৩। পৃষ্ঠা 22। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  16. https://cricketarchive.com/Archive/Scorecards/43/43350.html
  17. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/44/44118.html
  18. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/44/44137.html
  19. "Ritchie and Kerr in fine form for Qld"The Canberra Times58 (17,563)। Australian Capital Territory, Australia। ৩০ অক্টোবর ১৯৮৩। পৃষ্ঠা 31। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  20. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/44/44246.html
  21. "Queensland opener Kerr entertains with stylish century"The Canberra Times58 (17,639)। Australian Capital Territory, Australia। ১৪ জানুয়ারি ১৯৮৪। পৃষ্ঠা 42। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  22. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/44/44473.html
  23. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/44/44521.html
  24. "Wessels steers Qld to win"The Canberra Times59 (17,913)। Australian Capital Territory, Australia। ১৪ অক্টোবর ১৯৮৪। পৃষ্ঠা 6 (SPORT)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  25. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/45/45315.html
  26. "Qld seems a safe bet"The Canberra Times59 (17,927)। Australian Capital Territory, Australia। ২৮ অক্টোবর ১৯৮৪। পৃষ্ঠা 7 (SPORT)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  27. "From Garner's 'bunny' to Australia's hero Wessels hits back hard"The Canberra Times59 (17,997)। Australian Capital Territory, Australia। ৬ জানুয়ারি ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 9 (SPORT)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  28. "McDermott named in squad for fourth Test"The Canberra Times59 (17,978)। Australian Capital Territory, Australia। ১৮ ডিসেম্বর ১৯৮৪। পৃষ্ঠা 1। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  29. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/45/45733.html
  30. "CRICKET: SHEFFIELD SHIELD Qld openers score 331 against Tasmania"The Canberra Times59 (18,020)। Australian Capital Territory, Australia। ২৯ জানুয়ারি ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 18। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  31. "Border expects fire from Windies"The Canberra Times59 (18,032)। Australian Capital Territory, Australia। ১০ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 6 (SPORT)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  32. "CRICKET Aussies' morale problem"The Canberra Times59 (18,034)। Australian Capital Territory, Australia। ১২ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 20। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  33. http://www.espncricinfo.com/series/8531/scorecard/65390/australia-vs-west-indies-3rd-final-aus-tri-series-cb-1984-85/
  34. "Border senses win in WCC opener"The Canberra Times59 (18,039)। Australian Capital Territory, Australia। ১৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 11 (SPORT)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  35. http://www.espncricinfo.com/series/8533/scorecard/65719/australia-vs-england-1st-match-bh-world-champ-1984-85/
  36. "CRICKET: WORLD CHAMPIONSHIP Youngsters win it for faltering Australia"The Canberra Times59 (18,040)। Australian Capital Territory, Australia। ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 22। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  37. http://www.espncricinfo.com/series/8533/scorecard/65723/australia-vs-pakistan-5th-match-bh-world-champ-1984-85/
  38. "Hughes' leaving stuns Border Young Pakistani speedster's day"The Canberra Times59 (18,047)। Australian Capital Territory, Australia। ২৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 24। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  39. http://www.espncricinfo.com/series/8533/scorecard/65727/australia-vs-india-9th-match-bh-world-champ-1984-85/
  40. "India whitewashes a tired Australia"The Canberra Times59 (18,054)। Australian Capital Territory, Australia। ৪ মার্চ ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 26। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  41. "Hilditch misses Middle East"The Canberra Times59 (18,049)। Australian Capital Territory, Australia। ২৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 42। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  42. "Smith and 'the Motivator' to miss Ashes tour"The Canberra Times59 (18,071)। Australian Capital Territory, Australia। ২১ মার্চ ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 28। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  43. "Squad for Zimbabwe"The Canberra Times59 (18,163)। Australian Capital Territory, Australia। ২২ জুন ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 14 (Section D)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  44. "Times Sport CRICKET"The Canberra Times60 (18,266)। Australian Capital Territory, Australia। ৪ অক্টোবর ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 28। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  45. "SA v QLD Kerr contends for Wessels' position"The Canberra Times60 (18,310)। Australian Capital Territory, Australia। ১৭ নভেম্বর ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 28। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  46. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/46/46611.html
  47. "A time for spinners on both sides Battle plans drawn for SCG Test"The Canberra Times60 (18,312)। Australian Capital Territory, Australia। ১৯ নভেম্বর ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 24। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  48. http://www.espncricinfo.com/series/16841/scorecard/63416/australia-vs-new-zealand-2nd-test-new-zealand-tour-of-australia-1985-86/
  49. "Bradman an inspiration"The Canberra Times60 (18,319)। Australian Capital Territory, Australia। ২৬ নভেম্বর ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 22। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  50. http://www.espncricinfo.com/series/16841/scorecard/63417/australia-vs-new-zealand-3rd-test-new-zealand-tour-of-australia-1985-86/
  51. "Australian bats in their shells"The Canberra Times60 (18,326)। Australian Capital Territory, Australia। ৩ ডিসেম্বর ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 22। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  52. "Lawson feels his first axe"The Canberra Times60 (18,333)। Australian Capital Territory, Australia। ১০ ডিসেম্বর ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 24। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  53. "Boon's day in Adelaide"The Canberra Times60 (18,337)। Australian Capital Territory, Australia। ১৪ ডিসেম্বর ১৯৮৫। পৃষ্ঠা 14 (Section D)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  54. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/46/46833.html
  55. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/46/46955.html
  56. "Saved by the master and apprentice"The Canberra Times60 (18,413)। Australian Capital Territory, Australia। ১ মার্চ ১৯৮৬। পৃষ্ঠা 14 (POSITIONS VACANT)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  57. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/46/46994.html
  58. "Weak attack helps Kerr's big score"The Canberra Times61 (18,645)। Australian Capital Territory, Australia। ১৯ অক্টোবর ১৯৮৬। পৃষ্ঠা 7 (SPORT)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  59. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/47/47925.html
  60. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/47/47937.html
  61. "SA spinners humble Queensland"The Canberra Times61 (18,665)। Australian Capital Territory, Australia। ৮ নভেম্বর ১৯৮৬। পৃষ্ঠা 10 (Section D)। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  62. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/48/48036.html
  63. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/48/48128.html
  64. "Robbie Kerr pleads guilty"The Canberra Times61 (18,697)। Australian Capital Territory, Australia। ১১ ডিসেম্বর ১৯৮৬। পৃষ্ঠা 30। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  65. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/49/49363.html
  66. "McDermott tears NSW to shreds"The Canberra Times62 (19,049)। Australian Capital Territory, Australia। ৩০ নভেম্বর ১৯৮৭। পৃষ্ঠা 24। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  67. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/49/49435.html
  68. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/49/49655.html
  69. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/49/49746.html
  70. "Clifford knows what's expected"The Canberra Times63 (19,350)। Australian Capital Territory, Australia। ২৮ সেপ্টেম্বর ১৯৮৮। পৃষ্ঠা 50। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  71. "Ritchie's lads take Shield lead outrieht"The Canberra Times64 (19,753)। Australian Capital Territory, Australia। ৭ নভেম্বর ১৯৮৯। পৃষ্ঠা 22। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০১৮ – National Library of Australia-এর মাধ্যমে। 
  72. https://cricketarchive.com/Queensland/Scorecards/52/52203.html

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]