ভিক মার্কস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভিক মার্কস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামভিক্টর জেমস মার্কস
জন্ম (১৯৫৫-০৬-২৫) ২৫ জুন ১৯৫৫ (বয়স ৬৩)
মিডল চিনক, সমারসেট, ইংল্যান্ড
ডাকনামস্কিড, স্পিডি
উচ্চতা৫ ফুট ৯ ইঞ্চি (১.৭৫ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৪৯৯)
২৬ আগস্ট ১৯৮২ বনাম পাকিস্তান
শেষ টেস্ট১৯ মার্চ ১৯৮৪ বনাম পাকিস্তান
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৫৫)
৩০ মে ১৯৮০ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শেষ ওডিআই৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮৮ বনাম শ্রীলঙ্কা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৭৫-১৯৭৮অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়
১৯৭৫-১৯৮৯সমারসেট
১৯৮১-১৯৮৯এমসিসি
১৯৮৬-৮৭ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৩৪ ৩৪২ ৩০৪
রানের সংখ্যা ২৪৯ ২৮৫ ১২,৪১৯ ৪,১৭৫
ব্যাটিং গড় ২৭.৬৬ ১৩.৫৭ ৩০.২৯ ২২.৫৬
১০০/৫০  –/৩  –/– ৫/৭৩  –/১৪
সর্বোচ্চ রান ৮৩ ৪৪ ১৩৪ ৮১*
বল করেছে ১,০৮২ ১,৮৩৮ ৬৩,০৫২ ১৩,০৩৯
উইকেট ১১ ৪৪ ৮৫৯ ২৮৬
বোলিং গড় ৪৪.০০ ২৫.৭৯ ৩৩.২৮ ২৭.৮৫
ইনিংসে ৫ উইকেট  – ৪০
ম্যাচে ১০ উইকেট  – - -
সেরা বোলিং ৩/৭৮ ৫/২০ ৮/১৭ ৫/২০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং  –/– ৮/– ১৪৫/– ৭৫/–
উৎস: ক্রিকেটআর্কাইভ, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫

ভিক্টর জেমস ভিক মার্কস (ইংরেজি: Vic Marks; জন্ম: ২৫ জুন, ১৯৫৫) সমারসেটের মিডল চিনক এলাকায় জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত ও সাবেক ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা।[১] ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার ছিলেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়েছেন ভিক মার্কস। ঘরোয়া ক্রিকেটে সমারসেট, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়, মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাব ও ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার প্রতিনিধিত্ব করেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

ব্লানডেল স্কুলে অধ্যয়ন শেষে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন। সেখানে ১৯৭৫ থেকে ১৯৭৮ সময়কালে ইমরান খানক্রিস টাভারে’র সাথে একত্রে খেলেন। তন্মধ্যে, ১৯৭৬ ও ১৯৭৭ সালে বিশ্ববিদ্যালয় দলকে নেতৃত্ব দেন তিনি। ১৯৭৫ সালে ইংরেজ ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তাঁর।

পাঁচ বছর পর ৩০ মে, ১৯৮০ তারিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে আত্মপ্রকাশ ঘটে তাঁর। এরপর টেস্টে অভিষেক ঘটে পাকিস্তানের বিপক্ষে ২৬ আগস্ট, ১৯৮২ তারিখ। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনি মাত্র ছয় টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন। কিন্তু একদিনের আন্তর্জাতিকে তুলনামূলকভাবে ভাল খেলেন। ২৫.৭৯ গড়ে ৪৪ উইকেট তুলে নিয়েছেন। ১৯৮৪ সালে নিজস্ব সেরা ৫/২০ লাভ করেন। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাঁর এই বোলিং পরিসংখ্যান বেশ কয়েক বছর ইংল্যান্ডের সেরা বোলিং ছিল। এছাড়াও অদ্যাবধি স্লো বোলার হিসেবে এটি ইংল্যান্ডের সেরা বোলিংরূপে রয়েছে। এছাড়াও, ১১ জুন, ১৯৮৩ তারিখে ক্রিকেট বিশ্বকাপের গ্রুপ-পর্বের খেলায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৫/৩৯ লাভ করেছিলেন।[২] ঐ খেলায় তাঁর দল ৪৭ রানের ব্যবধানে জয় পেয়েছিল।

ঘরোয়া ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৭৫ থেকে ১৯৮৯ সময়কালে সমারসেট ক্লাবে অবস্থান করে বর্ণাঢ্যময় প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন অতিবাহিত করেন। এছাড়াও, ১৯৮৬-৮৭ মৌসুমে শেফিল্ড শীল্ডের শিরোপা বিজয়ী ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার প্রতিনিধিত্ব করেন।

পেশাদারী ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণের পর তিনি সাংবাদিকতা ও প্রচারমাধ্যমের দিকে ঝুঁকে পড়েন। টেস্ট ম্যাচ স্পেশালে নিয়মিতভাবে বিশ্লেষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন মার্কস। দি অবজারভার সংবাদপত্রে নিয়মিতভাবে ক্রিকেট ও মাঝে-মধ্যে রাগবি ইউনিয়ন নিয়ে লিখে যাচ্ছেন। বর্তমানে তিনি সমারসেটের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bateman, Colin (১৯৯৩)। If The Cap Fits। Tony Williams Publications। পৃষ্ঠা 116। আইএসবিএন 1-869833-21-X 
  2. "5th Match: England v Sri Lanka at Taunton, Jun 11, 1983 | Cricket Scorecard"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১১-১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]


ক্রীড়া অবস্থান
পূর্বসূরী
পিটার রোবাক
সমারসেট কাউন্টি ক্রিকেট দলের অধিনায়ক
১৯৮৯
উত্তরসূরী
ক্রিস টাভারে