লেসোথো জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লেসোথো
দলের লোগো
ডাকনামলিকুয়েনা
অ্যাসোসিয়েশনলেসোথো ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনক্যাফ (আফ্রিকা)
প্রধান কোচথাবো সেনং
অধিনায়কএনকাও লেরোথলি
সর্বাধিক ম্যাচবুশি মোলেতসানে (৫৩)
শীর্ষ গোলদাতারেফিলো পোতসে (৯)
মাঠসেতসোতো স্টেডিয়াম
ফিফা কোডLES
ওয়েবসাইটwww.lesothofootball.com
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৪৫ বৃদ্ধি ১ (৩১ মার্চ ২০২২)[১]
সর্বোচ্চ১০৫ (আগস্ট ২০১৪)
সর্বনিম্ন১৮৫ (আগস্ট ২০১১)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৬০ হ্রাস ২৫ (৩০ এপ্রিল ২০২২)[২]
সর্বোচ্চ১২২ (জুন ১৯৭৯)
সর্বনিম্ন১৭৯ (জুন ২০১৬)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 লেসোথো ২–১ মালাউই 
(মালাউই; ৮ আগস্ট ১৯৭০)
বৃহত্তম জয়
 লেসোথো ৫–০ সোয়াজিল্যান্ড 
(মাসেরু, লেসোথো; ১৪ এপ্রিল ২০০৬)
বৃহত্তম পরাজয়
 জাম্বিয়া ৯–০ লেসোথো 
(বতসোয়ানা; ৮ আগস্ট ১৯৮৮)

লেসোথো জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: Lesotho national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে লেসোথোর প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম লেসোথোর ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা লেসোথো ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৬৪ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৬৩ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা আফ্রিকান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৭০ সালের ৮ই আগস্ট তারিখে, লেসোথো প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; মালাউইয়ে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে লেসোথো মালাউইকে কাছে ২–১ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছে।

২০,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট সেতসোতো স্টেডিয়ামে লিকুয়েনা নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় লেসোথোর রাজধানী মাসেরুতে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন থাবো সেনং এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন মাতলামা মাসেরুর রক্ষণভাগের খেলোয়াড় এনকাও লেরোথলি

লেসোথো এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্সেও লেসোথো এপর্যন্ত একবারও অংশগ্রহণ করতে সক্ষম হয়নি।

লম্ফো কালাকে, মাবুতি পোতলোয়ানে, বুশি মোলেতসানে, রেফিলো পোতসে এবং সেপো সেতুরুমানের মতো খেলোয়াড়গণ লেসোথোর জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৪ সালের আগস্ট মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে লেসোথো তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (১০৫তম) অর্জন করে এবং ২০১১ সালের আগস্ট মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৮৫তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে লেসোথোর সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ১২২তম (যা তারা ১৯৭৯ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১৭৯। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
৩১ মার্চ ২০২২ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৪৩ বৃদ্ধি  ইসোয়াতিনি ১০৭০.৪৬
১৪৪ অপরিবর্তিত  নিকারাগুয়া ১০৬২.২১
১৪৫ বৃদ্ধি  লেসোথো ১০৬১.৭২
১৪৬ হ্রাস  কুয়েত ১০৫৯.৯৪
১৪৭ বৃদ্ধি  হংকং ১০৫৩.৩৯
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
৩০ এপ্রিল ২০২২ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৫৮ হ্রাস  গুয়াদলুপ ১২০৩
১৫৯ বৃদ্ধি  ভারত ১১৯৭
১৬০ হ্রাস ২৫  লেসোথো ১১৯৩
১৬১ বৃদ্ধি  চাদ ১১৮৯
১৬২ হ্রাস  সেন্ট কিট্‌স ও নেভিস ১১৮৭

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ যুক্তরাজ্যের অংশ ছিল যুক্তরাজ্যের অংশ ছিল
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ উত্তীর্ণ হয়নি
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
স্পেন ১৯৮২ উত্তীর্ণ হয়নি
মেক্সিকো ১৯৮৬ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
ইতালি ১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ফ্রান্স ১৯৯৮
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ উত্তীর্ণ হয়নি
জার্মানি ২০০৬
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১৬
ব্রাজিল ২০১৪ ১৭
রাশিয়া ২০১৮
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২২ ২৬ ১০ ১৪ ১৫ ৫৫

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ৩১ মার্চ ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মার্চ ২০২২ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ৩০ এপ্রিল ২০২২। সংগ্রহের তারিখ ৩০ এপ্রিল ২০২২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]