কোচি বন্দর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কোচি বন্দর
Kochi City-sizzling port-W.ISLAND, that's created by Lord Bristow.jpg
কোচি বন্দরের দৃশ্য
অবস্থান
দেশ ভারত
অবস্থানকোচি, কেরালা, দক্ষিণ ভারত
বিস্তারিত
চালু১৯২৮
পরিচালনা করেকোচি বন্দর কর্তিপক্ষ[১]
দুবাাই পোর্ট ওয়াল্ড
মালিকজাহাজ মন্ত্রক, ভারত সরকার
উপলব্ধ নোঙরের স্থান১৪
জেটি
বন্দর প্রধানশ্রী পাল অ্যান্টনি ,আইএএস
পোতাশ্রয়ের গভীরতা১২ মিটার (৩৯ ফু)
পরিসংখ্যান
বার্ষিক কার্গো টন১৭.৪৩ মিলিওন টন (২০১৪-১৫)
বার্ষিক কন্টেইনারের আয়তন৩,৬৫,০০০ টিইউএস (২০১৪-২০১৫)

কোচি বন্দর হল ভারতের প্রধান ১৩ টি বন্দর মধ্যে অন্যতম। এটি দক্ষিণ ভারত-এর কেরালা রাজ্যের প্রধান ও বৃহত্তম বন্দর। এই বন্দরটি ভারত সরকার-এর জাহাজ মন্ত্রকের অধীনস্ত। বন্দরটির কন্টেইনার টার্মিনালটি নির্মাণের সাহায্য করেছে দুবাই পোর্ট ওয়াল্ড।এই টার্মিনালটি পরিচালানাও দুবাই পোর্ট ওয়াল্ড করে। বন্দরটির কন্টেইনার পরিবহন ক্ষমতা ১ মিলিওন টন। বন্দরটি ২০১৪ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে ১৭.৪৩ মিলিওন টন পণ্য পরিবহন করেছে।

অবস্থান[সম্পাদনা]

বন্দরটি কোচি শহরের একটি দ্বীপে অভ্যান্তরিন হ্রদে অবস্থিত। এই বন্দরটি মূল ভূখন্ডের সঙ্গে ৪ কিলোমিটার দীর্ঘ সেতু দ্বারা যুক্ত। এই বন্দর ০৯.৩৫ ডিগ্রী উত্তর ও ৭৬.১৪ ডিগ্রী পূর্বে অবস্থিত।[২] এটি সমুদ্র সমতল থেকে ০ থেকে ২ মিটার উঁচু।

পোতাশ্রয়[সম্পাদনা]

কোচি বন্দরে টোকিও মেরিন নামের একটি জাহাজ

কোচি বন্দরটির পোতাশ্রয়টি স্বাভাবিক ও প্রাকৃতিক। এই বন্দরের পোতাশ্রয়টি খুবই গভীর।এর গভীরতা গড়ে ১২ মিটার (৩৯ ফু)। ফলে বন্দরের পোতাশ্রয়ে বড় সামুদ্রিক জাহাজ নোঙর করতে পারে। এছাড়া কন্টেইনার টার্মিনালটি ১৪.৫ মিটার এর বেশি গভীর।

পরিকাঠামো[সম্পাদনা]

এই বন্দরটি দুটি পৃথক ডক নিয়ে গঠিত। এছাড়া এখানে একটি কন্টেইনার টার্মিনাল রয়েছে। বন্দরটিতে মোট ১৪ টি জেটি রয়েছে। বন্দরটি থেকে পণ্য দেশের অভ্যন্তরে ও দেশের অভ্যন্তর থেকে পণ্য অন্য দেশে পরিবহনের জন্য বন্দরটি একটি সেতু দ্বারা মূল ভূখন্ডে যুক্ত। বন্দরের পণ্য মজুতের সুব্যবস্থা রয়েছে।

কন্টেইনার টার্মিনাল[সম্পাদনা]

কোচিনকন্টেইনার টার্মিনাল

প্রথম পর্যায়ে ৩,২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে ভারত ও দুবাই পোর্ট ওয়ার্ল্ডের যৌথ সহযোগিতায় এটি নির্মিত হয়৷[৩] কেরালার কোচিতে নির্মিত এই আন্তর্জাতিক কন্টেনার ট্রান্সশিপমেন্ট টার্মিনাল সংক্ষেপে আইসিটিটি হবে দেশের বৃহত্তম সিঙ্গল-অপারেটর কন্টেনার বন্দর৷ জাহাজে কন্টেনার বোঝাই ও খালাসের ক্ষেত্রে এই নতুন বন্দর হবে এক প্রাণকেন্দ্র৷ এর ফলে সমুদ্রপথে ভারতের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের জন্য সিঙ্গাপুর ও কলম্বো বন্দরের ওপর নির্ভরশীলতা অনেক কমবে৷ সময় কম লাগবে খরচ কম পড়বে৷ প্রথম পর্যায়ে ১০ লক্ষ কন্টেনার হ্যান্ডল করতে পারবে এই টার্মিনাল৷ পরে তা বেড়ে হবে ৪০ লক্ষ কন্টেনার৷ সরকারি ও বেসরকারি সহযোগিতায় দুবাই পোর্ট ওয়ার্ল্ড (ডিপিডবল্যু) এটি নির্মাণ করে এবং ৩০ বছর তা চালাবে৷ এজন্য ডিপিবল্যু দিয়েছে ১,৬০০কোটি টাকা আর ভারত সরকার দিয়েছে ১,৬৫০ কোটি টাকা৷

পশ্চাৎভূমি[সম্পাদনা]

কোচি বন্দরের পশ্চাৎ ভূমি দক্ষিণ ভারতের পশ্চিম অংশেই সীমাবদ্ধ। এর পশ্চাৎ ভূমি সমগ্র কেরালা রাজ্য ও তামিলনাড়ু রাজ্যের পশ্চিম এলাকার কিছু অংশে বিস্তৃত।

আমদানি রপ্তানি[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "কোচি বন্দর কর্তিপক্ষ"। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  2. "কোচি বন্দরের অবস্থান ও মানচিত্র"। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  3. "ভারতের অন্যতম বৃহৎ কন্টেনার বন্দরের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী"। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]