স্যাম কস্টিক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
স্যাম কস্টিক
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম স্যামুয়েল কস্টিক
জন্ম (১৮৩৬-০১-০১)১ জানুয়ারি ১৮৩৬
ক্রয়ডন, ইংল্যান্ড
মৃত্যু ৮ এপ্রিল ১৮৯৬(১৮৯৬-০৪-০৮) (৬০ বছর)
পশ্চিম মেইটল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরন ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরন ডানহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট রাউন্ডআর্ম
ভূমিকা আম্পায়ার
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
নিউ সাউথ ওয়েলস
ভিক্টোরিয়া
আম্পায়ারিং তথ্য
টেস্ট আম্পায়ার ১ (১৮৭৭)
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১৮
রানের সংখ্যা ৩১৫
ব্যাটিং গড় ৯.৮৪
১০০/৫০ -/-
সর্বোচ্চ রান ৩৬
বল করেছে
উইকেট ১০৬
বোলিং গড় ৯.৪১
ইনিংসে ৫ উইকেট ১১
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৯/৬১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৪/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ১২ আগস্ট ২০১৭

স্যামুয়েল কস্টিক (ইংরেজি: Sam Cosstick; জন্ম: ১ জানুয়ারি, ১৮৩৬ - মৃত্যু: ৮ এপ্রিল, ১৮৯৬) ইংল্যান্ডের সারের ক্রয়ডন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার ছিলেন। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলস[১]ভিক্টোরিয়ার প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি।[২] ডানহাতে ব্যাটিংয়ে দক্ষ ছিলেন স্যাম কস্টিক। এছাড়াও, ডানহাতে মিডিয়াম-ফাস্ট রাউন্ডআর্ম বোলিং করতেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

১৮৫০-এর দশকে ভিক্টোরিয়ায় স্বর্ণের সন্ধান লাভে আকৃষ্ট হন। এখানে আগমনের পরপরই মেলবোর্ন ক্রিকেট ক্লাবে যোগ দেন। সেখানে তিনি গ্রাউন্ড বোলার হিসেবে নিযুক্ত হন। বার্ষিক £১৫০ পাউন্ডে ঘন্টাপ্রতি এর সদস্যদেরকে অনুশীলনীতে বোলিং করানো হতো।

১৮৬০ থেকে ১৮৭৬ সময়কালে ভিক্টোরিয়ার পক্ষে ১৮ খেলায় অংশগ্রহণ করেন। ব্যাটসম্যান হিসেবে ৯.৮৪ গড়ে ৩১৫ রান তোলেন। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ছিল ৩৬। অপরদিকে, ৯.৪১ গড়ে ১০৬ উইকেট দখল করেন। সেরা বোলিং পরিসংখ্যান গড়েন ৯.৬১। এগারোবার ইনিংসে পাঁচ উইকেট ও পাঁচবার খেলায় দশ উইকেট পান তিনি। এছাড়াও, ১৪টি ক্যাচ নিয়েছেন। ১৮৬৯ সালে তাসমানিয়ার বিপক্ষে মাত্র ১ রান দিয়ে ৬ উইকেট দখল করেছিলেন।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

ভিক্টোরিয়ার অষ্টাদশ বনাম এইচ. এইচ. স্টিফেনসনের নেতৃত্বাধীন সর্ব-ইংল্যান্ড একাদশের মধ্যকার খেলাটি মেলবোর্নে জানুয়ারি, ১৮৬২ সালে অনুষ্ঠিত হয়। এ খেলাটিই অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা ছিল। কস্টিক দলের পক্ষে ৮ ও ১১ রান তুলেন ও ৩১ রানে ১ উইকেট লাভ করেন। নম্বরের দিক দিয়ে এগিয়ে থাকলেও দলটি ইনিংসের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিল।

১৮৭৩-৭৪ মৌসুমে ডব্লিউ. জি. গ্রেসের নেতৃত্বাধীন ইংরেজ দল অস্ট্রেলিয়ায় আসে। কস্টিকের বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্রান্সবি কুপারজন কনওয়ে এবং ফ্রাঙ্ক অ্যালানহ্যারি বয়েলের বোলিংয়ের কারণে ভিক্টোরিয়া অষ্টাদশ ইনিংসের ব্যবধানে সফরকারী দলের পরাজয় ঘটে। এ ফলাফল বিস্ময়কর হলেও এক সংবাদদাতা লিখেন যে, সংখ্যাগত দিক দিয়ে এগারোজন ভিক্টোরীয় যদি ইংল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে শিশুসূলভ খেলার ফলাফল কি হতো তা কেবলই ভাবনার বিষয়।

সিডনিতে ভিক্টোরিয়া ও নিউ সাউথ ওয়েলসের সম্মিলিত পঞ্চদশের পক্ষে তাঁকে আউট ঘোষণা করলে দর্শকেরা ক্রিজে অবস্থানের দাবী জানায়। তিনি তাই করলেন, ভুলবশতঃ আম্পায়ার তাঁকে আউট দিয়েছেন। ক্রিজে তখন তিনজন ব্যাটসম্যান অবস্থান করছিলেন। কস্টিক তাঁর আপত্তি প্রত্যাহারের পূর্ব-পর্যন্ত গ্রেস দলকে মাঠ থেকে তুলে নেন।

আম্পায়ারিত্ব[সম্পাদনা]

ক্রিকেটের ঊষালগ্নে ভিক্টোরিয়ায় অন্যতম ভূমিকা রাখেন স্যাম কস্টিক। ১৮৭৭ সালে মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের মধ্যকার অনুষ্ঠিত টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসের দ্বিতীয় টেস্টে ৪১ বছর বয়সে আম্পায়ারিত্ব করে স্মরণীয় হয়ে আছেন। ৩১ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল, ১৮৭৭ তারিখ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ঐ টেস্টে তাঁর সাথে পীচের অন্যপ্রান্তে সঙ্গ দিয়েছিলেন সিরিজের উভয় টেস্ট পরিচালনাকারী রিচার্ড বেঞ্জামিন টেরি

৮ এপ্রিল, ১৮৯৬ তারিখে ৬০ বছর বয়সে অস্ট্রেলিয়ার পশ্চিম মেইটল্যান্ডে কস্টিকের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]