গাম্বিয়া জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গাম্বিয়া
দলের লোগো
ডাকনামবিচ্ছু
অ্যাসোসিয়েশনগাম্বিয়া ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনক্যাফ (আফ্রিকা)
প্রধান কোচটম সাইনফাইট
অধিনায়কপা মোদু জাগনে
সর্বাধিক ম্যাচপা মোদু জাগনে (৩২)
শীর্ষ গোলদাতাআসান সিসে
মোমোদু সিসে (৬)
মাঠবাকাও স্বাধীনতা স্টেডিয়াম
ফিফা কোডGAM
ওয়েবসাইটwww.gambiafa.com
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৪৯ হ্রাস ১ (১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ৬৫ (জুন ২০০৯)
সর্বনিম্ন১৭৯ (মার্চ ২০১৭)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১১০ বৃদ্ধি ১৩ (১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ৯৩ (জানুয়ারি ১৯৮৪)
সর্বনিম্ন১৪৫ (নভেম্বর ১৯৯৩)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
গাম্বিয়া ব্রিটিশ গাম্বিয়া ২–১ সিয়েরা লিওন 
(গাম্বিয়া; ৯ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৩)
বৃহত্তম জয়
 গাম্বিয়া ৬–০ লেসোথো 
(বাঞ্জুল, গাম্বিয়া; ১২ অক্টোবর ২০০২)
বৃহত্তম পরাজয়
 গিনি ৮–০ গাম্বিয়া 
(গিনি; ১৪ মে ১৯৭২)

গাম্বিয়া জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: Gambia national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে গাম্বিয়ার প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম গাম্বিয়ার ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা গাম্বিয়া ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৬৮ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৬৬ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা আফ্রিকান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৫৩ সালের ৯ই ফেব্রুয়ারি তারিখে, গাম্বিয়া প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; গাম্বিয়ায় অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে গাম্বিয়া সিয়েরা লিওনকে ২–১ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছে।

৪০,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট বাকাও স্বাধীনতা স্টেডিয়ামে বিচ্ছু নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় গাম্বিয়ার বৃহত্তম শহর সেরেকুন্দায় অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন টম সাইনফাইট এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন রক্ষণভাগের খেলোয়াড় পা মোদু জাগনে

গাম্বিয়া এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্সেও গাম্বিয়া এপর্যন্ত একবারও অংশগ্রহণ করতে সক্ষম হয়নি।

এবু সিল্লাহ, পা মোদু জাগনে, এব্রিমা সোহনা, আসান সিসে এবং মোমোদু সিসের মতো খেলোয়াড়গণ গাম্বিয়ার জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০০৯ সালের জুন মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে গাম্বিয়া তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (৬৫তম) অর্জন করে এবং ২০১৭ সালের মার্চ মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৭৯তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে গাম্বিয়ার সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ৯৩তম (যা তারা ১৯৮৪ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১৪৫। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৪৭ হ্রাস  ইসোয়াতিনি ১০৫৪.১৪
১৪৮ হ্রাস  হংকং ১০৫৩.৩৯
১৪৯ হ্রাস  গাম্বিয়া ১০৫৩.১৮
১৫০ হ্রাস  বতসোয়ানা ১০৫১.৫৯
১৫১ অপরিবর্তিত  চীনা তাইপেই ১০৪৬.৩৪
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১০৮ বৃদ্ধি  উত্তর কোরিয়া ১৩৭৫
১০৮ বৃদ্ধি  কাজাখস্তান ১৩৭৫
১১০ বৃদ্ধি ১৩  গাম্বিয়া ১৩৭৪
১১০ বৃদ্ধি  আজারবাইজান ১৩৭৪
১১২ হ্রাস ১২  কুয়েত ১৩৭০
১১২ হ্রাস  লেবানন ১৩৭০
১১২ বৃদ্ধি  রেউনিওঁ ১৩৭০

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২ উত্তীর্ণ হয়নি
মেক্সিকো ১৯৮৬
ইতালি ১৯৯০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
ফ্রান্স ১৯৯৮ উত্তীর্ণ হয়নি
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২
জার্মানি ২০০৬
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০
ব্রাজিল ২০১৪ ১১
রাশিয়া ২০১৮
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ২৪ ১২ ২১ ৩৫

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]