নেড গ্রিগরি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নেড গ্রিগরি
নেড গ্রিগরি.jpeg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামএডওয়ার্ড জেমস গ্রিগরি
জন্ম(১৮৩৯-০৫-২৯)২৯ মে ১৮৩৯
ওয়াভার্লি, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
মৃত্যু২২ এপ্রিল ১৮৯৯(1899-04-22) (বয়স ৫৯)
র‌্যান্ডউইক, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
উচ্চতা১.৬৪ মিটার (৫ ফুট ৫ ইঞ্চি)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাব্যাটসম্যান
সম্পর্কভ্রাতা: ডিডব্লিউ গ্রিগরি, সিএস গ্রিগরি, এএইচ গ্রিগরি;
পুত্র: এসই গ্রিগরি, সিডব্লিউ গ্রিগরি;
ভাইপো: জেএম গ্রিগরি
জামাতা: হ্যারি ডোনান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট১৫ মার্চ ১৮৭৭ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১৬
রানের সংখ্যা ১১ ৪৭০
ব্যাটিং গড় ৫.৫০ ১৭.৪০
১০০/৫০ ০/০ ০/২
সর্বোচ্চ রান ১১ ৬৫*
বল করেছে ৩০০
উইকেট
বোলিং গড় - ২০.১৯
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং - ২/১৪
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/০ ১১/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৫ জুলাই ২০১৭

এডওয়ার্ড জেমস গ্রিগরি (ইংরেজি: Ned Gregory; জন্ম: ২৯ মে, ১৮৩৯ - মৃত্যু: ২২ এপ্রিল, ১৮৯৯) নিউ সাউথ ওয়েলসের ওয়াভার্লি এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৭৭ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলসের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।[১] দলে নেড গ্রিগরি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৮৭৭ সালে মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের মধ্যকার টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম টেস্টে খেলার সৌভাগ্য অর্জন করেন। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনি কেবলমাত্র ঐ একটি টেস্টে অংশগ্রহণ করেন। প্রথম ইনিংসে জেমস লিলিহোয়াইটের বলে অ্যান্ড্রু গ্রীনউডের কটে পরিণত হন শূন্য রানে। এরফলে তিনি টেস্ট ইতিহাসের প্রথম শূন্য রানের সন্ধান পান। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে জর্জ ইউলিটের বলে টম এমেটের কটে পরিণত হবার পূর্বে ১১ রান করেছিলেন তিনি। এছাড়াও, এক টেস্টের বিস্ময়কারীতে পরিণত হন।

জীবনের শেষদিকে সিডনির অ্যাসোসিয়েশন গ্রাউন্ডের দায়িত্বে ছিলেন যা পরবর্তীকালে সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে পরিণত হয়। সেখানে বর্তমানে স্কোরবোর্ড রয়েছে। নেড গ্রিগরি ও ন্যাট টমসন - একই দিনে জন্মগ্রহণ করার কথা উইজডেনে লিপিবদ্ধ রয়েছে। এরফলে তারা যৌথভাবে শুরুরদিকের অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটাররূপে স্বীকৃতি পান। জেমস সাউদার্টনের মৃত্যুর পর তিনিই বয়োজ্যেষ্ঠ জীবিত টেস্ট ক্রিকেটারের স্বীকৃতি পান। তার মৃত্যুর পর টম এমেট বয়োজ্যেষ্ঠ জীবিত টেস্ট ক্রিকেটার হন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় ক্রিকেটার সিড গ্রিগরি’র বাবা তিনি। এছাড়াও, ১৮৭৮ সালে ইংল্যান্ডে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া একাদশের অধিনায়কের দায়িত্ব পালনকারী ডেভ গ্রিগরি তার ভাই ছিলেন। হ্যারি ডোনানের শ্বশুর তিনি। ২২ এপ্রিল, ১৮৯৯ তারিখে নিউ সাউথ ওয়েলসের র‌্যান্ডউইক এলাকায় ৫৯ বছর বয়সে নেড গ্রিগরি’র দেহাবসান ঘটে। পরবর্তীতে ওয়াভার্লি কাউন্সিলের ব্রোন্ট এলাকায় তাকে সমাহিত করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

পূর্বসূরী
জেমস সাউদার্টন
বয়োঃজ্যেষ্ঠ জীবিত ক্রিকেটার
১৬ জুন, ১৮৮০ - ২২ এপ্রিল, ১৮৯৯
উত্তরসূরী
টম এমেট
পাদটীকা ও তথ্যসূত্র
১. ২ সেপ্টেম্বর, ১৮৯৬ তারিখে ন্যাট টমসনের মৃত্যু-পূর্ব পর্যন্ত যৌথভাবে