মিকি জেমস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মিকি জেমস
Mickie James - June 20, 2009.jpg
জুন ২০০৯ সালে মিকি জেমস
জন্ম নামমিকি লারি জেমস
জন্ম (১৯৭৯-০৮-৩১) ৩১ আগস্ট ১৯৭৯ (বয়স ৩৯)
রিচমন্ড, ভার্জিনিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
দাম্পত্য সঙ্গীনিক আল্ডিস (বি. ২০১৫)
সন্তান
ওয়েবসাইটঅফিসিয়াল ওয়েবসাইট
পেশাদারি কুস্তি ক্যারিয়ার
রিংয়ে নামঅ্যালেক্সিস লারি
মিকি জেমস
ভিকি এডামস
লা লুচাডোরা
কথিত উচ্চতা৫ ফু ৪ ইঞ্চি (১.৬৩ মি)
কথিত ওজন১২৫ পা (৫৭ কেজি)[১]
কথিত
প্রশিক্ষণকেন্দ্র
রিচমন্ড, ভার্জিনিয়া[২]
প্রশিক্ষকফাঙ্কিং কনসার্ভেটরি[৩]
কেওয়াই প্রো ট্রেইনিং স্কুল[৪]
অভিষেক১৯৯৯[৫]

মিকি লারি জেমস-আল্ডিস (জন্ম: আগস্ট ৩১, ১৯৭৯)[৬][৭] হলেন একজন মার্কিন পেশাদার কুস্তিগীর, অভিনেত্রী, মডেল এবং কান্ট্রি সঙ্গীত শিল্পী। তিনি বর্তমানে ডাব্লিউডাব্লিউইর সাথে সংযুক্ত রয়েছেন, যেখানে তিনি ডাব্লিউডাব্লিউই র ব্র্যান্ডে মিকি জেমস নামে কুস্তি করেন।[৮]

জেমস ১৯৯৯ সালে পেশাদার কুস্তিতে পদার্পণ করেন। তখন তিনি স্বাধীন সার্কিটে কুস্তিগীরদের সাজভৃত্য ছিলেন এবং তখন তিনি অ্যালেক্সিস লারি নামে পরিচিত ছিলেন।[৯] তিনি পেশাদার কুস্তিতে কুস্তিগীর হিসেবে প্রবেশের পূর্বে, বিভিন্ন ক্যাম্প হতে প্রশিক্ষণ লাভ করেন এবং কুস্তিতে তার দক্ষতা আরো বৃদ্ধি করেন। তিনি ২০০২ সালে জুন মাসে টোটাল ননস্টপ অ্যাকশন রেসলিংয়ে (এনডাব্লিউএ:টিএনএ) জগদান করেন, সেখানে তিনি সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।[৯][১০] কিছুদিন পর, তিনি একটি পেশাদার কুস্তি দলের সাথে সংযুক্ত হয়ে কুস্তি করেছেন। তিনি হচ্ছেন একমাত্র নারী কুস্তিগীর যিনি ক্লোকওয়ার্ক অরেঞ্জ হাউস অফ ফান ম্যাচের সাথে সংযুক্ত হয়েছেন।[১১]

জেমস ডাব্লিউডাব্লিউইতে ২০০৫ সালে অক্টোবরে অভিষেক করেন এবং ট্রিশ স্ট্রাটুসের সাথে একটি কাহিনীতে জরিয়ে যান। উক্ত কাহিনীতে জেমসের ভূমিকা ছিল যে তিনি ট্রিশ স্ট্রাটুসের একজন বিরাট ভক্ত, যা পরবর্তীতে উত্ত্যক্তকারীতে পরিণত হয়। এই কাহিনীটি প্রায় ৮ মাস ব্যাপী চলেছিল।[৯][১২][১৩] পরবর্তীতে তিনি রেসেলম্যানিয়া ২২ডাব্লিউডাব্লিউই নারী চ্যাম্পিয়নশিপ জয়লাভ করেন। উক্ত চ্যাম্পিয়নশিপটি তিনি সর্বমোট ৫ বার জয়লাভ করেছেন। একই সাথে তিনি ডাব্লিউডাব্লিউই ডিভাস চ্যাম্পিয়নশীপও জয়লাভ করেন। ডাব্লিউডাব্লিউই নারীডাব্লিউডাব্লিউই ডিভাস উভয় চ্যাম্পিয়নশিপটি সর্বমোট ৫ জন জয়লাভ করেছেন, যার মধ্যে জেমস হচ্ছেন দ্বিতীয়।[১৪] ২০১০ সালের ২২শে এপ্রিল ডাব্লিউডাব্লিউই তাকে মুক্ত করে দেয়া হয়। অতঃপর তিনি পুনরায় টোটাল ননস্টপ অ্যাকশন রেসলিংয়ে (টিএনএ) যোগদান করেন।

টোটাল ননস্টপ অ্যাকশন রেসলিংয়ে (টিএনএ), জেমস ৩ বার ইমপ্যাক্ট কুস্তি নকআউট চ্যাম্পিয়নশিপ এবং টিম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এর সদস্য হিসেবে টিএনএ বিশ্বকাপ জয়লাভ করেছেন। ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে তিনি টিএনএ থেকে চলে আসেন।[১৫][১৬] ডাব্লিউডাব্লিউই এবং টিএনএ মিলিয়ে, জেমস সর্বমোট ৯ বারের চ্যাম্পিয়ন, যেটি একটি জাতীয় রেকর্ড[১৭][১৮] এবং পেশাদার কুস্তির ইতিহাসে একমাত্র নারী হিসেবে ডাব্লিউডাব্লিউই নারী, ডাব্লিউডাব্লিউই ডিভাস এবং ইমপ্যাক্ট কুস্তি নকআউট চ্যাম্পিয়নশিপ জয়লাভ করেন।[১৯] তিনি ২০০৯ সালে প্রো রেসলিং ইলাস্ট্রেটর দ্বারা নির্ধারিত সেরা নারী কুস্তীগির নির্বাচিত হন। একই সাথে পিডাব্লিউইর পাঠকদের ভোটে ২ বার বছরের সেরা নারী কুস্তিগীর নির্বাচিত হন। একবার ২০০৯ সালে এবং অন্যবার ২০১১ সালে।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

জেমস রিচমন্ড, ভারজিনিয়ার রিচমন্ড মেমোরিয়াল হাসপাতালে জন্মগ্রহণ করেন। বাবার নাম স্টুয়ার্ট জেমস যিনি একজন অবসরপ্রাপ্ত বর্জ্য পদার্থ-চিকিৎসা শ্রমিক, ল্যান্ডস্কেপার এবং ভেইল লীগ ডিভিশন ৩ চ্যাম্পিয়নশিপ কোচ এবং স্যান্ড্রা নাকলস্‌, একজন শিক্ষক এবং রিয়েল এস্টেট এজেন্ট। তার তরুণী বয়সকালে তার বাবা-মায়ের তালাক হয়ে যায়। তার এক বোন, এক অর্ধ-বোন ও ভাই এবং তিনজন সৎ ভাই আছে। মন্টপেলিয়ার, ভারজিনিয়াতে সে বড় হয় এবং ১৯৯৭ সালে প্যাট্রিক হেনরী হাই স্কুল থেকে স্নাতকত্ব লাভ করেন। তার বেড়ে ওঠার বেশিটা সময় কাটে মাতামহীর ঘোড়ার খামারে এবং ঐ সময়ই অশ্বারোহী খেলার প্রতি তার আগ্রহ জন্মায়। তিনি পাঁচ বছর বেহালাও বাজিয়েছিলেন।

পেশাগত কুস্তিজীবন[সম্পাদনা]

স্বাধীন সার্কিট (১৯৯৯-২০০৩)[সম্পাদনা]

ছোটবেলা থেকেই তিনি পেশাগত কুস্তির ভক্ত ছিলেন। তার এক বন্ধুর পরামর্শে তিনি ওয়াশিংটন ডি.সি-র পেশাদার কুস্তি স্কুলে ভর্তি হন। তিনি ১৯৯৯ সালে, রিং নাম অ্যালেক্সিস লারি নামে কেওয়াইডিএ প্রো কুস্তির সাজভৃত্য হিসেবে, স্বাধীন সার্কিটে পেশাগতভাবে অভিষেক করেন। তিনি যখন নাচিয়ে ছিলেন তখন তার স্টেজ নাম এবং তার মধ্যম নামের সংমিশ্রণে, তার এই নামটি রাখা হয়। লারি কয়েকজন পুরুষ কুস্তিগীরদেরকেও পরিচালনা করেছেন, যার মধ্যে রয়েছে টমি ড্রিমার যিনি লারির সাহায্যে কেওয়াইডিএ প্রো হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়নশিপ জয়লাভ করেন। মার্চে তিনি তার প্রথম ম্যাচটি খেলেন জ্যাক ডেমিয়ানের সাথে এমেরিকান মাইক ব্রাউন এবং ক্যান্ডির বিপক্ষে একটি ইন্টারজেন্ডার ট্যাগ টিম ম্যাচে। তিনি বিভিন্ন প্রশিক্ষণ শিবিরে যেয়ে তার কুস্তির ক্ষমতা বাড়াতে প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন যেমন ফাংকিং কঞ্জারভেটরিতে, ডরি ফাঙ্ক জুনিয়র দ্বারা চালিত একটি কারখানায় এবং এক্সট্রিম চ্যাম্পিয়নশিপ রেস্লিং (ইসিডাব্লিউ) ডোজোতে। এছাড়াও ম্যারিল্যান্ড চ্যাম্পিয়নশিপ রেস্লিং (এমসিডাব্লিউ) এ কুস্তি খেলা শুরু করেন, যেখানে রিকি মরটন এবং ববি ইটন দ্বারা চালিত ক্যাম্পগুলোতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হন। ২০০২ এর শুরুতে, রিং অফ অনারেও তার উপস্থিতি দেখা যায়।

স্বাধীন শোগুলোতে কম পারিশ্রমিকের কারণে অলিভ গার্ডেন র‍্যাস্টুরেন্টে খাদ্য পরিবেশিকার কাজ করেছিলেন এবং ২০০০ এর শুরুতে লেগ শো এবং নটি নেইবারস ম্যাগাজিনে নগ্ন হয়েছিলেন। এরপরেই তার সুনাম বাড়তে থাকে এবং ২০০২ সালে ওয়ার্ল্ড রেস্লিং এন্টারটেইনমেন্টের সাথে চুক্তিবদ্ধ হন।

টোটাল নন স্টপ অ্যাকশন রেস্লিং (২০০২-২০০৩)[সম্পাদনা]

রিং অফ অনারে এক বছর কাজ করার পর, টোটাল নন স্টপ অ্যাকশন রেস্লিং (টিএনএ)-এর প্রথম সাপ্তাহিক পে-পার-ভিউ তে অ্যালেক্সিস লারি নামে জেমস অভিষেক করেন, যেখানে পরবর্তী সপ্তাহের একটি লিঙ্গারি ব্যাটাল রয়্যাল ম্যাচের অংশীদারী হিসেবে তাকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। ২৬ মার্চ, ২০০৩ এর আগ পর্যন্তও তিনি ততটা শিরোনামে আসতে পারেন নি, যেদিন দ্বন্দ্বের সূত্র ধরে এক্স ডিভিশন চ্যাম্পিয়ন কিড ক্যাশ এবং ট্রিনিটির বিপক্ষে আমেজিং রেডের সাথে টিম গঠন করেন। ২ এপ্রিল ২০০৩ সালে ট্রিনিটির বিপক্ষে লারি তার প্রথম একক ম্যাচ খেলেন, তবে পরাজিত হন। সপ্তাহখানেক পরে, তিনি দ্যা গ্যাদারিং-এর প্রথম সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হন যা রাভেন পরিচালনা করতেন তার বিপক্ষ এনডাব্লিউএ ওয়ার্ল্ড হেভিওয়েট চ্যাম্পিয়ন জেফ জেরেটের বিপক্ষে। দ্যা গ্যাদারিং জেরেটকে চ্যালেঞ্জ এবং হারানোর পর, ১৬ এপ্রিল, লারি হয়ে যান প্রথম মহিলা কুস্তিগীর যিনি ক্লকওয়ার্ক ওরেঞ্জ হাউস অফ ফান ম্যাচে অংশ নেন। দ্যা ডিসসিপলস অফ নিউ চার্চের সাথেও তার এই দলের দাঙ্গা বাঁধে, যখন একটি প্রতিশোধমূলক লড়াইয়ে অং নেন এবং ফাদার জেমস মিটশেল একটি ফায়ারবল দিয়ে লারিকে আঘাত করে। এই কোম্পানি ছেড়ে যাওয়ার আগে তিনি আরও একবার ক্লকওয়ার্ক ওরেঞ্জ হাউস অফ ফান ম্যাচে অংশ নিয়েছিলেন।

ওয়ার্ল্ড রেস্লিং এন্টারটেইনমেন্ট[সম্পাদনা]

ওহিও ভ্যালি রেস্লিং (২০০৩-২০০৫)[সম্পাদনা]

দু বছর ধরে তার ভিডিও রেকর্ড, ফোন কল এমনকি ডন ম্যারির সাথে পরীক্ষামূলক একটি ডার্ক ম্যাচ খেলে অবশেষে আগস্ট ২০০৩ এ তিনি ওয়ার্ল্ড রেস্লিং এন্টারটেইনমেন্ট (ডাব্লিউডাব্লিউই) এর সাথে একটি উন্নয়ন চুক্তিবদ্ধ হন, যারা তাকে প্রশিক্ষণ নিতে ওহিও ভ্যালি রেস্লিং এ পাঠান। সেই একই রিং নাম অ্যালেক্সিস লারি ব্যবহার করে ২৯ জানুয়ারি ২০০৪ এ ওভিডাব্লিউ তে তিনি উপস্থিত হন এবং পুরো বছর জুড়ে বিভিন্ন ট্যাগ টিম ম্যাচে অংশ নেন। ৩০ অক্টোবর একটি হেলোয়িন কস্টিউম প্রতিযোগীতায় তিনি জয়লাভ করেন এবং ১২ নভেম্বর একটি ১,০০০ ডলার মূল্যের ম্যাচে জিলিয়ান হলকে পরাজিত করেন।

১৭ মে ২০০৫ এ, ওভিডাব্লিউ টেলিভিশন চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য একটি ট্যুর্নামেন্টে তিনি স্থান পান। প্রথম রাউন্ডে তিনি মাইক মুন্ডকে পরাজিত করেন, তবে পরবর্তী রাউন্ডে ব্লাস্টার ল্যাশলির নিকট পরাজিত হন। ২০ জুলাই লারির একটি সাক্ষাৎকারের সময় বেথ ফিনেক্স বাধা দেওয়ায় তার সাথে লারির শত্রুতা শুরু হয়। ফলে ২৯ জুলাই তাদের মধ্যে একটি ম্যাচ সংগঠিত হয়, তবে লারি হেরে যান। তাদের এই শত্রুতা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলে, মাঝে শেলী মার্টিনেজ যুক্ত হন ফিনেক্সের সাথে লারির বিপক্ষে। ১২ অক্টোবর ওভিডাব্লিউ তে তিনি তার নিজ নামেই উপস্থিত হন এবং মার্টিনেজ ও জিলিয়ান হলের বিপক্ষে বছরের শেষ ম্যাচটিতেও তিনি পরাজিত হন।

ট্রিশ স্ট্র্যাটাসের সাথে কাহিনীসূত্র (২০০৫-২০০৬)[সম্পাদনা]

তার নিজ নামেই, ১০ অক্টোবর ২০০৫ এ র তে অভিষেক করেন ডাব্লিউডাব্লিউই উইমেন'স চ্যাম্পিয়ন ট্রিশ স্ট্র্যাটাসের অনেক বড় ভক্ত হিসেবে। এই দুই ডিভা বিভিন্ন ট্যাগ টিম ম্যাচে অংশ নেন যেখানে মিকির চরিত্রটি দিনে দিনে স্ট্র্যাটাসের সাথে পাগলপ্রায়ের মত হতে থাকে। তাদের এই কাহিনীতে একটি হেলোয়িন কস্টিউম প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয় যেখানে জেমস স্ট্র্যাটাসের মত পোশাক পরিধান করেন এবং টাবু টুয়েসডে তে ফুলফিল ইয়র ফ্যান্টাসি ব্যাটাল রয়্যালে একই সময়ে নিজেকে এবং ভিক্টোরিয়াকে এলিমিনেট করে স্ট্র্যাটাসকে উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপটি ধরে রাখতে সাহায্য করেন। এমনকি বিভিন্ন ম্যাচে স্ট্র্যাটাসের সিগ্ন্যাচার ফিনিশিং মুভগুলোও জেমস ব্যবহার করা শুরু করেন। ১২ ডিসেম্বর ভিক্টোরিয়াকে হারিয়ে জেমস ডাব্লিউডাব্লিউই উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য নাম্বার ওয়ান কন্টেন্ডার বিজয়ী হন, যে ম্যাচের বিজেতা নিউ ইয়ার'স রেভোলিউশনে স্ট্র্যাটাসের মুখোমুখি হবেন। পরবর্তীকালে, মিকি এবং স্ট্র্যাটাসের কাহিনী সমকামীতে রূপ নেয় এবং জেমস স্ট্র্যাটাসকে চুম্বন করে। পে-পার-ভিউ-এর চ্যাম্পিয়নশিপ ম্যাচে স্ট্র্যাটাসের নিকট জেমস পরাজিত হন।

হেরে যাওয়া সত্ত্বেও, জেমস স্ট্র্যাটাসের প্রেমে মুগ্ধই থাকে যা স্ট্র্যাটাসকে খুব বিব্রত করে। ৬ মার্চ ২০০৬ এ, স্ট্র্যাটাস জেমসের মুখোমুখি হয়ে বলেন তাদের দুজনের কিছু সময় দূরে থাকা উচিৎ।এরপর মিকি এশ্লে মাসারোকে কয়েকবার আক্রমণ করে কারণ এশ্লে তাকে পাগল বলেছিল। রয়্যাল রাম্বল পে-পার-ভিউ তে, জেমস মাজারোকে পরাজিত করে যে ম্যাচে উইমেন'স চ্যাম্পিয়ন স্ট্র্যাটাস ছিল বিশেষ অতিথি রেফারি। ঐ দিনও জেমস স্ট্র্যাটাসকে তার ভালোবাসা প্রকাশ করে। এক সপ্তাহ পরে এ মাসারো তার প্রতিশোধ নেন।

১৮ মার্চ ২০০৬ এ, স্যাটারডে নাইটস মেইন ইভেন্টে, জেমস এবং স্ট্র্যাটাস টিম হয়ে ক্যান্ডিস মিসেল এবং ভিক্টোরিয়াকে পরাজিত করেন। ম্যাচ শেষে, জেমস স্ট্র্যাটাসকে চুম্বন করতে নেয়, কিন্তু স্ট্র্যাটাস তাকে সরিয়ে দিলে জেমস স্ট্র্যাটাসকে আঘাত করে এবং তাকে ধ্বংস করার শপথ নেয়, তার ক্যারিয়ারে প্রথম বার ভিলেইন রূপ ধারণ করেন। জেমস এবং স্ট্র্যাটাসের দ্বন্দ্ব চূড়ান্ত রূপ নেয় রেসলমেনিয়া ২২ এ উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ ম্যাচে, যে ম্যাচে জেমস জয়ী হন এবং তার প্রথম উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেন। এই ম্যাচটি ছিল রেসলমেনিয়াতে হওয়া সবচেয়ে সেরা মহিলাদের ম্যাচ। ব্যাকলেশে তাদের মধ্যে একটি রিম্যাচ সংগঠিত হয়, ঐ ম্যাচে জেমস স্ট্র্যাটাসকে রিং এর বাইরে ফেলে দেওয়ার ফলে স্ট্র্যাটাসের কাঁধ সরে যায় এবং তিনি আহত হন। ২৬ জুন র এ, উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ ম্যাচে স্ট্র্যাটাসকে হারানোর মাধ্যমে তাদের এই দ্বন্দ্বের অবসান ঘটে।

উইমেন'স চ্যাম্পিয়ন (২০০৬-২০০৮)[সম্পাদনা]

১৪ আগস্ট জেমস ডাব্লিউডাব্লিউই উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপটি খালি করতে বাধ্য হন যখন লিটা তাকে বেল্টটি দিয়ে আঘাত করে। উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপটি খালি এবং ট্রিস স্ট্র্যাটাসের অবসর নেয়ার কারণে, নতুন চ্যাম্পিয়ন নির্ধারণের কারণে জেমসকে একটি ট্যুর্নামেন্টে অংশ নিতে হয়। ভিক্টোরিয়া এবং মেলিনাকে পরাজিত করে সাইবার সানডের ফাইনালে উপনীত হন জেমস, যেখানে তিনি লিটার নিকট পরাজিত হন। এরপর জেমস ফেইস রূপ ধারণ করেন এবং লিটার সাথে কয়েকটি ম্যাচে লড়াই করেন যে ম্যাচগুলোতে ম্যাচ কি প্রকারের হবে তা নির্ধারণ করত লিটা যাতে জেমসকে আহত করতে পারন। সারভাইভর সিরিজে গিয়ে তাদের দুজনের দ্বন্দ্ব শেষ হয়, ম্যাচটি ছিল যে হারবে তাকে অবসর নিতে হবে, জেমস জয়ী হন এবং দ্বিতীয়বার উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেন।

২০০৭ সালে একটি ডাব্লিউডাব্লিউই হাউজ শোতে জেমস

২৯ জানুয়ারি ২০০৭ এ, মেলিনার সাথে তার দ্বন্দ্ব শুরু হয়, যখন উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য মেলিনা নাম্বার ওয়ান কন্টেন্ডার নির্বাচিত হন। ৫ ফেব্রুয়ারি সফলভাবে তার টাইটেল রক্ষা করার পরে, একটি মিক্সড ট্যাগ টিম ম্যাচে মেলিনা এবং জনি নাইট্রোর বিপক্ষে সুপার ক্রেজির সাথে টিম গঠন করেন তিনি। জয়ের জন্য মেলিনা জেমসকে পিন দেওয়ার পরে, মেলিনা টাইটেলের রিম্যাচের জন্য জেমসকে চ্যালেঞ্জ দেয়। ১৯ ফেব্রুয়ারি মেলিনার নিকট জেমস তার উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ হারান, তাদের এই দ্বন্দ্বের কাহিনীতে ডাব্লিউডাব্লিউই-এর ইতিহাসে প্রথমবার মহিলাদের ফলস কাউন্ট এনিহোয়েয়ার ম্যাচের আগ পর্যন্ত জেমস তার টাইটেলটি অর্জন করতে ব্যর্থ হন। এই ম্যাচের শেষের দিকে, জেমস টার্নবাকল থেকে পড়ে ঘাড়ে ব্যথা পান এবং ম্যাচটি খুব দ্রুতই শেষ করতে হয়। যদিও ঐ ম্যাচে জেমস ততটা গভীরভাবে আহত হননি।

এ জেমসের ফটো অপ-এর সময়ে তার সাথে মেলিনার দ্বন্দ্ব আবার জ্বলে উঠে। ২৪ এপ্রিল প্যারিস, ফ্রান্সে একটি হাউজ শোতে মেলিনা এবং ভিক্টোরিয়ার বিপক্ষে উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য ট্রিপল থ্রেট ম্যাচে জয়ী হয়ে তৃতীয়বার উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশীপ জিতেন। যেহেতু জেমস ভিক্টোরিয়াকে পিন দিয়েছিল মেলিনাকে না, তাই খুব দ্রুতই একটি রিম্যাচ সংগঠিত হয়, যে ম্যাচে মেলিনার নিকট জেমস পরাজিত হন। আর এটিই ছিল ডাব্লিউডাব্লিউই-এর ইতিহাসে সবচেয়ে কম সময়কালীন উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ রাজত্ব। পরে ব্যাকলেশে জেমস আবার রিম্যাচ পান, কিন্তু ব্যর্থ হন। ব্যাকলেশের পর, জেমসকে খুব কমই দেখা যায়, মাঝে মাঝে ট্যাগ ম্যাচে তবে একক প্রতিযোগীতায় তেমন একটা দেখা যায়না।২৬ নভেম্বর এ, বেথ ফিনেক্সের উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য মেলিনাকে হারিয়ে জেমস নাম্বার ওয়ান কন্টেন্ডার নির্বাচিত হন, ফলে আরমাগেডনে তাদের ম্যাচ সংগঠিত হয়, যে ম্যাচে ফেনিক্স তার টাইটেল রক্ষা করেন।

১৪ এপ্রিল ২০০৮ এ, জেমস বেথ ফিনেক্সকে হারিয়ে চতুর্থবার উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেন। জাজমেন্ট ডে তে, ট্রিপল থ্রেট ম্যাচে মেলিনা এবং বেথকে হারিয়ে জেমস তার টাইটেল রক্ষা করেন। ২০০৮ এর মাঝামাঝি সময়ে, ফিনেক্সের সাথে তার আবার দ্বন্দ্ব বাঁধে, যখন তিনি কফি কিংস্টোনের সাথে টিম গঠন করে ফিনেক্স এবং সান্তিনো মারেলার বিপক্ষে সামারস্ল্যামে একটি ম্যাচে অংশ নেয় যে ম্যাচের শর্ত ছিল বিজয়ী দল আন্তঃমহাদেশীয় এবং উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ উভয়ই জিতবে। ঐ ম্যাচে মিকি এবং কিংস্টোন ফিনেক্স ও মারেলার নিকট পরাজিত হন। চ্যাম্পিয়নশিপ হারানোর পরে, জেমস টাইটেলের জন্য আও দুটি ম্যাচ খেলে কিন্তু তা অর্জন করতে ব্যর্থ হয়। নভেম্বরে সারভাইভর সিরিজে, জেমস বিজয়ী র ডিভা টিমের একজন ছিলেন যারা স্ম্যাকডাউনের ডিভাদের ফাইভ-অন-ফাইভ এলিমিনেশন ম্যাচে পরাজিত করেন। মারিস দ্বারা এলিমিনেট হওয়ার আগে, মিশেল ম্যাককুলকে এলিমিনেট করেছিলেন তিনি। পরের মাসে আরমাগেডনে, জিলিয়ান হল, মারিস, ভিক্টোরিয়া এবং ন্যাটালিয়ার বিপক্ষে মারিয়া, মিশেল ম্যাককুল এবং কেলি কেলির সাথে জেমস টিম গঠন করে জেতার প্রচেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়।

ডিভাস চ্যাম্পিয়ন এবং লেকুলের সাথে দ্বন্দ্ব (২০০৯-২০১০)[সম্পাদনা]

জুন ২০০৯ এ জেমস

রেসলমেনিয়া ২৫ এ ২৫ জনের ব্যাটাল রয়্যালে অংশ নেয়ার পরে, ডাব্লিউডাব্লিউই ডিভাস চ্যাম্পিয়ন মারিসের সাথে তার দ্বন্দ্ব শুরু হয় যা চলে ২৬ জুলাই নাইট অফ চ্যাম্পিয়নস পর্যন্ত। ঐ দিন জেমস মারিসকে হারিয়ে প্রথমবার ডিভাস চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেন এবং হয়ে যান দ্বিতীয় মহিলা কুস্তিগীর যিনি উইমেন'স এবং ডিভাস উভয় চ্যাম্পিয়নশিপ অর্জনকারী। পুরো গ্রীস্ম জুড়ে, এর পর্বগুলোতে গেইল কিম এবং বেথ ফিনেক্সেএবং ৪ অক্টোবর হেল ইন অ্যা সেল পে-পার-ভিউতে আলিশা ফক্সের বিপক্ষে মিকি সফলভাবে তার টাইটেল রক্ষা করেন। দুই সপ্তাহ পর এ, প্রায় তিন মাস টাইটেল ধরে রাখা পর অবশেষে জিলিয়ান হলের নিকট জেমস টাইটেলটি হারান। শো শেষে, অতিথি উপস্থাপক ন্যান্সি ও'ডেল দ্বারা ডিভা ট্রেডে জেমস তার ক্যারিয়ারে প্রথমবার স্ম্যাকডাউন ব্র্যান্ডে ট্রেড হন।

২৩ অক্টোবর স্ম্যাকডাউনে লায়লাকে হারিয়ে জেমস স্ম্যাকডাউনে অভিষেক করেন। ৩০ অক্টোবর স্ম্যাকডাউনে, একটি বিতর্কিত ব্যাপার পরিলক্ষিত হয় যে, ডাব্লিউডাব্লিউই উইমেন'স চ্যাম্পিয়ন মিশেল ম্যাককুল এবং লায়লা লেয়কুল হিসেবে পরিচিত হচ্ছে। ২০ নভেম্বর স্ম্যাকডাউনে, লায়লাকে পরাজিত করার পর, ম্যাককুল জেমসকে একটি নাম দিল "পিগি জেমস", যা জেমসকে কাঁদিয়ে দেয়, যার ফলে নভেম্বর পে-পার-ভিউ সারভাইভর সিরিজে ফাইভ-অন-ফাইভ এলিমিনেশন ট্যাগ টিম ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়, যে ম্যাচে জেমসের টিম জয়ী হয়, যেখানে জেমস এবং মেলিনা শেষ পর্যন্ত টিকে থাকে। ৪ ডিসেম্বর স্ম্যাকডাউনে, একটি ট্রিপল থ্রেট ম্যাচে বেথ ফিনেক্স এবং ন্যাটালিয়াকে হারিয়ে ম্যাককুলের উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য নাম্বার ওয়ান কন্টেন্ডার নির্বাচিত হন। পরের সপ্তাহে, টিএলসিঃ টেবিলস, ল্যাডারস এবং চেয়ারস পে-পার-ভিউ তে চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য জেমস ম্যাককুলকে চ্যালেঞ্জ দেয়, কিন্তু লায়লার হস্তক্ষেপের কারণে জেমস পরাজিত হন। তাদের এই দ্বন্দ্ব ৩১ জানুয়ারি ২০১০ রয়্যাল রাম্বল পর্যন্ত এগোয়, যেখানে ম্যাককুল অবশেষে মাত্র ২০ সেকেন্ডে ম্যাককুলকে পরাজিত করে পঞ্চম বার উইমেন'স চ্যাম্পিয়ন হন এবং ইতিহাসে হয়ে যান ট্রিশ স্ট্র্যাটাসের পর দ্বিতীয় মহিলা কুস্তিগীর যিনি পুরনো উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপটি সবচেয়ে বেশি দিন ধরে রাখেন। পরের সপ্তাহগুলোতে, তাদের এই শত্রুতায় স্ম্যাকডাউন পরামর্শদাতা ভিকি গারেরোকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়, যিনি লেয়কুলের পক্ষ নেন। ২৬ ফেব্রুয়ারি স্ম্যাকডাউনে, ম্যাককুল জেমসের উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য রিম্যাচ চান, যে ম্যাচে গারেরো থাকবে বিশেষ অতিথি রেফারি। গারেরো জেমসকে চড় মারার পরে ম্যাককুল তাকে পিন দিয়ে আবার টাইটেল অর্জন করেন।

মার্চে, জেমসের ডান হাঁটুতে সংক্রমণ নির্ণয় করার জন্য তিন সপ্তাহ রিং এর বাইরে থাকেন। ২২ মার্চ এ তিনি ফিরে আসেন, যখন ইভ টরিস, বেথ ফিনেক্স এবং গেইল কিমের সাথে এক হয়ে সাথে ছিল কেলি কেলি ব্যর্থ প্রচেষ্টা চালান ম্যাককুল, মারিস এবং লায়লার বিপক্ষে তাদের সাথে ছিল ভিকি গারেরো এবং আলিশা ফক্স। এর ফলে রেসলমেনিয়া ২৬ এ ১০-ডিভা ট্যাগ ম্যাচ সেট হয়, যে ম্যাচে ভিকি কেলিকে পিন দিলে জেমসের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। একটি রিম্যাচে জেমসকে এ সর্বশেষ দেখা যায়, যেখানে তার টিম বিজয়ী হয়। জেমসের শেষ ম্যাচ হয় ২৩ এপ্রিল স্ম্যাকডাউনে যেখানে সে তার দীর্ঘ সময়ের শত্রু বেথ ফিনেক্সের সাথে টিম হয়ে লেয়কুলের বিপক্ষে ব্যর্থ প্রচেষ্টা চালান যখন লায়লা তাকে পিন দেন। ২২ এপ্রিল এক দিন আগেই ডাব্লিউডাব্লিউই জেমসকে মুক্তি দিয়ে দেয়, যেদিন জেমসেরস্ম্যাকডাউন ম্যাচ আগেই রেকর্ড করা হয়। জেমসের ভাষ্য অনুযায়ী, ডাব্লিডাব্লিউই এই সিদ্ধান্ত নেয় এই লক্ষ্যে যে "তারা তাদের উইমেন বিভাগ নিয়ে একটি নতুন মাত্রায় যাবে"।

নভেম্বর ২০১৩ এ, এক সপ্তাহের জন্য জেমস ওরলেন্ডো ,ফ্লোরিডাতে ডাব্লিউডাব্লিউই পার্ফরম্যান্স সেন্টারে অতিথি প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করেছিলেন, যেখানে তিনি এনএক্সটি-র মহিলা কুস্তিগীরদের প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন। ঐ সপ্তাহেই টাম্পা, ফ্লোরিডার এনএক্সটি-র লাইভ ইভেন্টে অংশও নিয়েছিলেন।

স্বাধীন সার্কিটে ফিরে আসা (২০১০-২০১৬)[সম্পাদনা]

২০১০ এর এপ্রিলে ওয়ার্ল্ড রেস্লিং কাউন্সিল (ডাব্লিউডাব্লিউসি) এর অংশ হিসেবে আবারও স্বাধীন সার্কিটে ফিরে আসেন, ওডিবি এবং ক্রিস্টোফার ড্যানিয়েলসের টিমকে হারাতে কারলিটোর সাথে টিম গঠন করেন। ড্যানিয়েলসকে পিন দিয়ে জেমস জিতে যান। ১১ জুলাই, একক ম্যাচে ওডিবিকে জেমস পরাজিত করেন।ঐ মাসের শেষ দিনে, জেমস ম্যারিল্যান্ড চ্যাম্পিয়নশিপ রেস্লিং (এমসিডাব্লিউ) এ ফিরে আসেন এবং জেতার চেষ্টায় মিয়া ইমের সাথে লড়াই করেন। পরের মাসে, তিনি মারসিডিজ মার্টিনেজের বিপক্ষে উইমেন'স সুপারস্টারস আনসেন্সরড (ডাব্লিউএসইউ) চ্যাম্পিয়নশিপ লড়েন, কিন্তু ব্যর্থ হন। এছাড়াও তিনি ডরি ফাঙ্কের প্রমোশনে ফিরে আসেন এবং !ব্যাং! টিভির জন্য একটি ট্যাগ টিম ম্যাচ রেকর্ড করেন। ডরি ফাঙ্ক জুনিয়রের একটি ম্যাচে জেমস তাকে সঙ্গ দেন এবং !ব্যাং! টিভির সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধার এক অনুষ্ঠানে দ্যা ষ্টার স্প্যাঙ্গল্ড ব্যানার গানটি গান। ১৮ সেপ্টেম্বর, ওয়েন্টর্থ, নোর্থ ক্যারোলিনায় অনুষ্ঠিত সাউথার্ন ক্যালিফোর্নিয়া রেস্লিং এসোসিয়েশনের (এসসিডাব্লিউএ) কেইজড ইভেন্টে (যেখানে সব ম্যাচই খাঁচা ম্যাচ ছিল), এসসিডাব্লিউএ লেডিস টাইটেলের জন্য ওডিবি, পার্সিফোন এবং ক্রিশটিন ফ্লেকের মধ্যে অনুষ্ঠিত ম্যাচে বিশেষ অতিথি রেফারি হিসেবে ছিলেন জেমস।

২০১১-র শুরুর দিকে, কোভে প্রচারে জেমসকে দেখা যায়। ৩০ এপ্রিল অল অর নাথিং ৫ এ, হান্নাহ ব্লোসমকে পরাজিত করে জেমস প্রথমবার কোভে প্রো উইমেন'স চ্যাম্পিয়ন হন। টিএনএ তে থাকালীন সময়ে, স্বাধীন রেস্লিং-এর প্রচারে আসেন যেমন প্রো চ্যাম্পিয়নশিপ রেস্লিং, লিজেন্ডস অফ দ্যা রিং, নর্থইষ্ট রেস্লিং এবং ন্যাশনাল রেস্লিং সুপারষ্টারস। ১১ নভেম্বর ২০১১ এ, নবাগত জেসি বেলে স্মুথারসের নিকট জেমস তার কোভে প্রো উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপটি হারান।

১৫ সেপ্টেম্বর ২০১২ তে আয়ার স্কটল্যান্ডে প্রো রেস্লিং এলিটের (পিডাব্লিউএ) অনুষ্ঠান হিস্টোরি ইস বর্নে অভিষেক করেন, যেখানে তিনি কেয় লি রে-এর সাথে লড়াই করেন যা নো কন্টেস্টে শেষ হয়। ম্যাচ শেষে, জেমস রে-এর সাথে টিম গঠন করে কার্মেল এবং নিকি স্টোর্ম-এর বিপক্ষে ম্যাচ খেলে জয়লাভ করেন। পরের রাতে, জেমস কার্মেলের বিপক্ষে লড়াই করে জয়লাভ করেন। ২০ জুলাই ২০১৩ তে প্রো রেস্লিং এলিটের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠান এলিট ব্রো-তে ফিরে আসেন এবং নিকি স্টোর্মের বিপক্ষে ম্যাচে জয়লাভ করেন। ২১ সেপ্টেম্বর, এডিসন, নিউ জার্সিতে রেস্লিং স্প্যাক্ট্যাকুলার ২ অল-ফিম্যাল ইভেন্টে আরো কিছু সাবেক ডাব্লিউডাব্লিউই এবং টিএনএ মহিলা কুস্তিগীর অ্যাঞ্জেলিনা লাভ, ক্যাটারিনা ওয়াটারস, রসিতা এবং ব্রুক এডামসকে নিয়ে উপস্থিত হন। জেমস এবং লাভ মেইন ইভেন্টে খেলেন, যে ম্যাচে ক্যান্ডিস মিশেল থাকে অতিথি রেফারি। এই ম্যাচে ভ্যালভেট স্কাই-এর সাহায্যে লাভ জেমসকে পিন দিয়ে জয়লাভ করেন। আগস্ট ২০১৩ তে, বিগ টাইম রেস্লিং এ ফিরে আসেন যেখানে বিভিন্ন তারিখ এবং জায়গায় রেবি স্কাই এর সাথে লড়াই করেন এবং সবগুলো ম্যাচেই জয়লাভ করেন। ১২ অক্টোবর, ব্রিস্টোল, কানেক্টিকাটে কুইবেকের মিডিয়ানকে পরাজিত করার প্রচারে দেখা যায়। ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ তে, জেমস আবার ম্যারিল্যান্ড চ্যাম্পিয়নশিপ রেস্লিং এ ফিরে আসেন, যখন এমসিডাব্লিউ-এর বার্ষিকী ২০১৪ এর অনুষ্ঠান চলছিল জপ্পা, ম্যারিল্যান্ডে। সেখানে তিনি অ্যাঞ্জেলিনা লাভের বিপক্ষে ম্যাচ খেলেন, যা প্রচার করা হয়েছিল "ব্যাটাল অফ দ্যা বোম্বশেলস" নামে। যদিও ম্যাচটি একক ম্যাচ ছিল, কিন্তু এমসিডাব্লিউ-এর রিনি মিশেলস এবং জেসি কায়েসের শত্রুতাও এই ম্যাচের মধ্যে চলে আসে, যার ফলে ম্যাচটি ট্যাগ টিম ম্যাচে রূপ নেয়। ঐ ম্যাচে মিকি এবং মিশেল অ্যাঞ্জেলিনা এবং কায়েসের মুখোমুখি হন এবং জেমস এবং মিশেল জয়লাভ করেন।

২৫ এপ্রিল ২০১৪ তে, পশ্চিম ভার্জিনিয়াবার্কেলে স্প্রিংস হাই স্কুল থিয়েটারে, কোভে তৃতীয় বার্ষিক হল অফ ফেইম ইন্ডাকশন সিরিমনির শিরোনাম হন, যেহেতু তিনি কোভে প্রো হল অফ ফেইম ক্লাস অফ ২০১৪ তে অভিষিক্ত হন। পরের দিন, কোভে প্রো টিভিতে ১৭ মে ১৫৪ তম পর্বে প্রচারিত অল অর নাথিং ৮ ইভেন্টে এক সাক্ষাৎকার চলাকালে অ্যাম্বার রোড্রিগাজ জেমসকে বাধা দেন, যিনি জেমসের গর্ভাবস্থা নিয়ে উপহাস করেন এবং তাকে উত্যক্ত করার জন্য একটি পাই দেন, যার পরিবর্তে জেমস ঐ পাইটিকে অ্যাম্বারের মুখে মেখে দেন।জেমসের রক্ষার্থে জেসি বেলে স্মুথার্স আসেন এবং রোড্রিগাজের সাথে লড়াই শুরু করেন, এরপর নিরাপত্তা বাহিনী জেমসকে সরিয়ে নিয়ে যান। বাচ্চা জন্ম দেয়ার দুই মাস পরে, ৩০ নভেম্বর কুইন্স অফ কমব্যাট ৩ তে রিং এ ফিরেন, যেখানে তিনি টেসা ব্ল্যানচার্ডকে পরাজিত করেন। ১৬ মে, জেমস ফার্স্ট এস্টেট চ্যাম্পিয়নশিপ রেলসিং (১সিডাব্লিউ) এ অভিষেক করেন, যেখানে তিনি ১সিডাব্লিউ উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য ক্যাসি কার্লিস্লিকে চ্যালেঞ্জ করে ব্যর্থ হন এবং ডিসকোয়ালিফিকেশনের মাধ্যমে হেরে যান।

১৯ জুন ২০১৫ ম্যারিল্যান্ড চ্যাম্পিয়নশিপ রেস্লিং এর লেডিস নাইট ইভেন্টে, জেমস মেলিনার আক্রমণ উপেক্ষা করে অ্যাম্বার রোড্রিগাজকে (লিজা ম্যারি ভ্যারন ছিল বিশেষ অতিথি রেফারি) পরাজিত করে এমসিডাব্লিউ উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেন। ১৩ নভেম্বর, অ্যাম্বার রোড্রিগাজের সাহায্যে কিম্বার লি জেমসকে পরাজিত করে এমসিডাব্লিউ উইমেন'স চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেন। পরের রাতে, জেমস রোড্রিগাজকে হারিয়ে তার প্রতিশোধ নেন, যে ম্যাচের শর্ত ছিল যে হারবে সে এমসিডাব্লিউ ছেড়ে চলে যাবে, ফলে রোড্রিগাজকে এমসিডাব্লিউ ছাড়তে হয়। ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তে, জেমস চিকারাতে গ্র্যান্ড চ্যাম্পিয়ন প্রিন্সেস কিম্বার লি-এর বিপক্ষে লড়াই করে পরাজিত হন। ১ এপ্রিল ২০১৬, জেমস আবার কুইনস অফ কমব্যাটে ফিরে আসেন এবং কুইনস অফ কমব্যাট ১০লুফিস্তোকে পরাজিত করেন।

২ সেপ্টেম্বর ২০১৬, জেমস চিকারাতে অভিষেক করেন এবং ২০১৬ কিং অফ ট্রায়োস ট্যুর্নামেন্টে অংশ নেন, তার টিমের নাম ছিল অরিজিনাল ডিভাস রেভোলিউশন এবং তার সাথে ছিল জ্যাজ ও ভিক্টোরিয়া। প্রথম রাউন্ডে তারা টিম শীমার (ক্যান্ডিস লিরেয়, ক্রেজি ম্যারি ড্যাবসন এবং সলো ডার্লিং) কে পরাজিত করেন। পরের দিন, দ্যা ওয়ারিয়র্স থ্রি (অলেগ দ্যা ইউসার্পার, প্রিন্সেস কিম্বার লি এবং থান্ডার ফ্রগ) দ্বারা টিম অরিজিনাল ডিভাস রেভোলিউশন এলিমিনেট হন।

টিএনএ তে ফিরে আসা[সম্পাদনা]

ম্যাডিসন রেইনের সাথে দ্বন্দ্ব (২০১০-২০১১)[সম্পাদনা]

২২ সেপ্টেম্বর ২০১০ এ, টোটাল ননস্টপ অ্যাকশন রেস্লিং (টিএনএ) তে জেমস চুক্তিবদ্ধ হন। ৭ অক্টোবর ইম্প্যাক্ট! এর বিশেষ পর্ব বিফোর দ্যা গ্লোরি-র প্রচারে আসেন, যখন তিনি বাউন্ড ফোর গ্লোরি অনুষ্ঠানে অ্যাঞ্জেলিনা লাভ, ভ্যালভেট স্কাই, ম্যাডিসন রেইন এবং তারা-র মধ্যকার টিএনএ নকআউটস চ্যাম্পিয়নশিপ ম্যাচের বিশেষ অতিথি রেফারি ছিলেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Character Profile: Mickie James" 
  2. "Mickie James's Bio"World Wrestling Entertainment। এপ্রিল ১৭, ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৩, ২০০৯ 
  3. "Home Page of Dory Funk Jr."। www.dory-funk.com। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৮, ২০০৭Mickie James – Funking Conservatory Alumnus 
  4. "How Did You Get Your Name"। KYDA.com। সেপ্টেম্বর ২২, ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৪, ২০০৭ 
  5. "Mickie James"। onlineworldofwrestling.com। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৯, ২০১৭ 
  6. Leggett, Steve। "Mickie James"Rovi। Archived from the original on জানুয়ারি ৬, ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৬, ২০১৬Billboard-এর মাধ্যমে।  Additional January 6, 2017.
  7. "The Ballad of Mickie James"Richmond Magazine। Virginia। ডিসেম্বর ২৩, ২০১০। এপ্রিল ৫, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২৪, ২০১০Born at Richmond Memorial Hospital in 1979.... 
  8. Mike, Johnson (ডিসেম্বর ৮, ২০১৬)। "EXCLUSIVE MICKIE JAMES-WWE UPDATE (SPOILER)"PWInsider। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৯, ২০১৬ 
  9. Oliver, Greg (মে ২৬, ২০০৬)। "Mickie James quick to dish out credit"Slam! WrestlingCanadian Online Explorer। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৮, ২০০৭ 
  10. "NWA TNA PPV No. 2 results – June 26, 2002"। prowrestlinghistory.com। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৯, ২০০৭ 
  11. "Alexis Laree of G.L.O.R.Y. Wrestling"। G.L.O.R.Y. Wrestling। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৪, ২০০৭ 
  12. Ian Hamilton. Wrestling's Sinking Ship: What Happens to an Industry Without Competition (p.222)
  13. "Mickie see, Mickie do"World Wrestling Entertainment। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৩১, ২০০৭ 
  14. "Mickie James' Title History"World Wrestling Entertainment। এপ্রিল ৯, ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৬, ২০০৭ 
  15. James leaves TNA after declining contract extension yardbreaker.com. Sep 15, 2013. Retrieved December 26, 2013.
  16. Mr Anderson and Mickie James officially finished with TNA rajah.com. Sep 23, 2013. Retrieved December 26, 2013.
  17. Mickie James Sets New Record wrestlinginc.com. February 9, 2011. Retrieved December 26, 2013.
  18. New Knockouts champion crowned Archived ডিসেম্বর ২৬, ২০১৩, at the Wayback Machine. diva-dirt.com. May 26, 2013. Retrieved December 26, 2013.
  19. Mickie James wins TNA Knockouts Title – Details tnawrestlingnews.com. May 24, 2013. Retrieved December 26, 2013.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]