বিষয়বস্তুতে চলুন

জলঙ্গী নদী: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
'''জলঙ্গী নদী''' [[ভারত]]-এর [[পশ্চিমবঙ্গ]] রাজ্যের [[মুর্শিদাবাদ জেলা]] ও [[নদিয়া জেলা]] দিয়ে প্রবাহিত। অতীতে এর নাম ছিল ''খড়ে'' নদী।<ref>{{বই উদ্ধৃতি|title=রূপমঞ্জরি|last=প্রথম খন্ড|first=নারায়ণ সান্যাল|publisher=দেজ পাবলিশিং|year=১৯৯০|isbn=|location=কলকাতা|pages=২১৯}}</ref> নদীটি [[মুর্শিদাবাদ জেলা]]য় পদ্মা নদী থেকে উৎপন্ন হয় নদিয়া জেলার পলাশীপাড়া, তেহট্ট, [[কৃষ্ণনগর]] শহরের পাশ দিয়ে প্রবাহিত হয়ে মায়াপুরের কাছে [[ভাগীরথী নদী]]তে মিলিত হয়েছে। এই মিলিত নদী প্রবাহ এর পর [[হুগলি নদী]] নামে পরিচিত। নদীটির মোট দৈর্ঘ্য ২২০ কিলোমিটারের কাছাকাছি।<ref>{{cite news | title = Adrir push for bridge/ Kolkata Plus | url=http://www.thestatesman.com/ | accessdate = ৫ আগস্ট ২০১৬}}</ref> বর্তমানে নদীটিতে পলি জমে যাওয়ায় এটি তার গভীরতা হারিয়েছে।<ref>{{cite news |title = জলঙ্গি নদীর জল শুকিয়ে যাওয়ায়,উদ্ববেগ | url=http://www.anandabazar.com/ | newspaper= আনন্দবাজার পত্রিকা | accessdate =০৬ আগস্ট ২০১৬}}</ref>
 
== নদীর প্রবাহ ==
[[চিত্র:Nadia Rivers.jpg|thumb|জলঙ্গী নদীর প্রবাহ]]
জলঙ্গী নদী [[মুর্শিদাবাদ জেলা]]য় চর মধবোনার কাছে [[পদ্মা নদী]] থেকে উৎপত্তি লাভ করেছে। উৎস স্থল থেকে দক্ষিণে নদীটি প্রবাহিত হয়েছে। প্রবাহ পথে নদীটি ইসলামপুর, [[ডোমকল মহকুমা|ডোমকল]], [[তেহট্ট মহকুমা|তেহট্ট]], [[পলাশীপাড়া]], [[চাপড়া]] অতিক্রম করে [[কৃষ্ণনগর|কৃষ্ণনগরেকৃষ্ণনগরের]]<nowiki/>র কাছে এসে পশ্চিম দিকে বাঁক নিয়েছে। এর পর নদীটি পশ্চিমমুখী হয়ে [[মায়াপুর|মায়াপুরেমায়াপুরের]]<nowiki/>র কাছে সাহেবগঞ্জে [[গঙ্গা নদী|গঙ্গা]] বা [[ভাগীরথী নদী]]র সঙ্গে মিলিত হয়েছে। এই প্রবাহ পথের মোট দৈর্ঘ্য ২২০ কিলোমিটার। নদীটির প্রবাহ পথে প্রচুর [[নদী বাঁক]] ও অশ্বক্ষুরাকৃতি হ্রদ দেখা যায়। [[ভৈরব নদী]] এই নদীর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে এবং এই নদীটিই জলঙ্গী নদীর বেশির ভাগ জলের যোগান দেয়। বর্ষার মরশুম ছাড়া গ্রীষ্মের মরশুমে নদীটির জল অস্বভাবিক ভাবেঅস্বাভাবিকভাবে কমে যায়।<ref name=":0">{{cite news |title = জলঙ্গি , তোমার জল কোথায় | url=http://www.anandabazar.com/ | accessdate = ৬ আগস্ট ২০১৬ | newspaper = আনন্দবাজার পত্রিকা }}</ref>
 
==বর্তমান অবস্থা==