পেশাদারি কুস্তি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(পেশাদার কুস্তি থেকে পুনর্নির্দেশিত)
Jump to navigation Jump to search
পেশাদারী কুস্তি/Professional Wrestling
Christopher Daniels 1.jpg
পেশাদারি কুস্তির একটি চিত্র
পূর্বসূরী আর্টস কার্নিভাল, ক্যাচ কুস্তি
উদ্ভূত সংস্কৃতি  যুক্তরাজ্য /  আয়ারল্যান্ড /  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র /  কানাডা /  মেক্সিকো /  জাপান /  ব্রাজিল /  জার্মানি
উদ্ভূত যুগ ১৯ শতক


পেশাদারি কুস্তি (ইংরেজি: Professional wrestling) এক প্রকারের ক্রীড়া পালা যেখানে পরিকল্পিত লড়াই অভিনীত হয়। বেশিরভাগ খেলাই ব্যবস্থাপক দ্বারা পূর্বপরিচালিত এবং প্রতিটি দৃশ্য ও ফলাফল পূর্ব নির্ধারিত থাকে।[১] উনিশ শতাব্দীর উত্সব সমারহে পার্শ্ব প্রদর্শনী হিসেবে এর উত্পত্তি হয়।বর্তমানে বিশ্বব্যাপী কিছু বিখ্যাত প্রফেশনাল রেসলিং কোম্পানি হল- ওয়ার্ল্ড রেসলিং এন্টারটেইনমেন্ট(WWE), নিউ জাপান প্রো-রেসলিং(NJPW), ইম্প্যাক্ট রেসলিং(Impact Wrestling), এসিস্টেনশিয়া এসেসরিয়া ওয়াই এডমিনিস্ট্রাশিয়ান(AAA)। প্রো-রেসলিংয়ে প্রধানতঃ শক্তিমত্তা ও শরীরী দক্ষতা প্রদর্শিত হয়।লড়াইয়ে(fight) অনেক মুভ যেভাবে শক্তিশালী রূপে দেখানো হয় বাস্তবে সেরকম হয় না এবং কুস্তিগীর তথা রেসলাররা ব্যাথা কম পাওয়ার জন্য কিছু কৌশল ও ব্যবহার করে। উদাহরণ-কোনো মুভ(move) প্রয়োগ করার আগে প্রতিপক্ষকে ইশারা করে ইঙ্গিত করা যে,এখন সে কোন মুভ ব্যবহার করবে বা আস্তে করে ঐ মুভের জন্য প্রস্তুত হতে বলা।সমগ্র ম্যাচে ই কুস্তিগীররা নিজেদের মধ্যে ইশারা-ইঙ্গিতে এরকম কথোপকথন চালিয়ে যায়।অর্থাৎ নিজেদের মধ্যে সলাপরামর্শ করে প্রতিটি মুভ প্রয়োগ,গতির(momentum) সৃষ্টি করে।তবুও অনেক সময় বচ (Botch) হয়ার কারণে বা মুভের গতি সঠিক না হয়ায় রেসলাররা গুরুতর আঘাত, ব্যাথা পেয়ে থাকে এবং অনেকক্ষেত্রে আহত ও হয়।


নিয়ম[সম্পাদনা]

ঐতিহ্যগত কুস্তি আর পেশাদারি কুস্তির নিয়মে অনেক পার্থক্য রয়েছে। প্রথমতঃ পেশাদারি কুস্তির কোনো প্রধান পরিচালক কর্তৃপক্ষ নেই। যদিও প্রত্যেক সংগঠনকারী সংস্থারই নিজস্ব কিছু ব্যতিক্রম রয়েছে তারপরও কিছু সাধারণ নিয়ম সকলেই মেনে থাকে।


সাধারণ কাঠামো[সম্পাদনা]

দুই পক্ষের মধ্যে খেলা অনুষ্ঠিত হয়। একজন কুস্তিগীর, একটি দল অথবা কয়েকজন কুস্তিগীর মিলে একটি পক্ষ তৈরি হয়। আবার আরেক প্রকারের কিছু খেলা হয় যেগুলো সবার জন্য উন্মুক্ত। সেখানে সকলেই অংশগ্রহণ করতে পারে কিন্তু কেউ কোন দলের অন্তর্গত থাকে না। সকল প্রকারের খেলাতেই শুধুমাত্র একজন অথবা এক পক্ষ বিজয়ী হয়।খেলায় একজন রেফারী থাকে যে খেলা পরিচালনা করে।

জয়ের জন্য প্রতিপক্ষের পতন ঘটাতে হয়। সাধারণত যেসব অবস্থায় পতন হয় সেগুলো হল:

  • প্রতিপক্ষের কাঁধ তিন সেকেন্ড অবধি মেঝেতে ছুয়ে থাকলে
  • প্রতিপক্ষ পরাস্ত হলে
  • প্রতিপক্ষ পরাজয় স্বীকার করে নিলে
  • কোন কারণে প্রতিপক্ষ খেলা থেকে বহিস্কৃত হলে
  • অথবা প্রতিপক্ষ কুস্তি-মঞ্চের বাইরে বেশিক্ষণ থাকলে (কাউন্টআউট)


স্টোরিলাইন[সম্পাদনা]

স্টোরিলাইন (ইংরেজি: Storyline) হল একজন রেসলারের সাথে আরেকজন রেসলার কি ধরণের ফিউড করে তার বৃত্তান্ত। এক্ষেত্রে স্টোরিলাইন আগে থেকেই সাজানো থাকে,অনেকটা নাটক-সিনেমার মতো।


ফিউড[সম্পাদনা]

নির্দিষ্ট দুই বা ততোধিক রেসলারের মধ্যে শত্রুতা,স্টোরিলাইন গড়ে ওঠাকে ফিউড (ইংরেজি: Feud) বলে। রেসলিংয়ে স্টোরিলাইনের মূল পরিচালক এই ফিউড বিশেষণ।


গিমিক[সম্পাদনা]

গিমিক(ইংরেজি: Gimmick) একজন প্রফেশনাল রেসলার তথা কুস্তিগীরের কোনো বিশেষ চরিত্র যেই চরিত্রে ঐ কুস্তিগীরকে কুস্তি তথা রেসলিং করতে হয়।এক্ষেত্রে তার এ চরিত্রের সাথে সম্পর্কিত আলাদা সাজ-সজ্জ্বা, অঙ্গভঙ্গি এবং মাঝে মাঝে ভিন্ন আচরণ ও যুক্ত করা হয়।


প্রমো কাটিং[সম্পাদনা]

রেসলিংয়ে (ইংরেজি: Promo) হচ্ছে “Promotional Interview" বা "প্রচারমূলক সাক্ষাতকার" এর সংক্ষিপ্ত রূপ।এ প্রমো হতে পারে বিভিন্ন কথোপকথন বা নাটকাদি(অভিনয়ে ব্যবহৃত বাক্যাবলি)র সমষ্টি।এধরণের প্রমো ব্যবহার করা হয় স্টোরিলাইনকে সুন্দর এবং আকর্ষণীয়ভাবে চালিয়ে নেয়ার সুবিধার্থে। আর "প্রমো কাটিং" বলতে বুঝায় কোনো রেসলার কর্তৃক অন্য রেসলারকে বা রেসলিং সম্পর্কিত কোনো বিষয়াবলি নিয়ে স্টোরিলাইনের সুবিধার্থে বলা বিশেষ বাক্যবলিকে,অনেকটা অভিনয়ে ব্যবহৃত ডায়ালগের মতো।

তাছাড়া রেসলিংয়ে এই প্রমো কাটিংয়ের গুরুত্ব ও অপরিসীম। একজন রেসলারের রেসলিং সংক্রান্ত গুণাবলীর মধ্যে এটাকে ও একটা গুরুত্বপূর্ণ গুণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ইন-রিং(In-Ring) স্কিলে ঘাটতি থাকা সত্ত্বে ও প্রমো-কাটিং বা মাইক স্কিলে(Mic Skill)পারদর্শীতার কারণে অনেক রেসলার রেসলিং ভুবনে নিজেদের অবস্থান করে নিতে পেরেছেন।উপরন্তু কোনো রেসলার যদি 'বেবি-ফেইস'(Baby-Face) হিসেবে তার রেসলিং ক্যারিয়ারে উন্নতি করতে চায় তাহলে তাকে অবশ্যই প্রমো-কাটিং বা মাইক স্কিলে পারদর্শী হতে হবে।দর্শকদের আকর্ষণ করা,তাদের মাঝে উন্মাদনা সৃষ্টি করা একজন 'বেবি-ফেইস' রেসলারের জন্য অবশ্য কর্তব্য বিষয়। যদি ও অনেক হিল(Heel) এবং এন্টি-হিরো(Anti-Hero) রেসলারকে ও প্রমো কাটিংয়ে তাদের পারদর্শীতা দেখাতে দেখা যায়,এটা তাদের জন্য বাড়তি সুবিধা যা তাদেরকে তাদের নিজেদের খলচরিত্র এবং প্রতিভা বহিঃপ্রকাশের সীমাবদ্ধতাকে ও পিছনে ফেলে রেসলিং অঙ্গনের দর্শকদের হৃদয়ে অমর করে রেখেছে। ইতিহাসের কিছু সফল প্রমো-কাটার বা মাইক স্কিলে পারদর্শী রেসলার হলেন-হাল্ক হোগ্যান , কেভিন ন্যাশ,জিম কর্নেট,শন মাইকেলস,মিক ফলে,স্টিভ অস্টিন,রডি পাইপার প্রমুখ।


স্ক্রিপট রাইটার[সম্পাদনা]

রেসলিংয়ের জন্য যারা ক্রিপট লিখেন তাদেরকে স্ক্রিপট রাইটার(ইংরেজি: Script-Writer) বলে। রেসলিংয়ে তাদের গুরুত্ববহ ভূমিকা রয়েছে। তাদের লিখিত স্ক্রিপট দ্বারা ই একটি রেসলিং অনুষ্ঠানের স্টোরিলাইন,ম্যাচ, প্রমো সহ যাবতীয় প্রায় সব কিছু সাজানো হয়। তাই এক্ষেত্রে তাদের ভূল বা খাম-খেয়ালীপনার জন্য একজন রেসলারের ক্যারিয়ার (career) ধবংস হয়া থেকে, একটি রেসলিং কোম্পানী পর্যন্ত দেউলিয়া হতে পারে।


ফেস/বেবিফেস রেসলার[সম্পাদনা]

যারা রেসলিংয়ে ভালো চরিত্রে অভিনয় করে তাদেরকে ফেস/বেবিফেস((ইংরেজি: Face/Babyface))বলা হয়।তারা সাধারণত ধোঁকা দিয়ে, অসদুপায় অবলম্বন করে ম্যাচ জিতবেনা, অন্যায়ভাবে কাউকে মারবে না। সততার সাথে প্রত্যেক ম্যাচ খেলবে। দর্শকদের তোষামদ করবে।লেজেন্ড(Legend)রেসলারদের শ্রদ্ধা করবে। নিজে ম্যাচ হারার পরও প্রতিপক্ষকে অভিনন্দন জানাবে এবং অন্য রেসলারদের বিপদে সাহায্য করতে এগিয়ে আসবে । অর্থাৎ অনেকটা সিনেমা,নাটকের হিরোর মত। আর তাদের এ ধরণের বৈশিষ্ট্য স্টোরিলাইন,গিমিকের কারণে হয়,বাস্তবে তারা এরকম নাও হতে পারে।


হিল রেসলার[সম্পাদনা]

রেসলিংয়ে যেসব রেসলাররা খারাপ স্বভাবের চরিত্রে অভিনয় করে তাদেরকে হিল((ইংরেজি: Heel)) রেসলার বলা হয়। এক্ষেত্রে অনেক হিল রেসলার হয় ভয়ানক মারকুটে,কাউকে দয়া দেখায় না,সামঞ্জস্যপূর্ণ (fair) খেলে না। আবার অনেক হিল রেসলার হয় ধোঁকাবাজ,চুর চরিত্রের। কিন্তু এসব ই স্টোরিলাইন,গিমিকের কারণে হয়,এতে তাদেরকে যেরূপ খারাপ আচরণ,বিদ্রুপাত্মক কথাবার্তা বলতে বলা হয় তারা ঠিক সেরূপ ই বলে,করে। অর্থাৎ আচরণের ক্ষেত্রে অনেকটা নাটক, সিনেমার ভিলেনের মত অভিনয়।যদিও বাস্তব জীবনে তারা স্বভাবগত ও আচরণগত দিক দিয়ে এরকম নাও হতে পারে।


এন্টি-হিরো রেসলার[সম্পাদনা]

এধরণের রেসলাররা ফেস [Face] এবং হিল [Heel] এই দু'টো বৈশিষ্ট্যের রেসলারদের সংমিশ্রণ।রেসলিং জগতে এই চরিত্রের রেসলারদের সংখ্যা কম। দর্শকদের চাহিদার কথা মাথায় রেখেই স্ক্রিপ্ট রাইটাররা এধরণের চরিত্রের আর্বিভাব ঘটিয়েছে।অনেক রেসলিংভক্ত আছে যারা চায় না তাদের প্রিয় ও পছন্দের রেসলার অহেতুক মার খাক,অপমানিত হয়ও 'Face' দের মতো ভালো আচরণ করুক বা চুপ থাকুক। তারা চায় তাদের প্রিয় রেসলার ও যেনো প্রতিপক্ষকে "ইট মারলে পাটকেলটি খেতে হয়" এই প্রবাদ বাক্য হাড়ে হাড়ে টের পাইয়ে দেয়। অর্থাৎ যেসব রেসলাররা এরকম বৈশিষ্ট্যের, তারা ই হল এন্টি-হিরো। তারা স্বাভাবিক অবস্থায় ফেস রেসলার হিসেবেই থাকে তবে হিল রেসলারের মতো মুভ ব্যবহার করে,তেমন মহানুভবতা দেখায় না। অপ্রত্যাশিত পরাজয় হলে বা রাগ উঠলে প্রতিপক্ষকে মারে।


রেসলিং রিং((ইংরেজি: Wrestling Ring))[সম্পাদনা]

রেসলিং-রিং গুলো কাঠের তৈরী হয়,যার উপরে থাকে কয়েক স্তরের প্রসারণ-সংকোচণ ক্ষমতাসম্পন্ন(Flexible),হালকা, শক্ত ফোম।রিংয়ের নিচে অনেকগুলো স্প্রিং বসানো থাকে,যা রেসলারদের কিছুটা 'Bounce' ক্ষমতা দান করে। রিং গুলো চারকোণা হয়ে থাকে বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে। অনেক রেসলিং প্রমোশন তথা কোম্পানী আবার মাঝে মাঝে ছয়-কোণা বিশিষ্ট রেসলিং রিং ও ব্যবহার করে। যেমনঃ TNA,AAA।রশ্মিগুলো মূলত ভিতরের দিকে রাবার কিংবা প্লাস্টিকের তার দিয়ে তৈরী আর বাইরের দিকে কয়েক স্তরের ফোম দিয়ে আবৃত।বিম গুলো স্টিলের,তবে পাতলা। Turnbuckle ও হালকা বাকানো পিতল কিংবা লোহার তৈরী। রেসলাররা যাতে আঘাত না পায় সে জন্য টার্নবাকলে ফোম লাগানো থাকে। রেসলিং রিং এর পাশের খালি জায়গা শক্ত পুরু ফোমের ম্যাট দিয়ে তৈরী।ম্যাটগুলা ৩-৪ ইঞ্চি পুরু হয় যা ইটের মেঝে থেকে রেসলারদের নিরাপদ রাখে।ব্যারিকেডেও একই ম্যাট ব্যবহার করা হয়। রিংয়ের নিচে গোপনীয়ভাবে স্পিকার লাগানো থাকে,যা সামান্য শব্দকে ও বর্ধিত করে উচ্চ আওয়াজ দান করে।

রেসলিং অস্ত্রপাতি বেশীরভাগ ই আসল। Steps গুলো স্টীলের,তবে হালকাভাবে তৈরী।চেয়ারগুলো ও হালকা ধাতুর এবং অল্প আঘাতে শব্দ বেশী হবে এমনভাবে তৈরী,এরজন্য মাঝে মাঝে আবার চেয়ারে গোপন ছোট্ট মাইকও লাগানো থাকে।কিন্তু তবুও চেয়ারের আঘাতে মারাত্মক ব্যথা অনুভূত হয়। এক্ষেত্রে রেসলাররা বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে ব্যথা কম পাওয়ার জন্য। যথাঃশট নেয়ার আগে পিঠ টান করে থাকা,প্রচুর কায়িক ব্যায়াম করা,মাথায় চেয়ারের আঘাতের আগে হাত দিয়ে ঢাকা। তবে অনেক রেসলার সরাসরি মাথায় চেয়ার শটের আঘাত ও নেয়।যেমনঃক্রিস বেনোয়া। এজন্য তাদেরকে মাত্রাতিরিক্ত ক্ষতিকারক ড্রাগ ব্যবহা্র করতে করতে হত।কিন্তু প্রফেশনাল রেসলিংয়ের বিশ্বব্যাপী অন্যতম জনপ্রিয় কোম্পানী WWE তে এখন মাথায় চেয়ার শট Banned এবং জরিমানা যোগ্য অপরাধ।

রেসলিংয়ে ব্যবহৃত মইগুলো স্টিলের তৈরী তবে হালকা,ভিতরের দিকে কিছুটা ফাঁপা থাকে।টেবিলগুলোও অল্প শক্তি প্রয়োগে মাঝখানে আঘাত করলে ভেঙ্গে যাবে এমন নরম কাঠ দিয়ে তৈরী। Cando Stick(একধরণের বাঁশের লাঠি) গুলো ও ফাঁপা কাঠ দিয়ে তৈরী। তবে এতে মারাত্মক ব্যথা অনুভূত হয়।


রেসলিং অনুযায়ী প্রফেশনাল রেসলারদের শ্রেণীবিভাগ[সম্পাদনা]

  • Technical: এ শ্রেণীর রেসলার হল তারা যারা রেসলিংয়ে শক্তি প্রদর্শনের পরিবর্তে বিভিন্ন ধরণের কৌশলের আশ্রয় নেয়,অন্য প্লেয়ারের দুর্বল জায়গায় আঘাত করে এবং ক্রমাগত করতেই থাকে যতক্ষণ না প্রতিপক্ষ তার আয়ত্ত্বে চলে আসে। এক্ষেত্রে তারা 'Reverse-grapple Moves' গুলোতে বেশী পারদর্শী হয়।শক্তি কম ব্যয় করে প্রতিপক্ষের শক্তি দিয়ে উল্টো প্রতিপক্ষকে ই ঘায়েল করা তাদের অন্যতম বৈশিষ্ট্য।তাদের শক্তিশালী এমেচার ব্যাকগ্রাউন্ড(Amateur Background) আছে। বিশেষ করে তারা সাবমিশন কৌশল্গুলোতে(Submission Maneuver)বেশী দক্ষ হয়ে থাকে।
*Brawler: এ শ্রেণীর রেসলার হলো তারা যারা সোজা-সুজি স্ট্রাইকিং,পাঞ্চিং,এটাকিংয়ে চলে যায়। অনেকটা স্ট্রিট ফাইটের মতো। এবং মুভ ব্যবহার করে যতক্ষণ না প্রতিপক্ষ পুরোপরিভাবে ঘায়েল হয়ে যায়।

*Powerhouse: এরা মূলত  ফিজিক্যাল রেসলার।কার্যকরী তথা স্লাম,পাওয়াবোম্ব জাতীয় মুভস বেশী  ব্যবহার করে। দৌড়ক্ষমতা(agility) এবং স্কিল কম থাকলেও শারীরিক দিক দিয়ে শক্তিশালী হয়ায়  তারা শক্ত প্রতিপক্ষ অন্য যেকোনো শ্রেণীর রেসলারদের জন্য।

*Hardcore: এ শ্রেণীর  রেসলার বলা হয় তাদের যারা রেসলিংয়ে অহরহ অস্ত্রশস্ত্র ব্যবহার করে, এদের সহ্য  শক্তি প্রবল। মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর জায়গায় মারাত্মক  অস্ত্রসমূহের বারি খেয়ে,জোরে আঘাত পেয়ে ও সহ্য করতে পারে।

 *High-Flyer: এ শ্রেণীর রেসলারদের নামের সাথে তাদের বৈশিষ্ট্যের প্রায়  পুরোটাই মিল। এধরণের রেসলারদের মূল বৈশিষ্ট্য হল তারা এরিয়াল তথা হাই ফ্লায়িং মুভস, হাই-রিক্স ম্যানুভার বেশী ব্যবহার করে। এরা দৌড়ক্ষমতা ও স্কিল  সমৃদ্ধ হয়ে থাকে ব্যাপকভাবে।

*Showman: এরা মূলত এন্টারটেইনিং রেসলার।তারা কোনো মুভ  ব্যবহার করে শো-অফ তথা দর্শকদের  মধ্যে আলোড়ন সৃষ্টির জন্য।
*Puroresu-Style Wrestler: এ  বিভাগের রেসলিং স্টাইল মার্শাল আর্টস,সত্যিকার  পাঞ্চিং,স্ট্রাইকিং,কিকস,টেইকডাউন,হার্ডকোর মুভস এবং সাবমিশন ম্যানুভারের  সমন্বয়ে গঠিত।যারা এরকম বৈশিষ্ট্যের রেসলিংয়ের প্রতিনিধিত্ব করে তাদেরকে  বলা হয় Puroresu Wrestler. এধরণের রেসলিংয়ের গোড়াপত্তন হয় জাপানে।এ  স্টাইলের রেসলিংকে বিখ্যাত করেন জাপানী লেজেন্ড রেসলার Rikidozan.
   একই রেসলার আবার একসাথে একাধিক বৈশিষ্ট্য ও ধারণ করতে পারে অর্থাৎ মিক্সড ক্যাটাগরির  ও হতে পারে।


রেসলিংয়ে রেফারী ও ধারাভাষ্যকার[সম্পাদনা]

রেসলিং-য়ে ম্যাচ চলাকালীন সময়ে প্রতিযোগী রেসলারের সাথে সাথে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে রেসলিংয়ের রেফারীরা। প্রধানত পর্দায় তাদেরকে নিয়মানুযায়ী ও সততার ম্যাচ পরিচালনার জন্য নিযুক্ত করা হয়। কিন্তু বাস্তবে একটি ম্যাচে তাদের কাজ ও ভূমিকা আরো বেশী ব্যাপক এবং অপরিহার্য।ম্যাচ চলাকালীন রেসলারদের গতি-বিধি,মুভ প্রয়োগ,পিন,ট্যাপ-আউট প্রভৃতি বলতে গেলে প্রায় সবকিছু ই তাদের প্ররোচনায় হয়ে থাকে। কিন্তু এসব দর্শকদের চোখ এড়িয়ে যায় স্বাভাবিক ক্ষেত্রে। রেফারীরা কোনো রেসলারকে ফেইক-ব্ল্যাড ক্যাপসুল সরবরাহ করে নকল রক্ত দেখাতে কিংবা ব্লেড জাতীয় জিনিস দিয়ে শরীরের কোনো অংশ কেঁটে বা ছিঁড়ে আসল রক্ত বের করতে,কোন সময় কোনো প্লেয়ার কোন মুভ ব্যবহার করবে,কে কাকে পিন করবে তা ও চুপিসারে তারা বলে দেয় রেসলারদের,নিজেদের দুর্বলদের মতো উপস্থাপন করে,বয়রা,কালার মতো ও অভিনয় করে মূলত রেসলিং ম্যাচকে আরো বেশী আকর্ষণীয় করার সুবিধার্থে।ম্যাচ শেষে ধারাভাষ্যকারদের বেল বাজাতে বলে এবং পর্দার সামনে বিজয়ী(যদিও তা আগে থেকেই নির্ধারিত করা থাকে) ঘোষণা করে। ম্যাচ শেষ করার ক্ষেত্রে ধারাভাষ্যকারদের ও কিছু ভূমিকা রয়েছে। ক্ষেত্রবিশেষে তারাও রেসলারদের বিভিন্ন জিনিস সরবরাহ করে,ম্যাচ ও দর্শকদের আগ্রহ বুঝে Booker এর নির্দেশে কত সময় ধরে কোনো ম্যাচ চলবে,কখন পিন করতে হবে তা বিভিন্ন ইশারা-ইঙ্গিতে রেফারীদের জানিয়ে দেয়।


৫*[5★] রেসলিং ম্যাচ[সম্পাদনা]

প্রফেশনাল তথা প্রো-রেসলিং এর কোনো ম্যাচের সর্বোচ্চ রেটিংকে 5★ দ্বারা খচিত করা হয়ে থাকে। এ 5★ প্রদান করেন আমেরিকার বিখ্যাত জার্নালিস্ট ও প্রো-রেসলিং ইতিহাসবেত্তা ডেইভ মেল্টজার (Dave Meltzer)। ম্যাচ রেটিংয়ের ক্ষেত্রে মূলত পাঁচটি বিষয় বিবেচনায় আনা হয়।সেগুলো হল যথাক্রমে--

  • স্টোরিটেলিং
  • ইন-রিং এক্সিকিউটিং
  • ম্যাচ সাইকোলজি
  • ইনোবেশন
  • টাইমিং

প্রো-রেসলিংয়ের ইতিহাসে এ পর্যন্ত অফিসিয়াল 5★ রেটিংপ্রাপ্ত ম্যাচের সংখ্যা ৭০ টি।

WWE তে ২০১৭ সাল পর্যন্ত 5★ ম্যাচ হয়েছে মোট ৫ টি।

সবচেয়ে বেশী 5★ ম্যাচ খেলেছেন জাপানী প্রো-রেসলিং লেজেন্ড মিতসুহারো মিশায়া (Mitsuharu Misawa)। তার 5★ রেটিং প্রাপ্ত ম্যাচের সংখ্যা ২৬ টি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ 5★ রেটিং প্রাপ্ত ম্যাচ খেলার কৃতিত্ব দেখিয়েছেন আরেক জাপানী লেজেন্ড কেনতা কোবাশি (Kenta Kobashi)। তার 5★ রেটিং প্রাপ্ত ম্যাচের সংখ্যা ২৩ টি। এর মধ্যে Misawa র ১৯৯৫ সালে তথা কেবল একবছরে ই 5★ ম্যাচ খেলার রেকর্ড WWE র ইতিহাসের ২০১৭ সাল পর্যন্ত খেলা মোট 5★ ম্যাচের সমপরিমাণ অর্থাৎ ৫ টি। আর Kenta র একাই ১৯৯৩ এবং ১৯৯৫ যথাক্রমে দু-দু'টি বছর ৫ টি করে 5★ ম্যাচ খেলার বিরল রেকর্ড রয়েছে। ২০১৭ সালে জাপানী রেসলিং প্রমো NJPW এর সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম র‍্যাসেলকিংডম(WrestleKingdom) থেকে প্রো-রেসলিংয়ের ইতিহাসের প্রথম অফিসিয়াল 6★[স্টার] ম্যাচ উপহার দেয়া হয়। IWGP চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য কেনি ওমেগা(Kenny Omega) এবং কাজুচিকা ওকাডা(Kazuchika Okada) র মধ্যকার ম্যাচটিকে ডেইভ মেল্টজার 6★ রেটিং দেন। পরবর্তীতে তিনি 6★+ রেটিং ও দিয়েছেন কিছু ম্যাচকে। যদিও 5★ কেই প্রামাণ্য ধরা হয়।


বুকার[সম্পাদনা]

বুকার(ইংরেজি: Booker) বলতে রেসলিংয়ে ঐ ব্যক্তিকে বুঝান হয় যে কোনো রেসলিং প্রমোশনের ম্যাচগুলো,ম্যাচের বিন্যাশ,ম্যাচে কি থাকবে,ম্যাচ কিরকম হবে,কে জিতবে,কে হারবে প্রভৃতি নির্ধারণ তথা এগুলার একটি ধারবাহিক 'প্লটলাইন' তৈরী করে।অর্থাৎ বুকার হলো কোনো প্রমোশনের দালাল। এমনকি কোনো প্রমোশনের বুকার তাতে ব্যাকস্টেজ,ইন-রিয়ে কি থাকবে,রেসলারদের ইন-রিং ও ব্যাকস্টেজ প্রমোগুলো কি হবে তাও নির্ধারণ করে দেয়।অর্থাৎ কোনো বুকার হলো ঐ প্রমোশনের 'মূল' নীতিনির্ধারক। কোন ক্ষেত্রে কোনো প্রমোশনের মালিক ই সেটার বুকারের দায়িত্ব পালন করে আবার কোনো ক্ষেত্রে কোম্পানির মালিক বেতন দিয়ে অন্য কাউকে নিযুক্ত করে এই "Booker" এর কাজে।

 এই বুকাররা ই রেসলিং ম্যাচকে মজাদার ও আকর্ষণীয় করার সুবিধার্থে ফেইক ক্রাউডের(নিজেদের পাতানো লোক) ব্যবস্থা করে,ক্রাউডকে নিজেদের বানানো  বিভিন্ন স্টিকার,প্লে-কার্ড সরবরাহ করে। যারা হিল রেসলারদের বু দেবে,তাদের  প্রতি বিদ্রুপাত্মক প্লে-কার্ড প্রদর্শন করবে কিংবা বুকারের নির্দেশনা মোতাবেক সময়ে সময়ে বিভিন্ন ধরণের পজিটিভ(Posotive),নেগেটিভ(Negative) চ্যান্ট করবে।তবে বর্তমানে  এ পথার চলন অপ্রতুল।


বুকিং[সম্পাদনা]

Booking(বুকিং) বলতে কোনো স্টোরিলাইনের ম্যাচগুলোকে সাজানো,কিভাবে সাজালে তার ফলাফল কি আসবে,ঐ স্টোরিলাইনের কোন সময় কি ঘটবে,ম্যাচটি কিরূপ হবে, ম্যাচে কোন ধরণের কৌশল,কি ধরণের মুভস ব্যবহার করা হবে প্রভৃতি নির্ধারণ করাকে বুঝায়।অর্থাৎ ম্যাচ ও স্টোরিলাইনের ইতিবৃত্ত নির্ধারিত করাকে সংক্ষেপে Booking (বুকিং) বলে। কোনো রেসলিং প্রমোশনে এই বুকিং কাজের জন্য যে বিশেষ ব্যাক্তিকে নিযুক্ত করা হয় তাকে "Booker" বলে বা এই কাজের জন্য একটি বিশেষ গ্রুপ থাকে,যাদেরকে "ক্রিয়েটিভ কর্মকর্তা" বলা হয়।অনেক ক্ষেত্রে রেসলাররা ও এই বুকিং কাজে অংশগ্রহণ করে তাদের "ক্রিয়েটিভ কর্মকর্তা" দের ক্ষমতা বলে।কোনো রেসলারের রেসলিং ক্যারিয়ারের উন্নতির জন্য,দর্শকদের মাঝে তাকে জনপ্রিয় করে তুলার জন্য এই "বুকিং" অপরিহার্য।কারণ এই বুকিং ই নির্ধারণ করবে তার পরবর্তীকালীন রেসলিং ভবিষ্যত।উপরন্তু যদি কোনো রেসলার ক্রমাগত বাজেভাবে বুকড(Booked) হতে থাকে,তাহলে তার 'জবার'(Jobber) রেসলারে পরিণত হয়ার সম্ভাবনা প্রবল।


বচ[সম্পাদনা]

বচ (ইংরেজি: Botch) এর শাব্দিক বাংলা অর্থ হল 'কলঙ্কচিহ্ন'। রেসলিং এর পরিভাষায় বচ অর্থ হচ্ছে 'ভুল করা'। রেসলারদের শারীরিক অদক্ষতার জন্য বা ভূলবশত কোন মুভ প্রয়োগ করতে গিয়ে সেটা ঠিকমত করতে না পারাই হচ্ছে বচ করা। এই বচে মারাত্মক ইঞ্জুরি হয়া সহ রেসলারদের ক্যারিয়ার ও শেষ হতে পারে।এমনকি মৃত্যু পর্যন্ত হয়ার ঝুঁকি থাকে। ঊদাহরণ হিসেবে প্রো-রেসলার ওয়েন হার্ট (Owen Hart)এর কথা বলা যায়। এই বচের কারণে ই রেসলিং রিংয়ে তার মৃত্যু ঘটে।রেসলার স্টিভ অস্টিন(Steve Austin) কে বাধ্য হয়ে রেসলিং থেকে অবসর নিতে হয়।

বচ দুই প্রকার।যথা: ইচ্ছাকৃত(scripted) এবং অনিচ্ছাকৃত(unscripted)। তবে বেশীর ভাগ বচ ই প্রধানত unsrcipted তথা অনিচ্ছাকৃত ভুল । যদিও বচ scripted ও হয় ক্ষেত্রবিশেষে।আর এই ইচ্ছাকৃত বচ অনেকটা প্রতিপক্ষের কাছে নিজেকে মার খাওয়ার জন্য সপে দেয়া,প্রতিপক্ষকে জেতানোর জন্য কোন মুভ প্রয়োগ করতে গিয়ে সেটায় ইচ্ছা করে ভুল করে ফেলা ইত্যাদি।একরম করা হয় রেসলিং ম্যাচকে আরো জমজমাট করতে,দর্শকদের সহানুভূতি পেতে। তবে এধরণের বচে সাধারণত ইঞ্জুরি হয় না।


তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]