জন সিনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জন সিনা
John Cena interview 2018.jpg
ডিসেম্বর ২০১৮ সালে সিনা
জন্ম (1977-04-23) এপ্রিল ২৩, ১৯৭৭ (বয়স ৪২)
বাসস্থানটাম্পা, ফ্লোরিডা[১]
পেশাপেশাদার কুস্তিগীর, অভিনেতা
কার্যকাল১৯৯৯-বর্তমান (কুস্তিগীর)
২০০০-বর্তমান (অভিনেতা)
২০০৪-২০০৫, ২০১৪ (র‍্যাপার)
মোট সম্পত্তিবৃদ্ধি $৫৫ মিলিয়ন (২০১৮)[২]
দাম্পত্য সঙ্গীএলিজাবেথ হুবার্ডো (বি. ২০০৯) (২০০৯–২০১২; বিচ্ছেদ)
সঙ্গীনিকি বেলা (২০১২–বর্তমান)
রিংয়ে নামজন সিনা[৩]
দ্য প্রোটোটাইপ[৪]
কথিত উচ্চতা৬ ফুট ১ ইঞ্চি (১.৮৫ মিটার)[৫]
কথিত ওজন২৫১ পা (১১৪ কেজি)[৫]
কথিত
প্রশিক্ষণকেন্দ্র
"গোপণ" (ইউপিডাব্লিউ)[৬]
ওয়েস্ট নিউবারি, ম্যাসাচুসেটস (ডাব্লিউডাব্লিউই)[৫]
"ওয়েস্ট নিউবার্নিয়া, মেক্সিকো" (জুয়ান সেনা)[৭]
প্রশিক্ষকআলটিমেট প্রো রেসলিং[৬]
অহিও ভ্যালি রেসলিং[৮][৯]
অভিষেকনভেম্বর ৫, ১৯৯৯[১০]

জন ফিলিক্স অ্যন্থনিও সিনা[৩] (ইংরেজি: John Felix Anthony Cena; জন্ম ২৩ এপ্রিল ১৯৭৭) একজন মার্কিন পেশাদার কুস্তিগীর, র‌্যাপার ও অভিনেতা। তিনি ডাব্লিউডাব্লিউই-এর সাথে চুক্তিবদ্ধ। সিনা সাবেক ডাব্লিউডাব্লিউই ইউনাইটেড স্টেটস চ্যাম্পিয়ন। তিনি ১৬ বারের ডাব্লিউডাব্লিউই চ্যাম্পিয়ন, যা এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি বার। তিনি ২০০৫ সাল থেকে ডাব্লিউডাব্লিউই-এর ফ্র্যাঞ্চাইজি খেলোয়াড় এবং পরবর্তীতে তাকে আখ্যায়িত করা হয়েছে সংস্থার জনপ্রিয় মুখ হিসেবে।

সিনা অনেক জনসেবামূলক কাজের সাথে জড়িত; এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো মেইক-আ-উইশ ফাউন্ডেশনের সাথে তার সম্পৃক্ততা। তিনি মেইক-আ-উইশ ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি ইচ্ছা পূরণ করেছেন।

এছাড়াও জন সিনা ০৫ বারের ডাব্লিউডাব্লিউই ইউনাইটেড স্টেটস চ্যাম্পিয়ন ০৪ বারের ডাব্লিউডাব্লিউই ট্যাগ টিম চ্যাম্পিয়ন ১৩ বারের ডাব্লিউডাব্লিউই চ্যাম্পিয়ন ৩ বারের ওয়ার্ল্ড হেবিওয়েট চ্যাম্পিয়ন ২০১২ মানি ইন দ্য ব্যাংক, রয়্যাল রাম্বাল (২০০৮), (২০১৩) জয়ী।

পরিচ্ছেদসমূহ

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

জন সিনা ১৯৭৭ সালের ২৩ এপ্রিল জন্মগ্রহন করেন। তার একজন বড় ভাই রয়েছে (ডেন) এবং তিনজন ছোট ভাই রয়েছে। তিনি ১৯৯৮ সালে স্প্রিংফিল্ড কলেজ থেকে ডিগ্রি অর্জন করেন। জন সিনা একজন জাপানিজ এনিম এর ভক্ত এবং তার প্রিয় এনিম সিনেমার নাম ফার্স্ট অব দ্য নর্থ স্টার। ২০০৯ সালে তার গার্লফ্রেন্ড এলিজাবেথের সঙ্গে তার এনগেজমেন্ট সম্পন্ন হয় এবং ২০০৯ সালের ১১ই জুলাই তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। ২০১২ সালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। ২০১২ সালের নভেম্বরে সিনা নিক্কি বেলার সাথে সম্পর্ক শুরু করেন। জন সিনা কুস্তিতে আসার পূর্বে বডি বিল্ডার ছিলেন। তিনি কুস্তি ছাড়াও বিভিন্ন সমাজসেবা মুলক কাজে জড়িত আছেন। মেইক-এ-উইশ ফাউন্ডেশন এর ইতিহাসে তিনি সবচেয়ে বেশি ইচ্ছা পূরন করেছেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন হলিউড ছবিতেও কাজ করেছেন।

আলটিমেট প্রো রেসলিং (১৯৯৯-২০০১, ২০০৩)[সম্পাদনা]

জন সিনা নভেম্বর ৫ ১৯৯৯ তে আলটিমেট প্রো রেসলিং ট্রেনিং নেওয়া শুরু করে। তিনি ২০০০ সালের এপ্রিল মাসে ২৭ দিনের জন্য "ইউপিডাব্লিউ ওয়ার্ল্ড হেবিওয়েট চ্যাম্পিয়ন" ছিলেন। তিনি মার্চ ২০০১ পর্যন্ত ইউপিডাব্লিউ তে রেসলিং করেন। ২০০৩ সালে তিনি এক রাতের জন্য ইউপিডাব্লিউ তে ফিরেন। এবং কাজারিয়ান এর কাছে Disqualification এর মাধ্যমে পরাজিত হন।[১১]

অহিও ভ্যালি রেসলিং[সম্পাদনা]

জন সিনা ২০০০ সালে অহিও ভ্যালি রেসলিং এ অভিষেক ঘটান। তখন তার রিং নেম ছিল "দ্য প্রোটোটাইপ"। সেখানে থাকাকালীন তিনি "ওভিডাব্লিউ ওয়ার্ল্ড হেবিওয়েট চ্যাম্পিয়ন" এবং একবার "ওভিডাব্লিউ সাউদার্ন ট্যাগ টিম চ্যাম্পিয়ন" ছিলেন।

ওয়ার্ল্ড রেসলিং এন্টারটেইনমেন্ট/ডাব্লিউডাব্লিউই[সম্পাদনা]

রুথলেস আগ্রাসন (২০০২)[সম্পাদনা]

জুন ২৪ এ এর এপিসোডে ভিন্স ম্যাকমোহান ডাব্লিউডাব্লিউই রোস্টারের সকল রেসলারদের ডাকেন এবং জানান তিনি তাদের মধ্যে ruthless aggrassion ভাব চান। জুন ২৭ স্ম্যাকডাউন এর এপিসোডে কার্ট এঙ্গেল এর ওপেন চ্যালেঞ্জ গ্রহনের মাধ্যমে অভিষেক ঘটান জন সিনা। এই ম্যাচ শুরুর পূর্বে তিনি নিজেকে "ruthless aggrassion" বলে উল্লেখ করেন। দারুণ উত্তেজনা পূর্ণ ম্যাচে রোল আপের মাধ্যমে তিনি পরাজিত হন। এই ম্যাচের পর তিনি দ্য আন্ডারটেকার বিলি কিডম্যান রিকিশি ফারুক এর মতো রেসলারদের থেকে অভিনন্দন পান। ক্রিস জেরিকোর সাথে ফিউড চলাকালীন তিনি ফ্যান ফেভারিট হয়ে যান। অক্টোবর ২০০২ এ জন সিনা এবং বিলি কিডম্যান ট্যাগ টিম হয়ে ডাব্লিউডাব্লিউই ট্যাগ টিম চ্যাম্পিয়নশিপ টুর্নামেন্টে অংশ নেন। যেখানে তারা প্রথম রাউন্ডেই বিদায় নেয়। এরপর জন সিনা বিলি কিডম্যান কে আক্রমন করে। মূলত এটিই ছিল জন সিনার এখন পর্যন্ত প্রথম ভিলেন ক্যারেক্টার। এরপর তারা দুজন স্ম্যাকডাউন এর একটি এপিসোডে মুখোমুখি হয়। যেখানে জন সিনা বিলি কিডম্যান কে হারায়। কিন্তু এর রিম্যাচ এ জন সিনা পরাজিত হয়।

দ্য ডক্টর অফ থাগানোমিকস (২০০২-২০০৫)[সম্পাদনা]

এর পরের সপ্তাহে সিনা একটি নতুন গিমিক এ আবির্ভূত হন। এই গিমিক ধারন করার সময় তিনি জার্সি পরতেন এবং তার গলায় একটি স্টিল চেইন থাকত। মাঝে মাঝে রেফারির চোখের আড়ালে তিনি স্টিল চেইন ব্যবহারের মাধ্যমে জিততেন। এ সময় তিনি F চিহ্ন ধারন করতেন এবং স্লোগান হিসেবে "Word Life" শব্দদ্বয় ব্যবহার করতেন। ২০০৩ সালে সিনা নাম্বার ওয়ান কন্টেনডার ম্যাচ জিতে। এবং ব্যাকল্যাশ তে ডাব্লিউডাব্লিউই চ্যাম্পিয়ন ব্রক লেসনার এর কাছে পরাজিত হন। এরপর তিনি ডাব্লিউডাব্লিউই ইউনাইটেড স্টেটস চ্যাম্পিয়ন এডি গুয়েররোর সাথে লাটিনো স্ট্রিট ফাইট ম্যাচ খেলে। যেখানে তিনি পরাজিত হন। জন সিনা তার প্রথম একক টাইটেল জিতে রেসেলম্যানিয়া ২০ এ। তিনি বিগ শো কে পরাজিত করার মাধ্যমে প্রথমবারের মতো ডাব্লিউডাব্লিউই ইউনাইটেড স্টেটস চ্যাম্পিয়নশীপ টাইটেল জিতে।

২০০৫ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চ্যাম্পিয়ন জন সিনা

জন সিনা ২০০৫ সালের রয়্যাল রাম্বাল ম্যাচে অংশগ্রহণ করে। যেখানে সে বাতিস্তার সাথে শেষ দুই পর্যন্ত টিকে ছিল। তারা দুজনেই একসাথে দড়ির উপর থেকে পড়ে যান। ফলে রেফারি আবার ম্যাচ শুরু করতে বলে। যেখানে বাতিস্ত জয়ী হয়। এরপর সিনা ডাব্লিউডাব্লিউই চ্যাম্পিয়ন এর জন্য নাম্বার ওয়ান কন্টেনডার ম্যাচ জিতে। এবং তখনকার ডাব্লিউডাব্লিউই চ্যাম্পিয়ন জেবিএল এর সাথে ফিউডে জড়ান। তাদের ফিউড চলাকালীন সময় সিনা অর্লান্ডো জর্ডান এর কাছে তার ইউনাইটেড স্টেটস চ্যাম্পিয়নশীপ বেল্টটি হারান।

গুডি টু শু'স সুপারম্যান (২০০৫-বর্তমান)[সম্পাদনা]

এই গিমিকটি হলো বেবিফেস ভিত্তিক। রক স্টোন কোল্ড স্টিভ অস্টিন রা রেসলিং করা ছেড়ে দিলে ডব্লিউডডব্লিউই বেবিফেস খুজতে থাকে। এ সময় অনেকে নজর কাড়লেও তারা দর্শকদের কাছে আকর্ষনীয় হতে পারে নি। তাই জন সিনাকে (সেসময় জন সিনা প্রচুর দর্শক প্রিয় ছিল) বেবিফেস গিমিক দেওয়া হয়। এ সময় সিনা জার্সি পড়া বাদ দিয়ে টি-শার্ট এবং মাথায় বেসবল ক্যাপ পড়ত। এসব টি-শার্টের গায়ে মাঝে মাঝে you can't see me, never give up, hustle loyalty respect সহ বিভিন্ন কথা লেখা থাকত। এই গিমিক ব্যবহার করার সময় সিনা ৫টি মুভ ব্যবহার করে ম্যাচ জিতত। ২০০৮ সালের মাঝামাঝি তার ফিনিশারের নাম F-U থেকে Attitude Adjustment দেওয়া হয়।

ডাব্লিউডাব্লিউই ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়ন (২০০৫-২০০৭)[সম্পাদনা]

জন সিনা তার প্রথম ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশীপ টাইটেল জিতে রেসেলম্যানিয়া ২১ এ। এই ম্যাচে তিনি ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়ন জেবিএল কে হারান। পরে জেবিএল তার এই বেল্ট টি চুরি করে এবং দাবি করে সে এখনো চ্যাম্পিয়ন। এ সময় সিনা নতুন একটি স্পিনার বেল্ট উম্মোচন করে। এবং তাদের টাইটেল ইউনিফাইটি ম্যাচ হয় জাজমেন্ট ডে তে। যেটি ছিল একটি আই কুইট ম্যাচ। এই ম্যাচে জন সিনা জয় লাভ করতে সক্ষম হয় এবং তার টাইটেল রিটেইন করেন। জুন ০৬ তারিখে সিনা তে ড্রাফট হয়। সিনা তখন এরিক বিশফ এর সাথে ফিউডে জড়ায়। সিনা আগষ্ট ২২ এর এপিসোডে "you are fired" ম্যাচ খেলে। যেটিতে সিনা জয়লাভ করে। জন সিনা ২০০৬ নিউ ইয়ার রেভ্যুলেশন পিপিভির মেইন ইভেন্ট এ এলিমিনেশন চেম্বার ম্যাচে কার্লিতো কে শেষ এলিমিনেট করে তার টাইটেল রিটেইন করে। কিন্তু এর কিছুক্ষণের মধ্যেই মি. মানি ইন দ্যা ব্যাংক এজ তার মানি ইন দ্যা ব্যাংক ব্রিফকেস ক্যাশ ইন করে। যেখানে এজ দুটি স্পেয়ার এর মাধ্যমে জয় লাভ করে। এর ৩ সপ্তাহ পরে রয়্যাল রাম্বালে সিনা তার টাইটেল আবার জিতে নেয়। রেসেলম্যানিয়া ২২ট্রিপল এইচ কে হারিয়ে তার টাইটেল রিটেইন করে। ইসিডব্লিউ ওয়ান নাইট স্ট্যান্ড পিপিভিতে সিনা রব ভ্যান ড্যাম এর কাছে হারে (এটি ছিল রব ভ্যান ড্যাম এর মানি ইন দ্যা ব্যাংক ক্যাশ ইন ম্যাচ)। এই ম্যাচে সিনা প্রচুর নেগেটিভ রিয়েকশন পায়। ইসিডব্লিউ ফ্যানরা সিনাকে you can't wrestle, same old shit সহ বিভিন্ন ভাবে বু দেয়। এরপর সিনা তখনকার আনডিফিটেড উমাগার সাথে ফিউডে জড়ায়। নিউ ইয়ার রেভ্যুলেশন এ সিনা তার এ স্ট্রিক ভাঙ্গে। এরপর রয়্যাল রাম্বাললাস্ট ম্যান স্ট্যান্ডিং ম্যাচে উমাগাকে হারায়। এরপরের রাতে সিনা এবং শন মাইকেলস রেটেড-আরকেও (এজ, রেন্ডি অরটন কে হারিয়ে ওয়ার্ল্ড ট্যাগ টিম চ্যাম্পিয়ন জিতে। কিন্তু একটি ট্যাগ টিম ব্যাটল রয়্যাল ম্যাচে শন সিনার উপর আক্রমন করে। এবং তারা রেসেলম্যানিয়া তে মুখোমুখি হয়।

রেসেলম্যানিয়া ২৩ এ মুখোমুখি শন মাইকেলস এবং জন সিনা

যেখানে সিনা সাবমিশন দ্বারা জয়ী হয়। এরপরের রাতে তে তারা আবার মুখোমুখি হয়। সে ম্যাচটি এক ঘন্টার মতো হয়। যেখানে শন মাইকেলস জয়ী হয়। এই ম্যাচটি ওই বছরের সেরা ম্যাচ হিসেবে বিবেচিত হয়। এরপর সিনা দি গ্রেট খালির সাথে ফিউডে জড়ায়। জাজমেন্ট ডে তে সিনা প্রথম ব্যক্তি হিসেবে সাবমিশন এর দ্বারা খালিকে পরাজিত করে। এবং পিনফলের মাধ্যমে ওয়ান নাইট স্ট্যান্ড পিপিভিতে পরাজিত করে। অক্টোবর এর ০১ তারিখে জন সিনা বড় ইঞ্জুরি তে পড়ে।

ওয়ার্ল্ড হেবিওয়েট চ্যাম্পিয়ন (২০০৮-২০১০)[সম্পাদনা]

রয়্যাল রাম্বাল ২০০৮ এ জন সিনা সারপ্রাইজিং এন্ট্রি নেয়। যেটি ছিল ৩০ নাম্বারে। এবং ট্রিপল এইচ কে সর্বশেষ এলিমিনেট করে প্রথমবারের মতো রয়্যাল রাম্বাল জিতে। এবং রেসলেম্যানিয়াতে টাইটেল ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়। রেসলেম্যানিয়াতে জন সিনা, ট্রিপল এইচ, এবং রেন্ডি অরটন এর একটি থ্রিপল থ্রেট ম্যাচ হয়। যেখানে রেন্ডি তার টাইটেল সফলভাবে রিটেইন করে। আগষ্ট ৪ এর একটি এপিসোডে সিনা বাতিস্তার সাথে টিম আপ করে ২য় বার ওয়ার্ল্ড ট্যাগ টিম চ্যাম্পিয়ন হয়। এই ম্যাচে তারা কোডি রোহডস এবং টেড ডিবিয়াস কে হারায়। এসময় সিনা ঘাড়ের ইঞ্জুরি তে পড়ে। নভেম্বরে সারভাইভার সিরিজে রিটার্ন করে এবং ক্রিস জেরিকোকে হারিয়ে সিনা প্রথমবারের মতো ডাব্লিউডাব্লিউই ওয়ার্ল্ড হেবিওয়েট চ্যাম্পিয়ন হয়। কিন্তু এজ এর কাছে হেরে যায়।

জন সিনা এবং এজ একটি হাউজ শো তে

রেসলেম্যানিয়া ২৫ এ সিনা বিগ শো এবং এজ কে হারিয়ে আবার চ্যাম্পিয়ন হয়। সিনা আবার এজ এর কাছে Last Man Standing ম্যাচে তার টাইটেলটি হারায় ব্যাকল্যাশ পিপিভিতে। ম্যাচটিতে বিগ শোর কারনে সে হেরে যায়। বিগ শো তাকে একটি বড় স্পটলাইটে চকস্ল্যাম দেয়।

নেক্সাসের সাথে স্টোরিলাইন (২০১০-২০১১)[সম্পাদনা]

জন সিনা নেক্সাসের অংশ হিসেবে

জুন ০৭ এর সিএম পাংক এর সাথে মেইন ইভেন্ট চলার সময় সাবেক এনএক্সটি মেম্বাররা ওয়েড ব্যারেট এর নেতৃত্বে জন সিনার উপর বাজেভাবে আক্রমন করে। পরে জন সিনাকে স্ট্রেচারে করে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ৮ দলের ওই স্টেবলটি তাদের নেক্সাস বলে বর্ননা করে। একটি ফেটাল-ফোর-ওয়ে ম্যাচে নেক্সাসের কারনে সিনা শেইমাস এর কাছে তার চ্যাম্পিয়নশীপ বেল্ট হারায়। ওই ম্যাচে আরো অন্তর্ভুক্ত ছিল এজ এবং রেন্ডি অরটন। এই চ্যাম্পিয়নশিপ রিম্যাচে মানি ইন দ্য ব্যাংক পিপিভিতে একটি স্টিল কেইজ ম্যাচে আবার শেইমাসের কাছে হেরে যায় নেক্সাসের কারনে। এরপর সিনা নেক্সাসের সাথে ফিউড শুরু করে। সিনা জেরিকো, জন মরিসন, আর ট্রুথ, খালি, ব্রেট হার্ট এর সাথে টিমআপ করে নেক্সাসকে হারায় সামারস্ল্যাম পিপিভিতে। যেখানে ড্যানিয়েল ব্রায়ান (সাবেক নেক্সাস এর সদস্য) খালির পরিবর্তে খেলে। যখন তাদের ফিউড শেষ হবার কথা তখন সিনা ওয়েড ব্যারেটকে চ্যালেঞ্জ করে হেল ইন এ সেল ম্যাচ খেলার জন্য। ওই ম্যাচের স্টিপুলেশন ছিল যদি সিনা হেরে যায় তাহলে তাকে ডাব্লিউডাব্লিউই ছাড়তে হবে। এবং ওই ম্যাচ হেরে যায় সিনা। এরপরের রতে সিনা তার বিদায়ী ভাষন দেয় (kayfabe)। এবং ডাব্লিউ ডাব্লিউ ই ছেড়ে চলে যায়। কিন্তু এরপরের সপ্তাহে সিনা আবার ফিরে আসে একজন দর্শক হয়ে। কিন্তু ওয়েড ব্যারেট এর ম্যাচ চলার সময় তাকে আক্রমন করে। ২০১১ রয়্যাল রাম্বাল পিপিভিতে সিনা নেক্সাসের বেশিরভাগ সদস্যকে এলিমিনেট করে তাদের ফিউড শেষ করে।

রক এর সাথে ফিউড (২০১১-২০১৩)[সম্পাদনা]

এলিমিনেশন চেম্বার ম্যাচ জিতে সিনা ডাব্লিউডাব্লিউই চ্যাম্পিয়নশিপ এর জন্য রেসেলম্যানিয়া ২৭ এ জায়গা করে নেয়। তখন চ্যাম্পিয়ন ছিল দ্য মিজরেসেলম্যানিয়া ২৭ এর গেস্ট হোস্ট হিসেবে দ্য রক এর নাম ঘোষণা করা হয়। পরবর্তী তে রক রিটার্ন করে (যা ছিল ২০০৪ সালের পর প্রথম)। এবং বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলে। একপর্যায়ে রক সিনাকে ব্যঙ্গ করে। সিনা তখন দ্য মিজ এর সাথে টিমআপ করে জাস্টিন গ্যাব্রিয়েল এবং হিথ স্লেটার কে হারায়। এবং হয়ে যায় ডাব্লিউডাব্লিউই ট্যাগ টিম চ্যাম্পিয়নশিপ। কিন্তু এর রিম্যাচে মিজ সিনার উপর অ্যাটাক করে এবং তারা ট্যাগ টিম চ্যাম্পিয়নশীপ হেরে যায়। সিনা রক এর করা মন্তব্যের জবাব দেয়।যখন রক আর সিনা মুখোমুখি হয় তখন অ্যালেক্স রিলেই এবং মিজ সিনা এবং রককে আক্রমন করে। কিন্তু রকের সাথে পারে না। এরপর সিনা রককে একটি Attitude Adjustment দেয়। রেসেলম্যানিয়া ২৭ এ সিনা আর মিজ এর ম্যাচ ডাবল কাউন্টআউটে শেষ হয়। কিন্তু রক এসে ম্যাচ আবার শুরু করতে বলে। তখন রক সিনাকে একটি Rock Bottom দেয় এবং মিজকে জিততে সাহায্য করে। ম্যাচ শেষে মিজকেও একটি Rock Bottom দেয় এবং শো শেষ করে। এরপরের রতে সিনা রক আবার মুখোমুখি হয়। এবং রেসলেম্যানিয়া ২৮ এ তাদের ম্যাচচ কনফার্ম করে। এটি ছিল ইতিহাসের প্রথম ম্যাচ যেটি এক বছর আগে থেকেই কনফার্ম করা হয়। এক্সট্রিম রুলস পিপিভিতে সিনা দ্য মিজ এবং জন মরিসন কে হারিয়ে ডাব্লিউ ডাব্লিউ ই চ্যাম্পিয়ন হয়। এরপর সিনা সিএম পাংক এর সাথে ফিউড শুরু করে। মানি ইন দ্য ব্যাংক এ সিনা সিএম পাংক এর কাছে তার চ্যাম্পিয়নশীপ বেল্ট হারায়।

২০১১ সালের মানি ইন দ্যা ব্যাংক পিপিভিতে জন সিনা এবং সিএম পাংক

সার্ভাইভার সিরিজে আর ট্রুথ আর মিজের সাথে ম্যাচ খেলার জন্য সিনা তার পার্টনার হিসেবে রক কে বেছে নেয়। এবং এর মেইন ইভেন্টে তাদেরকে হারায়। রক সিনাকে একটি Rock Bottom দিয়ে শো শেষ করে।

রেসেলম্যানিয়া ২৮ এ প্রথমবারের মতো মুখোমুখি জন সিনা এবং রক

রেসেলম্যানিয়া ২৮ ওয়ান্স ইন অ্য লাইফ টাইম ম্যাচে রক সিনাকে হারায়। এরপরের তে সিনা রক কে শুভেচ্ছা জানানোর জন্য ডাকে। কিন্তু তখন আসে ব্রক লেসনার (এটি ছিল ০৬ বছর পর ব্রকের প্রথম আগমন)। এবং ব্রক সিনাকে একটি F-5 দেয়। এরপর তারা যতবার মুখোমুখি হতো মারাত্মক ব্রলে জড়িয়ে পড়ত। এরপর এক্সট্রিম রুলস পিপিভিতে একটি এক্সট্রিম রুলস ম্যাচে সিনা ব্রককে হারায়। রয়্যাল রাম্বাল (২০১৩) জন সিনা ২য় বারের মতো রয়্যাল রাম্বাল জিতে। তখন চ্যাম্পিয়ন ছিল রক। এবং সিনা রককে চ্যালেঞ্জ করে ডাব্লিউডাব্লিউই চ্যাম্পিয়নশিপ এর জন্য। রেসেলম্যানিয়া ২৯ এ সিনা রককে হারিয়ে ১১ বারের মতো ডাব্লিউডাব্লিউই চ্যাম্পিয়নশিপ জিতে। এবং ম্যাচ শেষে তারা একে অপরের প্রতি সম্মান দেখায়।

ফ্রি এজেন্ট (২০১৭-বর্তমান)[সম্পাদনা]

জুলাই ২০১৭ তে সুপারস্টার শেক আপ এ সিনাকে ফ্রি এজেন্ট হিসেবে ঘোষিত করা হয়। তখন থেকে সিনা এবং স্ম্যাকডাউন উভয় ব্র্যান্ডেই উপস্থিত থাকে। সামারস্লাম এর পরে সিনা রোমান রেইন্স এর সাথে ফিউডে জড়ায়। নো মার্সি পিপিভিতে রোমান সিনাকে হারিয়ে দেয়। এই ম্যাচে রোমান সিনার দুইটি Attitude Adjustment এবং একটি Supet Attitude Adjustment এ কিকআউট করে। কিন্তু একটি সিঙ্গেল spear এর মাধ্যমে ম্যাচ জিতে যায়। এই ম্যাচের পর সিনা তার আর্মব্যান্ড খুলে ফেলে এবং সবাইকে বিদায় জানিয়ে চলে যায়। ২০১৮ সালের দিকে সিনা অন্য একটি স্টোরিলাইনে ঢুকে পড়ে। স্টোরিলাইনটা এরকম ছিল সিনা রেসলেম্যানিয়া ৩৪ এ ম্যাচ পাওয়ার জন্য বিভিন্ন ম্যাচ খেলে। এলিমিনেশন চেম্বারে সিনা একটি সিক্স প্যাক চ্যালেঞ্জ ম্যাচে হেরে যায়। এরপর সিনা রেসেলম্যানিয়া ৩৪ এ যাওয়ার জন্য পথ খুজতে থাকে। তখন তিনি ম্যাচ খেলার জন্য দ্য আন্ডারটেকার কে চ্যালেঞ্জ করে। কিন্তু আন্ডারটেকার গত বছরে অবসর নেয়। তাই তার কথার জবাব দেয় না। রেসেলম্যানিয়া ৩৪ এ জন সিনা দর্শক হিসেবে উপস্থিত থাকে। এবং আন্ডারটেকারকে আসতে বলে। তখন লাইট অফ হয়ে যায় এবং এলায়াস আসে এবং তার সাথে গান গাইতে বলে। সিনা তখন তাকে মেরে তাড়িয়ে দেয়। এরপর আবার লাইট বন্ধ হয়ে যায় এবং রিংয়ে আন্ডারটেকার এর কোর্ট এবং টুপি দেখা যায়। পরে সেটি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। এবং দ্য আন্ডারটেকার তার সাথে ম্যাচ খেলে এবং জন সিনাকে একটি থুম্বস্টোন এর সাহায্যে মাত্র এক মিনিটে হারিয়ে দেয়। গ্রেটেস্ট রয়্যাল রাম্বালে ট্রিপল এইচ কে জন সিনা হারান। আগষ্ট এর ১০ তারিখ জন সিনা এবং কেভিন ওয়েন্স এর মধ্যে সুপার শো-ডাউন একটি ম্যাচ সেট করা হয়। আগষ্ট এর ২০ তারিখ তাদের ম্যাচটি একটি ট্যাগ টিম ম্যাচে রূপান্তর করা হয়। সেপ্টেম্বর ০১ তারিখে সিনা চীন এর সাংহাই এর একটি লাইভ ইভেন্টে ফিন ব্যালর এবং ববি ল্যাশলির সাথে টিমআপ করে জিন্দার মহল এলায়াস এবং কেভিন ওয়েন্স এর বিপক্ষে ম্যাচের মাধ্যমে রিটার্ন করে। যেখানে সিনা তার নতুন ফিনিশার এর অভিষেক ঘটায়। পরে ডাব্লিউডাব্লিউই টুইট এর মাধ্যমে এই মুভ এর নাম বলে Lightning Fist. সুপার শো-ডাউনে জন সিনা এবং ববি ল্যাশলি এলায়াস এবং কেভিন ওয়েন্সকে হারায়। এই ম্যাচে জন সিনা তার নতুন ফিনিশার Lightning Fist ব্যবহার করে জয়লাভ করে। অক্টোবর ৮ এ এর এপিসোডে সিনাকে ক্রাউন জুয়েল এ হওয়া আট জনের ওয়ার্ল্ড কাপ এর একজন হিসেবে ঘোষণা করা হয়। স্ম্যাকডাউন ১০০০ এর এপিসোডে সিনা তার দর্শকদের জন্য একটি ভিডিও বার্তা পাঠায়। অক্টোবর ৩০ এ এর এপিসোডে সিনাকে সরিয়ে তার জায়গায় ববি ল্যাশলি কে দেওয়া হয়। মূলত ক্রাউন জুয়েল সৌদি আরব এ অনুষ্ঠিত হবে যেখানে জামাল খাসৌগি নামক এক ব্যক্তি কে হত্যা নিয়ে দেশজুড়ে অশান্তির সৃষ্টি হয়। ফলে সিনা সেখানে খেলতে অস্বীকৃতি জানায়।

ডিসেম্বর ৩ তারিখে "র" তে ঘোষণা করা হয় জন সিনা স্পোর্টস ইলুসটুরেড এর পক্ষ থেকে মুহাম্মদ আলী লিগেসি অ্যাওয়ার্ড পাবে। ডিসেম্বর ২৫ এর এপিসোডে ভিন্স ম্যাকমোহান সান্তা ক্লোজ এর পোষাক পড়ে জানায় জন সিনা ফিরে আসবে এবং জানুয়ারি ৭ তারিখের "র" এবং জানুয়ারির ২ তারিখের স্ম্যাকডাউনে ফিরে আসবে। ডিসেম্বর ২৬ এ ম্যাডিসন স্কয়ার গার্ডেনের একটি লাইভ ইভেন্টে সিনা ব্যারন করবিনকে হারায়।[১২]

জানুয়ারি ২, ২০১৯ সালের স্ম্যাকডাউন লাইভের এপিসোডে জন সিনা ফিরে আসে, এবং প্রোমো কাটে। তখন তাকে বেকি লিঞ্চ বাধা দেয়। এরপর জেলিনা ভেগাআন্দ্রাদে সিয়েন আলমাস আসে। তাদের মধ্যে একটি মিক্সড ট্যাগ ম্যাচ হয়। যেখানে জন সিনা এবং বেকি লিঞ্চ জেলিনা ভেগা ও আলমাস কে হারায়। জানুয়ারি ৮, ২০১৯ সালের এর এপিসোডে জন সিনা ফিরে আসে এবং রয়্যাল রাম্বলে তার প্রবেশ ঘোষণা করে। তখন ববি ল্যাশলি, ড্রিউ ম্যাকেন্টায়ার এবং ডীন অ্যামব্রোস এর সাথে তার একটি ট্যাগ টিম ম্যাচ হয়। যেখানে তার সঙ্গী থাকে ফিন ব্যালর এবং সেথ রলিন্স। ম্যাচটিতে তারা জয়লাভ করে। জানুয়ারি ১৫, ২০১৯ "র" এর এপিসোডে সিনা মি. ম্যাকমোহানের প্রোমোতে ব্যাঘাত ঘটায় এবং তাকে ইউনিভার্সাল চ্যাম্পিয়নশীপ ম্যাচ খেলতে দেয়ার জন্য অনুরোধ জানায়। তখন একে একে ড্রিউ ম্যাকেন্টায়ার, ব্যারন করবিন, ফিন ব্যালর তাদের প্রোমোতে ব্যাঘাত ঘটায় এবং সবাই চ্যাম্পিয়নশীপ ম্যাচের সুযোগ চায়। তখন ম্যাকমোহান সেই রাতের মেইন ইভেন্টে একটি ফেটাল-৪-ওয়ে ম্যাচ ঘোষণা করে যেটিতে ফিন ব্যালর জয় পেয়ে রয়্যাল রাম্বলে চ্যাম্পিয়নশীপ ম্যাচের সুযোগ পায়।[১৩]

রেসেলম্যানিয়া ৩৫এলায়াসের কনসার্টে হস্তক্ষেপের মাধ্যমে জন সিনা ফিরে আসে তার পুরনো গিমিক "ডক্টর অফ থাগানোমিকস" হিসেবে।

অভিনয় জীবন[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

জন সিনার সর্বপ্রথম সিনেমা মুক্তি পায় WWE Studio এর ব্যানারে। তার প্রথম সিনেমার নাম The Marine যেটি মুক্তি পায় অক্টোবর ১৩ ২০০৬ সালে।এই সিনেমাটি প্রথম সপ্তাহে US$07 Million আয় করে। এই ছবির ডিভিডি মুক্তি পেলে এটি আরো জনপ্রিয় হয়ে উঠে। এবং ১২ তম সপ্তাহে এসে US$30 million আয় করে। তার ২য় সিনেমা 12 Rounds মুক্তি পায় ২৭ মার্চ ২০০৯ সালে। তার ৩য় ছবি Legendary সেপ্টেম্বর ২৮ ২০১০ সালে মুক্তি পায়।

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

সাল শিরোনাম চরিত্র নোট
২০০০ রেডি টু রাম্বাল জিম প্যাট্রন অস্বীকৃত
২০০৬ দ্য মেরিন জন ট্রিটন
২০০৯ ১২ রাউন্ডস ড্যানি ফিশার
২০১০ লিজেন্ডারি মাইক চেটলে ডাইরেক্ট টু ভিডিও
২০১১ দ্য রিইউনিয়ন স্যাম ক্লিয়েরি ডাইরেক্ট টু ভিডিও
২০১৪ স্কুবি-ডু! রেসেলম্যানিয়া মিস্ট্রি জন সিনা (নিজ) ডাইরেক্ট টু ভিডিও
২০১৫ দ্য ফাইন্সটোন্স এন্ড ডাব্লিউডাব্লিউই: স্টোন এজ স্ম্যাকডাউন জন সিনাস্টন (আওয়াজ) ডাইরেক্ট টু ভিডিও
২০১৫ ট্রেনরেক স্টিভেন
২০১৫ সিস্টারস পেজুজু
২০১৫ ড্যাডি'স হোম রজার অতিথি
২০১৬ স্টাফ'স আপ ২: ওয়েভম্যানিয়া জে.সি (আওয়াজ) ডাইরেক্ট টু ভিডিও
২০১৭ দ্য ওয়াল স্টাফ সার্জেন্ট শেন ম্যাথিউস
২০১৭ ড্যাডি'স হোম ২ রজার
২০১৭ ফার্দিনান্দ ফার্দিনান্দ দ্য বুল (আওয়াজ)
২০১৮ ব্লকার্স মিশেল
২০১৮ বাম্বলবি বার্নস
২০২০ দ্য ভোয়াগে অফ ডক্টর ডলিটল ইয়োশি (আওয়াজ) পোস্ট প্রোডাকশন
২০২০ প্রোজেক্ট এক্স ক্রিস ভ্যান হর্ন ফিল্মিং

টেলিভিশনে[সম্পাদনা]

জন সিনা টোটাল ডিভাস এবং টোটাল বেলাস-এর কয়েকটি এপিসোডে উপস্থিত ছিলেন।

গায়ক হিসেবে[সম্পাদনা]

The Time Is Now গানের কভার

জন সিনা একজন র‍্যাপার হিসেবেও পরিচিত। তার বর্তমান থিম সং দ্য টাইম ইজ নাউ তার নিজের গাওয়া। এর আগে তার থিম সং (যখন ডক্টর অব থাগানোমিক গিমিকে ছিলেন) বেসিক থাগানোমিকসও তিনি গেয়েছিলেন। তিনি ২০০৫ সালে ইউ কান্ট সি মি নামের একটি অ্যালবাম বের করেন। ওই অ্যালবামটি সে বছর বিলবোর্ড টপ ২০০ চার্টে ১২ নাম্বারে ছিল। ওই অ্যালবামটির ১ সপ্তাহে ১ মিলিয়ন কপি বিক্রি হয়।

সামাজিক কর্ম[সম্পাদনা]

জন সিনা মেইক-এ-উইশ ফাউন্ডেশন এর সাহায্যে ৫০০ এর উপর বাচ্চাদের ইচ্ছা পূরন করেছেন। জন সিনার নেভার গিভ আপ গিমিকের দ্বারা ৩৮ জন ক্যান্সারজনিত রোগ থেকে বেঁচে ফিরেছেন। তিনি পুরো পৃথিবীতে উন্নয়নমূলক জাইগায় সবথেকে বেশি অর্থদানের মধ্যে ক্রীড়াবিদদের মধ্যে ২য় এবং রেসলারদের মধ্যে প্রথম।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Keck, William (অক্টোবর ৮, ২০০৬)। "A new action star/femme fatale pairing?"USA Today। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ২৭, ২০০৭ 
  2. "John Cena net worth"। Mirror UK। সংগ্রহের তারিখ ২২ অক্টোবর ২০১৮ 
  3. John Cena: My Life (DVD)। World Wrestling Entertainment। ২০০৭। 
  4. "John Cena's WWE History"। UPW। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০০৭ 
  5. "John Cena"। WWE। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৪, ২০১০ 
  6. "UPW: John "Prototype" Cena"। UPW। ১৭ এপ্রিল ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৩, ২০০৮ 
  7. "Details On John Cena's New Character; Juan Cena"। PWMania। সংগ্রহের তারিখ ২১ নভেম্বর ২০১৩ 
  8. "John Cena profile"। Online World of Wrestling। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৩, ২০০৭ 
  9. "10 moves from John Cena's underrated arsenal: WWE.com Exclusive, Nov. 10, 2013"WWE। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৮-০৩ 
  10. "John Cena « Wrestlers Database « CAGEMATCH - The Internet Wrestling Database"। Cagematch.net। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৮-০৩ 
  11. "John Cena's matches"। Cagematch.net। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ৩, ২০১৪ 
  12. "John Cena def. Baron Corbin at Madison Square Garden"। সংগ্রহের তারিখ January 14, 2019  line feed character in |সংগ্রহের-তারিখ= at position 12 (সাহায্য); এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  13. "Finn Balor get opportunity to face Brock Lesnar for WWE Universal Championship"। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৫, ২০১৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]